Logo
শিরোনাম

মিনায় যাচ্ছেন হাজিরা, পবিত্র হজ সোমবার

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

 মাত্র ৬০ হাজার হজযাত্রীর পদচারণায় মিনার মাঠে শুরু হয়েছে এ বছরের পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা। আর হজ অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল সোমবার। মহামারি করোনার কারণে দীর্ঘ ৯০ বছরের ইতিহাসে পর পর দ্বিতীয়বার সৌদি আরবের বাইরের কোন দেশ থেকে হজে অংশগ্রহণ করতে পারছেন না কেউ।

সৌদি আরবে হিজরি মাস গণনা অনুযায়ী আজ ৮ জিলহজ। মক্কার অদূরে মিনার তাবুতে হাজীদের অবস্থানের দিন। আগামীকাল ৯ জিলহজ সোমবার মিনা থেকে গিয়ে আরাফাতের ময়দানে অবস্থানের দিন অর্থাৎ হজের দিন। মিনা থেকে হাজীরা আরাফাতের ময়দানে গিয়ে অবস্থান নেবেন। ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক ৯ জিলহজ ভোর থেকে সন্ধ্যা আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করার নামই হজ। আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করা হজের অন্যতম ফরজ। এখানে কেউ অবস্থান না করলে তার হজ আদায় হবে না।

মিনার মাঠে প্রতিটি খিমায় বা তাঁবুতে আগে যেখানে ৮/১০ জন অবস্থান করতেন, এবার সেখানে ৩ থেকে বড়জোর ৫ জন অবস্থান করার সুযোগ পাবেন।

এবার হজে অংশ নিতে আবেদন জমা পড়েছিল ৫ লাখ ৫৮ হাজার। আর এর মধ্য থেকে সুযোগ পেয়েছেন মাত্র ৬০ হাজার মুসল্লি। হজের অনুমতি পাওয়া সবাই কোভিড-১৯ টিকার দুটি ডোজই নিয়েছেন। বড় ধরনের স্বাস্থ্য জটিলতা নেই-এমন মুসল্লিরা- সুযোগ পেয়েছেন তাদের সবার বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছর পর্যন্ত।

গত কয়েক বছর ধরে বিশ্বের ১৬০টির বেশি দেশের ২০ লাখ মুসলিম হজ পালন করেছেন। গত বছর থেকে সে চিত্র পাল্টে গেছে। এবার বিভিন্ন স্থানে হাজীদের সেবা দিতে ৪৫টি স্ট্রোক সেন্টার থাকবে। জাবালে রহমত এলাকায় ২৩টি ও মিনা প্রান্তরে থাকবে ২২টি। এছাড়াও ৪২টি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র থাকবে। হজের স্থানগুলোতে চিকিৎসাসেবা দিতে কাজ করবে ৩২টি চিকিৎসক দল ও ৩৬টি এ্যাম্বুলেন্স।



আরও খবর

পবিত্র ঈদুল আজহা আজ

বুধবার ২১ জুলাই 20২১




বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়ালো সাড়ে ৪১ লাখ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮ হাজার ৭৭২ জন। এ নিয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪১ লাখ ৫০ হাজার ৮৫৯ জনে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৬২৮ জন। সবমিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ কোটি ৩৩ লাখ ৭০ হাজার ১৮৩ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ কোটি ৫৭ লাখ ১১ হাজার ৪১৮ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে এই তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫২ লাখ ১৩ হাজার ৫৯৪ জন আর মারা গেছেন ৬ লাখ ২৬ হাজার ১৭২ জন।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১২ লাখ ২৯ হাজার ৭০৪ জনে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ১৯ হাজার ৫০২ জনের।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ১ কোটি ৯৫ লাখ ২৪ হাজার ৯২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৪৭ হাজার ১৩৪ জনের।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।


আরও খবর



ঠাকুরগাঁওয়ে বাবা-মাকে পিটিয়ে মাঠে ফেলে রাখল ছেলে

প্রকাশিত:রবিবার ১১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
Image

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

জমিসংক্রান্ত বিরোধে ঠাকুরগাঁওয়ে বড় ছেলে কফিল উদ্দিনের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ বাবা আজিম উদ্দীন (৯০) ও মা কুলসুল বেগমকে (৭০) বেধড়ক মারপিটের অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ অভিযোগ করছেন বৃদ্ধ ওই বাবা-মা।

শুক্রবার (০৯ জুলাই) ঘটনাটি ঘটে ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জ উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নে দেহানাগড় ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিজের বড় ছেলে কফিল উদ্দিন, তার বউ মালেকা এবং ছেলে মানিক ও মুক্তার নামে এমন অভিযোগ করছেন বৃদ্ধ বাবা-মা। যদিও অভিযোগের কথাটি অস্বীকার করছেন কফিল উদ্দিন।

ওই দম্পতির ছোট ছেলে রফিক ইসলাম মোবাইল ফোনে বলেন, কিছু দিন ধরেই বাবা-মায়ের সঙ্গে বড় ভাইয়ের জমি নিয়ে সমস্যা চলছে। শুক্রবার সকালে বড় ভাই জোড় করে জমি দখল করতে আসলে বাবা-মা বাধা দিতে গেলে তাদের মারপিট করে চলে যায় ভাই।

তিনি আরও বলেন, জমির সমস্যা আলাদা বিষয়। কিন্তু বাবা-মাকে এভাবে মারবে এটা কখনো ভাবী নাই। আমার বড় ভাই, ভাবি ও তাদের ছেলে সবাই বাবা-মাকে পিটিয়ে মাঠে ফেলে রেখেছে। আমি বাবা-মায়ের চিৎকার শুনে গিয়ে দেখি তারা পড়ে আছে। আমার ছেলে বাধা দিতে গেলে তারা তাকেও মারপিট করে চলে যায়।

তবে অভিযোগের কথা অস্বীকার করে কফিল উদ্দিন বলেন, সকালের দিকে জমিতে আমি রোপা লাগাতে যাই। এ সময় আমার বাবা-মা হঠাৎ করেই জমিতে এসে গড়াগড়ি শুরু করে। পেছন দিক দিয়ে আমার ছোট ভাই রফিক ও তার বউ আমাদের ওপর চাড়াও হয়।

তিনি আরও বলেন, তারা আমাকে অনেক মারধর করেছে, আমার ছেলেকেও মারছে। আমার মাথায় সেলাই পড়েছে। আমরা নিজেরাই চিকিৎসাধীন রয়েছি। এখন মিথ্যা কথা বলছে, আমি নাকি আমার বাবা-মাকে মারছি।

হাজীপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বলেন, তাদের পরিবারে মাঝে জমি নিয়ে একটা সমস্যা রয়েছে। আমি তাদের বলেছিলাম পারিবারিকভাবে বসে এটার একটা সমাধান করে দেওয়ার। কিন্তু করেনার কারণে আর বসা হয়নি। যদি কফিল তার বাবা-মাকে মারধর করে থাকে তাহলে এটি সে ভুল করেছে।

ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার রায় বলেন, জমি নিয়ে দুই ভাইয়ের মারামারি হয়েছে। দুই পক্ষের লোকজনেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ সময় বাবা-মা এক ছেলের পক্ষ নিতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।


আরও খবর



কারাগারে রফিকুলের জুম মিটিং: ১৩ কারারক্ষীর নামে মামলা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ জুলাই 2০২1 | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কারাবন্দি অবস্থায় হাসপাতালে থেকে ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমিন জুম মিটিং করার ঘটনায় ১৩ কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে। এছাড়া সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে চার কারারক্ষীকে।

শুক্রবার (২ জুলাই) সন্ধ্যায় কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোমিনুর রহমান মামুন জানান, এই কারারক্ষীরা বিভিন্ন সময়ে বিএসএমএমইউর প্রিজন সেলে ডেসটিনির পরিচালকের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিল। এজন্য তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ১৩ কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা ও চার কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ ঘটনায় যেহেতু অভিযোগ উঠেছে, এজন্য ঢাকা জেলার ডিআইজি প্রিজন তহিদুল ইসলামকে প্রধান করে একটি তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সাত কার্যদিবসের তারা রিপোর্ট দেবেন। পরবর্তীসময়ে রিপোর্টের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাময়িক বরখাস্ত:

১) প্রধান কারারক্ষী নম্বর- ১১৫৫১- মো. ইউনুস আলী মোল্লা।

২) প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৪৭৪- মীর বদিউজ্জামান। 

৩) প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৪৪৮- মো. আব্দুস সালাম।

৪) প্রধান কারারক্ষী নম্বর- ১১৫২৪- মো. আনোয়ার হোসেন।

বিভাগীয় মামলা:

১) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর- ১২০১৮- মো. জসিম উদ্দিন।

২) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১২০০১- সাইদুল হক খান

৩) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৬১৬- মো. বিল্লাল হোসেন।

৪) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৯৭৫-ইব্রাহিম খলিল

৫) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৯৮৭- মো. বরকত উল্লাহ।

৬) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১২১২১- মো. এনামুল হক।

৭) সহ-প্রধান কারারক্ষী নম্বর-১১৬৩২- মো. সরোয়ার হোসেন।

বিভাগীয় মামলা:

১) কারারক্ষী নম্বর-১২৫৩৬- মোজাম্মেল হক।

২) কারারক্ষী নম্বর-১৪৯৭৪-জাহিদুল ইসলাম।

৩) কারারক্ষী নম্বর-২২১৫৯-আমির হোসেন।

৪) কারারক্ষী নম্বর-১২৩৮২-কামরুল ইসলাম।

৫) কারারক্ষী নম্বর-১৫০৩৫-শাকিল মিয়া।

৬) নবীন কারারক্ষী-আব্দুল আলীম।রেলে কোরবানির পশু পরিবহনে কিলোমিটার প্রতি মাত্র ২০ টাকা খরচ হবে। এছাড়া ব্রডগেজের একটি ওয়াগনে ২০টি গরু পরিবহন করা যাবে বলে সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।


আরও খবর



টাঙ্গাইলে অ্যাম্বুলেন্স-পিকআপ সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইল থেকে শরিফুল ইমলাম

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের কালিহাতীতে অ্যাম্বুলেন্স ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫ জন হয়েছে।

শনিবার (৩ জুলাই) সকালে উপজেলার হাতিয়া নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, অ্যাম্বুলেন্সচালক সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার চালা গ্রামের আল মামুনের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৯), চালকের সহকারী ও সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার রানীনগর গ্রামের রাজ্জাক মণ্ডলের ছেলে জুয়েল (২৮), ক্যান্সার আক্রান্ত চট্টগ্রাম ইপিজেডের ত্রিপোর্ট এলাকার মোকসেদের স্ত্রী ফরিদা (৩৬), তার মেয়ে মারিয়া আক্তার (১৫), একই এলাকার ইলিয়াসের স্ত্রী ফেরদৌসী বেগম (৪০)।

আহতরা হলেন, গাজীপুর জেলার বোর্ড বাজার এলাকার হারেজ আলী, গাজীপুরের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে বাদশা, রহিস উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান, চট্টগ্রামের মাহবুব আলমের ছেলে মারুফ চট্টগ্রামের মোরশেদ আলমের মেয়ে মাহি।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ওসি শাহিদুল ইসলাম জানান, ক্যান্সারের রোগী নিয়ে উত্তরবঙ্গের দিকে যাওয়া অ্যাম্বুলেন্সটিকে ঢাকাগামী মাছ বহনকারী পিকআপটি ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৩ জন নিহত হয়। আহত হয় আরও ৭জন। পরে আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর পর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুইজনের মৃত্যু হয়।

ওসি আরও জানান, দুর্ঘটনা কবলিত পরিবহন ২টি মহাসড়ক থেকে সরানো হয়েছে। নিহতদের পরিচয় শনাক্ত হওয়ার পর তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর



জীবিকার আগে জীবনের সুরক্ষা: কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল বলেন, করোনার সংক্রমণ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় পৌঁছে যাওয়ায় জনগণের সুরক্ষায় শেখ হাসিনা সরকার বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে কঠোর লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

অসহায়, কর্মহীন মানুষের জন্য সরকারের উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারি ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এবং সামর্থ্যবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

দেশে নানা দুর্যোগে এবং সঙ্কটে প্রধানমন্ত্রী দক্ষতার সাথে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, তার সিদ্ধান্ত জনগণের কল্যাণে নিবেদিত। গত কয়েকদিনে করোনায় ধারাবাহিকভাবে শতাধিক মৃত্যু এবং উচ্চমাত্রায় সংক্রমণ ভয়ানক অবস্থার ইঙ্গিত দিচ্ছে, এমন অবস্থায় সচেতনতা ও সতর্কতার সর্বোচ্চ ডিগ্রি অনুসরণ করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই । জীবিকার আগে জীবনের সুরক্ষা, অতীতে আমরা জাতি হিসেবে কখনো কখনো কঠিন সময় অতিক্রম করেছি ৷ শেখ হাসিনার মানবিক ও দক্ষ নেতৃত্বে এ কঠিন পরীক্ষায়ও উত্তীর্ণ হবো ইনশাআল্লাহ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশা প্রকাশ করে বলেন, এ আঁধার কেটে যাবে, সুদিন আসবে তবে তার আগে ঘরে ঘরে সতর্কতার দুর্গ গড়ে তুলতে হবে। যে কোনো সঙ্কট উত্তরণে প্রয়োজন ধৈর্য্যসহকারে ঐকবদ্ধ থাকা ৷ সবাইকে ঐক্যের মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে স্বাস্থ্য সচেতনতার মধ্য দিয়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা করার আহবান জানাই ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জীবনের সুরক্ষার অনিবার্য প্রয়োজনেই এ লকডাউন। লকডাউনে অনেক অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষ সঙ্কটে পড়েছে, কিন্তু সরকার এই বিষয়ে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে ৷ কোনো অসহায় মানুষ যাতে কষ্ট না পায়, অভুক্ত না থাকে, এজন্য শেখ হাসিনা সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছেন। ত্রাণ সামগ্রী দিতে গিয়ে যাতে নিম্ন আয় ও ভাসমান মানুষ কোনোভাবেই  বাদ না পড়ে এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও দলের নেতাকর্মীদের যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়ার আহবান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন,করোনা কাউকে ছাড় দেয় না, কোনো শ্রেণিভেদ মানে না তাই দলমত নির্বিশেষে সবাইকে করোনা মোকাবিলা করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।


আরও খবর