Logo
শিরোনাম

করোনায় দেশে মৃত্যু ও শনাক্ত দুটোই বেড়েছে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি-বেসরকারি ৫১০টি ল্যাবরেটরিতে ১৯ হাজার ৮৬৯টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ৪৪৭টি নমুনা

করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে দেশে করোনায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৭৬ জন। এর আগে বুধবার (৯ জুন) দেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছিল ৩৪ জনের এবং শনাক্ত হয়েছিল ২ হাজার ৫৩৭ জন।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি-বেসরকারি ৫১০টি ল্যাবরেটরিতে ১৯ হাজার ৮৬৯টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ৪৪৭টি নমুনা। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ৬১ লাখ ২৬ হাজার ২৩৮। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত শনাক্তের মোট হার ১৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

একই সময়ে হয়েছেন ২ হাজার ৬১ জন। দেশে করোনায় সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৭ লাখ ৫৯ হাজার ৬৩০ জন। আর এই সময় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



আশুলিয়ায় গ্যাসের আগুনে শিশুসহ দগ্ধ ৬

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আশুলিয়ার সাভারের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকায় একটি ঘরে গ্যাসের আগুনে শিশুসহ ছয়জন দগ্ধ হয়েছে। তাদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (২ জুন) ভোর ৫টার দিকে এই আগুনের ঘটনা ঘটে।

অগ্নিদগ্ধরা হলেন রেনু বেগম (২৮), স্বামী আউয়াল ইসলাম (৩৫) ও মেয়ে আরফিয়া (৯), আদুরী খাতুন (৩০) ও তার স্বামী আ. হাকিম (৩৫) এবং আফরোজা বেগম (৪০)।

ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ঘরে জমে থাকা গ্যাস আগুনের সংস্পর্শে এলে বিস্ফোরণ হয়।

প্রতিবেশী আরিফ জানান, ভোরবেলা হঠাৎ বিস্ফোরণের বিকট আওয়াজে ঘুম ভাঙে সবার। পরে উঠে দেখেন চারদিকে আগুন। ওই ঘরে থাকা ছয়জনের শরীরে আগুন লাগলে সবাই মিলে নিভিয়ে ফেলেন। পরে ওই চারজনকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

বার্ন ইনস্টিটিউটের দায়িত্বরত চিকিৎসক জানান, তাদের সবারই হাত মুখসহ শরীরের অনেকাংশে দগ্ধ হয়েছে। এখন তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমরা বু ভোর ৫টায় খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু সেখানে গিয়ে আমরা আগুন ও রোগী কাউকেই পাইনি। তারা এটি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরলে আমরা তাদের ঢাকা মেডিকেলে পাঠিয়ে দেই।


নিউজ ট্যাগ: সাভার আশুলিয়া

আরও খবর



ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বৈঠক: লেবাননের সেনাপ্রধান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লেবাননের সেনাপ্রধান জোসেফ আউন বুধবার সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, আর্থিক সংকটের কারণে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে সেনাবাহিনী। ফ্রান্সে গিয়ে লেবানিজ সেনাপ্রধানের এমন বক্তব্যের পর আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে সেনাবাহিনীকে জরুরি খাদ্য এবং মেডিকেল সহায়তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে প্যারিস। খবর জেরুজালেম পোস্টের।

লেবানন ফ্রান্সের উপনিবেশ ছিল। লেবাননের রাজনীতিকদের একটি নতুন সরকার গঠনের ব্যাপারে চাপ প্রয়োগ করে যাচ্ছে প্যারিস। এমনকি দেশটিতে সংস্কারের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তারা। এরই মধ্যে লেবাননে মুদ্রার দরপতন হওয়ায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে।

গত মার্চে আউন লেবাননের কর্মকর্তাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে অর্থনীতি পুরোপুরি ভেঙে পড়তে পারে। ওই সফর সম্পর্কে অবগত তিনজন ব্যক্তি জানিয়েছেন, ফ্রান্সের সিনিয়র কর্মকর্তাদের আউন বলেছেন যে এই পরিস্থিতি অসমর্থনযোগ্য।

প্যারিস সফরে গিয়ে বুধবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গেও বৈঠক করেন আউন। ওই বৈঠক সম্পর্কে অবগত এক ব্যক্তি বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন কারণ লেবাননের সেনাবাহিনী সেই দেশের মেরুদণ্ড। দুটি সূত্র জানিয়েছে, সেনাবাহিনীকে খাদ্য এবং মেডিকেল সহায়তা দেবে ফ্রান্স। এছাড়া মুদ্রার দরপতন হওয়ায় সেসব সামরিক কর্মকর্তার বেতনের মূল্যমান পাঁচ-ছয়গুণ কমে গেছে, তাদেরও সহায়তা করা হবে।



আরও খবর



বরিশাল রেঞ্জের নতুন ডিআইজি হলেন এসএম আক্তারুজ্জামান

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ১১২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বরিশাল রেঞ্জের নতুন ডিআইজি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন রাজশাহীর সারদার বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির ভাইস প্রিন্সিপাল এসএম আক্তারুজ্জামান। সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার উপ-সচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির ভাইস প্রিন্সিপাল থেকে বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে। এই আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৫ সালের মার্চ থেকে টানা আড়াই বছর বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন এসএম আক্তারুজ্জামান।

গত ২৩ মে বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলামকে অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি দেয় সরকার। গত ২৫ মে তার পদোন্নতিজনিত বদলীর কারণে বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি পদটি শূন্য হয়। সেই পদে নিয়োগ পেলেন এসএম আক্তারুজ্জামান।উল্লেখ্য তিনি পিরোজপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ছিলেন।


আরও খবর



ধূমপান সম্পর্কিত যেসব ভুল ধারণায় বাড়ে আসক্তি

প্রকাশিত:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১০৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের ১৫ কোটি মানুষের আড়াই কোটিই ধূমপায়ী। জর্দা, সাদা পাতা, গুল হিসেবে আনলে এ সংখ্যা ৪ কোটি ১৩ লাখ। উন্নত দেশগুলোতে যেখানে তামাক সেবন কমছে, সেখানে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে তামাক সেবন ৩.৪% হারে প্রতি বছর বাড়ছে। ধূমপানের কারণে আকালেই ঝরে পড়ছে তাজা প্রাণ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ( WHO) ১৯৮৭ সাল থেকে ধূমপানের ক্ষতিকর দিকগুলো বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরে বিশ্বকে ধূমপানমুক্ত করার অদম্য প্রচেষ্টা করে চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় পালিত হচ্ছে ৩১ মে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

ধূমপানে স্বাস্থ্য ক্ষতি: শুধু ধূমপানে কারণেই আয়ুষ্কাল কমে যায় ১০-২০ বছর। বিশ্বে যত লোক মারা যায় তার দ্বিতীয় প্রধান কারণ ধূমপান। প্রতিবছর ৫৮ লাখের বেশি মানুষ মারা যায় ধূমপানের কারণে, প্রতি ১০ জনে একজন। মৃতদের শতকরা ৭০ ভাগই কিন্তু আমাদের মত উন্নয়নশীল ও অনুন্নত দেশের। ধারণা করা হচ্ছে ২০৩০ সাল নাগাদ এর অবস্থা দাঁড়াবে ৬ জনের মধ্যে ১ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, প্রতি বছর ১ কোটি লোক ধূমপানের কারণে অসুস্থ হয়। ধারণা করা হচ্ছে ধূমপনের কারনে বিংশ শতাব্দীতে যা পরিমাণ মারা গেছে একবিংশ শতাব্দীতে তার ১০ গুণ মারা যাবে।

সিগারেটের একটা টানে তিন হাজারেরও অধিক রকম রাসায়নিক পদার্থ ঢুকে যায় ধূমপায়ীর শরীরে। এর মধ্যে প্রধান হলো নিকোটিন। এই নিকোটিনই ধূমপান ছাড়তে দেয় না। এমন কোন রোগ নেই যার কারণের মধ্যে ধূমপান নেই। তবে ধূমপানের কারণে সবচেয়ে ভয়াবহ রোগীটি হল ক্যান্সার। সিগারেট-বিড়িতে ৬৫ রকমের বেশি ক্যান্সার সৃষ্টিকারী পদার্থ থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে ৩৩ ভাগ ক্যান্সারের কারণ ধূমপান। ধূমপানের ফলে সবচেয়ে বেশি হয় ফুসফুসের ক্যান্সার।

প্রতিবছর বিশ্বে ১৩ লাখ লোক মারা যায় ফুসফুসের ক্যান্সারে। বাংলাদেশে মোট ক্যান্সার রোগীর ২৫ ভাগ। এ ক্যান্সারের শতকরা ৯০ ভাগ কারণ ধূমপান। এ কারণে হতে পারে মুখ, গলা, গলবিল, খাদ্যনালী, অগ্ন্যাশয়, পাকস্থলী, যকৃত, মুত্রথলি, বৃহদান্ত্র ও মলাশয়, স্তন ও জরায়ুমুখ ক্যান্সার।

গবেষণায় দেখা গেছে, অধূমপায়ীদের চেয়ে ধূমপায়ীদের ফুসফুসে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা দশগুণ এবং মুখ, গলা, অন্ননালী, অগ্নাশয়, কিডনী, মুত্রথলি, জরায়ু মুখ ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশ কয়েক গুন বেশি। এছাড়াও ধূমপান করলে রক্তে মোট কোলস্টেরল ও খারাপ কোলস্টেরল (এলডিএল)-এর মাত্রা বেড়ে যায় এবং কমে যায় ভাল কোলস্টেরল এইচডিএলের মাত্রা। এতে করে রক্তনালীতে চর্বি জমে গিয়ে হতে পারে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন, পায়ে গ্যাংগ্রিন।

গবেষণায় দেখা গেছে ধূমপায়ীদের ৪০ বছরের পর হার্ট অ্যাটাকের সম্ভবনা ৫ গুন বাড়ে। হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা অধূমপায়ীদের চেয়ে দ্বিগুন। ধূমপানের কারণে হতে পারে সিওপিডি-এমফাইসেমা, ক্রোনিক ব্রোঙ্কাইটিস। শ্বাসনালীর ইনফেকশনও বাড়ায় ধূমপান।

গবেষণায় দেখা গেছে, ধূমপায়ীদের যক্ষ্মা হওয়ার আশংকা ২-৪ গুণ বেশি। প্রতিবছর ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের সংক্রামনে বেশি আক্রান্ত হয় এরা। এছাড়াও ঘন ঘন ফুসফুসের ইনফেকশনে আক্রান্ত হয়। ধূমপানের ফলে মায়ের পেটের শিশু ক্ষতিগ্রস্থ হয়। গর্ভাবস্থায় ধূমপান করলে অ্যাবরশন হওয়ার সম্ভবনা অনেক বেশি। বাচ্চার ওজন কম হতে পারে, আক্রান্ত হতে পারে অ্যাজমায়। গবেষণায় দেখা গেছে শুধু মা-বাবার ধূমপানের আমেরিকার ২-৩ লাখ শিশু শ্বাসনালীর প্রদাহে আক্রান্ত হয়ে ১৫ হাজার হাসপাতালে ভর্তি হয়।

এছাড়াও কোন কারণ ছাড়াই মারা যেতে পারে শিশু। আপনি হয়তবা ধূমপান করেন না। ভাবতে পারেন আপনি এ স্বাস্থ্য সমস্যা মুক্ত। আপনার আশেপাশের ধূমপায়ীদের ধোঁয়া আপনার ক্ষতি করে চলেছে আপনার অগোচরে। একে বলে সেকেন্ড হ্যান্ড স্মোকিং।

গবেষণায় দেখা গেছে ফুসফুসের ক্যান্সারের ১০ ভাগ রোগী কখনই ধূমপান করেন নি। এরা আক্রান্ত হয়েছেন সেকেন্ড হ্যান্ড স্মোকিং থেকে। এছাড়াও এদের ক্ষেত্রে ক্যান্সারের ঝুঁকি ২০-৩০ ভাগ, হৃদরোগের ঝুঁকি ২০-৩০ ভাগ। তাই আপনার আশেপাশের ধূমপায়ী হতে সাবধান হোন।


নিউজ ট্যাগ: ধূমপান

আরও খবর



সেনাবাহিনীর ওষুধ কোম্পানি আর্মি ফার্মা’র যাত্রা শুরু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মানসম্মত ওষুধ উৎপাদন ও বিপণনের প্রত্যয় নিয়ে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে আর্মি ফার্মা লিমিটেড। এটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পরিচালিত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মেশিন ট্যুলস ফ্যাক্টরি লিমিটেডের (বিএমটিএফ) সহযোগী প্রতিষ্ঠান।

শুক্রবার (২৮ মে) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বৃহস্পতিবার (২৭ মে) সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ গাজীপুর জেলার জয়দেবপুরের শিমুলতলীতে আর্মি ফার্মা লিমিটেডের শুভ উদ্বোধন করেন।

আইএসপিআরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অন্যতম খ্যাতিসম্পন্ন ইউরোপিয়ান পরামর্শক প্রতিষ্ঠান অ্যালোমেটিক কনসাল্টিং অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেডের তত্ত্বাবধানে আর্মি ফার্মা লিমিটেডের ফ্যাক্টরি নির্মাণের কাজ গাজীপুর জেলার জয়দেবপুরের শিমুলতলীতে সম্পাদিত হচ্ছে।

আইএসপিআর জানায়, শত বিঘা জমির উপর অত্যাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর এই উৎপাদন প্রতিষ্ঠানে ট্যাবলেট, ক্যাপসুল, ইনজেকশন, সিরাপ, সাসপেনশন, ক্রিম, অয়েন্টমেন্ট, এন্টিবায়োটিক, সাপোজিটরি, ইনহেলার ইত্যাদি উৎপাদনের পাশাপাশি ভ্যাকসিন, বায়োটেক, হরমোন, এন্টি - ক্যানসার, হারবাল ও অ্যাগ্রোভেট প্রোডাক্ট উৎপাদন সুবিধা বিদ্যমান থাকবে।

এছাড়া মেডিক্যাল ডিভাইস উৎপাদন সুবিধাও এ প্রকল্পে সন্নিবেশিত করা হয়েছে। বিভিন্ন ক্ষেত্রে দক্ষ ও অভিজ্ঞ পেশাদার জনবলের মাধ্যমে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ও মানসম্পন্ন কাঁচামাল ব্যবহার করে প্রডাক্ট ডেভেলপমেন্টের কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।

সেনাপ্রধান আর্মি ফার্মাকে তার স্বপ্নের প্রকল্প হিসেবে উল্লেখ করেন। প্রকল্প উদ্বোধনী বক্তব্যে জেনারেল আজিজ বলেন, ব্লাড প্রেসার, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা, পেপটিক আলসারের মতো অসুখে সর্বসাধারণ ভুগে থাকেন।

আর্মি ফার্মা লিমিটেড থেকে উৎপাদিত এসব রোগের ওষুধ যাতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যসহ নিম্নআয়ের প্রান্তিক জনসাধারণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকে ও সবার জন্য সহজপ্রাপ্য হয় সেজন্য তিনি আর্মি ফার্মার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে আর্মি ফার্মার যাত্রাকে ঐতিহাসিক উল্লেখ করে আজিজ আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ দিক নির্দেশনায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও আর্মি ফার্মা আগামী দিনে স্বাস্থ্যখাতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, এ প্রতিষ্ঠানটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশের অন্যতম শীর্ষ ওষধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

আইএসপিআর আরও জানায়, আর্মি ফার্মা দেশের অতিমারি মোকাবিলায় কোভিড সংক্রমণকালীন সময়ে ওষুধ প্রশাসনের অনুমোদনক্রমে জার্মনিল ব্র্যান্ডের হেলথ অ্যান্ড হাইজিন প্রোডাক্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ফেস মাস্ক, হ্যান্ডওয়াশ ও অ্যান্টিসেপটিক সলিউশন (জীবাণুনাশক) ইত্যাদি উৎপাদন ও সুনামের সঙ্গে বিপণন করে স্বাস্থ্যখাতে শক্তিশালী ভূমিকা রাখছে। আশা করা যায়, জাতীয় ওষুধ নীতির বর্তমান লক্ষ্য সামনে রেখে আগামী বছরের শুরুতে আর্মি ফার্মা তার উৎপাদিত ওষুধসামগ্রী বাজারজাত করবে।


আরও খবর