Logo
শিরোনাম

মামুনুল হককে নিয়ে যা বললেন কথিত সেই স্ত্রী’র ছেলে (ভিডিও)

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১১২৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের কথিত সেই স্ত্রীর প্রথম ঘরের বড় ছেলে আব্দুর রহমান সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়ায় একটি বিবৃতি দিয়েছেন। ওই ভিডিও বক্তব্যে বলেছেন, আমার বাবা হাফেজ শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদুল্লাহ মামুনুল হককে নিজের প্রাণের চেয়েও ভালোবাসতো আর এই ভালোবাসার সুযোগ নিয়ে তিনি (মামুনুল হক) বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। কতবড় গাদ্দার হলে মামুনুল হক এটা করতে পাবে।

 

আমার বাবা-মায়ের মধ্যে যখন ডিভোর্স হয়নি তখন আমার বাবার অনুপস্থিতিতে মামুনুল হক একবার আমাদের বাসায় আসে, তখন আমার মা ছোট ভাইকে বুকের দুধ পান করাচ্ছিল। এই দৃশ্য দেখে মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল।

 

কিন্তু সেই সুযোগ এত তারাতারি হয়ে যাবে তা মামুনুল হক বুঝতে পারে নি। যখনই সে সুযোগ পেয়েছে তখনই আমার বাবা-মায়ের মধ্যে দূরত্ব তৈরী করেছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতেই পারে কিন্তু মামুনুল হক সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ভাঙন সৃষ্টি করেছে। এই ভাবে করে সে একটা পরিবারের খুশি-ভালোবাসা-আনন্দ-মিলমিশ পুরোপুরি ধ্বংস করে দিয়েছে। একই ভাবে মামুনুল হক যে কত পরিবারের-মানুষের সম্পর্ক ধ্বংস করেছে তার ঠিক নেই।

 

আমি বাংলাদেশের মানুষের কাছে আশা করবো এর যেন সঠিক বিচার হয়। আপনারা কারোর অন্ধ ভক্ত হয়েন না, কাউকে অন্ধ ভাবে বিশ্বাস করবেন না। কেননা সবারই মুখোশের আড়ালে একটা চেহারা থাকে। এই লোকটা আলেম নামধারী একটা মুখোশধারী জানোয়ার। এর মধ্যে কোন মনুষ্যত্ব নেই। সবসময় সুযোগের অপেক্ষায় থাকে কাকে কখন কিভাবে দূর্বল করা যাবে। 

 

প্রসঙ্গত, শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নারীসহ অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।


আরও খবর

দেশে ছড়িয়ে পড়ছে ভয়ংকর আইস

মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১




পুরনো ফোন দিয়ে চলে কোটি টাকার ব্যবসা

প্রকাশিত:রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সব মোবাইল ফোনেই সোনা থাকে। শুধু সোনাই নয়, রুপো, তামাও লাগে মোবাইল ফোন তৈরির ক্ষেত্রে। সোনা বিদ্যুতের সুপরিবাহী। সেই সঙ্গে এর ক্ষয় হয় না, মরচে ধরে না। এই কারণেই মোবাইল ফোনের ইন্টিগ্রেটেড সারকিট (আইসি) বোর্ডের ছোট্ট কানেক্টারগুলিতে সোনা ব্যবহৃত হয়। এটা ঠিক যে খুবই সামান্য সোনা থাকে। কিন্তু অনেক বাতিল ফোন থেকে অনেক সামান্য মিলে বড় পরিমাণে সোনা সংগ্রহ হয়। আর তা দিতে চলে কোটি কোটি টাকার কারবার।

সাধারণ মোবাইল ফোন থেকে স্মার্টফোন বা আইফোন সব তৈরিতেই লাগে সোনা। তার পরিমাণ আলাদা আলাদা। হিসেব বলছে, এক একটি ফোনে ৩৪ থেকে ৫০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত সোনা থাকে। একটি ফোনের হিসেবে সোনার পরমাণ সামান্যই। কিন্তু এখন যে হারে বর্জ্য মোবাইলের সংখ্যা বাড়ছে তাতে সংগৃহীত সোনার পরিমাণ অনেক।

আবর্জনা থেকে সোনার মতো দামী ধাতু বের করার ব্যবসা চলছে রমরমিয়ে। সেখানে টন টন আবর্জনা থেকে এক গ্রাম সোনা পাওয়া যায়। সেখানে একটি হিসেব বলছে, ৪১টি মোবাইল ফোন থেকেই ১ গ্রাম সোনা পাওয়া যায়। ভারতীয় মুদ্রায় এখন যার গড় মুল্য সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা। ওই হিসেবেই দেখা গিয়েছে, বিশ্বে প্রতি বছর বাতিল মোবাইল ফোন থেকে চার হাজার কোটি টাকার সোনা পাওয়া যায়।

মোবাইল ফোনে সোনা ব্যবহারের প্রধান কারণ এই ধাতু ভাল বিদ্যুৎ পরিবাহী। সোনা ছাড়া আর দুই ধাতু বিদ্যুতের সুপরিবাহী। রুপো এবং তামা। ফোনে সোনার কানেকটরগুলি ডিজিটাল ডাটা দ্রুত এবং যথাযথ স্থানান্তর করার জন্যও ব্যবহৃত হয়। মোবাইল ফোনের মত, সোনা কম্পিউটার ও ল্যাপটপের আইসিগুলিতেও ব্যবহৃত হয়। আর এই ভাবেই বাতিল মোবাইল, ল্যাপটপ ইত্যাদি দিয়ে চলে বড় আর্থিক অঙ্কের কারবার।

 

নিউজ ট্যাগ: পুরনো ফোন

আরও খবর



ছয় ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ছয় শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক মঞ্জুরুল কবির মঞ্জুকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

রায়পুরের হামছাদী কাজীরদীঘিরপাড় আলিম মাদ্রাসার বারান্দায় ছয় ছাত্রকে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে কাঁচি দিয়ে চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার রায়পুর থানা পুলিশ উপজেলার হামছাদি কাজীর দিঘীরপাড় আলিম মাদ্রাসা পরিদর্শন করে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এই ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবক মহলে সমালোচনার শিকার হন সেই অভিযুক্ত শিক্ষক।

জানা যায়, গত বুধবার ইংরেজি ক্লাস চলাকালে মাদ্রাসার শিক্ষক মঞ্জুরুল কবির ছয় শিক্ষার্থীকে ডেকে বারান্দায় নিয়ে যান। এরপর তিনি নিজেই ছয়জনের মাথার চুল এবড়ো-থেবড়োভাবে কেটে দেন। লজ্জায় তারা মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে যান।

নিজের পক্ষে সাফাই গেয়ে শিক্ষক মঞ্জুরুল কবির বলেন, দশম শ্রেণির ওই ছাত্ররা ক্লাসের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে আসছে। এজন্য তাদের অল্প করে চুল কেটে দেওয়া হয়েছে। বাকি চুল তারা সেলুনে কেটেছে।


আরও খবর



ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও ২০৮ জন হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ২০৮ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর ) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন ২০৮ জন। এর মধ্যে ঢাকাতে ১৭৩ জন এবং ঢাকার বাইরের সারাদেশে ভর্তি  হয়েছেন ৩৫ জন।

এতে আরও বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ৮৭৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৭১৬ জন এবং অন্যান্য বিভাগে বর্তমানে সর্বমোট ১৫৭ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

এবছর ১ জানুয়ারি থেকে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ১৯ হাজার ৫৪৪ জন। একই সময়ে তাদের মধ্য থেকে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৮ হাজার ৫৯৮ জন রোগী। এ যাবৎ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে ৭৩ জনের মৃত্যুর হয়েছে।


আরও খবর

আরও ১৭৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

করোনায় মৃত্যু কমেছে, শনাক্ত বেড়েছে

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




করোনায় আরও ২৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫৮৯

প্রকাশিত:শনিবার ০২ অক্টোবর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৮৯ জনের। যা সাড়ে চার মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে গত ১৭ মে ৬৯৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে করোনায় দেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৫৫৫ জনে। গতকাল শুক্রবার তার আগের ২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৮৯ জনের। যা সাড়ে চার মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে গত ১৭ মে ৬৯৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৫৭ হাজার ৩৪৭ জনে।

শনিবার (২ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ একজনের মৃত্যুর খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর ধীরে ধীরে করোনা আক্রান্তে মৃত্যু ও শনাক্তের হার বাড়ছে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর

আরও ১৭৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

করোনায় মৃত্যু কমেছে, শনাক্ত বেড়েছে

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




খালেদা জিয়া সুস্থ আছেন : ফখরুল

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, অনেকেই দেশনেত্রীর শারীরিক বিষয়ে জানতে চেয়েছেন। তার স্বাস্থ্যের সর্বশেষ অবস্থা সঠিকভাবে জানানোর জন্য আজকের এ সংবাদ সম্মেলন। আমি এটুকু বলতে চাই, আপনারা নিশ্চিত থাকুন দেশনেত্রী খালেদা জিয়া এখন একদম সুস্থ আছেন। কিছুক্ষণ আগে তার সঙ্গে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, তার ভাই কথা বলেছেন এবং আমাদের যে দুজন চিকিৎসক আমার দু-পাশে বসে আছেন তারা নিশ্চিত করেছেন যে তিনি অত্যন্ত সুস্থ আছেন। ভালো আছেন। তার কোনো রকম বিপদের কোনো সম্ভাবনা নেই।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন,  চিকিৎসকরা বার বার বলেছেন, তার অ্যাডভান্স চিকিৎসার জন্য এখানে (বাংলাদেশ) কোনো অ্যাডভান্স সেন্টার নেই। সেজন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে বাইরে নেওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের, আমরা এমন একটা দেশে বাস করি একটা সাধারণ মানুষেরও চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আছে। তার এ অধিকার সরকার দেয়নি। আমরা আবার বলছি, চিকিৎসকও বলেছেন, সি নিডস অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট ইন অ্যাডভান্স সেন্টার। সেজন্য আইনগতভাবে কোনো বাধা আছে বলে মনে করি না। কারণ তিনি জামিন পাওয়ার অধিকার রাখেন। কেন জামিন পাবেন না। এটা কোনো দয়া নয়। এটা একটা মিথ্যা মামলা তারপরও বলছি এই ধরনের মামলায় জামিন পাওয়ার অধিকার আছে।

এ সময় তার পাশে বসা ছিলেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসক টিমের সদস্য প্রফেসর ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন ও ডা. আল মামুন।


আরও খবর