Logo
শিরোনাম

ম্যানেজার পদে চাকরি দেবে যমুনা গ্রুপ

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান যমুনা গ্রুপে ম্যানেজার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ০৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: যমুনা গ্রুপ

বিভাগের নাম: ভ্যাট

পদের নাম: ম্যানেজার

পদসংখ্যা: ০১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিবিএ/এমবিএ (অ্যাকাউন্টিং/ফাইন্যান্স)

অভিজ্ঞতা: ০৭-১০ বছর

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন: পুরুষ

বয়স: ৩০-৪২ বছর

কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ০৫ ডিসেম্বর ২০২২

নিউজ ট্যাগ: চাকুরীর খবর

আরও খবর

প্রাথমিকে নিয়োগের ফল প্রকাশ পেছালো

বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২




ডেঙ্গুতে সাতজনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৮৭৫

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৮৭৫ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। একই সময়ে আরও সাত ডেঙ্গুরোগীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৭ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় (রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৮৭৫ জনের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ৪৯৭ জন ও ঢাকার বাইরে ৩৭৮ জন। নতুন ৮৭৫ জনসহ বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা ডেঙ্গুরোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ২৭০ জনে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি বছরে ১ জানুয়ারি থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সর্বমোট ৪৩ হাজার ৯৮২ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৪০ হাজার ৫৩৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। এ নিয়ে ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৭৭ জনের। এ বছর ২১ জুন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।

২০২০ সালে করোনা মহামারিকালে ডেঙ্গুর সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ এ সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

 


আরও খবর



মৌলভীবাজারে চলছে ৩৬ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৌলভীবাজারে শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ১৯ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন।

সিএনজি অটোরিক্সার নিবন্ধন বন্ধ ও জেলা সদরে স্থায়ী ট্রাক স্ট্যান্ড নির্মাণের দাবিতে জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতি, ট্রাক ট্রাংকলরি ও কভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন এই পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে।

এদিকে, ১৯ নভেম্বর সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে এটি সরকারের চক্রান্ত বলে জানায় মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি।

মৌলভীবাজার জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ফজলুর রহমান জানান, চাহিদার তুলনায় ১০ গুণ বেশি সিএনজি চালিত অটো রিকশা চলে এ জেলায়। এতে রাস্তায় বেড়েছে যানজট। পরিবহনগুলো পড়েছে লোকসানে। মানুষকে বেশি টাকায় গন্তব্যে যেতে হয়। এছাড়া শহরজুড়ে অবৈধ ব্যাটারিচালিত অটো রিকশারও ছড়াছড়ি। এগুলো বন্ধ করার দাবিতে এ ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে।

জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির চেয়ারম্যান রশিদ উদ্দিন আহমদ ও ট্রাক ট্রাংকলরি ও কভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক আজাদুর রহমান অদুদ জানান, আঞ্চলিক মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটো রিকশা বন্ধের পাশাপাশি জেলায় একটি স্থায়ী ট্রাক ও বাস স্ট্যান্ড নির্মাণের দাবি তাদের। স্ট্যান্ড না থাকায় তাদেরকে রাস্তার ওপরে গাড়ি রাখতে হয়।

এদিকে, সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশকে সামনে রেখে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে বলে জানান মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম নাসের রহমান। তিনি বলেন, ধর্মঘট যদি করতে হয় তাহলে ওয়াকিং ডে ধর্মঘট ডাকার কথা। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক বন্ধের দিনে কেন ধর্মঘট? এটি হচ্ছে তথাকথিত ধর্মঘট। বিএনপি এর আগে আরও ৬ জায়গায় সমাবেশ করছে। ওই সকল সমাবেশকে কেন্দ্র করে পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। ওই ধর্মঘট দিয়ে বিএনপির সমাবেশে লোক সমাগমের কমতি ছিল না। প্রতিটি সমাবেশে দুই থেকে আড়াই লাখ মানুষের উপস্থিতি ছিল।

তিনি আরও বলেন, সমাবেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপস্থিতি ছিল ১০-১৫ শতাংশ, বাকি ৮৫ শতাংশ ছিল সাধারণ মানুষ। সাধারণ মানুষ সমাবেশে যায় কোনো চাওয়া পাওয়ার জন্য নয়। তারা বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্য শুনতে যান। সমাবেশে গিয়ে লাখ লাখ মানুষ সরকারকে অনাস্থা জানাচ্ছে। জনগণ এখন সরকারকে লাল কার্ড দেখাচ্ছে। সরকারের পদত্যাগ ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন এই দাবিতে সমাবেশ হচ্ছে। সরকার বাস মালিকদের নিয়ে ধর্মঘট দিয়ে হাস্যকর কাজ করছে। ধর্মঘট দিয়ে কোনো লাভ নেই, সিলেটের গণসমাবেশে ২ লাখের বেশি মানুষ হবে।


আরও খবর



‘রাষ্ট্রহীন’ শামীমাকে বাংলাদেশে পাঠালে মৃত্যুদণ্ড হতে পারে: আইনজীবী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাজ্য থেকে সিরিয়ায় পাড়ি জমানো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণী শামীমা বেগমকে বাংলাদেশে পাঠালে সেখানে তিনি মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তাঁর আইনজীবী ড্যান স্কয়ারস কেসি। শামীমার কাছ থেকে ব্রিটিশ নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার ফলে তিনি কার্যত রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়েছেন বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। যুক্তরাজ্যের স্পেশাল ইমিগ্রেশন আপিল কমিশনের শুনানিতে এসব কথা বলেছেন শামীমার আইনজীবী।

আদালতে শুনানিকালে ড্যান স্কয়ারস কেসি বলেন, ২০১৯ সালে শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করা হয়েছে। ওই সময়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বুঝতেই পারেননি এ নাগরিকত্ব বাতিলের গুরুতর বাস্তব পরিণতি কতটা ভয়াবহ হতে পারে। এটা স্পষ্ট যে তাঁর সিদ্ধান্ত শামীমাকে রাষ্ট্রহীন করে দেবেএমন সম্ভাবনা তিনি বিবেচনায় নেননি। 

আদালতের নথিগুলো থেকে জানা গেছে, শামীমা বেগমের নাগরিকত্ব প্রত্যাহার করার আগের দিনই তাঁর রাষ্ট্রহীনতা নিশ্চিত করা হয়েছিল।  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষের মনোভাব জানার চেষ্টাও করেননি বলে শুনানিতে আইনজীবী অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, শামীমাকে বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কি না এবং তিনি কোনো সুরক্ষা পাবেন কি না, এসব বিষয়ও তিনি বিবেচনা করেননি। 

ড্যান স্কয়ারস কেসি আরও বলেছেন, শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করার পরপরই বাংলাদেশ এক বিবৃতিতে আপিলকারীর প্রতি তাদের কঠোর অবস্থান প্রকাশ করেছিল।

২০১৯ সালের মে মাসে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, শামীমা বেগম বাংলাদেশে গেলে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন।

শামীমার আইনজীবী বলেছেন, এটা স্পষ্ট যে সাজিদ জাভিদ যদি আপিলকারীকে তাঁর নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত করার বাস্তব প্রভাব সম্পর্কে অনুসন্ধান করতেন, তবে তিনি সম্ভবত বুঝতে পারতেন যে আপিলকারীকে কোনো রাষ্ট্রের সুরক্ষা ছাড়াই ছেড়ে দেওয়া যায় না। তাঁর অন্তত এটুকু বোঝা উচিত ছিল যে একজন রাষ্ট্রহীন মানুষের বাস্তব জীবন কেমন হতে পারে।

শামীমা বেগমের বয়স যখন ১৫ বছর ছিল, তখন তিনি পূর্ব লন্ডনের বাড়ি ছেড়ে আরও দুই কিশোরীর সিরিয়ায় পালিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি একজন আইএস (ইসলামিক স্টেট) যোদ্ধাকে বিয়ে করেছিলেন। পরে ২০১৯ সালে সিরিয়ার একটি শরণার্থীশিবিরে তাঁকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এরপরই ব্রিটেনের তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করেছিলেন। ২৩ বছর বয়সী শামীমা বেগম এখন সিরিয়ার শরণার্থীশিবিরেই রয়েছেন। 


আরও খবর



গুলিবিদ্ধ হয়ে বিজিবি সদস্য নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) জয়পুরহাট-২০ ব্যাটালিয়নের এক সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনার পর চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত বিজিবি সদস্য নেপাল চন্দ্র দাস ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মেঘচামী গ্রামের নারায়ণ দাসের ছেলে।

জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সরদার রাশেদ মোবারক বলেন, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় বিজিবি-২০ জয়পুরহাট ব্যাটালিয়নের নেপাল চন্দ্র দাস নামে এক সদস্যকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। তাকে আমরা মৃত অবস্থায় পেয়েছি। তার বুকে ও ডান হাতে জখমের চিহ্ন রয়েছে।

জয়পুরহাট সদর থানার ভাররপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল বলেন, বিজিবির পোশাকপরা অবস্থায় এক ব্যক্তির লাশ হাসপাতালে আনা হয়েছে বলে খবর পেয়ে সেখানে গিয়েছিলাম। ওই ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। ওই ব্যক্তির বুকে গুলির চিহ্ন রয়েছে। লাশের সুরহতাল প্রতিবেদন করা হয়েছ।

এ বিষয়ে জানতে বিজিবি-২০ জয়পুরহাট ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি।


আরও খবর



‘সাত দিনে রাশিয়ার ২৬০০ সেনা নিহত’

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত এক সপ্তাহের কম সময়ের মধ্যে ইউক্রেনীয় ভুখণ্ডে রাশিয়া অন্তত ২ হাজার ৬০০ যোদ্ধা হারিয়েছে। গতকাল শুক্রবার সংবাদমাধ্যম নিউজউইকের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শুক্রবার যুদ্ধের ক্ষয়ক্ষতির পরিসংখ্যান প্রকাশ করে। তাতে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় বাহিনী শুক্রবারই অন্তত ৩৫০ রুশ সেনাকে হত্যা করেছে। এ ছাড়া বলা হয়েছে, গত সোমবার থেকে আনুমানিক দুই হাজার ৬০০ রুশ সেনাকে হত্যা করেছে ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা। এর মধ্যে মঙ্গলবার সর্বোচ্চ ৭১০ জন ছিল।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, এখন পর্যন্ত রুশ সেনা নিহতের সংখ্যা ৮৩ হাজার ছাড়িয়েছে। চলতি বছরের গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের ঘোষণা দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এরপর আজ পর্যন্ত টানা ২৬৯ দিনের মতো চলছে দেশ দুইটির সংঘাত।

এতে দুই পক্ষের বহু হতাহতের খবর পাওয়া যাচ্ছে। তবে যুদ্ধ বন্ধে এখন পর্যন্ত কোনো লক্ষণ নেই। উল্টো পূর্ব ইউক্রেনে দেশ দুইটির মধ্যে সংঘাত আরও বেড়েছে।


আরও খবর