Logo
শিরোনাম

মসজিদসহ সব উপাসনালয়ে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৯১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়ায় দেশের সব মসজিদে জুমা ও ৫ ওয়াক্তের নামাজের আগে-পরে সভা-সমাবেশে নিষিদ্ধ করেছে সরকার। পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়েও প্রার্থনার আগে-পরে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে এই নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘনকারীরভ বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল)  ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. সাখাওয়াৎ হোসেন স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এই আদেশ জারি করা হয়।

এতে বলা হয়েছে, করোনার সংক্রমণ রোধে গণজমায়েত এড়িয়ে নিম্নবর্ণিত শর্ত ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুসল্লিদের মসজিদে নামাজ আদায় করতে হবে। একইসঙ্গ উপাসনালয়গুলোতেও এসব শর্ত মেনে প্রার্থনা আদায় করতে বলা হয়েছে।

শর্তগুলো হলো:

১।  জুমা, অন্যান্য ওয়াক্তের নামাজ ও প্রার্থনার আগে-পরে মসজিদ ও অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে কোনো সভা ও সমাবেশ করা যাবে না।

২।  মসজিদে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে তারাবিসহ অন্যান্য নামাজ আদায় করতে হবে। অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে প্রার্থনা করতে হবে।

৩। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ২৯ মার্চের প্রজ্ঞাপন ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৪ এপ্রিলের নির্দেশনা অনুযায়ী ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে ৫ এপ্রিল জারি করা নির্দেশনাগুলো সবাইকে মেনে চলতে হবে।

৪। উল্লিখিত নির্দেশনাগুলো লঙ্ঘিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্থানীয় প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী  ও সংশ্লিষ্ট মসজিদসহ অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ের পরিচালনা কমিটি এসব নির্দেশনা বাস্তবায়ন করবে।


আরও খবর



শেখ হাসিনা সরকারই দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছে : রেজাউল করিম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, শেখ হাসিনা সরকারই দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছে। অতীতে বিচারহীনতার সংস্কৃতিতে দেশ নিমজ্জিত ছিল। একসময় অপরাধীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছিল। জঙ্গীবাদের উত্থান ঘটেছিল। বিচার ব্যবস্থায় ছিল নগ্ন হস্তক্ষেপ। শেখ হাসিনার শাসনামলে বিচার বিভাগ স্বাধীন ও নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) রাজধানীতে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের নবনির্মিতব্য বহুতল ভবনের নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেম বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও জ্যোষ্ঠ আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, সচিব মোঃ রফিকুল ইসলাম, হিউম্যান রাইটস্ অ্যান্ড লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান মোখলেসুর রহমান বাদলসহ অন্যান্য কর্মকর্তাগণ, গণপূর্ত অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীগণ ও ভবন নির্মাণ কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এসময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ও বার কাউন্সিলের ফিন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান শ ম রেজাউল করিম আরো বলেন, বিচার বিভাগের অপরিহার্য অংশ হচ্ছেন আইনজীবীরা। আইনজীবী ও বিচার ব্যবস্থার কল্যাণে শেখ হাসিনা সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে বার কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরে বার কাউন্সিলের ১৫ তলাবিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন বহুতল ভবন নির্মিত হচ্ছে। আইনজীবীদের জন্য এটি নজিরবিহীন আনন্দের বিষয়।

এসময় নির্মাণাধীন ভবন দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসম্পন্ন ও দৃষ্টিনন্দন বার কাউন্সিল ভবন হবে উল্লেখ করে এ ভবন নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আইনজীবীদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী নির্মাণাধীন ভবনের বিভিন্ন অংশ ঘুরে দেখেন এবং নির্মাণ কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের তাগিদ দেন।



আরও খবর



বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিধন্য স্থানে মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মার্চ ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর অর্থায়নে

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত স্বরূপকাঠির সোহাগদলের বড়বাড়ীতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার। মুজিববর্ষে উপহার হিসেবে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের অর্থায়নে সোহাগদল গনমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ওই পাঠাগার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

গত বুধবার বিকেলে পাঠাগারের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোশারেফ হোসেন। বিদ্যালয়ের সভাপতি ও পিরোজপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনিরুজ্জামান নাসিম আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন ওসি আবীর মোহাম্মদ হোসেন, বড়বাড়ীতে বঙ্গবন্ধুকে ১৫ দিন সেবা দানকারী ১০৭ বছরের বৃদ্ধ আব্দুর রহমান তালুকদার, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জাহীদ হোসেন প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, যুক্তফ্রন্টের নির্বাচনের সময় ওই এলাকায় যুক্তফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী জয়নাল আবেদীন মোক্তারের সমর্থনে নির্বাচন পরিচালনা করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ওই সময় বঙ্গবন্ধু টানা ১৫ দিন বড়বাড়ীতে অবস্থান করেন। বঙ্গবন্ধুকে দেখাশোনা ও সেবা করার জন্য দায়িত্ব পালন করেন প্রার্থী জয়নাল আবেদীনের ছোট ভাই আব্দুর রহমান তালুকদার ও এলাকার দায়িত্বশীল সমাজসেবক সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ শাহ আলমের বাবা মৃত মোসলেম আলী হাওলাদার।


আরও খবর



গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডস ২০২১: ইতিহাস গড়লেন বিয়ন্সে-টেইলর সুইফট

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সামাজিক দূরত্ববিধি মেনেই লস অ্যাঞ্জেলসে আয়োজন হলো ৬৩তম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডস। এবারের আসরে একমাত্র নারী হিসেবে ২৮টি গ্র্যামি জিতে ইতিহাস গড়েছেন বিয়ন্সে।

গ্র্যামির ইতিহাসে সর্বাধিক পদকজয়ী নারী সংগীতশিল্পী এখন বিয়ন্সে। তিনি ছাড়িয়ে গেছেন এলিসন ক্রুসকে। সেরা আর অ্যান্ড বি পারফরম্যান্সের পুরস্কার হাতে নিয়ে বিয়ন্সে বলেন, আমি সম্মানিত বোধ করছি এবং খুবই রোমাঞ্চিত। 

এবার রেকর্ড গড়েছেন টেইলর সুইফটও। প্রথম নারী শিল্পী হিসেবে তৃতীয়বারের মতো বর্ষসেরা অ্যালবামের পুরস্কার জিতেছেন তিনি। 'ফোকলোর' অ্যালবামের জন্য টেইলর এ পুরস্কার পেয়েছেন। এর আগে মাত্র তিন শিল্পী এমন রেকর্ড গড়েছেন। তারা হলেন ফ্রাঙ্ক সিনাত্রা, পল সিমন ও স্টিভি ওনডার।

এ বছর গ্র্যামির আসরে 'এভরিথিং আই ওয়ান্টেড'-এর জন্য রেকর্ড অব দ্য ইয়ারের পুরস্কার জিতেছেন বিলি আইলিশ, 'আই কান্ট ব্রিথ' এর জন্য বর্ষসেরা গানের পুরস্কার জিতেছেন হার এবং সেরা নবাগত শিল্পী নির্বাচিত হয়েছেন মেগান দি স্ট্যালিয়ন।

কে-পপ ব্যান্ডদল বিটিএস এবার গ্র্যামি জয়ের আশা জাগিয়েছিল। তবে বিটিএস ভক্তদের হতাশ হতে হয়েছে। ভার্চুয়ালি গ্র্যামি আসরে দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল থেকে তুমুল জনপ্রিয় গান ডিনামাইট পারফর্ম করেন শিল্পীরা। তবে শেষ পর্যন্ত গ্র্যামিজয় হলো না কে-পপ দলটির।

নিউজ ট্যাগ: টেইলর সুইফটও

আরও খবর



পৌনে ২৮ লাখ ছাড়াল বিশ্বের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বব্যাপী করোনার তাণ্ডব কোনোভাবেই থামছে না। চলছে দ্বিতীয় ঢেউ। করোনার টিকা আবিষ্কার হলেও এখনো স্বস্তিতে নেই বিশ্ববাসী। এরই মধ্যে বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৭ লাখ ৭৯ হাজার এবং আক্রান্ত ১২ কোটি ৬৭ লাখ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, শনিবার (২৭ মার্চ) সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১২ কোটি ৬৭ লাখ ৩৬৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৭ লাখ ৭৯ হাজার ৭৪১ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০ কোটি ২১ লাখ ৬২ হাজার ৮৮৭ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৮ লাখ ৫৩ হাজার ৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৬১ হাজার ১৪২ জনের।

আক্রান্তে ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন এক কোটি ২৪ লাখ ৭ হাজার ৩২৩ জন এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৭ হাজার ৩৬২ জন।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে চতুর্থ অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ১৯ লাখ ৮ হাজার ৩৭৩ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৬১ হাজার ২৭৫ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ লাখ এক হাজার ৮৫৯ জন। ভাইরাসটিতে মারা গেছেন ৯৭ হাজার ১৭ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে ফ্রান্স রয়েছে পঞ্চম স্থানে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৪ লাখ ৬৫ হাজার ৯৫৬ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯৪ হাজার ২৭৫ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ, ইতালি সপ্তম, স্পেন অষ্টম, তুরস্ক নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে আছে। এ ছাড়া বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।


আরও খবর



গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী, ৬০ শতাংশ বাড়তি ভাড়ার সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করায় গণপরিবহনে ৬০ ভাগ ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামীকাল (বুধবার) থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে এবং পরবর্তী দুই সপ্তাহ তা বহাল থাকবে।

মঙ্গলবার সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আগামীকাল থেকে দেশের সকল গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী নেওয়া সাপেক্ষে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী দুই সপ্তাহ পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ভাড়া পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে।

এর আগে গতকাল (সোমবার) গণপরিবহনে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা জারি করে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে করোনা প্রতিরোধে মোট ১৮ দফা নির্দেশনা জারি করা হয়। সেখানে এ কথা বলা হয়।

সরকারের এমন নির্দেশনার পর ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ওই সিদ্ধান্তের কথা তিনি জানতে পেরেছেন। তবে এখন পর্যন্ত এ নিয়ে বিআরটিএসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা হয়নি। এমন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হলে গত বছরের মতো নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়াতে হবে।

সোমবারের ওই নির্দেশনায় আরও বলা হয়, সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাতে আন্তঃজেলা যান চলাচল সীমিত করতে হবে। প্রয়োজনে বন্ধ রাখতে হবে। বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের ১৪ দিন পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক (হোটেলে নিজ খরচে) কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে হবে।

এর আগে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে ২০২০ সালের ৩১ মে থেকে গণপরিবহনে অর্ধেক আসন খালি রাখতে বলে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। তখন বাস মালিকদের দাবির মুখে বাস ভাড়া ৬০ ভাগ বাড়ায় সরকার। এর আগে দীর্ঘদিন গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকে।

তবে করোনার সংক্রমণ কিছুটা কমে আসায় গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে আবারও বাসের সব সিটে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়।

নিউজ ট্যাগ: গণপরিবহন

আরও খবর