Logo
শিরোনাম

নটর ডেম কলেজছাত্রের মৃত্যু: ডিএসসিসির তিন সদস্যের কমিটি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি তদন্ত গঠন করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় সিটি করপোরেশনে থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

এতে বলা হয়, নটর ডেম কলেজছাত্র নাঈম হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় ঢাকা দক্ষিণ সিটির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর সিফওয়াত নাঈমকে আহ্বায়ক, মহা-ব্যবস্থাপক (পরিবহন) বিপুল চন্দ্র বিশ্বাস এবং তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আনিছুর রহমানকে সদস্য করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটি সাত কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে। এছাড়াও এ দুর্ঘটনা কীভাবে সংগঠিত হলো তা সবিস্তারে উত্থাপন ও দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করা, ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়ানো যায়, সেজন্য সুপারিশ করবে এ কমিটি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস নটর ডেম কলেজের নিহত ছাত্র নাঈম হাসানের জানাজায় অংশ গ্রহণ করবেন। 

এর আগে বুধবার (২৪ ন‌ভেম্বর) সকাল সা‌ড়ে এগা‌রোটার দিকে ক‌লেজ থে‌কে কামরাঙ্গীর চ‌রে যাওয়ার প‌থে গু‌লিস্তান সি‌নেমা হ‌লের সাম‌নে ঢাকা দ‌ক্ষিণ সিটি কর‌পো‌রেশ‌নের এক‌টি ময়লার গা‌ড়ি নটরডেমছাত্র নাঈম হাসানকে ধাক্কা ‌দেয়। মারাত্মক আহত অবস্থায় তা‌কে ঢাকা মে‌ডিক্যাল ক‌লেজ হাসপাতা‌লে নেওয়ার পর সে মারা যায়।


আরও খবর



মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৪৮

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে ৪৮ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

শনিবার সকাল ৬টা থেকে রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত সময়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে ১১ হাজার ৭৯৮ পিস ইয়াবা,  ৪৭ গ্রাম হেরোইন, ৩ কেজি ৭৫ গ্রাম ১০০ পুরিয়া গাঁজা ও ৮৫ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৫টি মামলা হয়েছে।

 


আরও খবর



কোন কারণে পাকিস্তান আক্ষরিক অর্থে অপ্রতিরোধ্য

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এ বারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একটিও ম্যাচ না হেরে শেষ চারে উঠেছে পাকিস্তান। তারাই একমাত্র দল, যারা অপরাজিত। বিরাট কোহলীর ভারতকে হারিয়ে শুরু হয়েছিল পাকিস্তানের বিশ্বকাপ অভিযান। বুধবার তারা সেমিফাইনালে নামছে। বিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। দেখে নেওয়া যাক, কোন কারণে এ বার পাকিস্তান আক্ষরিক অর্থে অপ্রতিরোধ্য।

# শুরুতে দুই সেরা ব্যাটার

পাকিস্তান ক্রিকেটে বরাবরের একটা প্রথা, দলের সেরা ব্যাটারের পরের দিকে নামা। যেমন ইনজামাম উল হক বেশ কয়েক বছর ধরে পাঁচ নম্বরে নামতেন। কিন্তু এই বিশ্বকাপে দলের সেরা দুই ব্যাটার বাবর আজম ও মহম্মদ রিজওয়ান একেবারে ওপেন করতে নামছেন।

# পরিকল্পনা করা এবং তার সঠিক রূপায়ন

এটা পুরোটাই সম্ভব হয়েছে কোচ সাকলিন মুস্তাক ও ব্যাটিং কোচ ম্যাথু হেডেনের জন্য। কোনও ম্যাচে যদি এরকম পরিকল্পনা থাকে, শুরুতে বেশি ঝুঁকি না নিয়ে খেলে যাওয়া হবে, পরে রান রেট বাড়ানোর দিকে মন দেওয়া হবে, তা হলে বাবর আজম, শাহিন আফ্রিদিরা সেটাই করছেন। নিখুঁত পরিকল্পনা ছকে দেওয়ার কাজটা করছেন সাকলিন, হেডেন।

# দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় না যাওয়া

পাকিস্তান পাঁচটি ম্যাচেই এক দল খেলিয়েছে। ফখর জামান ব্যাট হাতে ছন্দে না থাকলেও, বা হাসান আলি প্রচুর রান দিলেও পাকিস্তান তাদের দলে কোনও বদল ঘটায়নি। তাদের সমানে সুযোগ দিয়ে যাচ্ছে। সাংবাদিক সম্মেলনে বাবর বলেই দিয়েছেন, ও যে কোনও দিন একার ক্ষমতায় ম্যাচের রঙ বদলে দিতে পারে। ওর প্রতি আমাদের অগাধ আস্থা আছে।

# ফিল্ডিংয়ে ব্যাপক উন্নতি

সাম্প্রতিক অতীতে পাকিস্তানের এত ভাল ফিল্ডিং দেখা যায়নি। গ্রুপের পাঁচটি ম্যাচে বল গলানো বা ক্যাচ ফস্কানোর ঘটনা পাকিস্তান দলে তেমন দেখা যায়নি। শাহিন আফ্রিদি একটি ক্যাচ ফেললেও পাঁচটি ম্যাচে একটি ক্যাচ পড়ার ঘটনা কোনও অনুপাতেই আসে না।

# চাপ সামলাতে শেখা

এ বারের বিশ্বকাপে পাকিস্তান দলকে দেখে মনে হচ্ছে, চাপ কী করে সামলাতে হয়, সেটা খুব ভাল ভাবে শিখে এসেছে তারা। বিশেষ করে ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচে পাকিস্তানের খেলা দেখে একটা সময়ের জন্যও মনে হয়নি, তাদের ক্রিকেটাররা বিন্দুমাত্র চাপে রয়েছে।


আরও খবর



বাংলাদেশে করোনা অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বাংলাদেশে করোনা এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা এখন সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে এসেছে। সংক্রমণের হারও কমে এসেছে

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, যাদের টিকা দেওয়ার কথা ছিল, তাদের অনেকেই টিকা পেয়ে গেছেন। আমরা নয় কোটি ডোজ টিকা দিয়ে ফেলেছি। আগামী জানুয়ারির মধ্যে আশা করা যায়, আরও ছয় কোটি ডোজ দেওয়া হবে। মোট ১৫ কোটি টিকা দেওয়া হলে দেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষ দুই ডোজ করে টিকা পেয়ে যাবেন।

শনিবার বিকেলে মানিকগঞ্জ শহীদ মিরাজ তপন স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রিমিয়ার ডিভিশন জেলা ফুটবল লীগের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে করোনা এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা এখন সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে এসেছে। সংক্রমণের হারও কমে এসেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাইডলাইনে আমাদের চেষ্টায় দেশের অবস্থা ভালো আছে।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রিমিয়ার ডিভিশন জেলা ফুটবল লিগের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা প্রমুখ। এ লিগে আটটি দল অংশ নিচ্ছে। উদ্বোধনী খেলায় পল্লী মঙ্গল সমিতি ৩-০ গোলে হরিরামপুর সাকুচিয়া ক্লাবকে পরাজিত করেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, দেশে মোট ১৩ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া হবে। এরমধ্যে এক কোটি মানুষ দেশের বাইরে রয়েছেন। ১২ কোটি মানুষকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। জানুয়ারির মধ্যে সাড়ে সাত কোটি মানুষকে দুই ডোজ করে টিকা দেওয়া হলে বাকি সাড়ে তিন কোটি মানুষকে পর্যায়ক্রমে দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, টিকা দেওয়ার কারণে করোনা নিয়ন্ত্রণে। আর নিয়ন্ত্রণে আছে বলেই দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে। দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে, খেলাধুলা সচল হয়েছে, দেশে-বিদেশে যাওয়া-আসা শুরু হয়েছে। টিকা দেওয়ার কারণে মানুষ আর করোনা নিয়ে আগের মতো ভয় পায় না। তবে করোনাকে অবহেলা করা যাবে না। করোনা এখনও চলে যায়নি। সব ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।


আরও খবর



তামিমের সঙ্গে আমার মতের মিলের চেয়ে অমিলই বেশি

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
আমার মনে হয়, আমাদের (তামিম-মাশরাফি) মধ্যে মতের মিলের চেয়ে অমিলই বেশি হয়েছে

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে বিশ্লেষণধর্মী অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

শুক্রবার ইউটিউব লাইভে ওই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও। সেখানে দল নির্বাচন, কোচদের সামর্থ্য, ক্রিকেট বোর্ড ও নির্বাচকদের কথা নিয়ে অনেক আলোচনা হয় তাদের।

অনুষ্ঠানে যোগ দিলেও তামিমের জন্য এমন অনুষ্ঠান না করাই শ্রেয় বলে মনে করেন মাশরাফি

মাশরাফির মতে, তামিমের জন্য এমন অনুষ্ঠান করা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ তামিম এখনো জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন। তিনি এখনো ওয়ানডে অধিনায়ক। তাই তামিমের জন্য অনুষ্ঠানটি করা বেশি চ্যালেঞ্জিং।

মাশরাফি বলেন, আমার মনে হয়, আমাদের (তামিম-মাশরাফি) মধ্যে মতের মিলের চেয়ে অমিলই বেশি হয়েছে। দেখা যেত তামিমের সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে ১০টা আলোচনা করা হলে ৮টাতেই ওর সঙ্গে আমার মতবিরোধ হতো। তামিম ওখানে দাঁড়িয়ে আছে, আমি ওর সামনেই বলছি। কারণ পেছনে কথা বলে লাভ কী? আমার কাছে মনে হয় তামিমের কাছে এই অনুষ্ঠানটা করা আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং। কারণ তামিম এখনো ওয়ানডে দলের অধিনায়ক।

বিষয়টির আরো খোলাশা করেন মাশরাফি, এই বিশ্বকাপের পরের ম্যাচেই তামিম অধিনায়ক হিসেবে নামবে। আমরা দলের বাইরের মানুষ কিন্তু যা ভালো মনে করি বলতে পারি। কিন্তু আমি তামিমকে দেখেছি, ও সতীর্থদের (বিশ্লেষক হিসেবে) আগলে রাখছে। এটা ওকে করতেই হবে। আমিও কিন্তু এটাই করেছি, সতীর্থদের সমর্থন দিয়েছি। ইতিবাচক কথা বলেছি। কারণ দিনশেষে আমি খেলোয়াড়দের সমর্থন দেবই।

তামিমের এখন বিশ্লেষক না হওয়াকে বিরক্তিকর হিসেবে ইঙ্গিত দিলেন মাশরাফি। বললেন, মূল কথা হচ্ছে, দলের সঙ্গে যারা যুক্ত, তারা যদি কথা বলেন তাহলে সেটা অনেক বড় বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

নিউজ ট্যাগ: তামিম-মাশরাফি

আরও খবর



কুমিল্লায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ, যান চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে ডেনিম নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ কারণে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। যার ফলে সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, বেতনসহ নানা দাবিতে ডেনিম নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার হাড়িখোলায় অবস্থায় নেয়। এতে ঢাকা-কুমিল্লা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।


আরও খবর