Logo
শিরোনাম

করোনায় একদিনে সাড়ে ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মহামারি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত বিশ্ব। দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ রাষ্ট্র ভারতসহ বিভিন্ন দেশে বেড়েছে সংক্রমণ ও মৃত্যু। নতুন করে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে আরও দশ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬ লাখ ৬৯ হাজার ৬৮৯ জনের শরীরে।

আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যান ভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডো মিটারসের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার (৪ মে) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৩২ লাখ ২৬ হাজার ৮৭৫ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ৪১ লাখ ৭৮ হাজার ২৪৪ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৩ কোটি ২৩ লাখ ১ হাজার ৪৫৯ জন।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ৯১ হাজার ৫১৪ জনের প্রাণ নিয়েছে করোনা। এছাড়া সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৩২ লাখ ৩০ হাজার ৫৬১ জনের দেহে।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ভারত। এশিয়ার মধ্যেও করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশটি। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ২ লাখ ৭৫ হাজার ৫৪৩ জন। মারা গেছেন ২ লাখ ২২ হাজার ৩৮৩ জন।

তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। ল্যাটিন আমেরিকার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৪৭ লাখ ৯১ হাজার ৪৩৪ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪ লাখ ৮ হাজার ৮২৯ জন।

করোনাভাইরাস শনাক্তের তালিকায় চারে ইউরোপের দেশ ফ্রান্স। করোনা শনাক্তে তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে তুরস্ক। আর তালিকার ৩৩তম অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার আরেক ঘনবসতিপূর্ণ দেশ বাংলাদেশ।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



ফুটেজ দেখেই হেফাজত নেতাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, দেশের বিভিন্ন জেলায় হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের ঘটনায় জড়িদের ভিডিও ফুটেজ দেখেই গ্রেফতার করা হচ্ছে।

রবিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানী স্কুল প্রাঙ্গণে ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দলটির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা হলেও নৃশংস এ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হেফাজত হলো একটি অরাজনৈতিক সংগঠন, রাজনীতি করার কোনো নীতিমালায় নেই। যদিও এটার সঙ্গে অনেকেই দ্বিমত পোষণ করছেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, যারা অগ্নিসংযোগ করেছেন, যারা ভাঙচুর করেছেন, যাদের জন্য আজকে নিরীহ কতগুলো প্রাণ চলে গেছে তাদের শাস্তি ভোগ করতেই হবে। তদন্তের মাধ্যমে আমরা সঠিক প্রমাণ পেয়েছি, ভিডিও ফুটেজে যাদের আমরা দেখেছি, তাদেরকে আমরা আইনের মুখোমুখি করছি। কোনো গণগ্রেফতার করছি না বা কাউকে হয়রানি করার জন্যও গ্রেফতার করছি না।


আরও খবর



১৩ বছরের মধ্যে চালের মজুদ সর্বনিম্ন

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
২১ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারিভাবে চাল আমদানি হয়েছে মাত্র ২ লাখ ৫৯ হাজার টন। আর বেসরকারিভাবে হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ টন। এর মধ্যে তলানিতে ঠেকেছে সরকারি মজুদ, রয়েছে মাত্র ৩ লাখ টন যা চাহিদার ২০ শতাংশ

আমদানির পরও চাহিদার মাত্র ২০ শতাংশ চালের মজুদ রয়েছে সরকারি গুদামগুলোতে। যা গত ১৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গুদামে যেখানে চালের মজুদ থাকার কথা কমপক্ষে ১৫ লাখ মেট্রিক টন, সেখানে রয়েছে মাত্র ৩ লাখ টন। বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, মজুদের ব্যাপারে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অদূরদর্শিতাই সঙ্কটের প্রধান কারণ। তবে খাদ্যমন্ত্রীর দাবি, আমদানি ব্যবস্থাপনায় দেরি হওয়ায় মজুদ কমেছে।

করোনায় দেশে চালের ঘাটতির আশঙ্কায় গেল বছরের আগস্টেই ২০ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে সরকারিভাবে ১০ লাখ টন চাল আমদানির কার্যক্রম শুরু করতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সময় লেগে যায় চার মাস। আর সাড়ে ৩৭ শতাংশ শুল্ক কমিয়ে বেসরকারি খাতকে আমদানির অনুমতি দেয়ার বিষয়টি গড়ায় ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারিভাবে চাল আমদানি হয়েছে মাত্র ২ লাখ ৫৯ হাজার টন। আর বেসরকারিভাবে হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ টন। এর মধ্যে তলানিতে ঠেকেছে সরকারি মজুদ, রয়েছে মাত্র ৩ লাখ টন যা চাহিদার ২০ শতাংশ।

আমদানিকারক নিরব বরণ সাহা বলছেন, প্রথমত কারণ ছিল বর্ডার থেকে সময়মতো পণ্য না আসা। একসঙ্গে যদি একদিনে বিভিন্ন বর্ডার থেকে এক লাখ মেট্রিক টন (কম-বেশি) পণ্য প্রবেশ করতো তাহলে স্বাভাবিকভাবে এখানে ধারাটা ঠিক থাকতো।

চালের মজুদ সঙ্কটে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতিকে দায়ী করছেন কৃষিবিদ ও বাজার বিশ্লেষকরা। এদিকে খুচরা বাজারে সব ধরনের চাল বিক্রি হচ্ছে আগের বাড়তি দামে। কেজি প্রতি মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়, আর চিকন চাল ৬০ থেকে ৭০ টাকায়।

কৃষি অর্থনীতিবিদ ড. এম আসাদুজ্জামান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরও যে ৮ মাস খাদ্য মন্ত্রণালয় বসে থাকলো তার জবাবদিহিতা তো শেষ পর্যন্ত করতে হবে তাদের। বাজার বিশ্লেষক এস এম নাজের হোসেন বলেন, সফল না হওয়ার পেছনে মনে করি খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতি এবং অদক্ষতা ছিল। তারা যদি বিষয়টিতে সঠিকভাবে মনোযোগ দিতেন তাহলে আজকের এই সঙ্কট হতো না।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, গাড়ি ভাড়া করে সরবরাহ করা হচ্ছে। চাল আসতেছে। স্থানীয় প্রক্রিয়া হচ্ছে এবং আমদানিকৃত চাল আগামী ১৬ তারিখের মধ্যে চলে আসবে। আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণে আমদানি করব।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




শোলাকিয়ায় এবারও হচ্ছে না ঈদ জামাত

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া মাঠে এবারও হচ্ছে না ঈদুল ফিতরের জামাত।

শোলাকিয়া মাঠ পরিচালনা কমিটি তাদের সিদ্ধান্তে জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে সরকারি নির্দেশনা মেনে ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাঁও মাঠে এবছরের ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে না।

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, করোনার সংক্রমণ রোধে শোলাকিয়া ঈদগাহেও আসন্ন ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে না।এবারের ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হলে তা হতো শোলাকিয়ার ১৯৪তম জামাত।

শোলাকিয়া মাঠে ঈদ জামাত শুরু হওয়ার পর থেকে করোনা ভাইরাসের কারণে প্রথমবার গত বছর ঈদুল ফিতরের ও ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি।

জনশ্রুতি আছে, বাংলার বিখ্যাত বারো ভূঁইয়ার একজন ঈশা খাঁর ১৬তম বংশধর দেওয়ান মান্নান দাঁদ খান ১৯৫০ সালে শোলাকিয়া ঈদগাহ ওয়াকফ করেন। এর ২০০ বছর আগে থেকে শোলাকিয়া মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ১৮২৮ সালে এ মাঠে ঈদুল ফিতরের বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সে জামাতে একসঙ্গে ১ লাখ ২৫ হাজার বা সোয়া লাখ মুসল্লি ঈদের জামাত আদায় করেন। সেই থেকে এ মাঠ সোয়া লাখিয়া নামে পরিচিতি পায়, যা পরবর্তী সময়ে শোলাকিয়ায় রূপ নেয়।


আরও খবর



ভারতে করোনায় একদিনে রেকর্ড ২৮১২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এটিই দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগে ২৫ এপ্রিল করোনায় দেশটিতে ২৭৬৭ জনের মৃত্যু হয়।

খবরে বলা হয়, সোমবার (২৬ এপ্রিল) দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রণায় এ তথ্য জানায়। এদিন করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ৩ লাখ ৫২ হাজার ৯৯১ জন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



পদ্মায় পড়ে যাওয়া মাইক্রোবাসচালকের পরিচয় মিলেছে

প্রকাশিত:বুধবার ১২ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৯২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঝড়ের কারণে দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটের পন্টুনের তার ছিঁড়ে পদ্মায় ডুবে যাওয়া সাদা রঙের (নোহা) মাইক্রোবাসের চালক ও মালিকের পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। বুধবার (১২ মে) সকালে রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের সহকারী পরিচালক আনোয়ার হোসেন তাদের পরিচয় নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, চালকের পরিচয় পাওয়া গেলেও তিনি এখন পর্যন্ত নিখোঁজ। মরহেদ বা তার কোনো সন্ধান না পাওয়া পর্যন্ত তাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাইক্রোবাস চালকের নাম মারুফ হোসেন (৪০)। তার বাড়ি সিলেট হলেও তিনি ঢাকার রামপুরায় থাকেন। মালিকের নাম মাকসুদুর রহমান রিতু। তিনি ঢাকার কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা।

দৌলতদিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মো. মুন্নাফ আলী শেখ জানান, মাইক্রোবাসের মালিকের শ্যালক সোমবার (১০ মে) বিদেশ থেকে দেশে আসেন। তাকে চুয়াডাঙ্গায় গ্রামের বাড়ি পৌঁছে দিতে রাতে মারুফকে মাইক্রোবাসসহ পাঠান। সেখানে পৌঁছে দিয়ে মঙ্গলবার (১১ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে ঢাকায় ফেরার সময় দুর্ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও জানান, গাড়িতে অন্য কারো থাকার কথা না। ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দলের সহযোগিতায় দুপুর ২টার দিকে মাইক্রোবাসটি নদীতে থেকে তোলা হলেও কোনো লাশ পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটের পন্টুনের ওপর সাদা রঙের ঢাকা মেট্রো চ-১৪-২৬০৮ (নোহা) মাইক্রোবাসটি ফেরির জন্য দাঁড়িয়েছিল। হঠাৎ ঝড় শুরু হলে পন্টুনের তার ছিঁড়ে মাইক্রোবাসটি নদীতে পড়ে যায়। তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিস ও পাটুরিয়ার ডুবুরি দল।



আরও খবর

আজ কলাপাড়ায় ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন!

বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১