Logo
শিরোনাম

কুড়িগ্রামে এসএসসির প্রশ্ন ফাঁস, গ্রেপ্তার আরও ৩

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কুড়িগ্রামে চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের মামলায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ভূরুঙ্গামারী নেহাল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কৃষি বিজ্ঞানের শিক্ষক হামিদুল ইসলাম, বাংলা বিষয়ের শিক্ষক সোহেল চৌধুরী ও পিয়ন সুজন মিয়া। দুই শিক্ষককে গতকাল সকালে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। পরে রাতে তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

অন্যদিকে রাতে পিয়ন সুজনকে আটক করে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিবসহ মোট ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব লুৎফর রহমান, ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক আমিনুর রহমান রাসেল এবং ইসলাম শিক্ষার শিক্ষক জোবায়ের ইসলামকে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। তবে এজাহারনামীয় আসামি অফিস সহকারী আবু হানিফ পলাতক রয়েছেন।

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় নতুন করে আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারদের প্রয়োজনে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। এ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



আ. লীগের সঙ্গে জামায়াতের গোপন সম্পর্ক চলছে: টুকু

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপি-জামায়াত নয়, এখন আওয়ামী-জামায়াত বলার সময় এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। তাঁর দাবি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে জামায়াতের গোপন সম্পর্ক চলছে। যে কারণে জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করলেও দলটিকে বেআইনি ঘোষণা করা হচ্ছে না।

আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর হাজারীবাগে বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি জোন-৪ এই সমাবেশের আয়োজন করে। জ্বালানি তেলসহ দ্রব্য মূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং দলের চার নেতা-কর্মীকে হত্যার প্রতিবাদে আজ হাজারীবাগে এই সমাবেশ হয়েছে।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় টুকু বলেন, প্রায়ই শুনি, আওয়ামী লীগের মুখে এটা বুলি হয়েছে, খালি বলে বিএনপি-জামায়াত। আমি বলছি এখন সময় এসেছে আওয়ামী-জামায়াত বলার জন্য, মিলবেও ভালো। জামায়াতও উর্দু আওয়ামী লীগও উর্দু। দুইটার সঙ্গে মিলবে ভালো।

আওয়ামী লীগ-জামায়াতের গোপন সম্পর্কের দাবি করে তিনি বলেন, ওনারা জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করেন কিন্তু বেআইনি ঘোষণা করেন না। তাহলে কি আমি বলবওনাদের পরকীয়া প্রেম চলছে। নিবন্ধন বাতিল করলেন, বেআইনি ঘোষণা করলেন না। তার অর্থ আওয়ামী লীগ তলে তলে জামায়াতের সঙ্গে বন্ধুত্ব করে। সে জন্য বাতিল (নিবন্ধন) করে না। তাই আজকে থেকে আওয়ামী-জামায়াত হবে। বিএনপি-জামায়াত আর হবে না।

এদিকে, পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধানমণ্ডির বাংলাদেশ মেডিকেলের সামনে সমাবেশ করার কথা ছিল বিএনপির। কিন্তু ধানমন্ডি থানা আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠন যুবলীগ একই স্থানে কর্মসূচি ঘোষণা করে। সংঘর্ষের আশঙ্কায় দুই দলকেই সমাবেশ না করার জন্য মৌখিক নিষেধাজ্ঞা দেয় পুলিশ।

পরে বিএনপির পক্ষ থেকে সমাবেশস্থল পরিবর্তন করে আজ সোমবার দুপুরে হাজারীবাগের সিকদার মেডিকেল কলেজের সামনে সমাবেশ শুরু হলে সেখানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও জড়ো হয়। এ সময় উভয় দল সংঘর্ষ হয়। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।


আরও খবর



ফ্লোরিডায় হারিকেন ইয়ানের তাণ্ডব, নিহত ১২

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হারিকেন ইয়ান। এ পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে ঘূর্ণিঝড়কবলিত এলাকা থেকে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ইয়ান ফ্লোরিডার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় হতে পারে।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) প্রেসিডেন্ট বাইডেন ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির কর্মকর্তাদের একটি ব্রিফিংয়ের পর বলেন, মৃত্যুর সংখ্যা এখনো অস্পষ্ট, কিন্তু আমরা প্রাথমিকভাবে বড় ধরনের প্রাণহানি হতে পারে বলে শুনছি’।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়। তাদের মধ্যে সাতজন চার্লট কাউন্টিতে। বাকীরা সারাসোটা এবং ভলুসিয়ার। বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত ফ্লোরিডায় ২৩ লাখের মতো বাসিন্দা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন ছিলেন বলেও জানান বিদ্যুৎ বিভাগ।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে, ঝড়টি চার্লসটনের দক্ষিণে ছিল এবং ১০ মাইল বেগে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছিল।

জাতীয় হারিকেন কেন্দ্র জানিয়েছে, শুক্রবার নাগাদ দক্ষিণ ক্যারোলাইনা উপকূলে পৌঁছাতে পারে হারিকেন ইয়ান। এরপর শুক্রবার রাত ও শনিবার নাগাদ ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্র মূল ভূখণ্ডের দিকে অগ্রসর হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ইয়ানের কারণে ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যেও জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

চার্লট কাউন্টি কমিশনার ক্রিস্টোফার কনস্ট্যান্স ৭ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সারাসোটা কাউন্টিতে দুইজন মারা গেছেন। সানিবেল দ্বীপে আরও দুজন মারা গেছেন। যেখানে হারিকেন ক্যাটাগরি-৪ আঘাত হানে।

 

 


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




আমার সময়ে কোনো ধরনের জঙ্গি হামলা হয়নি: র‌্যাব ডিজি

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নের (র‌্যাব) বিদায়ী মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, জঙ্গি বিস্তার রোধে আমাদের জোরালো অভিযানের কারণে উল্লেখযোগ্য জঙ্গি সদস্য গ্রেপ্তার হয়েছে। আমার সময়ে কোনো ধরনের জঙ্গি হামলা হয়নি।

বুধবার সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সঙ্গে মহাপরিচালকের বিদায়ী মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

গত বৃহস্পতিবার চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনকে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার। ৩০ সেপ্টেম্বর তিনি পুলিশপ্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

এর আগে ২০২০ সালের ৮ এপ্রিল র‌্যাবের ডিজি হিসেবে তিনি দায়িত্ব পান।

মতবিনিময় সভায় চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর যে আস্থা রেখেছেন সেই দায়িত্ব যেন আমি যথাযথভাবে পালন করতে পারি। আমি র‌্যাব ডিজি হিসেবে বৈশ্বিক মহামারির সময় দায়িত্ব গ্রহণ করি। আমাদের করোনা আক্রান্ত র‌্যাব সদস্যদের জন্য ডাটাবেজ, অত্যাধুনিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। বিপুল সংখ্যক র‌্যাব সদস্য করোনা আক্রান্ত হলেও আমরা মনোবল হারাইনি। করোনায় মানবিকতার চরম বিপর্যয় ঘটেছিল। এসময় র‌্যাব করোনা আক্রান্ত মানুষদের সেবায় এগিয়ে গিয়েছে। র‌্যাবের হেলিকপ্টারে দুর্গম এলাকা থেকে মানুষকে উদ্ধার করে ঢাকায় এনে চিকিৎসা করিয়েছি।

স্বাস্থ্য খাতে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে যারা মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছিল তাদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে উল্লেখ করে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, করোনার কিট জালিয়াত ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রতারক সাহেদ করিমকে আমরা গ্রেপ্তার করি।


আরও খবর



ঘুরে আসুন হাসন রাজার দেশ

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লোকে বলে বলেরে, ঘরবাড়ি ভালা নায় আমার

কী ঘর বানাইমু আমি, শূন্যের-ই মাঝার

ভালা করি ঘর বানাইয়া, কয় দিন থাকমু আর

অয়না দিয়া চাইয় দেখি, পাকনা চুল আমার।

পরিচিত গানের কথাগুলো মরমি সাধক কবি দেওয়ান হাসন রাজার। গানের এ কথাগুলোর সঙ্গে হাসন রাজার জীবনবোধ যে একেবারে মিলেমিশে একাকার। বেশ মিল রয়েছে তাঁর সর্বশেষ স্মৃতিবিজড়িত বাড়িটির। যেখানে একটি জাদুঘরে সংরক্ষিত হচ্ছে তাঁর স্মৃতিচিহ্নগুলো। এখনো বাংলার লোকগানে ফিরে আসেন হাসন রাজা তাঁর লেখা অসাধারণ জীবনবোধের কবিতা ও গান নিয়ে। আজ থেকে বহু বছর আগে সুনামগঞ্জের সুরমা নদীর ধারে প্রতাপশালী দাপুটে এ জমিদার বৈরাগ্য সাধনে মুক্তির পথ বেছে নিয়েছিলেন। প্রজাদের ওপর বিনা কারণে অত্যাচারী এবং ভোগবিলাসে মত্ত ছিলেন জমিদার হাসন রাজা। পরে এক আধ্যাত্মিক স্বপ্ন-দর্শন তাঁর জীবনকে আমূল পাল্টে দেয়। মন হয়ে ওঠে প্রসারিত, জীবন হয়ে ওঠে সহজ, সরল ও সাদাসিধে। বিলাসপ্রিয় জীবন ছেড়ে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ছাড়লেন জমকালো পোশাক। চরিত্রে এলো এক সৌম্যভাব; পরনে এলো সুফি পোশাক। জীবনের যত ভুলত্রুটি, শোধরাতে শুরু করলেন একে একে।

এতক্ষণে নিশ্চয় ভাবছেন, একদিন ঘুরে এলেই তো হয় হাসন রাজার বাড়ি। কেমন ছিলেন তিনি জানার প্রয়োজন। সাধারণ এক বাড়িতে সাধক এ রাজার যে স্মৃতিচিহ্ন এখনো অবশিষ্ট আছে, তা দেখতে হলে আপনাকে যেতে হবে সুনামগঞ্জ শহরের আরফিন নগরে। খুব সাদামাটা এক বাড়িতে সংরক্ষিত শেষ স্মৃতিচিহ্নগুলো নিয়ে গড়ে উঠেছে একটি জাদুঘর, যা আপনাকে নিয়ে যাবে উনিশ শতকের শুরুর দিকের সেই সময়টাতে। ছোটখাটো কিন্তু সংরক্ষণের জন্য অনন্য সব জিনিস আপনাকে মুগ্ধ করবে নিশ্চিত। রাজার আয়েসি জীবন থেকে শুরু করে আপনি দেখতে পাবেন কবি জীবনের সব সংগ্রহ। বাদক যন্ত্র থেকে রাজার জমিদারি ম্যাপকী নেই সেই সংগ্রহে! আছে রাজার খড়মসহ ব্যবহার্য জিনিসপত্র। ঘরের এবং ঘরের বাইরের সব সংগ্রহের পাশাপাশি অবস্থান পেয়েছে বিশিষ্টজনের সঙ্গে রাজার সাক্ষাৎ ও দর্শনার্থীদের ভ্রমণের বিশেষ কিছু ছবি। এসব দেখতে দেখতে আপনি রাজার সেই আমলে ফিরে যাবেন; কল্পনার তুলিতে আঁকতে চাইবেন রাজার জীবন দর্শন। কীভাবে একজন রাজা একাধারে এত বড় রাজ্য শাসনের পাশাপাশি কবিতা ও গানের সঙ্গে নিজের জীবনবোধকে সাধনার রাজ্যে নিবিষ্ট করেছিলেন। কী ছিল তাঁর জীবন দর্শন?

এই মরমি সাধককে নিয়ে আজ দেশ-বিদেশে চলছে বিস্তর গবেষণা, তাঁর জীবনের বোধ কি এত সহজেই আবিষ্কার করা সম্ভব? না, তবে যেটুকু দেখে ফিরলেন তাতে হাসন রাজা সম্পর্কে জানার আগ্রহটা আরো বাড়িয়ে দেবে আপনার। সুনামগঞ্জের এই জাদুঘরের পাশাপাশি আপনি হাসন রাজা সম্পর্কে আরো জানতে চাইলে অন্য একটা মিউজিয়ামও ঘুরে আসতে পারেন। সিলেট শহরের একেবারে প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত এই মিউজিয়ামের নাম রাজাস মিউজিয়াম। এটা শহরের জিন্দাবাজার এলাকায় অবস্থিত।

সুনামগঞ্জে এসেছেন আর কী দেখবেন? রাজার বাড়ি দেখার পর শহরটা ঘুরে দেখতে চাইলে বিকেলের শেষ দিকে আপনি ঘুরে আসতে পারেন অনিন্দ্য সুরমা নদীর ওপর নবনির্মিত আবদুজ জহুর সেতু থেকে। সুনামগঞ্জের যোগাযোগব্যবস্থার বিপ্লব বললেও ভুল হবে এই সেতুকে। সুরমা নদীর দুই পাড়ের জনপদের মধ্যে আত্মীয়তার সম্পর্ক স্থাপনকারী এই সেতুতে বিকেলের নিরিবিলি সময়টা কাটাতে পারলে আপনার অন্যতম একটি বিকেল হবে সেটি। বিশম্ভরপুর, তাহিরপুর আর জামালগঞ্জের সঙ্গে যোগ হওয়া এই সেতু থেকে পানিবেষ্টিত সুনামগঞ্জ শহর আর এর আশপাশের সবুজ প্রকৃতি আপনাকে বিমোহিত করবে। এর পর সন্ধ্যার আগে আগে রিকশা নিয়ে চলে যান শত বছরের ঐতিহ্যবাহী সরকারি জুবিলী স্কুল দেখতে। অনেক জ্ঞানী-গুণীর বিদ্যাপীঠ এটি। জুবিলী স্কুলের পাশে রিভারভিউ পর্যটন কেন্দ্রটি আপনাকে দেবে অন্যরকম ভালোলাগা। সন্ধ্যার পর এখানে বসে কাটিয়ে দিতে পারেন কিছুটা সময়। বোনাস হিসেবে পাবেন দূরের পাহাড়ে মিটমিট আলো জ্বালানো ভারতের বেশ কিছু শহরের জেগে থাকার মনোরম দৃশ্য। নিশ্চিতভাবে আপনার ভ্রমণান্দ বাড়িয়ে দেবে অলস বসে থাকা এই সময়টা।

একদিনের জন্য সুনামগঞ্জ এলে এর বাইরে শহরের এদিক-সেদিক একটু ঘুরতেই আপনার দিন শেষ হবে। ভ্রমণ লম্বা করতে চাইলে দেশের অন্যতম দর্শনীয় স্থান টাঙ্গুয়া দেখতে পারেন। দেখতে যেতে পারেন নারায়ণ তলা বর্ডার হাট। তবে হাট বসে মাত্র মঙ্গলবার। যেতে হলে লাগবে জেলা প্রশাসনের অনুমতি। টাঙ্গুয়া দেখতে শীত আর বর্ষা মৌসুম সবচেয়ে ভালো সময়। এর পাশাপাশি সময় থাকলে যাদুকাটা আর টেংরাটিলাও ঘোরা যেতে পারে। তবে সব কটি স্থানে যেতে আপনাকে ব্যয় করতে হবে বেশ সময়। সঙ্গে গুনতে হবে বেশকিছু খরচাপাতি। শহরের বাইরে যেখানেই যেতে চান, আপনাকে সময় জেনে আসতে হবে। তবে পানি ঘেরা সবুজে আচ্ছাদিত সুনামগঞ্জ শহর ঘুরতে চাইলে সময়ের বাধা নেই। তবে বর্ষা মৌসুমে সুনামগঞ্জ গেলে আপনি বোনাস হিসেবে পাবেন যাওয়ার পথে দুই পাশে পানিবেষ্টিত গ্রাম আর মাতাল হাওয়ার মতো ঢলানো স্মৃতি। যেতে যেতেই আপনার কাছে অনেকটাই আবিষ্কৃত হয়ে যাবে এখানের সৌন্দর্য। দূরের পথ পাড়ি দেওয়ার ক্লান্তিটা ঝেড়ে ফেলেই আপনি প্রবেশ করবেন ছোট ছোট দালানকোঠা আর জাঁকজমকহীন এ শহরে।

কীভাবে যাবেন: ঢাকা থেকে সিলেট হয়ে সুনামগঞ্জ যেতে হবে। মাঝপথে সিলেটে নেমে ক্লান্তি দূর আর খাওয়া-দাওয়া সেরে নিতে পারেন রেস্তোরাঁসমৃদ্ধ সিলেট নগরীতে। এখান থেকে সুনামগঞ্জ যেতে বাস ও কার দুটোই পাবেন। বাসের জন্য যেতে হবে কুমারগাঁও বাসস্ট্যান্ডে আর কারে চড়তে চাইলে শাহজালাল (রহ.) মাজার গেটের পাশ থেকে যেতে পারবেন সুনামগঞ্জ শহরে। এ ছাড়া ব্যক্তিগত পরিবহন ব্যবহার করতে পারেন। রাস্তা বেশ ভালো। বাসে গেলে সময় লাগবে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা, আর কারে যেতে লাগবে এক ঘণ্টার কমবেশ। শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় নামিয়ে দিলে রিকশা কিংবা বিদ্যুৎ চালিত অটোরিকশা মিলবে সহজেই। শহরের অন্য যেকোনো জায়গায় যেতেও মিলবে এসব যানবাহন।

থাকা-খাওয়া: সার্কিট হাউস বা সরকারি ডাকবাংলোর পাশাপাশি আপনি থাকার জন্য হোটেল পাবেন বটে, তবে রাজার দেশে নেই কোনো রাজকীয় হোটেল-মোটেল! দেখেশুনে থাকতে পারবেন। তবে আয়েশ করে থাকাটা হবে না। তাই বলে একেবারে বাসের অযোগ্য নয়। ছোট-বড় হোটেলে দিন কয়েক অনায়াসে কাটিয়ে দিতে পারবেন। তেমন অসুবিধা হবে না। খাবারের জন্য আছে নদীর পাড়ে মাছে ভরা খাবারের দোকান। চাইলে তাজা মাছের স্বাদ পাবেন এখানে। থাকা আর খাওয়ার জন্য দামি হোটেল না থাকলেও বিলাসহীন পরিশুদ্ধ সব আতিথেয়তা আপনাকে মুগ্ধ করবে।


আরও খবর

সংকটে সীমাবদ্ধ বাগেরহাটের পর্যটন শিল্প

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২

চলুন পদ্মা সেতু দেখে আসি

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




পাম অয়েল ও চিনির দাম কমানোর সুপারিশ

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পাম অয়েলের দাম লিটার প্রতি ১২ টাকা কমানোর সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন। এছাড়া চিনির দাম কেজিতে ৪ টাকা কমানোর জন্য মতামত দিয়েছে। তবে সয়াবিন তেলের বর্তমান দাম বহাল রাখার সুপারিশ করেছে কমিশন।

ট্যারিফ কমিশনের সুপারিশে বলা হয়, পাম তেলের দাম ১৪৫ টাকা লিটার নির্ধারণ করা আছে। এই ভোজ্যতেলের দাম লিটারে অন্তত ১২ টাকা কমিয়ে ১৩৩ টাকা নির্ধারণ করা যেতে পারে।

বিশ্ব বাজারে সয়াবিন তেলের দামে তেমন প্রভাব পড়েনি। তবে পাম তেলের দাম কমে এসেছে। তাই এই তেলের দাম স্থানীয় বাজারে কমানোর সুযোগ আছে। আর সয়াবিন তেল যে দামে বিক্রি হচ্ছে তা যৌক্তিক।

চিনির বিষয়ে ট্যারিফ কমিশনের সুপারিশে বলা হয়, প্রতিকেজি খোলা চিনির খুচরা মূল্য ৮৪ টাকা এবং প্যাকেটজাত ৮৮ টাকা হওয়া উচিত।

তবে সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বাজার দরের তথ্য বলছে, খোলা বাজারে প্রতিকেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ৯৫ টাকায়। ব্র‍্যান্ড ভেদে দাম আরও বেশি।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) টিসিবির বাজারদরের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন বাজারে প্রতি লিটার ভালো মানের পাম অয়েল (সুপার) ১৪৫ থেকে ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আরেক ধরনের পাম অয়েলের দাম প্রতি লিটার ১২৬ থেকে ১৩৫ টাকা। গত ২৩ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সুপার পাম অয়েলের দাম প্রতি লিটারে সর্বোচ্চ ১৪৫ টাকা নির্ধারণ করে। ট্যারিফ কমিশন প্রতি লিটার সুপার পাম অয়েলের দাম সর্বোচ্চ ১৩৩ টাকা নির্ধারণের সুপারিশ করেছে।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে প্রতি কেজি চিনি ৯০ থেকে ৯৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ চিনির দাম নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু ছয় মাসের বেশি সময় ধরে নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশিতে বেচাকেনা হচ্ছে। কমিশন প্রতি কেজি খোলা চিনি সর্বোচ্চ ৮৪ টাকা এবং প্যাকেটজাত চিনি সর্বোচ্চ ৮৮ টাকা নির্ধারণের সুপারিশ করেছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, নিত্যপ্রয়োজনীয় ৯টি পণ্যের মধ্যে দুটির দাম নির্ধারণের সুপারিশ করেছে ট্যারিফ কমিশন। রড ও সিমেন্টের দাম নির্ধারণে আরও সময় দরকার। অন্য ৫টি পণ্যের দাম নির্ধারণে সিদ্ধান্ত দেবে কৃষি মন্ত্রণালয়।


আরও খবর

৩১ ডিসেম্বরের পর পাম অয়েল বিক্রি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২