Logo
শিরোনাম

করোনার চেয়েও ভয়াবহ ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি : কাদের

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপি যে নেতিবাচক ভাইরাসে আক্রান্ত তা করোনার চেয়েও ভয়াবহ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি আজ রবিবার (৩ মার্চ) সকালে তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে একথা বলেন।

কাদের বলেন, করোনা মহামারিতে বিএনপি জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে ঘরে বসে মিডিয়ায় ঝড় তোলা আর সরকারের অন্ধ সমালোচনা ও মিথ্যাচারই করোনাকালে বিএনপির সফলতা বলে মনে করেন তিনি। তারা সরকারের কোনও উদ্যোগ চোখে দেখে না।

একবার লকডাউন নিয়ে অপপ্রচার, আবার করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে মিথ্যাচার, কখনো কখনে সরকারের ব্যর্থতা খোঁজা বিএনপির রোজনামচা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন একটি দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হয়েও দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নূন্যতম মূল্যবোধও তারা হারিয়ে ফেলেছে।

জনগণের সম্পদ বিনষ্ট আর নৈরাজ্য সৃষ্টির মাধ্যমে বিএনপি এবং তার সহযোগীরা যে তান্ডবলীলা চালিয়েছে তার জন্য বিএনপিকেই জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে বলে মন্তব্য করেন কাদের।

তিনি বলেন আন্দোলনের নামে জনগণের উপর প্রতিশোধ নেওয়াই এখন বিএনপির কৌশল।

যারা কথা দিয়ে কথা না রেখে দূরপাল্লায় দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করছে, তাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন দুর্যোগের মধ্যে জনগণের দুর্ভোগ বাড়াবেন না।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার দ্রুত বেড়ে যাওয়ায় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং মাস্ক পড়া জরুরি কর্তব্য বলে মনে করে সেগুলো পালন করার আহবান জানান তিনি।

কাদের বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সরকার ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে কিন্তু এখনো অনেকেই মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধির প্রতি অনিহা দেখাচ্ছে, যা প্রকারান্তরে ভয়াবহ পরিস্থিতি নিয়ে আসতে পারে। নিজেদের সুরক্ষায় সবাই সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করাই এখন মূল কাজ।

রমজান এলেই এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বাড়িয়ে দেয়, যা শাস্তি যোগ্য অপরাধ এবিষয়ে সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশে করে বলেন অহেতুক মূল্য বৃদ্ধি ও মজুদদারিতা নিয়ন্ত্রণে সরকার সতর্ক রয়েছে।

করোনা পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় আগামী সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে এক সপ্তাহের জন্য সারাদেশে লকডাউনের ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।


আরও খবর



মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন

রমজানকে সামনে রেখে মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের মূল্য অস্বাভাবিক করা যাবে না

প্রকাশিত:রবিবার ২১ মার্চ 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, পবিত্র রমজানকে সামনে রেখে মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের মূল্য কোনভাবেই অস্বাভাবিক করা যাবে না। এগুলোর মূল্য বৃদ্ধি করা তো যাবেই না বরং যতটা সম্ভব সহনীয় পর্যায়ে কমিয়ে আনতে হবে। বাজারের স্থিতিশীলতা রক্ষা করতে হবে। একইসাথে সরবরাহ চেইনকে অবশ্যই স্বাভাবিক রাখতে হবে। এক্ষেত্রে মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা দেবে। অধিদপ্তরের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তারা সার্বক্ষণিক সহযোগিতা দেবে।

রবিবার (২১ মার্চ) বিকেলে রাজধানীতে সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে তাঁর সভাপতিত্বে মাছ, মাংস, দুধ ডিম ইত্যাদি পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখা এবং সরবরাহ চেইন নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত এক সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ আবদুল জব্বার শিকদার,  মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস আফরোজ, বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান কাজী হাসান আহমেদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহ্ মোঃ ইমদাদুল হক ও শ্যামল চন্দ্র কর্মকার, মন্ত্রণালয়, মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল, বাংলাদেশের ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশন, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, সুপারশপ 'স্বপ্ন', বেঙ্গল মিট, যাত্রাবাড়ী মাছ ব্যবসায়ী সমিতিসহ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতসংশ্লিষ্ট অন্যান্য অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিরা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, "রমজান মাসে মাছ, মাংস, দুধ ও ডিমের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান বিক্রয়ের জন্য জেলা পর্যায়ে ১০টি করে ভ্যান দেয়া হবে। মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহায়তায় এসব ভ্যানের মাধ্যমে খামারিরা উৎপাদিত পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবে। যাতে জনগণের কাছে এই বার্তাটি পৌঁছে যায়, বাজারে মূল্য বেড়ে গেলেও এর বিকল্প ব্যবস্থা আছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, "বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বড় বড় ধর্মীয় উৎসবের সময় দ্রব্যমূল্যের দাম কমে যায়। রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার পথ চাইলেই খোঁজা সম্ভব। প্রয়োজনে এসময় ব্যবসায়ে লাভের পরিমাণ কম করতে হবে। নির্দিষ্ট সময় দ্রব্যমূল্যে ছাড় দিয়ে নিজ প্রতিষ্ঠানকে ক্রেতাদের কাছে আরো আকর্ষনীয় করাও সম্ভব।

এসময় তিনি আরো যোগ করেন, "করোনাসহ বুলবুল, আম্ফানের মত প্রাকৃতিক দুর্যোগ সরকারকে মোকাবেলা করতে হচ্ছে। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে ত্রাণ পৌঁছে দিতে হচ্ছে। বিভিন্ন খাতে প্রণোদনা দিতে হচ্ছে। করোনার টিকার ব্যবস্থা করতে হচ্ছে । এজন্য সরকার কোথাও অতিরিক্ত কর ধার্য করেনি। এক্ষেত্রে সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসতে হবে যাতে, কোনোভাবেই দেশের মানুষ কষ্ট না পায়।

এ সময় মাছ, মাংস, দুধ, ডিম বিক্রয়ের ক্ষেত্রে কম মূল্য নির্ধারণের জন্য সুপারশপের প্রতিনিধিদের অনুরোধ জানান মন্ত্রী।


আরও খবর



ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে থাইল্যান্ডে আশ্রয় নিচ্ছে তিন হাজার অধিবাসী

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সশস্ত্র গোষ্ঠীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা মিয়ানমারের কারেন রাজ্যে বিমান হামলা চালিয়েছে দেশটির দখলদার জান্তা সরকার।

হামলার পর তিন হাজারের বেশি অধিবাসী ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে প্রতিবেশী দেশ থাইল্যান্ডে আশ্রয় নিয়েছেন। সশস্ত্রগোষ্ঠীর নিয়ন্ত্রণে থাকা বিভিন্ন এলাকায় এ হামলা চালানো হয়েছে।

সেনাবাহিনীর নির্বিচারে বিক্ষোভকারীদের হত্যার প্রতিশোধ নিতে ওই দিন একটি সেনাপোস্টে হামলা চালিয়ে একজন কর্নেলসহ ১০ সেনাসদস্যকে হত্যা করার দাবি করে কেএনইউ। তার প্রতিশোধ নিতেই এই বিমান হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে।

থাইল্যান্ড সীমান্তবর্তী মুতরাউ জেলার পাঁচটি এলাকায় গত শনিবার গভীর রাতে বিমান হামলা চালায়। গৃহহীনদের একটি আশ্রয় কেন্দ্রেও হামলা চালানো হয়। কারেন উইম্যান্স অর্গানাইজেশন এক বিবৃতিতে জানায়, এই মুহূর্তে তিন হাজারের বেশি মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে জঙ্গলে লুকিয়ে আছে।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




আফগানিস্তানে সংঘর্ষে ৩৬ জন নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মার্চ ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে গত ২৪ ঘণ্টায় জঙ্গি তৎপরতা ও সহিংসতায় কমপক্ষে ৩৬ জন নিহত হয়েছে। শনিবার স্থানীয় একটি স্বাধীন যুদ্ধ পর্যবেক্ষণ গ্রুপ একথা জানিয়েছে। খবর সিনহুয়ার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া বার্তায় রিডাকশন ইন ভায়োলেন্স জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় আমাদের পর্যবেক্ষণ দল আফগান ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি ফোর্সের এক সদস্যসহ ৩৬ জন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছে। এদের মধ্যে ৩৫ জনই তালেবান জঙ্গি।

গ্রুপটি জানায়, উল্লেখিত সময়ে ৩১ তালেবান জঙ্গি ও নিরাপত্তা বাহিনীর চার সদস্য আহত হয়েছে।

তারা আরো জানায়, আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে চারটিতে এসব সহিংস ঘটনা ঘটে।

ওই দিন দেয়া আফগান প্রতিরক্ষা বাহিনীর এক বিবৃতিতে পৃথক এক ঘটনায় সাত জঙ্গিকে গ্রেফতারের খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। শুক্রবার আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় পাকতিয়া প্রদেশের জাজি আরিওব জেলায় জঙ্গি নির্মূল অভিযান চলাকালে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এ সময় পার্বত্য এ অঞ্চলের ওই জেলার বিভিন্ন এলাকা তালেবানের হাত থেকে মুক্ত করা হয়।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




বিমানবন্দর এলাকায় বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার ভেঙে আহত ৪

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় বাস র‍্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) স্থাপনার কাজের সময় লঞ্চিং গার্ডার ভেঙে পড়ে দুই শ্রমিকসহ চারজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

রবিবার (১৪ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

বিমানবন্দরের বাস র‍্যাপিড ট্রানজিটের কোয়ালিটি (কিউসি) ইঞ্জিনিয়ার আবদুর রহমান জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাজ করার সময় লঞ্চিং গার্ডার পড়ে দুই শ্রমিকসহ চারজন আহত হয়েছেন। পরে দ্রুত তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছি। বিমানবন্দর এলাকার সড়কের মধ্য দিয়ে বাস র‍্যাপিড ট্রানজিট প্রজেক্টের কাজ চলছিল। এখানে প্রজেক্টের স্পেন বসানোর সময় লঞ্চিং গার্ডারের একপাশ কাত হয়ে ভেঙে পড়ে যায়। এতে আঘাত পেয়ে চারজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দুজন শ্রমিক রয়েছেন।

তিনি বলেন, আহতদের উদ্ধার করে তিনজনকে এভার কেয়ার হাসাপাতালে এবং একজনকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এখনো ওই লঞ্চিং গার্ডারটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: বিআরটিএ বিআরটি

আরও খবর

লকডাউনেও ট্রাফিক জ্যাম

মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১




স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে গণপরিবহন

প্রকাশিত:রবিবার ২১ মার্চ 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত কয়েকদিন ধরে দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে সরকার। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতর, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও সচেতন মহল থেকে বারবার বলা হচ্ছে- স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। অথচ স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলছে অধিকাংশ মানুষ। বিশেষ করে গণপরিবহনের চিত্র একেবারেই উলটো। সেখানে চালক, সহকারী ও অধিকাংশ যাত্রী মাস্ক পরেন না। আবার অনেকে মাস্ক পরলেও তা থুতনিতে ঝুলিয়ে রাখে। এছাড়া গাড়ির ভেতরে মাস্ক ছাড়া হকার যখন-তখন প্রবেশ করে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার কিংবা জীবাণুনাশক ছিটাতেও দেখা যায় না। এ পরিস্থিতিতে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা জরুরি বলে মনে করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

শনিবার (২০ মার্চ) রাজধানীর সাতরাস্তা বাসস্ট্যান্ড, মহাখালী, ফার্মগেট ও কাওরানবাজার বাসস্ট্যান্ড সরেজমিনে ঘুরে স্বাস্থ্যবিধি না মানার এমন চিত্র দেখা গেছে।

রাজধানীর আব্দুল্লাহপুর থেকে ফার্মগেট এসে যাত্রী তুলছিলেন বিআরটিসি বাসের সহকারী বাবুল মিয়া। দেখে গেছে- মাস্ক না পরেই যাত্রী তুলছেন, যাত্রীদের হাত ধরছেন, আবার কারো মুখের একেবারে কাছে গিয়ে কথা বলছেন তিনি। মাস্ক কোথায় জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাড়ি ছাড়ার আগে ভাত খেয়েছিলাম, তাই আর পরা হয়নি।

একই বাসে ফার্মগেট থেকে উঠেছেন আমিনুল ইসলাম। তিনি যাবেন পুরান ঢাকার বাবু বাজারে। মাস্ক ছাড়াই বাসে উঠেছেন তিনি। ক্যামেরা দেখেই পকেট থেকে একটি রুমাল বের করে মুখে বাঁধেন। আপনার মাস্ক নেই কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, মন চাইলে মাঝে মধ্যে মুখে রুমাল বেঁধে রাখি, মাস্কের প্রয়োজন হয় না।

একইচিত্র দেখা গেছে, রাজধানীর নাবিস্কোতে। নতুন বাজার থেকে ছেড়ে আসা কমলাপুরগামী ৬ নম্বর বাসের ভেতরে গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে আছেন যাত্রীরা। বেশিরভাগ যাত্রীই মাস্ক ছাড়া গাড়িতে উঠেছেন। সেখানে একজন যাত্রী শাহ আলম বলেন, যারা গণপরিবহন পরিচালনা করেন তাদেরই এ বিষয়ে কোনো খেয়াল নেই। গাড়ির চালক-হেলপার যদি যাত্রীদের তাগিদ দিতো তাহলে সবাই মাস্ক পরেই গাড়িতে উঠতো। তারা নিজেরাই মাস্ক পড়েন না।

হেলথ অ্যান্ড হোপ স্পেশালাইজড হাসপাতালের পরিচালক ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেলিন চৌধুরী বলেন, ফের করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বিকল্প নেই। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলতে হবে। কোথাও কোনো জনসমাগম করা যাবে না। বিশেষ করে গণপরিবহনসহ পাবলিক প্লেসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের আরও কঠোর হতে হবে।


আরও খবর

লকডাউনেও ট্রাফিক জ্যাম

মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১