Logo
শিরোনাম

মূল্যস্ফীতি, যুদ্ধ আর মহামারী দুর্বল করছে বিশ্ব অর্থনীতিকে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কোভিড-১৯ মহামারী পৃথিবী থেকে শেষ হয়ে যায়নি। এখনো প্রতিদিনই বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নতুন নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর খবর আসে। ২০১৯ সালের শেষদিন শুরু হওয়া এ মহামারী ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। যার রেশ গিয়ে পড়ছে সরাসরি বিশ্ব অর্থনীতির ওপর। তারপর গত ফেব্রুয়ারিতে শুরু হয়েছে ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার আক্রমণ, যা যুদ্ধে রূপ নিয়েছে। সরবরাহ চেইনে সংকটসহ নানা কারণে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশে দেখা দিয়েছে মূল্যস্ফীতি। আর এসব কিছুর কারণে চাপে পড়েছে বিশ্ব অর্থনীতি। সৃষ্টি হয়েছে বৈশ্বিক মন্দা পরিস্থিতি।

বৈশ্বিক মন্দার কোনো কাঠামোবদ্ধ সংজ্ঞা নেই। বিশ্বব্যাংক এ শব্দযুগল ব্যবহার করে জনপ্রতি বৈশ্বিক জিডিপির পতন বোঝানোর জন্য। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, কারখানার উৎপাদন, আন্তঃসীমান্ত পুঁজির প্রবাহ, কর্মসংস্থান এবং বাণিজ্যের মতো সূচকে বড় ধরনের পতন সৃষ্টির ফলে অর্থনীতিতে যে মন্দা সৃষ্টি হয়, সেটিই সত্যিকারের বৈশ্বিক মন্দা।

কিছুদিন আগেই আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) সতর্ক করে বলেছিল, বিশ্ব অর্থনীতি এ মুহূর্তে মন্দার কবলে পতিত হওয়ার ঠিক আগের মুহূর্তে রয়েছে। মূলত রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এ শঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছিল। এর সঙ্গে ছিল মূল্যস্ফীতি ও মহামারীর দীর্ঘমেয়াদি চাপও। ওয়াল স্ট্রিটও চিন্তিত মূল্যস্ফীতি নিয়ে। কারণ বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্রে যদি এ পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হয়, তাহলে তা দুর্বল করে দেবে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকেও।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে এসে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি দেখা দিয়েছে। যার অর্থ হলো সমস্যা বাড়ছে। শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই নয়, এর বাইরেও। সম্পত্তি বন্ধকের উচ্চহারের কারণে মার্কিন আবাসন ব্যবসায় মন্দা দেখা দিয়েছে। জ্বালানি স্বল্পতার কারণে জার্মানিতে কলকারখানার উৎপাদন কমেছে এবং নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণে চীনের কোথাও কোথাও লকডাউন ঘোষণার কারণে দেশটির ব্যবসায়ীদের কর্মকাণ্ড ব্যাহত হচ্ছে।

মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভসহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইতিহাসের সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতির সঙ্গে লড়াই করতে আমানতের ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণসহ নানা ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের সরকারগুলো বিভিন্ন খাতের খরচ কমিয়ে আনছে। এমনকি মহামারীর জন্য ত্রাণ সহায়তা খাতে যে বরাদ্দ ছিল তাও কমানো হচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিশ্ব অর্থনীতি এ মুহূর্তে নীতি নির্ধারকদের কাছ থেকে সবচেয়ে কম সহায়তা পাচ্ছে। গত ৫০ বছরে এমন সময় আর আসেনি। গত সপ্তাহে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বিশ্বব্যাংকও বৈশ্বিক মন্দা বৃদ্ধির বিষয়ে সতর্ক করেছে। পিজিআইএম ফিক্স ইনকামের প্রধান অর্থনীতিবিদ দালীপ সিং বলেন, সামনের দিনগুলোর পথচলা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ হবে। আমরা এমন একটা পৃথিবীতে রয়েছি, যেখানে নতুন নতুন ধাক্কার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। গত শুক্রবার ফেডএক্স করপোরেশনের শেয়ারদরে পতন দেখা দেয়। তার ঠিক আগের দিনই কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশ্বিক মন্দার আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন।

সিটিগ্রুপ জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো স্মরণকালের সর্বোচ্চ পরিমাণে বাড়িয়েছে সুদের হার। চলতি মাসে ইউরোপ, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও চিলির কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদের হার বাড়িয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভও এ হার বাড়াবে। আগামী সপ্তাহের বৈঠক থেকে এ বিষয়ে ঘোষণা আসতে পারে। আর তাহলে সেটি হবে গত মার্চ থেকে পঞ্চমবারের মতো সুদের হার বৃদ্ধি। এ অবস্থায় কিছু অর্থনীতিবিদ এমন শঙ্কাও প্রকাশ করছেন, বিশ্বের কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো বিশ্ব অর্থনীতিকে ভুল পথে পরিচালিত করছে। মূলত সুদের হার বাড়ানোর জন্যই এসব করা হচ্ছে। গত বছর ঠিক এর উল্টোটি করা হয়েছিল। সে সময় তারা বলেছিল, মূল্যস্ফীতি অস্থায়ী হবে। একই সময়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে একযোগে আমানতের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিলে বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধিতে হাঁসফাঁসের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে।

ফেডারেল রিজার্ভের সুদের হার বাড়ানোর কারণে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ মুদ্রাগুলোর বিপরীতে ডলারের দাম বেড়ে গিয়েছে। যার কারণে মার্কিনদের জন্য আমদানি করা পণ্যের দাম বেড়ে গিয়েছে। একই সময়ে অন্যান্য দেশের সাধারণ মানুষ ও ব্যবসাগুলোর জন্যও নিজ দেশের বাইরের পণ্য সংগ্রহ কঠিন হয়ে পড়েছে। যেহেতু জ্বালানি তেলের দাম ডলারে পরিশোধ করতে হয়, তাই অন্যতম তেল আমদানিকারক দেশ যেমন তিউনিসিয়া বেশ বড় সমস্যায় পড়েছে। উন্নয়নশীল দেশগুলোও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। কারণ তাদের স্থানীয় মুদ্রার মান ডলারের বিপরীতে কেবলই কমছে।

সিটিগ্রুপের গবেষণায় বলা হয়েছে, ১৯৮১ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বেশির ভাগ সময়ই একটি আরেকটির সঙ্গে চলেছে। ১০৮০ সালের পর থেকে প্রতি চারটি মন্দার মধ্যে একটিতে দেখা গিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে ধীরগতি দেখা দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিশ্বজুড়ে মন্দা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে অথবা যুক্তরাষ্ট্রে ও বাকি বিশ্বে একই সঙ্গে মন্দা তৈরি হয়েছে।


আরও খবর

৩১ ডিসেম্বরের পর পাম অয়েল বিক্রি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




সিএনএনের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের মামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় সোমবার ফ্লোরিডার একটি আদালতে এই মামলা দায়ের করেন তিনি।

এছাড়া মানহানির অভিযোগে সিএনএনের কাছে ৪৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন ট্রাম্প। সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্টের দাবি, সিএনএন তার বিরুদ্ধে মানহানি ও অপবাদের প্রচারণা চালিয়েছে।

আজ মঙ্গলবার বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের ফোর্ট লডারডেলের মার্কিন জেলা আদালতে দায়ের করা মামলায় ট্রাম্প দাবি করেছেন, সিএনএন তাকে রাজনৈতিকভাবে পরাজিত করার জন্য একটি নেতৃস্থানীয় সংবাদ সংস্থা হিসেবে নিজেদের প্রভাবকে ব্যবহার করেছে। সিএনএন অবশ্য এই মামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান ট্রাম্প তার ২৯-পৃষ্ঠার মামলায় দাবি করেছেন, সিএনএন দীর্ঘদিন ধরেই তার সমালোচনা করে আসছিল। কিন্তু সাম্প্রতিক মাসগুলোতে এই নিউজ নেটওয়ার্কটি তার প্রতি আক্রমণ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে কারণ তারা ভয় পাচ্ছে যে- তিনি ২০২৪ সালে আবারও প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হওয়ার জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

মামলায় দাবি করা হয়েছে, রাজনৈতিক ভারসাম্য নষ্ট করার সমন্বিত প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে সিএনএন বাদীকে (ট্রাম্পকে) বর্ণবাদী, রাশিয়ান দালাল, বিদ্রোহবাদী, এমনকি শেষ পর্যন্ত হিটলার- এর চেয়েও বেশি কলঙ্কজনক প্রমাণ করতে মিথ্যা এবং মানহানিকর লেবেল দিয়ে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করেছে।


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




জঙ্গি সন্দেহে গ্রেপ্তার ডা. শাকির ৫ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জঙ্গি সন্দেহে গ্রেপ্তার হওয়া চিকিৎসক শাকির বিন ওয়ালীকে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। একই অভিযোগে গ্রেপ্তার তার সহযোগী আবরারুল হককেও পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। আজ বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ূন কবীর শুনানি শেষে এ রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত সংস্থা, পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের পরিদর্শক এস এম মিজানুর রহমান দুই আসামিকে আদালতে হাজির করে রামপুরা থানায় দায়ের করা সন্ত্রাস বিরোধ আইনের মামলায় ১০ দিন করে রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানিকাল আসামিদের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

গত রোববার রাজধানীর রামপুরার বাসা থেকে শাকিরকে সিআইডি পরিচয় দিয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ করে তার পরিবার। তবে সিটিটিসি বলছে, গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর রামপুরার হাজীপাড়া থেকে শাকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই দিন ঢাকার মগবাজার থেকে শাকিরের সহযোগী আবরারুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ বুধবার সিটিটিসি পরিদর্শক কাজী মিজানুর রহমান তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। পুলিশের দাবি, তারা দুজনই নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সদস্য। কুমিল্লার নিখোঁজ ৭ শিক্ষার্থীর সঙ্গে ডা. শাকিরের যোগাযোগের তথ্য পাওয়া গেছে।

পুলিশের দাবি, কথিত হিজরতের নামে ঘর ছেড়ে যাওয়া কুমিল্লার সাত তরুণের সহযোগী শাকির। তিনি নানাভাবে তরুণ-যুবকদের জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ করে আসছিলেন। তিনি দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে জঙ্গি সংগঠনটির জন্য সদস্য সংগ্রহ, সামরিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা ও কথিত হিজরতে যেতে সহায়তা করতেন।

সম্প্রতি কুমিল্লা থেকে একযোগে সাত তরুণ বাড়ি ছাড়েন। এইচএসসি থেকে স্নাতকপড়ুয়া এসব তরুণ আনসার আল ইসলামের দ্বারা উদ্বুদ্ধ হয়ে হিজরতের নামে ঘর ছেড়েছেন বলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে তথ্য রয়েছে।


আরও খবর



যে কারণে ‘স্বেচ্ছামৃত্যু’ বেছে নিলেন বিশ্বখ্যাত নির্মাতা গদার

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ফ্রান্সের প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা জ্যঁ-লুক গদার আর নেই। গত মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) পৃথিবী ভ্রমণ শেষ করেন বিশ্বখ্যাত এই নির্মাতা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

তাৎক্ষণিকভাবে গদারের মৃত্যুর কারণ জানানো না হলেও কয়েক ঘন্টা পর তার আইনজীবীর বরাত দিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, জ্যঁ-লুক গদার স্বেচ্ছামৃত্যুর পথ বেছে নিয়েছেন।

গদারের আইনি কাউন্সিল প্যাট্রিক জনারে বলেন, একাধিক দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত ছিলেন বিশ্বখ্যাত এই নির্মাতা। স্বেচ্ছায় মৃত্যুর জন্য তিনি সুইজারল্যান্ডে যান।

নিজের জীবন শেষ করতে আইনিভাবে অন্য কারও সাহায্য নেওয়াই হলো স্বেচ্ছামৃত্যু। সুইজারল্যান্ডে এ ধরনের মৃত্যুর বৈধতা রয়েছে। তবে ফ্রান্সে স্বেচ্ছামৃত্যুর আইনি বৈধতা না থাকায় গদারের মৃত্যুর খবর প্রকাশের পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁ জানিয়েছেন, স্বেচ্ছামৃত্যুর অধিকার নিয়ে জাতীয় বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে।

অন্যদিকে ফ্রান্সের লিবারেশন পত্রিকা গদারের পরিবারের ঘনিষ্ঠ একজনের (নাম উল্লেখ করেননি) উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, জ্যঁ-লুক গদার অসুস্থ ছিলেন না। তিনি খুবই ক্লান্ত ছিলেন। তাই এই ক্লান্তির অবসান ঘটাতে চেয়েছিলেন।

১৯৩০ সালের ৩ ডিসেম্বর প্যারিসে জন্মগ্রহণ করেন জ্যঁ-লুক গদার। পঞ্চাশের দশকে তিনি চলচ্চিত্র জগতে আত্মপ্রকাশ করেন। তার হাত ধরেই বদলে যেতে থাকে ফরাসি চলচ্চিত্রের ধারা। এজন্য তাকে বলা হয় ফ্রেঞ্চ নতুন ধারার চলচ্চিত্রের রূপকার।

মূলত, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর আবির্ভূত ফরাসি নির্মাতাদের মধ্যে সেরা বিবেচনা করা হয় গদারকে। তার নির্মিত বিখ্যাত কয়েকটি সিনেমা হলো উইকেন্ড, পাইরট লে ফু, লা পেটিট সোলদাদ, ইন প্যারিস অব লাভ, দ্য কারাবিনারস, দ্য ইমেজ বুক, অল দ্য বয়েজ আর কল্ড প্যাট্রিক ইত্যাদি।

 


আরও খবর

দুরন্তপনার ৫ বছর

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




কালনা মধুমতী সেতুর উদ্বোধন অক্টোবরে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামী মাসের (অক্টোবর) যেকোনো দিনে কালনা মধুমতী সেতুর উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ বৃহস্পতিবার নড়াইল জেলার কালনা এলাকায় মধুমতী নদীর উপর নির্মিত মধুমতী সেতু পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। এ সময় সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সেতুর উদ্বোধনের দিনক্ষণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এলেই জানিয়ে দেবেন। ইতিমধ্যেই সেতুর সামারি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে এবং তিনি স্বাক্ষর করেছেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই মধুমতী সেতুর নামকরণ করা হয়েছে বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ৬৯০ মিটার দীর্ঘ এই সেতুর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৯৫৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

মধুমতী সেতু হচ্ছে পদ্মার মিসিং লেন উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী আরও বলেন, পদ্মা সেতুর সুবিধা পেতে হলে মধুমতী সেতু নির্মাণ করতেই হতো।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পানি ঘোলা করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে বিএনপি। আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনের সময় সরকার রুটিন দায়িত্ব পালন করবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি আরও বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরে আসার কোনো সম্ভাবনা নেই। উচ্চ আদালতের নির্দেশে তত্ত্বাবধায়ক সরকার এখন জাদুঘরে।


আরও খবর



সি-পুতিন বৈঠকে প্রাধান্য পাবে ইউক্রেন যুদ্ধ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিনপিংয়ের বৈঠকে ইউক্রেন যুদ্ধসহ আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক ইস্যু প্রাধান্য পাবে বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন। আজ বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) উজবেকিস্তানে এই দুই শীর্ষ নেতার বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। উজবেকিস্তানে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) সম্মেলনে সাইডলাইন বৈঠক করবেন পুতিন ও সি।

ইউরেশিয়াভুক্ত দেশগুলোর রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তাবিষয়ক জোট এসসিও। ২০০১ সালে চীন, রাশিয়া, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তানের উদ্যোগে গড়ে ওঠে আঞ্চলিক জোটটি। চীনা প্রেসিডেন্ট সি করোনা মহামারি শুরুর পর এই প্রথমবার আন্তর্জাতিক সফরে যাচ্ছেন। তিন দিনের সফরের প্রথম দিন বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) কাজাখস্তান যাবেন তিনি। এরপর ১৫ ও ১৬ সেপ্টেম্বর উজবেকিস্তানে অনুষ্ঠিতব্য এসসিও শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেবেন সি। আর এই বৈঠকের ফাঁকে বৃহস্পতিবার রুশ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে তাঁর।

তৃতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন সি চিনপিং। এতে বিশ্বশক্তি হিসেবে মস্কোর সমর্থন যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে।  অন্যদিকে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু করায় রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা বিশ্বের বৈরী সম্পর্ক এখন প্রকট। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পুতিন ভারত, পাকিস্তান, তুরস্ক ও ইরানের নেতাদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন। তবে চীনের নেতার সঙ্গে পুতিনের বৈঠক বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছেন ক্রেমলিনের পররাষ্ট্রনীতির মুখপাত্র ইউরি উশাকভ। ক্রেমলিনের দাবি, রাশিয়া কেন ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাতে বাধ্য হয়েছে সে বিষয়টি ভালো করেই অনুধাবন করতে পারে চীন।

নিউজ ট্যাগ: ভ্লাদিমির পুতিন

আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২