Logo
শিরোনাম

নোটিফিকেশন থেকেই ব্লক করা যাবে হোয়াটসঅ্যাপে

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অপরিচিত মেসেজের ভিড়ে পরিচিতদের মেসেজ অনেক সময় হারিয়ে যায়। এজন্য নাম্বার ব্লক করার সুবিধা থাকলেও এবার নতুন ফিচার নিয়ে আসছে হোয়াটসঅ্যাপ। মেটার মালিকানাধীন এই মেসেজিং অ্যাপ একটি নতুন শর্টকাট চালু করার জন্য কাজ করছে। যার সুবাদে নোটিফিকেশন বার থেকেই কাউকে সহজেই ব্লক করা যাবে।

হোয়াটসঅ্যাপের ফিচার ট্র্যাকার ওয়েবেটাইনফো জানিয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপ একটি নতুন ফিচার নিয়ে কাজ করছে। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা চ্যাট মেসেজ নোটিফিকেশন থেকে সরাসরি কাউকে ব্লক করতে সক্ষম হবেন। তবে সবসময় কিন্তু এই কাজ করা যাবে না।

জানা গেছে, ব্যবহারকারীরা যখন কোনো অপরিচিত নম্বর থেকে মেসেজ রিসিভ করবেন তখনই কেবলমাত্র এই শর্টকাট কাজে লাগিয়ে কাউকে ব্লক করা যাবে। তবে পরিচিত কোন নাম্বার ব্লক করার ক্ষেত্রে এই শর্টকাট প্রযোজ্য হবে না। এর আগে বছর শুরুতেই নতুন ফিচারের ঘোষণা দিয়েছিল হোয়াটসঅ্যাপ। এতদিন হোয়াটসঅ্যাপে-এ ৩টি চ্যাট পিন টু টপ করা যেত। এখন থেকে ৩টির পরিবর্তে ৫টি চ্যাট পিন টু টপ করা যাবে। 

ওয়াবেটাইনফো জানিয়েছে, বিভিন্ন চ্যাট, মেসেজের ভিড়ে অনেক জরুরি চ্যাট হারিয়ে যায়। প্রয়োজনের সময় সেগুলো দ্রুত খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়। সেই সমস্যা দূর করার জন্য আসছে এই নতুন ফিচার। এই ফিচারের সাহায্যে সহজেই প্রয়োজনীয় চ্যাটকে খুঁজে পাওয়া যাবে। সেই কারণেই ৩টির পরিবর্তে বদলে এখন থেকে ৫টি জরুরি চ্যাট পিন টু টপ করা যাবে।

নিউজ ট্যাগ: হোয়াটসঅ্যাপ

আরও খবর



কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও দুইজন। স্থানীয় সময় শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) ভোর ৫টায় কাতারের আল শামাল হাইওয়েতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গলের মো. রাহাত, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মো. সিরাজুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জের মো. শাকিল ও মো. ইউসুফ মাতব্বর। গুরুতর আহত মো. জামাল উদ্দিন ও হাবিবুর রহমান অপু দোহার হামাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের বাড়িও নারায়ণগঞ্জ।

নিহত সিরাজুল, শাকিল ও ইউসুফের মরদেহ দোহার হামাদ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। রাহাতকে শনিবার কাতারের আবু হামুর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

জানা গেছে, আল শামাল হাইওয়েতে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি প্রাইভেটকারকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। চারজনকে হাসপাতালে নেয়ার পর আরও দুজন মারা যান।

কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, নিহত তিনজনের মরদেহ দ্রুত দেশে পাঠানো হবে।


আরও খবর



২০ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে সাড়ে ১৩১ কোটি ডলার

প্রকাশিত:রবিবার ২২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চলতি বছরের জানুয়ারির প্রথম ২০ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এসেছে ১৩১ কোটি ৫২ লাখ ডলার। দেশে গত বছরের শুরু থেকেই চলছে ডলার সংকট। ধীরে ধীরে এই সংকট প্রকট আকার ধারণ করছে। এমন পরিস্থিতিতির মধ্যে চলতি বছরের শুরুতেই প্রবাসী আয়ে উত্থান হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি জানুয়ারি মাসের প্রথম ২০ দিনে প্রবাসীরা সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে। আলোচ্য এই সময়ে বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১০৯ কোটি ৯৯ লাখ মার্কিন ডলারের রেমিট্যান্স। এছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ১৭ কোটি ৯১ লাখ মার্কিন ডলার, বিশেষায়িত এক ব্যাংকের মাধ্যমে ৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ৫০ লাখ মার্কিন ডলার।

তথ্য বলছে, সদ্য সমাপ্ত ডিসেম্বর মাসে ১৬৯ কোটি ৯৭ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স এসেছিল। এই পরিমাণ ২০২১ সালের ডিসেম্বরের চেয়ে প্রায় ৭ কোটি ডলার বেশি। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৬৩ কোটি ডলার।

এদিকে চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম (জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত) ৬ মাসে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ১ হাজার ৪৯ কোটি ৩২ লাখ মার্কিন ডলার। আগের অর্থবছরের একই সময়ে রেমিট্যান্স এসেছিল ১ হাজার ২৩ কোটি ৯৫ লাখ ডলার। সেই হিসাবে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে ২৫ কোটি ৩৭ লাখ মার্কিন ডলার বেশি এসেছে।

এর আগে ২০২১-২০২২ অর্থবছরে দেশে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলার। তারও আগে ২০২০-২১ অর্থবছরে রেমিট্যান্স আহরণের পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার।


আরও খবর



টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে কোহলিকে পেছনে ফেললেন লিটন

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের বিপক্ষে সিরিজে খুব একটা ভালো করতে পারেননি লিটন কুমার দাস। শেষ ইনিংসে এসে অবশ্য করেন ম্যাচের মোড় ঘোরানো এক ফিফটি। তাতেই আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে সুখবর শুনলেন বাংলাদেশের সেরা ব্যাটার। দুই ধাপ এগিয়ে আবারও ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজের ও দেশের সেরা ১২তম অবস্থানে এসেছেন তিনি। লিটন পেছনে ফেলেছেন ভারতের সেরা ব্যাটার বিরাট কোহলিকে।

বুধবার আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের সাপ্তাহিক হালনাগাদ প্রকাশ করে আইসিসি। তাতে দেখা যায় ৭০২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ১৪ থেকে ১২ নম্বরে এসেছেন লিটন। বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম বড় নাম কোহলি দুই ধাপ নেমে ৬৭৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে এখন আছেন ১৪ নম্বরে।

চলতি বছর মার্চ মাসে ক্যারিয়ার সেরা ১২তম স্থানে ছিলেন লিটন, তখন তার রেটিং পয়েন্ট ছিল ৭২৪। পরের কিছু ম্যাচে প্রত্যাশা পূরণ না করায় দুই ধাপ নিচে নেমে যান তিনি। আবারও তার উত্তরণ হলো।


আরও খবর



জ্বর-শ্বাসকষ্টের শিকার দিল্লির ৫৩ শতাংশ পরিবার

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হাড়কাঁপানো ঠান্ডার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দিল্লিতে বাড়ছে বায়ু-দূষণের মাত্রা। এতে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি ও তার আশপাশে এলাকায়  প্রায় ৫৩ শতাংশ পরিবারের এক বা একাধিক সদস্য এখন ভাইরাল জ্বর-শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত।

দিল্লি রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সমীক্ষা দল সম্প্রতি রাজধানী নয়াদিল্লি এবং নয়ডা, গুরুগ্রাম, গাজিয়াবাদ ও ফরিদাবাদে জরিপ চালিয়ে এ তথ্য সামনে এনেছে। জরিপে বলা হয়েছে, রাজধানী ও দিল্লির অন্যান্য অঞ্চলের ৫৩ শতাংশেরও বেশি পরিবারের অন্তত এক জন এবং ২৩ শতাংশ পরিবারের ২ থেকে ৩ জন সদস্য ঠান্ডাজনিত জ্বর, সর্দি, কাশি, মাথাব্যথা, গা ব্যথা ও শ্বাসকষ্টের মতো শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন। এছাড়া বায়ু দূষণের কারণে অনেক এলাকার লোকজনের মধ্যে চোখের সমস্যাও দেখা দিয়েছে।

অবশ্য দিল্লির শীতকালীন পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। রাজ্য সরকারের আবহাওয়া দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এদিন রাজধানী নয়াদিল্লিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১০ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে আবহাওয়া দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সামনে আর একটি শৈত্য প্রবাহ হানা দিতে পারে দিল্লিতে।


আরও খবর



দেশে প্রাণিসম্পদের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়ে রপ্তানির পর্যায়ে পৌঁছেছে: শ ম রেজাউল করিম

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে প্রাণিসম্পদের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়ে রপ্তানির পর্যায়ে পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। আজ বুধবার সকালে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জার্নালিস্ট ফেলোশিপ প্রোগ্রামের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। 

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রাণিসম্পদ খাতে একটা বৈপ্লবিক পরিবর্তন এসেছে। একসময় কোরবানির জন্য আমাদের ভারত ও মিয়ানমারের দিকে তাকিয়ে থাকতে হতো। এখন আমাদের প্রাণিসম্পদের উৎপাদন এত বেড়েছে যে আমরা বিদেশে রপ্তানি করার পর্যায়ে পৌঁছে গেছি।

তিনি বলেন, যারা প্রাণিসম্পদের খামার করছেন তারা নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করছেন। এর ফলে এ খাত কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছে। প্রাণিজ আমিষের চাহিদার বড় অংশ পূরণ হয় দুধ, ডিম ও মাংস থেকে। সেটা সরবরাহ করা হচ্ছে প্রাণিসম্পদ খাত থেকে। পাশাপাশি এ খাত গ্রামীণ অর্থনীতি সচল করছে। প্রাণিসম্পদ খাত থেকে উৎপাদিত সামগ্রী দেশের উন্নয়নে যেমন ভূমিকা রাখছে, তেমনি মানুষের কল্যাণে, শারীরিক প্রয়োজনে খাবারের চাহিদা মেটাতে ও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে বড় ভূমিকা রাখছে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রথম লক্ষ্য ছিল প্রাণিসম্পদ খাতে উৎপাদন বৃদ্ধি করা। এখন লক্ষ্য হচ্ছে গুণগত ও মানসম্মত উৎপাদন বৃদ্ধি করা। এ খাতের টেকসই উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন গবেষণা লব্ধ তথ্য-উপাত্ত নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, গণমাধ্যমের সহযোগিতা প্রাণিসম্পদ খাত সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে অনেক সুযোগ করে দিচ্ছে। তবে কখনও কখনও স্বার্থান্বেষী মহল ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশে সক্ষম হয়। এতে জাতীয় প্রতিষ্ঠান বা সেখানে যারা ভালো কাজ করেন তাদের ব্যাপারে নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয় এবং ওই প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা উৎসাহ হারিয়ে ফেলে।

তিনি আরও বলেন, তথ্যের অবাধ প্রবাহের যুগে আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করতে চাই। প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে গণমাধ্যমের অব্যাহত সহায়তা চাই। সংবাদ হোক বস্তুনিষ্ঠ। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ইচ্ছাকৃতভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য যেন সংবাদ না হয়।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মো. এমদাদুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে ও পরিপ্রেক্ষিতের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ বোরহান কবীরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক মো. আব্দুর রহিম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, গ্লোবাল টেলিভিশনের সিইও সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা এবং প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের প্রধান কারিগরি সমন্বয়ক ড. গোলাম রব্বানী। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং ফেলো সাংবাদিকগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার মোট ২০ সাংবাদিককে ফেলোশিপ প্রদান করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সেরা তিনজন, অনলাইন মিডিয়ার সেরা তিনজন এবং প্রিন্ট মিডিয়ার সেরা পাঁচ ফেলো সাংবাদিককে পুরস্কৃত করা হয়।


আরও খবর