Logo
শিরোনাম

‘নিখিলের সঙ্গে বিয়ে হয়নি, সহবাস করেছি মাত্র’, নুসরাত

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টলিউড অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরাত জাহানের মাতৃত্বের খবর সামনে আসার পর থেকেই চলছে তোলপাড়। স্বামী নিখিল জৈনর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হওয়ার আগেই অভিনেতা যশের সন্তানের মা হতে চলেছেন অভিনেত্রী, জল্পনা এমনটাই। এতদিন নিজের সন্তানসম্ভবা হওয়ার জল্পনা নিয়ে নীরব থাকলেও অবশেষে মুখ খুললেন অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। তিনি বলেন, 'নিখিল জৈনর সঙ্গে কোনও দিন তাঁর বিয়েই হয়নি। তাঁরা কেবলমাত্র সহবাস বা লিভ-ইন রিলেশনশিপে ছিলেন।'

একটি বিবৃতিতে নুসরত জানিয়েছেন, তুরস্কে তাঁদের আইন মেনে বিয়ে হয়নি। সংশ্লিষ্ট দেশের আইনে এই বিয়ে অবৈধ। এছাড়াও হিন্দু মুসলিম বিয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ নিয়ম মানা উচিত। কিন্তু তাঁদের বিয়ের ক্ষেত্রে তা মানা হয়নি। সুতরাং তাঁদের বিয়েই হয়নি।

পাশাপাশি এদিন নিখল জৈনর বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে একাধিক বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন নুসরাত জাহান। তিনি লিখেছেন, 'আমি কোনওদিন কারওর ক্রেডিড কার্ড ব্যবহার করিনি। কিন্তু যিনি নিজেকে বড়লোক বলে দাবি করছেন (নিখিল জৈন)এবং আমি তাঁকে ব্যবহার করছি বলছেন তিনি অবৈধভাবে আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলেছেন। এমনকী, আমাদের বিচ্ছেদ হওয়ার পরও নিখিল আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলেছেন। আমি বিষয়টি সম্পর্কে পুলিশে অভিযোগ করব। খুব শিগগিরই পুলিশ পদক্ষেপ নেবে বলে আশা করছি।'


নিউজ ট্যাগ: নুসরাত জাহান

আরও খবর



আমের লোভ দেখিয়ে জঙ্গলে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০১ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলায় এক শিশুকে (৮) ধর্ষণের অভিযোগে আব্দুল মতিন বেগকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত আব্দুল মতিন বেগকে (৪০) উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের জুমগাঁও (মোকামছড়া) গ্রামের বাবুল বেগের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার ৮ বছরের এক শিক্ষার্থীকে আম খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে পাশের জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে আব্দুল মতিন বেগ। এ ঘটনায় শিশুর পরিবার দোয়ারাবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে একই দিন সন্ধ্যায় পুলিশ অভিযুক্ত আব্দুল মতিন বেগকে গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে দোয়ারাবাজার থানার ওসি মোহাম্মদ নাজির আলম জানান, মতিনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। নির্যাতিত শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: শিশুকে ধর্ষণ

আরও খবর



বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর নিয়েছে ফেসবুক

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (বিআইএন) নিয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। অলনাইনে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুক তিনটি পৃথক বিআইএন নিবন্ধন পেয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) ঢাকা দক্ষিণের কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের অতিরিক্ত কমিশনার প্রমিলা সরকার বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত শনিবার (১২ জুন) ফেসবুক তিনটি পৃথক প্রতিষ্ঠান থেকে নিবন্ধন পেতে অনলাইনে আবেদন করে। আমরা যাচাই-বাছাই শেষে রোববার সকালে এটি অনুমোদন দিয়েছি।

 যে তিন প্রতিষ্ঠানের নামে নিবন্ধন নিয়েছে- ফেসবুক টেকনোলজিস আয়ারল্যান্ড লিমিটেড, ফেসবুক আয়ারল্যান্ড লিমিটেড এবং ফেসবুক পেমেন্টস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

নিউজ ট্যাগ: বিআইএন ফেসবুক

আরও খবর

আমার দেখা তসলিমা নাসরিন

শনিবার ০৫ জুন ২০২১




শক্তিশালী নেটওয়ার্কের আওতায় আসছে তিন পার্বত্য জেলা

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
পার্বত্য অঞ্চলের ইউনিয়নগুলো অতিদুর্গম বিধায় নিরাপত্তা ঝুঁকি ও পারিপার্শ্বিক প্রতিবন্ধকতার কথা বিবেচনা করে এই কাজটি বাংলাদেশ

দেশের তিন পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানকে শক্তিশালী প্রযুক্তিগত যোগাযোগ নেটওয়ার্কের আওতায় নিয়ে আসার কাজ শুরু করেছে সরকার। এ জন্য অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হচ্ছে এই তিন জেলাতে। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে এই কাজটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ১৬তম বৈঠকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রকল্পটির প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শামসুল আরেফিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

শামসুল আরেফিন বলেন, দুর্গম এলাকায় স্থায়ী নেটওয়ার্ক স্থাপনের লক্ষ্যে টেলিযোগাযোগ সুবিধা বঞ্চিত এলাকাসমূহের ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি স্থাপন (কানেক্টেড বাংলাদেশ) প্রকল্পের অধীন পার্বত্য অঞ্চলের তিনটি জেলায় (বান্দরবান, রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ি) মোট ৫৯টি ইউনিয়নে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পার্বত্য অঞ্চলের ইউনিয়নগুলো অতিদুর্গম বিধায় নিরাপত্তা ঝুঁকি ও পারিপার্শ্বিক প্রতিবন্ধকতার কথা বিবেচনা করে এই কাজটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মাধ্যমে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এদিন বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের ১১টি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। তার মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ছয়টি, স্থানীয় সরকার বিভাগের দুটি, জননিরাপত্তা বিভাগের একটি, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাব ছিল।


আরও খবর

বন্ধ হচ্ছে উইন্ডোজ ১০

সোমবার ১৪ জুন ২০২১




অনেক কষ্টে বড় হয়েছি, খাবারটাও ঠিকমতো পাইনি বলেই কাঁদলেন বর্ষা

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা ও শিল্পপতি-অভিনেতা অনন্ত জলিলের স্ত্রী আফিয়া নুসরাত বর্ষা। শৈশব ও কৈশোর ছিলো তার নানা প্রতিবন্ধকতায় ভরপুর। প্রায়ই ঘরে খাবার থাকতো না। সকালের নাস্তা না খেয়েই স্কুলে গিয়েছেন। সেই কঠিন সময় ও অতীতকে ভুলে যাননি বর্ষা। নিজের আজকের অবস্থানটাকে যেমন উপভোগ করেন তেমনি অতীতের দিনগুলোকেও স্মরণ করেন। সম্প্রতি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে নিজের জীবনের জানা অজানা অনেক গল্পই শোনালেন বর্ষা। সেখানে তার অতীত নিয়েও কথা বলেন তিনি।

খোঁজ-দ্য সার্চ সিনেমায় অভিনয় করে চলচ্চিত্রে পা রাখেন বর্ষা। ইফতেখার চৌধুরী পরিচালিত এ সিনেমায় চিত্রনায়ক অনন্ত জলিলের বিপরীতে অভিনয় করেছেন তিনি। এরপর একসঙ্গে অনেকগুলো সিনেমায় অভিনয় করেছেন অনন্ত-বর্ষা। কাজ করতে গিয়ে প্রেম ও বিয়ে। বর্তমানে দুই সন্তান নিয়ে তারা সুখী দম্পতি।

সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে বর্ষা তার জীবনের ফেলে আসা দিনগুলো নিয়ে বলেন, আমি খুব সাধারণ ঘরের মেয়ে ছিলাম। এমনও হয়েছে সকালে আনমনে স্কুলে চলে গিয়েছিলাম। আমার ঘরে খাবারও ছিল না যে আমি এটা খেয়ে যাব। হঠাৎ করে স্কুলে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছিলাম। তারপর আমার টিচার আমাকে তার বাসায় নিয়ে গিয়ে ডিম দিয়ে খিচুড়ি খাইয়েছিলেন। তারপর আবার ক্লাসে আসি।

কথাগুলো বলতে বলতে কয়েক সেকেন্ডের জন্য থেমে যান বর্ষা। তার চোখের কোণায় পানি জমে যায়। নিজেকে সামলে অভিনেত্রী আরও বলেন, আমার ৮-১০ বছর পর্যন্ত অনেক কষ্টে দিন কেটেছে। খাবারটাও ঠিকমতো পাইনি। তারপর আলহামদুলিল্লাহ, আমার ফ্যামিলি এটাকে ওভারকাম করতে পেয়েছে।

ছোটবেলা থেকেই মানুষের ভালোবাসা অনেক বেশি পেতেন বলেন জানান চিত্রনায়িকা বর্ষাা। তার ভাষায়, প্রাইমারি শেষ করে হাইস্কুলে যাওয়ার পরও টিচারদের ভালোবাসা পেয়েছি। বার্ষিক অনুষ্ঠানে নাটক করতে শিক্ষকরা আমাকে ছেলেদের চরিত্রগুলো দিতেন। একবার চেয়ারম্যান চরিত্রে অভিনয় করে কলম উপহার পেয়েছিলাম।

সিরাজগঞ্জে বেড়ে ওঠা বর্ষা কি ছোটবেলা ফিরে পেতে চান? এমন প্রশ্নের উত্তরে তার জবাব, সত্যি কথা বলতে কী, আমি আসলে ছোটবেলায় ফিরে যেতে চাই না। কারণ অনেক কষ্টে বড় হয়েছি। তবে ধানমন্ডি লেকে গিয়ে চটপটি-ফুসকা খাওয়া, নদীর ধারে বসা, বান্ধবীদের সঙ্গে গল্প করা খুব মিস করি। এখন চাইলেই এগুলো করতে পারি না। আমার কাছে মনে হয়- ইশ, ওই দিনগুলোতে যদি ফিরে যেতে পারতাম। তাহলে বান্ধবীদের অনেক ভালো ভালো খাওয়াতে পারতাম। হাহাহা।

নিজের জীবনের অতীতকে ভুলে যেতে চান না বর্ষা। লুকিয়েও রাখতে চান না। তিনি মনে করেন দীর্ঘদিনে সংগ্রাম ও পরিশ্রমের পর আজকে তার যে অবস্থান তা হয়তো কারো জন্য প্রেরণা হতেও পারে। যদি তার জীবন একটি মানুষকেও প্রেরণা দেয়, স্বপ্ন দেখায় তবে সেটা হবে তার জন্য বিরাট প্রাপ্তি। হতাশাকে জয় করেই পৃথিবীতে বাঁচতে হয়।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে নেত্রী-দ্য লিডার সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন বর্ষা। তুরস্কের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে এ ছবিটি।



আরও খবর



ভারতে টিকা সরবরাহে ড্রোন ব্যবহার করা হবে

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের প্রত্যন্ত অঞ্চলে করোনার টিকা পৌঁছে দিতে ড্রোন ব্যবহার করতে যাচ্ছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এজন্য তারা দরপত্র আহ্বান করেছে। আগামী ২২ জুনের মধ্যে তা জমা দিতে বলা হয়েছে। রবিবার (১৩ জুন) এখবর দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের পত্রিকা আনন্দবাজার। সবার আগে তেলেঙ্গানা ড্রোনের মাধ্যমে ঘরে ঘরে টিকা পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। এখনও পর্যন্ত যা খবর, রাজস্থানের বিকানির থেকে এই প্রকল্প শুরু হতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিষয়টির তদারকিতে রয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। তাদের তরফেই দরপত্র চেয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। বলা হয়েছে, কমপক্ষে ৪ কেজি পর্যন্ত ওজন বইতে সক্ষম হতে হবে ড্রোনগুলিকে। মাটি থেকে উল্লম্ব ভাবে উড়তে হবে সেগুলিকে। মাটি থেকে কমপক্ষে ১০০ মিটার উচ্চতায় উড়তে হবে।

আরো বলা হয়, যে জায়গা থেকে টিকা বোঝাই করে ড্রোনগুলিকে ওড়ানো হবে, টিকা সরবরাহ করে ফের সেখানে ফেরত আসতে হবে সেগুলিকে। এছাড়াও টিকা নিয়ে ড্রোনগুলি যাতে নিরাপদে মাটিতে নামে, জিপিএস-এর মাধ্যমে তার গতিবিধি নির্ভুল ভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়, তাও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।


আরও খবর