Logo
শিরোনাম

নারী-শিশুর বিপদে অ্যাপের মাধ্যমে হাজির হবে পুলিশ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারী ও শিশুদের নিরাপত্তায় এসেছে মোবাইলভিত্তিক অ্যাপ ঈগল বিডি পুলিশ (Eagle BD Police)। বাংলাদেশ পুলিশ সদর দফতরের সার্বিক সহযোগিতা ও আইটি প্রতিষ্ঠান ব্যাকডোর প্রাইভেট লিমিটেড তৈরি করেছে এটি।

ইন্টারনেট সংযোগ না থাকলেও সেবা দেবে এই অ্যাপ। এক্ষেত্রে ভুক্তভোগী অ্যাপ চালু করলেই তার সিম থেকেই স্বয়ংক্রিয় সিগনাল যাবে টহলরত পুলিশের ফোনে।

এ ছাড়া অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিলেই ওপেন করতে হবে অ্যাপটি। তাতে নির্দিষ্ট বাটনে চাপ দিলেই বিপদবার্তা চলে যাবে কাছাকাছি ডিউটিতে থাকা পুলিশের ফোনে। বেজে উঠবে অ্যালার্ম। ভুক্তভোগীর ফোনে লোকেশন অন থাকলে কাজটা আরও সহজ হবে। ঘটনাস্থলে সঙ্গে সঙ্গে হাজির হবে পুলিশ।

আর যদি কোনও কারণে টহলরত পুলিশ কলটি ধরতে না পারেন, সেক্ষেত্রে সংকেত চলে যাবে পাশের থানার ওসির ফোনে। তিনিও যদি ধরতে পারেন, তবে তা পৌঁছে যাবে সরাসরি আইজিপির কাছে।

আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন না হলেও কাজ শুরু করে দিয়েছে অ্যাপটি। অভিযোগও আসতে শুরু করেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কর্মজীবী নারীদের রাতে বাড়ি ফেরা এবং শিশু-কিশোরদের নিরাপত্তা দিতে কাজ করবে ঈগল বিডি পুলিশ। আবার অ্যাপটির যাতে অপব্যবহার না হয় সেজন্য ব্যবহারকারীকে নিবন্ধন করে নিতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিয়ে। যাদের বয়স ১৮ বছরের কম তাদের ক্ষেত্রে নিবন্ধন করতে হবে অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। আপাতত নারী ও শিশুদের জন্যই নিবন্ধনের ব্যবস্থা থাকছে অ্যাপটিতে।

অ্যাপ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বলছে, ৯৯৯ জরুরি সেবায় ফোন করে কিছু তথ্য দিতে হয়। যা অনেক সময় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে সম্ভব হয় না। ঈগল বিডি পুলিশ অ্যাপে মোবাইলের স্ক্রিন স্পর্শ করলেই পুলিশি সহায়তা মিলবে।

প্রাথমিকভাবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এলাকার ৫১টি থানায় এই সেবা পাবে মোবাইল ব্যবহারকারীরা। এরইমধ্যে ৫১টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও এসআইদের অ্যাপটি সম্পর্কে ধারণা দিতে কয়েকটি কর্মশালা হয়েছে। পরে দেশব্যাপী বিভিন্ন থানায় অ্যাপটির প্রচারণার পরিকল্পনা রয়েছে।

এ ছাড়া, এই অ্যাপ জরুরি নম্বর হিসেবে নিবন্ধন করা পরিবারের তিনজন সদস্যের নম্বরেও পাঠিয়ে দেবে বিপদসংকেত।

ব্যাকডোর প্রাইভেট লিমিটেডের আরএন্ডডি প্রধান নুরফাত মাহবুবা বলেন, নারীর নিরাপত্তা নিয়ে বেশ সচেতন আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই ধরনের একটি অ্যাপ নির্মাণের সঙ্গে থাকতে পারাটা আমাদের জন্য গর্বের। নারী ও শিশু নিরাপদ থাকলে এর সুফল রাষ্ট্র পাবে। পুলিশ সদস্যদের নিজস্ব স্মার্টফোনে ইনস্টল করতে হবে অ্যাপটি।

ব্যাকডোর প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর হাসান জোহা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ২০১৯ সাল থেকে অ্যাপটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। কয়েক ধাপে নাম বদলের পর রাখা হয় ঈগল বিডি পুলিশ অ্যাপ। আপাতত শুধু অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবে বিনামূল্যে। আইওএস (আইফোনে) ফোনগুলোর উপযোগী করার কাজ এখনও চলছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) অতিরিক্ত ডিআইজি শাহ আবিদ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, অ্যাপটির কার্যক্রম বিষয়ে ডিএমপির (ক্রাইম) বিভাগের উপকমিশনার, কমিশনার, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, পরিদর্শক (তদন্ত), পরিদর্শক (অপারেশন), এসআইদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ মহাপরিদর্শকের নির্দেশনায় এরইমধ্যে সীমিত আকারে এর কার্যক্রম শুরু হয়েছে। অচিরেই আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হবে।

অ্যাপটির পরবর্তী ধাপে থাকবে নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট আরও কিছু আপডেট। তখন অ্যাপটি ওপেন করলেই ব্যবহারকারীর ফোনের মাইক্রোফোন ও ক্যামেরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হবে বলে জানান প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ তানভীর হাসান জোহা।

যেভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে

গুগল প্লে স্টোর থেকে Eagle BD Police অ্যাপটি ইন্সটল করে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, মোবাইল নম্বর, নাম-ঠিকানা, বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা দিয়ে নিবন্ধন করে নিতে হবে। এরপরই ব্যবহার করা যাবে অ্যাপটি।


আরও খবর



প্রথমবারের মতো করেই এবারও করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে ফের ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছে মহামারি করোনা ভাইরাস। এ অবস্থায় জনস্বাস্থ্য বিবেচনা করে করোনার প্রথমবারের মতো সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে হতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনে এ কথা জানান তিনি। এ সময় জনগণের সহায়তা দরকার বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনা প্রায় নিয়ন্ত্রণ করে ফেলেছিলাম, কিন্ত গোটা বিশ্বেই এর প্রভাব বেড়েই চলেছে। দেশেও করোনার প্রাদুর্ভাব হঠাৎ বেড়ে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, টিকা নেওয়ার পর মানুষের উদাসীনতা বেড়ে গেছে। বিয়ে-পর্যটনসহ নানা কারণে যারা বেশি বেশি ঘুরে বেড়িয়েছেন তারাই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বেশি। মাস্ক পরাসহ, যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার কোনো বিকল্প নেই।

করোনা সংক্রমণ রোধে সীমিত মানুষ নিয়ে কাজ করার অভ্যাস করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে গত বছরের ২৬ মার্চ থেকে করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণের জন্য দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। কয়েক দফা বাড়িয়ে সাধারণ ছুটি ছিল ৩১ মে পর্যন্ত।

এদিকে করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ ও সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারের পক্ষ থেকে আগামী দুই সপ্তাহের জন্য ১৮ দফা নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।


আরও খবর



শরীর চর্চা কখন করা ভালো, সকালে না সন্ধ্যায়?

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১০৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্যস্ত জীবনে নিজের প্রতি যত্ন নেয়ার সময় থাকে না। তারপরও এই সময়ের মধ্যেই কেউ কেউ শরীর চর্চার চেষ্টা করেন। কেউ সকালে করেন আবার কেউ বিকেলে। কিন্তু শরীর সুস্থ রাখতে কখন শরীর চর্চা করা উচিত, তা কি আমরা জানি? এবার তাহলে এ বিষয়ে কিছু জেনে নেয়া যাক-

মূলত শরীর চর্চার জন্য ঠিক সময় বলে নির্ধারণ করা কিছু নেই। চাকরিজীবীদের এই সুযোগ নাই হতে পারে। তবে তারা সন্ধ্যায় বা রাতে একটু জিমে গিয়ে চেষ্টা করতেই পারেন। আবার যারা ভোরে ঘুম থেকে উঠেন তারা শরীর চর্চার জন্য যথেষ্ট সময় পান। তবে সন্ধ্যার পর শরীর চর্চায় কোনো ক্ষতি নেই, বরং উপকার হবে।

ভোরে ঘুম থেকে উঠে আধ ঘণ্টার মতো শরীর চর্চা করা খুবই ভালো। এতে সারাদিন অনেক ভালো কাটে। নিয়মিত শরীর চর্চার ফলে এন্ডরফিরন নামক এক হরমোনের নিঃসরণ বাড়িয়ে দেয়। এতে মন ভালো থাকে। তাই শরীর চর্চার পর খারাপ লাগে না। কাজ করার ইচ্ছা-আগ্রহ বেড়ে যায়। এমনকি সামাজিক মেলামেশা বা বন্ধু-বান্ধবীদের সঙ্গে আড্ডাতেও বিরক্তিকর ভাব আসে না।

এছাড়াও সকালের দিকে ব্যায়াম করার আরও সুফল রয়েছে। এতে করে খুদা বৃদ্ধি পায় ও হজম ভালো হয়। খাওয়ার ইচ্ছা বৃদ্ধি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান পৌঁছাবে। ফলে স্বাস্থ্য ভালো থাকবে আপনার।

সন্ধ্যা : সকালে শরীর চর্চা যেমন উপকারী তেমনই কর্মব্যস্ত মানুষের জন্য সন্ধ্যার শরীর চর্চাও ভালো। এতে করে রাতে ভালো ঘুম হয়। যা কিনা শরীরের জন্য খুবই উপকারী। যারা অনাকাঙ্ক্ষিত ওজন কমাতে চান তাদের জন্য সন্ধ্যার শরীর চর্চার বিকল্প কিছু নেই। কেননা, সারাদিন পরিশ্রমের পর আবার রাতে ঘুমানোর আগে একটু শরীর চর্চা হলে খারাপ হয় না। অর্থাৎ যারা সকালে শরীর চর্চা করার জন্য সময় বের করতে পারেন না তাদের জন্য সন্ধ্যা হতে পারে সঠিক সময়। নিয়মিত শরীর চর্চা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। হোক তা দিনে কিংবা রাতে।

নিউজ ট্যাগ: শরীর চর্চা

আরও খবর



পি কে হালদারের দেশত্যাগ : ৬৭ ইমিগ্রেশন পুলিশের তালিকা হাইকোর্টে

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ১০৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
দুদকের পক্ষ থেকে লিখিত সে চিঠিতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর পি কে হালদারসহ ২৪ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেয়া চিঠি পরদিন ২৩ অক্টোবর সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে পাঠানো হয়

কয়েক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পাসপোর্ট জব্দ থাকার পরও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার (পিকে হালদার) হালদারের দেশত্যাগের সময় বেনাপোল স্থলবন্দরে দায়িত্বরত ৬৭ ইমিগ্রেশন পুলিশের তালিকা হাইকোর্টে দাখিল করা হয়েছে।

পুলিশ মহাপরিদর্শকের পক্ষ থেকে সোমবার (১৫ মার্চ) সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চে এ তালিকা দাখিল করা হয়েছে বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক জানিয়েছেন।

এর আগে পুলিশের ইমিগ্রেশন বিভাগ জানিয়েছিল, দুদক থেকে তাদের কাছে দেরিতে চিঠি পাঠানোর কারণে পিকে হালদার পালিয়ে যায়। কিন্তু পিকে হালদারের দেশত্যাগের ঘটনায় ইমিগ্রেশন পুলিশের ওই তথ্য সঠিক নয় বলে হাইকোর্টে পাল্টা লিখিত জবাব দাখিল করেছে দুদক। দুদকের পক্ষ থেকে লিখিত সে চিঠিতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর পি কে হালদারসহ ২৪ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেয়া চিঠি পরদিন ২৩ অক্টোবর সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে পাঠানো হয়, যা ইমিগ্রেশন গ্রহণ করেন।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পিকে হালদারের পাসপোর্ট জব্দ থাকার পরও তাকে পালাতে সহযোগিতাকারী ইমিগ্রেশন, পুলিশ ও দুদকের কর্মকর্তাদের তালিকা দাখিলের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি পিকে হালদার মামলার আসামিদের জবানবন্দিতে যাদের নাম এসেছে তাদের বিরুদ্ধে দুদকের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছিলেন। এছাড়াও পি কে হালদার কাণ্ডে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে ২০০৮ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত কর্মরতদের তালিকা জমা দিতেও নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।


আরও খবর



বিশ্ব আবহাওয়া দিবস আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ বিশ্ব আবহাওয়া দিবস। জেনেভায় অবস্থিত বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে সমুদ্র, আমাদের জলবায়ু ও আবহাওয়া। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আজ দিবসটি পালন করছে।

সমুদ্র উপকূলীয় দেশ হিসেবে বাংলাদেশ বৈরী আবহাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নিয়মিতই। দিবসটি উপলক্ষ্যে আজ আবহাওয়া অধিদপ্তর বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বিশ্ব আবহাওয়া দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল প্রধান অতিথি থাকবেন। এ অধিদপ্তরের সদর দপ্তরসহ গুরুত্ব অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন শাখা অফিসসমূহ দিবসটি সীমিত আকারে পালনের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

এ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে আবহাওয়া সংক্রান্ত বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ও প্রামাণ্য চিত্র স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেলা ৩টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত জনসাধারণের পরিদর্শনের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা পরিষদ কর্তৃক একটি টেকনিক্যাল সেশনের আয়োজন করা হবে। এছাড়া ঢাকা, কক্সবাজার, খেপুপাড়া, রংপুর ও মৌলভীবাজারের অপারেশনাল ইউনিট ও রাডার স্টেশনসমূহ জনসাধারণের প্রদর্শনের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে।

একসময় মানুষের ধারণা ছিল- আবহাওয়া অধিদপ্তর যদি বলে বৃষ্টি হবে, সেদিন রোদ ওঠে। এ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করতেন অনেকে। তবে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রযুক্তিগত অনেক পরিবর্তন এসেছে। সাধারণ মানুষও এখন পূর্বাভাসে বিশ্বাস রাখছেন।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, এখন তাদের প্রতিদিনের পূর্বাভাস অনেকটাই নির্ভুল হয়। শুধু তাই নয়, প্রযুক্তির কল্যাণে আগাম ১০ দিনের পূর্বাভাস দেওয়ার সক্ষমতাও রয়েছে তাদের। কিন্তু দুর্যোগ মোকাবিলায় মানুষকে সতর্ক করতে সারা পৃথিবীতে সংকেত ব্যবস্থার আধুনিকায়ন হলেও, দুর্যোগপ্রবণ বাংলাদেশে এখনও ব্রিটিশ আমলের সেই বন্দরভিত্তিক সংকেত ব্যবস্থাই চালু রয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সনাতনী সতর্ক সংকেত মূলত নদী ও বন্দরকেন্দ্রিক। ঝড়ের কবল থেকে শুধু নৌকা কিংবা জাহাজকে নিরাপদে রাখতে এ ধরনের সংকেত ব্যবস্থা গড়ে ওঠে উপনিবেশিক আমলে। কিন্তু নদী থেকে দূরের এলাকার মানুষের জন্য আলাদা করে সংকেত ব্যবস্থা নেই।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আতিকুল হক বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের জন্য এখন যে ১০টি সতর্ক সংকেত ব্যবস্থা আছে, তা সহজভাবেই মানুষের কাছে উপস্থাপন করা যাচ্ছে। এই সংকেতগুলো দিয়ে কী বোঝানো হচ্ছে, মানুষের কাছে তা স্পষ্ট।

তিনি আরও বলেন, পুরোনো সংকেত ব্যবস্থা জনগণকে গভীরভাবে বোঝানোর চেষ্টা চলছে। এজন্য আর্লি ওয়ার্নিং নামে তিনটি প্রকল্প চলমান আছে।

তবে আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, পূর্বাভাস প্রচারে যুগান্তকারী পরিবর্তন এনেছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট। ঘূর্ণিঝড় ও আকস্মিক বন্যা দেখা দেওয়ার আগেই সাধারণ মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। ফলে ঘূর্ণিঝড় ও বন্যায় মৃতের হার কমে গেছে।


আরও খবর



আবার লকডাউনে যাচ্ছে ভারত!

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৯১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চলমান মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় এবং ভাইরাসটির নতুন ধরন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় আবারও লকডাউনে যাচ্ছে ভারত। দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রের নাগপুর শহরে এ দফায় সবার আগে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

শুক্রবার (১২ মার্চ) এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

আগামী ১৫ মার্চ থেকে এখানে সপ্তাহব্যাপী লকডাউন ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। ভারতের এ শহরটি বরাবারই করোনার হটস্পট হিসেবে পরিচিত। ভারতে সবচেয়ে বেশি এক কোটি ১০ লাখ করোনা রোগী শনাক্ত হয় এ রাজ্যে। এ পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন এক লাখ ৫৭ হাজার বাসিন্দা।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে ভারতে করোনার টিকা দেয়া শুরু হয়েছে। দেশটিতে এ পর্যন্ত ২ কোটি মানুষ করোনার টিকা পেয়েছেন।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১