Logo
শিরোনাম

লকডাউনে আরো দুর্বল হয়েছে চীনের বৈদেশিক বাণিজ্য

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চীনের বৈদেশিক বাণিজ্য আরো দুর্বল হয়েছে। কয়েক মাস ধরেই দেশটির আমদানি-রফতানি বাণিজ্য ধীর ছিল। এপ্রিলে এটি আরো শ্লথ হয়েছে। বিশেষ করে চীনা পণ্যের রফতানি প্রবৃদ্ধিতে ব্যাপক পতন হয়েছে। গত মাসে দেশটির রফতানি আয় বেড়েছে মাত্র ৩ দশমিক ৯ শতাংশ। যেখানে মার্চেও রফতানি প্রবৃদ্ধির হার ছিল ১৪ দশমিক ৭ শতাংশ। অন্যদিকে এ সময়ে অপরিবর্তিত রয়েছে আমদানি ব্যয়। খবর রয়টার্স।

সম্প্রতি প্রকাশিত কাস্টমস ডাটা অনুসারে, এপ্রিলে ২৭ হাজার ৩৬২ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি করেছে চীন। অর্থের হিসাবে রফতানির এ পরিমাণ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩ দশমিক ৯ শতাংশ বেশি। রয়টার্সের জরিপে অর্থনীতিবিদরা ৩ দশমিক ২ শতাংশ বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছিলেন। এপ্রিলে রফতানি প্রবৃদ্ধির হার ২০২০ সালের জুনের পর সবচেয়ে কম। রফতানি প্রবৃদ্ধি কমার পেছনে বিশ্লেষকরা কঠোর ও বিস্তৃত কভিডজনিত নিষেধাজ্ঞায় কারখানার উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাওয়া, সরবরাহ ব্যবস্থা ব্যাহত ও অভ্যন্তরীণ চাহিদার পতনকে দায়ী করেছেন। এদিকে এপ্রিলে চীন ২২ হাজার ২৫০ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করেছে। গত মাসের আমদানি ২০২১ সালের একই সময়ের তুলনায় অপরিবর্তিত রয়েছে। অর্থাৎ মার্চে দশমিক ১ শতাংশ পতনের চেয়ে কিছু উন্নতি হয়েছে। যেখানে অর্থনীতিবিদরা ৩ শতাংশ সংকোচনেরও পূর্বাভাস দিয়েছিলেন।

চীনের বৈদেশিক বাণিজ্যের এ তথ্য বিশ্লেষকদের আশঙ্কা সত্য প্রমাণিত করেছে। দেশটির জিরো কভিড নীতির কারণে আশঙ্কা ছিল সাংহাই ও অন্য শিল্পাঞ্চলগুলোর বেশির ভাগ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে গাড়ি, ইলেকট্রনিকস এবং অন্যান্য শিল্পের বাণিজ্য ও কার্যক্রম ব্যাপকভাবে কমে যাবে। তবে বিশ্লেষকরা আশা করছেন, প্রাদুর্ভাব কমে যাওয়ায় চলতি মাসে শিল্প-কারখানার কার্যক্রম ঊর্ধ্বমুখী হবে। গত মাসে চীনের বাণিজ্য উদ্বৃত্ত মার্চের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। এ সময়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি ৫ হাজার ১১২ কোটি ডলারের বাণিজ্য উদ্বৃত্ত পেয়েছে। অর্থনীতিবিদরা ৫ হাজার ৬৫ কোটি ডলার বাণিজ্য উদ্বৃত্তের পূর্বাভাস দিয়েছিলেন। মার্চে এ উদ্বৃত্তের পরিমাণ ছিল ৪ হাজার ৭৩৮ কোটি ডলার।

কয়েক মাস ধরেই চীনে কভিড সংক্রমণের গতি ঊর্ধ্বমুখী। দুই বছরের মধ্যে ভয়াবহ প্রাদুর্ভাব মোকাবেলার চেষ্টায় সরকারের আরোপিত নিষেধাজ্ঞা হাইওয়ে ও বন্দরগুলোর কার্যক্রম সীমিত করে দেয়। এতে সাংহাইয়ের বাণিজ্যিক কেন্দ্রসহ কয়েক ডজন শহরে কার্যক্রম সীমাবদ্ধ হয়ে যায়। এ বিধিনিষেধের আওতায় অ্যাপলের আইফোন প্রস্তুতকারক ফক্সকন থেকে টয়োটা ও ফক্সওয়াগনের মতো গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। এরই মধ্যে এপ্রিলে কারখানা কার্যক্রম সংকোচনের মুখোমুখি হয়েছে। শিল্প সমীক্ষাগুলো বলছে, এসব প্রতিবন্ধকতার কারণে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতিতে মন্দার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ পরিস্থিতি বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিও কমিয়ে দিতে পারে। পণ্য ব্যবসার কেন্দ্রবিন্দু ইয়ুতে বিদেশী বাণিজ্য ব্যবস্থাপক শি জিনিউ বলেন, কোভিডের কারণে মাত্র ২০-৫০ শতাংশ দোকান খোলা। এরই মধ্যে পরিস্থিতি যথেষ্ট কঠিন হয়ে উঠেছে। ঘটনা এমন যে বৃষ্টির সঙ্গে সঙ্গে আমরা একটি ফুটো ছাদ পেয়েছি।

অন্যদিকে ইউক্রেনে যুদ্ধও চীনের বৈদেশিক বাণিজ্যে অতিরিক্ত ঝুঁকি তৈরি করেছে। ক্রমাগত ভোক্তা ব্যয় দুর্বল এবং রিয়েল স্টেট খাতে দীর্ঘায়িত মন্দাও বাণিজ্য প্রবৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। দেশটিতে বেকারত্ব হার প্রায় দুই বছরের সর্বোচ্চ উচ্চতায় পৌঁছেছে। যদিও কর্তৃপক্ষ আস্থা বাড়াতে এবং আরো কর্মসংস্থান হারানো ঠেকাতে সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কিছু বিশ্লেষক ক্রমবর্ধমান মন্দার ঝুঁকি নিয়েও সতর্ক করেছেন। তারা বলছেন, বেইজিং জিরো কভিড নীতি থেকে সরে না এলে মন্দাও দেখা দিতে পারে। অন্যথায় নীতিনির্ধারকদের ২০২২ সালের প্রায় ৫ দশমিক ৫ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আরো প্রণোদনা দিতে হবে।

নিউজ ট্যাগ: লকডাউন

আরও খবর



ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানবাহনের চাপ, চলছে থেমে থেমে

প্রকাশিত:রবিবার ০১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ও আশপাশের এলাকায় শুরু হয়েছে যানজট। থেমে থেমে চলছে যানবাহন। পোশাক কারখানা ছুটি হওয়ায় শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে গাজীপুরের ঢাকা টাঙ্গাইল ও ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানবাহনের চাপ আরো বেড়েছে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ও আশপাশের এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে  থেমে থেমে চলছে যানবাহন। এতে  ভোগান্তিতে পড়েছে ঈদে ঘরমুখো মানুষ। অতিরিক্ত যানবাহন থাকলেও যাত্রীর তুলনায় তা কম হওয়ায় রাতেও বিপুল সংখ্যক ঘরমুখো মানুষকে স্টেশনে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। 

এদিকে সাভারের আশুলিয়ায় এবং নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে যেখানে সেখানে বাস থামিয়ে যাত্রী তোলায় সৃষ্টি হচ্ছে যানবাহনের ধীরগতি। এতে বাড়ছে ভোগান্তি। মহাসড়কের যানজটমুক্ত করতে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ।


আরও খবর



কিশোরগঞ্জে সরকারি ৬৮১ বস্তা চালসহ একজন আটক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে সরকারি ৬৮১ বস্তা চালসহ আবুল কাশেম খান (৫৮) নামে এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

র‌্যাব সূত্র জানায়, তাড়াইল-সাচাইল সদর ইউনিয়নের ৫ নং পংপাচিহা এলাকায় এক অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধভাবে সরকারি চাল গুদামজাত করে রেখেছেন মর্মে জানতে পারে র‌্যাব। এর পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাবের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মো. শাহরিয়ার মাহমুদ খানের নেতৃত্বে মঙ্গলবার গভীর রাতে অভিযান চালায় একটি দল। তখন কিশোরগঞ্জ টু তাড়াইলগামী পং পাচিহা এলাকায় পাকা রাস্তার দক্ষিণ পাশের একটি টিনসেড গুদাম থেকে ৬৮১ বস্তা সরকারি চালসহ গুদামের মালিক আবুল কাশেম খানকে আটক করে। তিনি তাড়াইল উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে।

র‌্যাবের  কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মো. শাহরিয়ার মাহমুদ খান আজ বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক আবুল কাশেম খান ওই চাল কেনা-বেচার জন্য তার কাছে কোনোপ্রকার বৈধ কাগজপত্র নেই বলে স্বীকার করেন। অধিক লাভের আশায় তিনি চালগুলো কিনেছেন বলে জানান। তাছাড়া চাল মজুদ ও বিক্রির জন্য তিনি কোনো প্রকার ট্রেড লাইসেন্সও দেখাতে পারেননি। এ ব্যাপারে আইনানুগ প্রক্রিয়া চলছে বলে র‌্যাব  জানায়।

নিউজ ট্যাগ: সরকারি চাল জব্দ

আরও খবর



চলে গেলেন পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লোকসংগীতের বাদ্যযন্ত্র সন্তুর। কিন্তু এটাকে বিশ্ব দরবারে যিনি তুলে ধরেছেন, প্রজন্মের কাছে জনপ্রিয় করে তুলেছেন, তিনি পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা। বিখ্যাত এই সন্তুরবাদক আর নেই। মঙ্গলবার (১০ মে) মুম্বাইয়ের নিজ বাড়িতে মারা গেছেন তিনি। ভারতীয় গণমাধ্যম থেকে জানা গেল, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান শিবকুমার। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

শিবকুমারের মৃত্যুতে ভারতের সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। অনেকেই তার আত্মার শান্তি কামনায় শোক প্রকাশ করছেন। ওস্তাদ আমজাদ আলি খান সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে লিখেছেন, পণ্ডিত শিবকুমার শর্মার প্রয়াণ একটি যুগের অবসান। তিনি সান্তুর যন্ত্রটির অগ্রণী শিল্পী। আমার কাছে এটা ব্যক্তিগত শোকের মুহূর্ত। ওর আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

সন্তুরের অবিস্মরণীয় অধ্যায়ের পাশাপাশি সিনেমায়ও কাজ করেছিলেন শিবকুমার। বিখ্যাত বংশীবাদক পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়ার সঙ্গে জুটি বেঁধে বলিউডের বেশ কয়েকটি সিনেমায় মিউজিক কম্পোজ করেছেন তিনি। সিলসিলা’, লামহে’, চাঁদনী’ ও ডর’-এর মতো সিনেমার মিউজিক কম্পোজ করেছিলেন তারা।

১৯৩৮ সালের ১৩ জানুয়ারি জম্মুতে জন্মগ্রহণ করেন শিবকুমার শর্মা। তার বাবা উমা দত্তশর্মা ছিলেন প্রথিতযশা সংগীতশিল্পী। মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকেই শিবকুমার তার বাবার কাছে শাস্ত্রীয় সংগীতে প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করেন। ১৩ বছর বয়সে বাবার কাছ থেকেই সান্তুরের হাতেখড়ি হয় তার। ভারতীয় সংগীতে অসামান্য অবদানের জন্য বহু পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন শিবকুমার। ১৯৮৬ সালে তাকে পদ্মশ্রী ও ২০০১ সালে তাকে পদ্মবিভূষণ পদকে ভূষিত করে ভারত সরকার।


আরও খবর



মরিয়মের আপত্তিকর ছবি!

সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি শুরু পাকিস্তানে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এবার থেকে পাকিস্তানেও সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি শুরু করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এবং আনুষ্ঠানিকভাবে তা ঘোষণাও করা হয়েছে। পাক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, এবার থেকে দেশের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বিভাগ সোশ্যাল মিডিয়ার উপর নিয়মিত নজর রাখবে। কোনও পোস্টে যদিও কারও বিরুদ্ধে অমাননাকর কোনও মত প্রকাশ করা হয়, তাহলে প্রয়োজনের তাতে কাঁচিও চালাতে পারে পাক সরকার। এমনকী, অভিযুক্তর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপও করা হতে পারে। পাশাপাশি, অশ্লীল বা অশোভন কোনও বিষয়ও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রচার করা যাবে না।

সূত্রের খবর, পাক সরকারের এই পদক্ষেপের নেপথ্যে রয়েছেন PML-N-এর সহ-সভানেত্রী তথা দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মেয়ে এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ভাস্তি মারিয়ম নওয়াজ। তার দাবি, সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তার এমন কিছু ছবি ছড়িয়ে পড়ে, যেগুলি ভুয়ো এবং আপত্তিকর। এই ঘটনা নজরে আসার পরই দেশের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা Federal Investigation Agency (FIA)-এর সঙ্গে যোগাযোগ করেন মারিয়ম। সেখানে তিনি একটি অভিযোগও দায়ের করেন। তারই ভিত্তিতে এবার থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এবং সেই দায়িত্ব দেওয়া হয় FIA-কে।

এই প্রসঙ্গে, মারিয়মকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নিশানা করা হচ্ছে। তিনি বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। এখন তারা কী ব্যবস্থা নেয়, তা দেখার জন্যই অপেক্ষা করছেন প্রধানমন্ত্রীর ভাইঝি।

এই বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ করার জন্য FIA-কে ইতিমধ্যেই একটি নির্দেশ দিয়েছে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সেই নির্দেশিকা হাতে পাওয়ার পরই FIA-এর পক্ষ থেকেও একটি সতর্কবার্তা প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় অসংখ্য ভুয়ো ছবি, ভিডিও প্রকাশ করা হয়। বিষয়টি ইতিমধ্যেই FIA-এর নজরে এসেছে। এর প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করা হয়েছে। যারা এইসব কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে প্রমাণ হাতে এলেই কঠোর পদক্ষেপ করা হবে। তাদের আইন মেনে শাস্তি দেওয়া হবে। এবং মোটা টাকা জরিমানা করা হবে। তাই আমাদের আবেদন, এই ধরনের কাজ থেকে নিজেদের বিরত রাখুন।

তবে, ইতিমধ্যেই এই নির্দেশিকার আওতায় কারও বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হয়েছে কিনা, সেটা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। অন্যদিকে, সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনাও শুরু হয়ে গিয়েছে। সমালোচক ও বিরোধীদের অভিযোগ, মানুষের কণ্ঠরোধ করতেই এমন ব্যবস্থা শুরু করছে পাক সরকার।

নিউজ ট্যাগ: মারিয়ম নওয়াজ

আরও খবর



ইউক্রেনের পক্ষে যুদ্ধ করছে ইসরাইল

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইউক্রেনে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে ইসরাইলিরা। এ ধরনের একাধিক ভিডিও ফুটেজ বেশ কিছুদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

একটি ভিডিও ক্লিপে দেখ যায়, ইসরাইলি যোদ্ধারা দেশটির জনগণকে ধন্যবাদ জানান রাশিয়ার বিরুদ্ধে তাদের এই যুদ্ধে সমর্থন দেওয়ার জন্য। খবর আরব নিউজের।

জেরুজালেম পোস্টে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভিডিও ক্লিপে এক ইসরাইলি যোদ্ধা ইহুদিবাদী দেশটির সরকার ও জনগণকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছে তাদের ইউক্রেনের পক্ষে যুদ্ধ করতে সহায়তা করার জন্য।

আরেকটি ভিডিও ক্লিপের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইসরাইলের এক প্রতবেদনে বলা হয়, স্বেচ্ছায় ইউক্রেনের পক্ষে যুদ্ধ করতে যাওয়া এক ইসরাইলি যুবক বলছে- আমরা নিশ্চিত, এ যুদ্ধে আমাদের দেশ শত্রুদের (রুশ বাহিনী) পরাজিত করে সন্ত্রাসীদের চিরতরে নির্মূল করবে।

তবে, এটা নিশ্চিত নয় যে তারা ইসরাইল থেকে যুদ্ধ করতে ইউক্রেন গেছে, না-কি তারা ইসরাইল এবং ইউক্রেনের দ্বৈত নাগরিক।

তবে ইসরাইল রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে ইউক্রেনকে কোনো অস্ত্র সহায়তা দেবে না বলে প্রকাশ্যে বলে আসছে। এসব ভিডিও ক্লিপ প্রকাশের ফলে বেশ অস্বস্তিতে পড়েছে ইহুদিবাদী দেশটি।


আরও খবর