Logo
শিরোনাম

মিয়ানমারে ফের সহিংস হচ্ছে বিক্ষোভ

প্রকাশিত:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মিয়ানমারে সামরিক সরকার ক্ষমতায় আসার পর গণতন্ত্র পুনরুজ্জীবিত করার বিক্ষোভে প্রথম এক তরুণীর মৃত্যুর পর এবার আরও দুই জন নিহত হয়েছেন। এছাড়াও পুলিশের গুলিতে আহত হয়েছেন ২০ জন। দেশটিতে বিক্ষোভ যেন আরও সহিংস হচ্ছে। দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালায় সামরিক সরকার বিরোধী বিক্ষোভে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য তাদের ওপর পুলিশ গুলি চালালে এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছ। জানানো হয়েছে, পুলিশের গুলিতে দুই জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন। এর আগে দেশটিতে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ শুরুর পর শুক্রবার প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

মিয়ানমারে সামরিক সরকারের অভ্যুত্থানের দাবিতে বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ করছেন। ইয়াঙ্গুন শহরে সবথেকে বড় বিক্ষোভ হয়েছে। বিক্ষোভে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী ছাড়াও পরিবহনশ্রমিক ও অন্যান্য শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে অং সান সূচির সরকারকে আটক করে সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করে নেয়। আর তারপর থেকে দেশটিতে গণতন্ত্র রক্ষায় আন্দোলন ও বিক্ষোভ হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: মিয়ানমার
Share

আরও খবর



অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত, অচল মিয়ানমার

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মিয়ানমারে সামরিক জান্তাদের হুমকির পরেও অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। এরই মধ্যে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দেশটিতে সাধারণ ধর্মঘটে ব্যবসা-বাণিজ্য সব বন্ধ হয়ে গেছে। স্থানীয় দোকানগুলো বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক চেইনগুলোও সোমবার ঘোষণা দিয়েছে, নিজেদের ব্যবসা বন্ধ রাখবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, অভ্যুত্থানকারীদের একই সঙ্গে অং সান সু চির মুক্তি দাবিতে সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। কর্তৃপক্ষের হুমকি এড়িয়ে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমেছেন। এ থেকে যে কোনো সময় আরও প্রাণহানি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিক্ষোভ ঠেকাতে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে শনিবার দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে বিক্ষোভে তিনজন নিহত আছেন। তবে একজন পুলিশ সদস্যও বিক্ষোভে আহত হয়ে মারা গেছেন বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী।

এদিকে শনিবার দুজনের মৃত্যুও বিক্ষোভকারীদের পেছনে ফেরাতে পারেনি। এ দিন ইয়াঙ্গুনে যেমন তারা জড়ো হয়েছিলেন, তার চেয়ে আরও বেশি জড়ো হয়েছেন রোববার। সোমবার এর চেয়েও বেশি মানুষ অংশ নিয়েছেন ওই বিক্ষোভে।

নিউজ ট্যাগ: অচল মিয়ানমার
Share

আরও খবর



রাঙামটিতে ৩ হাজার গাঁজা গাছের চারাসহ আটক-১

প্রকাশিত:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাঙামাটি থেকে শহিদুল ইসলাম হৃদয়

রাঙামাটির দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে নেশাজাতীয় দ্রব্যাদি উৎপাদনের দিকে ধাবিত হচ্ছে স্থানীয় পাহাড়িদের একটি অংশ। আঞ্চলিকদলগুলোর সশস্ত্র তৎপরতার রসদ জোগানোর লক্ষ্যে স্থানীয় পাহাড়ি বাসিন্দাদের দিয়ে পতিত পাহাড়ি জমিতে গাঁজা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের মাদক দ্রব্যাদির চাষাবাদ করানো হচ্ছে।

পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির কিছু অংশে এতোদিন এসব কর্মকাণ্ড চলে আসলেও সম্প্রতি পার্বত্য রাঙামাটির বিভিন্ন দূর্গমাঞ্চলেও এই ধরনের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে আঞ্চলিকদলগুলোর মদদপুষ্ট একটি চক্র।

পাহাড়ে তৈরিকৃত এসব মাদক ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রয় করা হয়। সম্প্রতি স্থানীয় সচেতন বাসিন্দাদের কাছ থেকে বিষয়টি নজরে আসে বিশেষায়িত এলিট ফোর্স র‌্যাব-৭ এর উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের।

সংস্থাটির মিডিয়া উইং কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গোপন সংবাদের মাধ্যমে র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম কর্তৃপক্ষ জানতে পারে যে, পার্বত্য রাঙামাটি জেলার কাউখালী থানাধীন বর্মাছড়ি মুখপাড়া এলাকায় কতিপয় ব্যক্তি আবাদী জমিতে নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য গাঁজা গাছ চাষাবাদ করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) র‌্যাব-৭ এর একটি চৌকষ আভিযানিক দল পার্বত্য রাঙামাটি জেলার কাউখালী থানাধীন ফটিকছড়ি ইউপির বর্মাছড়ি মুখপাড়া এলাকার ফটিকছড়ি খালের পাশে পৌঁছা মাত্রই  র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামি ডালিম চাকমা (৪০), পিতা- মনমোহন চাকমা, সাং-বর্মাছড়ি মুখপাড়া, থানা- কাউখালী, জেলা- রাঙামাটিকে আটক করে।

পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তার দেখানো ও শনাক্তমতে তারই চাষকৃত ০৩ টি আবাদি জমিতে (আনুমানিক ০১ বিঘা) নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য গাঁজা গাছ চাষাবাদ অবস্থায় পাওয়া যায়। পরবর্তীতে উক্ত আবাদী জমিতে অভিযান পরিচালনা করে আনুমানিক ০৩ হাজার এর অধিক গাঁজার গাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত গাঁজা গাছ হতে কিছু আলামত রেখে অবশিষ্ট গাঁজার গাছ ধ্বংস করা হয়। আটককৃত আসামীকে কাউখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাগেছে।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাশকুর রহমান জানিয়েছেন, সমতল ভূমির পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলেও সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারের লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম। এই সংস্থাটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃঙ্খলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। অস্ত্রধারী সস্ত্রাসী, ডাকাত, ধর্ষক, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, মাদক উদ্ধার, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান র‌্যাব।


Share

আরও খবর



ভারত-পাকিস্তানকে সত্যিকারের বন্ধু হিসেবে দেখতে চাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মার্চ 2০২1 | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারত ও পাকিস্তানকে সত্যিকারের বন্ধু হিসেবে দেখাটা নিজের স্বপ্ন বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানি মানবাধিকার কর্মী ও নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দুর প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার জয়পুর সাহিত্য উৎসবে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দেন নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী মালালা।

মালালা ভারতীয়দের উদ্দেশে বলেন, আপনারা ভারতীয়, আমি পাকিস্তানি। আমরা আমাদের মতো ভালো আছি। তাহলে এতো বিদ্বেষ কেন? সীমান্ত, বিভাজন এবং বিভাজনের মাধ্যমে আলাদা করে জয় করা এসব পুরনো দর্শন এখন আর কাজ করে না।

তিনি আরও বলেন, ভারত ও পাকিস্তানের আসল শত্রু হল দারিদ্র, বৈষম্য ও অসাম্য। নিজেদের মধ্যে লড়াই না করে দুই দেশের উচিত এই শত্রুগুলোর বিরুদ্ধে যৌথভাবে লড়াই করা। ভারত ও পাকিস্তানকে একে অপরের সত্যিকারের বন্ধু হিসেবে দেখতে চাই আমি।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হন মালালা ইউসুফজই। সেই ঘটনায় সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। তখন মালালা ছিলেন স্কুলছাত্রী।

নিউজ ট্যাগ: মালালা ইউসুফজাই
Share

আরও খবর



শোক প্রকাশ করেছেন লিওনেল মেসি

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রোনালদিনহোর মায়ের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্রাজিল কিংবদন্তি রোনালদিনহোর মায়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন লিওনেল মেসি। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রায় তিন মাস হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন বিশ্বকাপ জয়ী তারকার মা দোনা মিগুয়েলিনা। অবশেষে মারা যান তিনি।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ব্রাজিলের পোর্তো অ্যালেগ্রে শহরের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি।

প্রিয় বন্ধুর মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে স্টোরি শেয়ার করেছেন মেসি।

ছয়বারের ব্যালন ডি অর জয়ী লিখেছেন, রোনি, আমি নির্বাক। বিশ্বাসই হচ্ছে না। এই শোক সহ্য করার শক্তি হিসেবে পাশে আছি। সমবেদনা জানাই পরিবারের প্রতি। তোমার এই ক্ষতিতে খারাপ লাগছে। শান্তিতে চিরনিদ্রায় শায়িত হোন তিনি।

সম্প্রতি বেশ ঝড় ঝাপটা যাচ্ছে মেসির সাবেক বার্সা সতীর্থ রোনালদিনহোর উপর দিয়ে। জাল পাসপোর্ট দিয়ে প্যারাগুয়েতে প্রবেশ করায় করোনাকালীন প্রায় পুরোটা সময়ই তিনি দেশটির কারাগারে ছিলেন।

Share

আরও খবর



পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদ সেনা কর্মকর্তাদের শ্রদ্ধা নিবেদন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শহীদ সেনা কর্মকর্তাদের স্মৃতিফলকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। সকালে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তাদের সামরিক সচিব। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, তিন বাহিনীর প্রধান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব ও বিজিবি মহাপরিচালক শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয় আনুষ্ঠানিকতা। শ্রদ্ধা নিবেদন করতে সবার জন্য খুলে দেয়া হয় স্মৃতিফলক।

শহীদ পরিবারের সদস্যরা তাদের স্বজনদের কবরের পাশে দাঁড়িয়ে চোখের জল ফেলেন। পরে বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ কয়েকটি রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

Share

আরও খবর