Logo
শিরোনাম

মামুনুল হককে নিয়ে যা বললেন কথিত সেই স্ত্রী’র ছেলে (ভিডিও)

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৮৭৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের কথিত সেই স্ত্রীর প্রথম ঘরের বড় ছেলে আব্দুর রহমান সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়ায় একটি বিবৃতি দিয়েছেন। ওই ভিডিও বক্তব্যে বলেছেন, আমার বাবা হাফেজ শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদুল্লাহ মামুনুল হককে নিজের প্রাণের চেয়েও ভালোবাসতো আর এই ভালোবাসার সুযোগ নিয়ে তিনি (মামুনুল হক) বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। কতবড় গাদ্দার হলে মামুনুল হক এটা করতে পাবে।

 

আমার বাবা-মায়ের মধ্যে যখন ডিভোর্স হয়নি তখন আমার বাবার অনুপস্থিতিতে মামুনুল হক একবার আমাদের বাসায় আসে, তখন আমার মা ছোট ভাইকে বুকের দুধ পান করাচ্ছিল। এই দৃশ্য দেখে মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল।

 

কিন্তু সেই সুযোগ এত তারাতারি হয়ে যাবে তা মামুনুল হক বুঝতে পারে নি। যখনই সে সুযোগ পেয়েছে তখনই আমার বাবা-মায়ের মধ্যে দূরত্ব তৈরী করেছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতেই পারে কিন্তু মামুনুল হক সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ভাঙন সৃষ্টি করেছে। এই ভাবে করে সে একটা পরিবারের খুশি-ভালোবাসা-আনন্দ-মিলমিশ পুরোপুরি ধ্বংস করে দিয়েছে। একই ভাবে মামুনুল হক যে কত পরিবারের-মানুষের সম্পর্ক ধ্বংস করেছে তার ঠিক নেই।

 

আমি বাংলাদেশের মানুষের কাছে আশা করবো এর যেন সঠিক বিচার হয়। আপনারা কারোর অন্ধ ভক্ত হয়েন না, কাউকে অন্ধ ভাবে বিশ্বাস করবেন না। কেননা সবারই মুখোশের আড়ালে একটা চেহারা থাকে। এই লোকটা আলেম নামধারী একটা মুখোশধারী জানোয়ার। এর মধ্যে কোন মনুষ্যত্ব নেই। সবসময় সুযোগের অপেক্ষায় থাকে কাকে কখন কিভাবে দূর্বল করা যাবে। 

 

প্রসঙ্গত, শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নারীসহ অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।


আরও খবর



বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২৯ লাখ ২৮ হাজার ছাড়ালো

প্রকাশিত:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৮৪০ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ৩ কোটি ১৮ লাখ

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ৫২ লাখ ৯৫ হাজার ৬২২ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯ লাখ ২৮ হাজার ৫৫৯ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১০ কোটি ৮৮ লাখ ৫৯ হাজার ৯১৭ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৮৪০ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ৩ কোটি ১৮ লাখ ২ হাজার ৭৭২ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লাখ ৭৫ হাজার ৪১৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৯৩৪ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়।

আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ২ হাজার ৭৮৩ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৪৬৭ জনের।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




‘অতি জরুরি’ মামলার শুনানি নেবেন হাইকোর্ট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে জনসাধারণের চলাচলের ওপর এক সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে সরকার। গত ৪ এপ্রিল এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

করোনার ঊর্ধ্বমুখী প্রভাবের মধ্যেও সীমিত আকারে চলমান আদালতের কার্যক্রমে শুধুমাত্র অতি জরুরি মামলার শুনানি নেবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রমের শুরুতে আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে আদালত বলেন, অতি জরুরি বিষয় ছাড়া অন্য আবেদন শোনা হবে না। প্রধান বিচারপতির গঠনবিধি আপনারা দেখেছেন। গঠনবিধি অনুসারে মামলাটি শুধুমাত্র জরুরি হলে হবে না, অতি জরুরি হতে হবে। শুধু মক্কেলের জন্য জরুরি বিষয়ে মামলা ফাইল করতে হবে, এটা এখন না। এটা সামনে পাবেন। তখন সে হিসেবে মেনশন করবেন।

প্রসঙ্গত, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে জনসাধারণের চলাচলের ওপর এক সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে সরকার। গত ৪ এপ্রিল এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

ওই প্রজ্ঞাপনের ধারাবাহিকতায় নিষেধাজ্ঞা চলাকালে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে ভার্চুয়ালি চারটি বেঞ্চ (তিনটি দ্বৈত ও একটি একক) এবং সপ্তাহে দুদিন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতের বিচারিক কার্যক্রম চলবে বলে বিজ্ঞপ্তি দেয় সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। পাশাপাশি দেশের অধস্তন আদালতসমূহের মধ্যে জেলা ও মহানগর প্রতি একজন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা জরুরি বিষয়ে বিচারকার্য পরিচালিত হবে বলেও কোর্ট প্রশাসন জানায়।


আরও খবর



অতিরিক্ত টমেটো খেয়ে ডেকে আনতে পারেন ভয়াবহ বিপদ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খাবারও, যতো পুষ্টিগুণে ভরপুরই হোক না কেনো তা অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে স্বাস্থ্যের অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে। ঠিক টমেটোও তাই। সবজি, সুপ বা সালাদ সর্বত্র মানানসই এই টমেটো। আর এ কারণেই হয়তো একটু বেশিই খাওয়া হয়ে থাকে টমেটো। নিয়মিত টমেটো খাওয়ার যেমন উপকার রয়েছে আবার অতিরিক্ত খাওয়ার ক্ষতিকর দিকও রয়েছে। এবার তাহলে ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক-

পেটের সমস্যা : টমেটো হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখে। তবে বেশি পরিমাণে খাওয়া হলে বিপরীতও হতে পারে। অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার ফলে পেট ফাঁপার সমস্যা হয়ে থাকে এবং অনেক সময় ডায়রিয়া পর্যন্ত হয়।

অ্যাসিড রিফ্লেক্স : প্রাকৃতিক এই সবজিতে প্রচুর পরিমাণ অ্যাসিড রয়েছে। কারো যদি অ্যাসিডের রিফ্লেক্স থাকে তাহলে টমেটো খুবই কম পরিমাণে খাওয়া উচিত। বেশি টমেটো খেলে পেটে অ্যাসিড হতে পারে।

কিডনিতে পাথরের সমস্যা : পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার কিডনিজনিত সমস্যার শিকার রোগীদের কম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। টমেটোয় থাকা অক্সালেট কিডনিতে পাথর তৈরির কাজ করে থাকে। কিডনিজনিত সমস্যা থাকলে টমেটো খাওয়ার ব্যাপারে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

রক্তচাপজনিত সমস্যা : কাঁচা টমেটোয় সোডিয়ামের পরিমাণ কম থাকে। কিন্তু টমেটো দিয়ে সুপ তৈরির সময় যে সকল ধাতুজনিত উপকরণ ব্যবহার করা হয় তা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। সোডিয়ামের পরিমাণ শরীরে বেশি হলে রক্তচাপ বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকে।

অ্যালার্জির সমস্যা : অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার ফলে অ্যালার্জি হতে পারে। একজিমা, ফুসকুড়ি, চুলকানি, গলা ব্যথা এবং মুখ ফোলাভাব হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এ কারণে যাদের অ্যালার্জিজনিত সমস্যা রয়েছে তাদের টমেটো না খাওয়াই ভালো।


আরও খবর



জয়পুরহাটে আত্মরক্ষার কৌশল ও আত্মবিশ্বাস উন্নয়নে প্রশিক্ষণ

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মার্চ ২০21 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জয়পুরহাট থেকে সুমন  কুমার সাহা

জয়পুরহাটে আত্মবিশ্বাসে আত্মরক্ষা শ্লোগানে মেয়েদের আত্মরক্ষা কৌশল ও আত্মবিশ্বাস উন্নয়ন শীর্ষক প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। সাত দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষণ পরিবেশবাদী যুব সংগঠণ গ্রিন ভয়েস বহ্নিশিখার উদ্যোগে বলীয়ান নারী এর আয়োজন করেছে। 

শনিবার বেলা ১২ টায় জয়পুরহাট স্টেডিয়াম মাঠে এ প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। এ প্রশিক্ষণ চলবে সাত দিনব্যাপী। প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেছেন জয়পুরহাট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম হক্কানী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জয়পুরহাট লাইব্রেরী ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজা চৌধুরী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোরশেদুল আলম লেবু, গ্রিন ভয়েস রাজশাহী বিভাগীয়  সমন্বয়ক রায়হান পারভেজ, গ্রিন ভয়েস বহ্নিশিখার জেলা শাখার  সমন্বয়ক খাদিজা মুন্নি প্রমুখ।

গ্রিন ভয়েস রাজশাহী বিভাগীয়  সমন্বয়ক রায়হান পারভেজ জানান, খুলনা জেলা থেকে প্রথম এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পর্যাযক্রমে এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম দেশের প্রতিটি জেলায় অনুষ্ঠিত হবে। তারই ধারাবাহিকতায় জয়পুরহাটে শুরু হয়েছে।


নিউজ ট্যাগ: জয়পুরহাট

আরও খবর



২৫ মার্চ রাতে আলোকসজ্জা করা যাবে না

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২৫ মার্চ গণহত্যা দিবসে রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত সারাদেশে প্রতীকী ব্ল্যাক আউট পালন করা হবে। তবে কেপিআই এবং জরুরি স্থাপনাগুলো এ কর্মসূচির আওতামুক্ত থাকবে।

এদিন রাতে সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি ভবন ও স্থাপনায় কোনো আলোকসজ্জা করা যাবে না।

আজ সোমবার (২২ মার্চ) সরকারি এক তথ্য বিবরণীতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ২৫ মার্চ রাতে সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি ভবন ও স্থাপনায় কোনো আলোকসজ্জা করা যাবে না। তবে ২৬ মার্চ সন্ধ্যা থেকে আলোকসজ্জা করা যাবে।

২৫ মার্চ গণহত্যা দিবসের জাতীয় কর্মসূচি বাস্তবায়নে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কর্মসূচিগুলো বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তথা সর্বসাধারণকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।


আরও খবর