Logo
শিরোনাম

মামুনুল হককে নিয়ে যা বললেন কথিত সেই স্ত্রী’র ছেলে (ভিডিও)

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৩৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের কথিত সেই স্ত্রীর প্রথম ঘরের বড় ছেলে আব্দুর রহমান সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়ায় একটি বিবৃতি দিয়েছেন। ওই ভিডিও বক্তব্যে বলেছেন, আমার বাবা হাফেজ শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদুল্লাহ মামুনুল হককে নিজের প্রাণের চেয়েও ভালোবাসতো আর এই ভালোবাসার সুযোগ নিয়ে তিনি (মামুনুল হক) বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। কতবড় গাদ্দার হলে মামুনুল হক এটা করতে পাবে।

 

আমার বাবা-মায়ের মধ্যে যখন ডিভোর্স হয়নি তখন আমার বাবার অনুপস্থিতিতে মামুনুল হক একবার আমাদের বাসায় আসে, তখন আমার মা ছোট ভাইকে বুকের দুধ পান করাচ্ছিল। এই দৃশ্য দেখে মামুনুল হক আমার মাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তখন আমার মা তাকে বাধা দেয় পরে মামুনুল হক ফিরে আসে কিন্তু তার মধ্যে তখন থেকেই কাম ভাব জেগে ওঠে, সে লোভ সামলাতে পারছিলনা, সে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল।

 

কিন্তু সেই সুযোগ এত তারাতারি হয়ে যাবে তা মামুনুল হক বুঝতে পারে নি। যখনই সে সুযোগ পেয়েছে তখনই আমার বাবা-মায়ের মধ্যে দূরত্ব তৈরী করেছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতেই পারে কিন্তু মামুনুল হক সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ভাঙন সৃষ্টি করেছে। এই ভাবে করে সে একটা পরিবারের খুশি-ভালোবাসা-আনন্দ-মিলমিশ পুরোপুরি ধ্বংস করে দিয়েছে। একই ভাবে মামুনুল হক যে কত পরিবারের-মানুষের সম্পর্ক ধ্বংস করেছে তার ঠিক নেই।

 

আমি বাংলাদেশের মানুষের কাছে আশা করবো এর যেন সঠিক বিচার হয়। আপনারা কারোর অন্ধ ভক্ত হয়েন না, কাউকে অন্ধ ভাবে বিশ্বাস করবেন না। কেননা সবারই মুখোশের আড়ালে একটা চেহারা থাকে। এই লোকটা আলেম নামধারী একটা মুখোশধারী জানোয়ার। এর মধ্যে কোন মনুষ্যত্ব নেই। সবসময় সুযোগের অপেক্ষায় থাকে কাকে কখন কিভাবে দূর্বল করা যাবে। 

 

প্রসঙ্গত, শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নারীসহ অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।


আরও খবর



কর্মক্ষেত্রে ফিরছে মানুষ, চাপ নেই দৌলতদিয়ায়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঈদুল ফিতরের ছুটি শেষে রাজধানী ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছেন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাধারণ মানুষ। এতে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ব্যক্তিগত যানবাহন ও যাত্রীবাহী পরিবহনের চাপ বেড়েছে। তবে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে যাত্রীদের কোনো দুর্ভোগ নেই। যে সকল যানবাহন ফেরি পারাপারের জন্য দৌলতদিয়া ঘাটে আসছে সেগুলো সহজেই নদী পার হয়ে গন্তব্যে যেতে পারছে।

বৃহস্পতিবার  (৫ মে) সকালে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দেড় কিলোমিটার পর্যন্ত শুধু যাত্রীবাহী বাসের সারি রয়েছে। প্রতিটি যাত্রীবাহী বাস ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষার পর ফেরিতে উঠতে পারছে।

বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ জানায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ২০টি ছোট বড় ফেরি ও ১৭টি লঞ্চ চলাচল করছে। যশোর থেকে আসা আরিফুর বলেন, ঘাটে যানজট থাকবে এটা ভেবেই আগে বাড়ি থেকে রওনা দিয়েছি। তবে ঘাট এলাকায় এসে দেখি চিত্র ভিন্ন। এবারের ঈদ যাত্রাটা বেশ স্বস্তির হয়েছে।

মাগুরা থেকে আসা মেহেরিন বলেন, রোববার থেকে ক্লাস শুরু। শুক্রবার কিংবা শনিবার প্রচুর যানজট হবে ভেবে আগেই ফিরছি ঢাকায়। তবে আজ এতটা ফাঁকা পাবো ভাবতে পারি নাই।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান বলেন, এবার ঈদ যাত্রা স্বস্তির করতে বিআইডব্লিউটিসির উদ্যোগ আপনারা দেখেছেন। ঈদ যাত্রাও স্বস্তির হয়েছে। আশা করছি এখন কর্মক্ষেত্রে ফেরা মানুষের ফিরতি যাত্রাও স্বস্তিরই হবে।


আরও খবর



নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করলো মাউশি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ ওঠায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে লিখিত পরীক্ষা (এমসিকিউ) বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) দিনগত রাতে মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে পরীক্ষা বাতিলের সুনির্দিষ্ট কারণের কথা উল্লেখ করা না হলেও এতে বলা হয়েছে, ১৩ মে অনুষ্ঠিত অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের লিখিত পরীক্ষা (এমসিকিউ) অনিবার্য কারণে বাতিল করা হলো।

এদিকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে মাউশির কোনো চক্র জড়িত থাকলে এর উৎস খুঁজে বের করার দিয়েছেন মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।

গত শুক্রবার (১৩ মে) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে নিয়োগের জন্য ঢাকার ৬১টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৫১৩টি পদের বিপরীতে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১ লাখ ৮৩ হাজার।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে পরীক্ষার দিন থেকে পরবর্তী কয়েকদিনে একাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারদের মধ্যে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের এক কর্মকর্তাও রয়েছেন।


আরও খবর



মানবিক স্বাস্থ্য সংস্থায় অফিসার পদে চাকরির সুযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মানবিক স্বাস্থ্য সংস্থায় অফিসার (ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস) পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১০ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: মানবিক স্বাস্থ্য সংস্থা

বিভাগের নাম: ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস

পদের নাম: অফিসার

পদসংখ্যা: ০১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক (কমার্স)

অভিজ্ঞতা: ০২ বছর

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ

বয়স: ৩২ বছর

কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১০ মে ২০২২

নিউজ ট্যাগ: চাকুরীর খবর

আরও খবর

পদ্মা ব্যাংকে চাকরির সুযোগ

শুক্রবার ১৩ মে ২০২২




বাবার কোলে শিশুকে হত্যা: অস্ত্রের যোগানদাতা গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হাজীপুরে বাবার কোলে শিশু তাসপিয়া আক্তার জান্নাতকে (৩) গুলি করে হত্যার ঘটনায় অস্ত্রের যোগানদাতাকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গ্রেপ্তারকৃত সাকায়েত উল্যাহ জুয়েল (২৯) উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষীনারায়ণপুর গ্রামের বজু মিকার বাড়ির মৃত হাবিব উল্যার ছেলে।

রোববার (২৪ এপ্রিল) দুপুর পৌনে ১টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) শহীদুল ইসলাম। এর আগে শনিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে বেগমগঞ্জের হাজীপুর থেকে ডিবির (ওসি) সাইফুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো.সবজেল হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এসপি আরও জানান, শিশু তাসপিয়া হত্যা মামলার প্রধান আসামি মামুন উদ্দিন ওরফে রিমন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। ওই জবানবন্দিতে প্রকাশিত আসামি সাকায়েত উল্যাহ জুয়েল। জবানবন্দিতে রিমন জানায় শিশু তাসপিয়া হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রের যোগানদাতা জুয়েল। পরে গ্রেপ্তারকৃত জুয়েলের তথ্য অনুযায়ী উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের সোলাইমানের পরিত্যক্ত বসতঘরে শনিবার দিবাগত রাত ২টা ১৫ মিনিটের দিকে অভিযান চালিয়ে দেশীয় তৈরী দুটি কিরিচ ও একটি রামদা উদ্ধার করা হয়। রাত পৌনে ৩টার দিকে একই মামলার পলাতক আসামি পলাতক আসামি বাদশার বসত ঘর থেকে আসামি জুয়েলের দেওয়া তথ্য মতে একটি পাইপগান ও দুই রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা ডিবি পুলিশ। এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত জুয়েল ও পলাতক আসামি বাদশার বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় অস্ত্র আইনে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

এ মামলার প্রধান আসামি রিমন বেগমগঞ্জ উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়ণপুর গ্রামের মোমিন উল্যাহর ছেলে। শিশু তাসপিয়া হত্যা মামলা ছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ ও সুবর্ণচরের চরজব্বর থানায় মারামারি, হত্যাচেষ্টা ও অস্ত্র আইনে আরও নয়টি মামলা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (৯ এপ্রিল) বিকেলে শিশু তাসপিয়া আক্তারকে চিপস-জুস কিনে দিতে বেগমগঞ্জ উপজেলার হাজীপুর মালেকার বাপের দোকান এলাকায় যান প্রবাসী আবু জাহের। তিনি তাঁর ভাগনে আবদুল্লা আল-মামুনের দোকানে কথা বলছিলেন। এমন সময় পূর্ববিরোধের জের ধরে রিমন কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে সেখানে হামলা চালান। এ সময় জাহের তাঁর মেয়েকে কোলে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি চালান রিমন। এতে শিশু তাসপিয়ার মাথা ও মুখমণ্ডল গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যায় এবং তার বাবা আবু জাহেরেরও চোখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলি লাগে। গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকায় নেওয়ার পথে কুমিল্লায় মারা যায় তাসপিয়া।

এ ঘটনায় তাসপিয়ার খালু হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে বুধবার বেগমগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় মো. রিমনসহ ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পুলিশ তদন্ত করছে। এ মামলায় পুলিশ, র‌্যাব ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এ পর্যন্ত নয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

নিউজ ট্যাগ: নোয়াখালী ডিবি

আরও খবর



নিষেধাজ্ঞার মুখে পুতিনের গার্লফ্রেন্ড এলিনা

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের 'কথিত' গার্লফ্রেন্ড হিসেবে পরিচিত ৩৮ বছর বয়সী সাবেক জিমন্যাস্ট আলিনা কাবায়েভা। তার ওপর এবার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। শুক্রবার (৬ মে) বিবিসির লাইভ প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রস্তাবিত নিষেধাজ্ঞার ষষ্ঠ প্যাকেজ তালিকায় আলিনা কাবায়েভার নাম যুক্ত করা হয়েছে। 

পুতিনের ব্যক্তিগত জীবন কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে আবদ্ধ। তবে বহুদিন থেকে জল্পনা চাউর হয়েছে আলিনা কাবায়েভা পুতিনের প্রেমিকা। যদিও প্রাথমিকভাবে পুতিন এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন। কিন্তু রিপোর্টে বলা হয়েছে, তিনি তার (পুতিন) সন্তানের জন্ম দিয়েছেন।

দুটি সূত্র ব্রাসেলসে বিবিসিকে জানিয়েছে, আলিনা কাবায়েভা ইউরোপিয়ান কমিশনের নিষেধাজ্ঞার তালিকায় আছে। রাশিয়ার ন্যাশনাল মিডিয়া গ্রুপের প্রধান হিসেবে আলিনা কাবায়েভার যে ভূমিকা এ কারণে তার ওপর এই নিষেধাজ্ঞা।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র পুতিনের প্রথম বিয়ের দুই কন্যার সম্পদকে লক্ষ্যবস্তু করেছে। এই দুইজনের ওপর নিষেধাজ্ঞাও দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর