Logo
শিরোনাম

অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ইসলামের ইতিহাস পরীক্ষা স্থগিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১০৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আগামী সোমবার (৯ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিতব্য ২০২১ সালের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি পরীক্ষা অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের পরিচালক মো. আতাউর রহমান স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে আরও জানানো হয়, অন্যান্য সকল বিষয়ের পরীক্ষা যথা সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। স্থগিতকৃত ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি (পত্র কোড- ২২১৬০৩) কোর্সের পরীক্ষার সংশোধিত তারিখ পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো হবে। এ পরীক্ষার পূর্বঘোষিত অন্যান্য তারিখ ও সময়সূচি অপরিবর্তিত হবে।


আরও খবর



চবি ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৩

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শাটল ট্রেনে কথা-কাটাকাটির জের ধরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত তিনজন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেলস্টেশনে সংঘর্ষ শুরু হয়। রাত পৌনে ১১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুপক্ষের সংঘর্ষ চলছিল।

বিবাদমান গ্রুপ দুইটি হলো-ভিএক্স ও সিক্সটি নাইন গ্রুপ। গ্রুপ দুইটিই নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

জানা যায়, শহর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা রাতের শাটল ট্রেনে ভিএক্স গ্রুপের কর্মীদের সঙ্গে সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীদের কথা-কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে শাটল ট্রেন বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশন পৌঁছার পর ভিএক্স গ্রুপের কর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হল ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীরা শাহজালাল হলের সামনে অবস্থান নেয়। পরে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় উভয় পক্ষ একে অপরের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। এই ঘটনায় উভয় পক্ষের তিনজন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানতে চাইলে ভিএক্স গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি প্রদীপ চক্রবর্তী দুর্জয় বলেন, জুনিয়রদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। আমরা বসে মীমাংসা করে নেব।’

তবে এ বিষয়ে জানতে সিক্সটি নাইন গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবু তৈয়ব বলেন, সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত তিনজন চিকিৎসা নিতে এসেছেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর। বাকি দুজন চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছে। গুরুতর আহত শিক্ষার্থীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। দুই পক্ষ এখনও আছে, আমারা তাদের থামানোর চেষ্টা করছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডি আছে।’


আরও খবর

কড়াইয়ের গরম তেলে পড়ে শিশুর মৃত্যু

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

কুকুর বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেলো যুবকের

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




কানাডায় বাড়ি কিনতে পারবেন না বিদেশিরা

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বাড়ি কেনার সুযোগ বন্ধ করে দিচ্ছে কানাডা। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে দেশটিতে বাড়ির দাম আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। 

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানায়, এ বিষয়ে একটি আইনও পাস করেছে কানাডার সরকার। নতুন আইন অনুযায়ী, ২০২৩ সালের প্রথম দিন থেকেই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ওপর বাড়ি কেনা বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হলো। মূলত নিজ দেশের নাগরিকদের আবাসন সমস্যা বেড়ে যাওয়ায় এমন পদক্ষেপ। 

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানা যায়, এই নিষেধাজ্ঞা শুধু শহর অঞ্চলের জন্য প্রযোজ্য হবে। এ ছাড়া বিনোদনমূলক সম্পত্তি কেনার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য নয় বলে জানিয়েছে অটোয়া কর্তৃপক্ষ।  দাম বেশি হওয়ায় অনেক কানাডিয়ান বাড়ি কিনতে পারছিলেন না। এ অবস্থায় ২০২১ সালের নির্বাচনী প্রচারে দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো দুই বছরের জন্য এমন পদক্ষেপের প্রস্তাব দেন। 

সে সময় ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি জানায়, কানাডায় বাড়ি কেনা মুনাফাখোর, ধনী ব্যবসায়ী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে আগ্রহের বিষয়ে পরিণত হয়েছে। এতে বাড়িগুলোর দাম আকাশ ছোঁয়া হয়েছে। বাড়ি তো জনগণের, বিনিয়োগকারীদের জন্য নয়।

এদিকে কানাডিয়ান রিয়েল এস্টেট অ্যাসোসিয়েশনের মতে, ২০২২ সালের শুরু থেকে বাড়ির দাম কমেছে। বাড়ির দাম গড়ে সর্বোচ্চ ৮ লাখ কানাডিয়ান ডলার থেকে কমে ৬ লাখ ৩০ হাজার কানাডিয়ান ডলারে নেমে এসেছে।  এ ছাড়া দেশটির জাতীয় আবাসন সংস্থা কানাডা মর্টগেজ অ্যান্ড হাউজিং করপোরেশন এক প্রতিবেদনে বলেছে, ২০৩০ সালের মধ্যে কানাডায় প্রায় ১ কোটি ৯০ লাখের মতো আবাসন ইউনিট প্রয়োজন হবে। এ ক্ষেত্রে অন্তত ৫৮ লাখ নতুন বাড়ি নির্মাণ করতে হতে পারে। 

নিউজ ট্যাগ: কানাডা

আরও খবর



চীনে বেসামাল কোভিড পরিস্থিতি

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চীনে করোনা পরিস্থিতির কোনো উন্নতি নেই। চিকিৎসকরা বলছেন, সাংহাই শহরের পরিস্থিতি ভয়াবহ। এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ জানিয়ে দিয়েছে, চীন থেকে প্রবেশে কোভিড-নেগেটিভ সার্টিফিকেট লাগবে। এর পাল্টা হুশিয়ারিও দিয়েছে চীন। এদিকে, করোনা ছড়ানো বন্ধে কড়া সতর্কতায় রয়েছে ভারত।

জিরো কোভিড নীতি শিথিল করার পর চীনে বেসামালভাবে বাড়তে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ। অভিযোগ আছে, করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু কম করে দেখানো হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে দেশটির চিকিৎসকদের দাবি, বাণিজ্যিক কেন্দ্র ও বৃহত্তম শহর সাংহাইয়ের ৭০ শতাংশ মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত বছরের মার্চ-এপ্রিলের তুলনায় এ হার ২০ থেকে ৩০ গুণ বেশি বলে দাবি করছেন তারা।

ভেতরে আর স্থান সংকুলান না হওয়ায় সাংহাইয়ের বিভিন্ন হাসপাতালের গেটের কাছে এবং গ্যারেজেও আশ্রয় নিচ্ছেন গুরুতর অসুস্থ করোনা রোগীরা।

রাজধানী বেইজিং, তিয়ানজিন, চংকুইং এবং গুয়াংঝৌসহ দেশটির প্রায় সব বড় শহরে করোনা সংক্রমণ বিপজ্জনক পর্যায়ে পৌঁছে গেছে বলে জানানো হয়েছে।

এ অবস্থায় চীনা যাত্রীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে চলেছে একের পর এক দেশ। এবার এ তালিকায় যুক্ত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটিতে চীনা নাগরিকদের ঢুকতে হলে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট লাগবে।

বিষয়টির সমালোচনা করেছে চীন। যেসব দেশ চীনা নাগরিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, ভবিষ্যতে তাদের পাল্টা ব্যবস্থার মুখে পড়তে হবে বলে হুমকি দিয়েছে দেশটি।

সম্প্রতি করোনার সবচেয়ে সংক্রামক ধরন এক্সবিবি ১ দশমিক ৫ শনাক্ত হয়েছে ভারতে। করোনার দ্রুত সংক্রমণশীল এ ধরনটি গুজরাটে এক ব্যক্তির দেহে মিলেছে। এটি যুক্তরাষ্ট্রেও ছড়াচ্ছে বলে জানা গেছে।

ভারত সরকার নিয়ম করেছে, চীন, সিঙ্গাপুর, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড ও জাপান থেকে আগতদের বাধ্যতামূলকভাবে আরটি-পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে।


আরও খবর



প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন স্কাউট প্রশিক্ষণ পায়: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন স্কাউট প্রশিক্ষণ পায়, সে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, তাহলে (প্রশিক্ষণ দেওয়া গেলে) আমি বিশ্বাস করি, আমাদের সোনার বাংলা গড়া বা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার উপযুক্ত নাগরিক তৈরি হবে। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) গাজীপুরের মৌচাকে ৩২তম এশিয়া প্যাসিফিক ও একাদশ জাতীয় স্কাউট জাম্বুরির সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন এসব কথা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের স্কাউট সম্প্রসারণের মাধ্যমে শিশু কিশোরদের আত্মনির্ভরশীল সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবো। আমি চাই, আমাদের প্রত্যেক শিক্ষার্থী এর আওতায় আসুক। এখন ২২ লাখ সদস্য আছে। ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ লাখ সদস্য হবে।

এসময় স্কাউটের কাজের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্কাউট-ই নতুন প্রজন্মকে নৈতিক ও জীবনধর্মী প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। আর তরুণদের মধ্যে আধুনিক সৃজনশীল গুণাবলী বিকশিত হয়। ফলে স্কাউট সদস্যরা সেবার মন্ত্রে দীক্ষিত হচ্ছে ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলছে। পরোপকারী হিসেবে সমাজ সেবার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রেখে যাচ্ছে। প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও অতিমারি করোনায় তাদের আন্তরিকতা আমরা দেখতে পেয়েছি। এই স্কাউট আন্দোলন আরও ব্যাপকভাবে গড়ে উঠুক। এজন্য আমরা নানা উদ্যোগ নিয়েছি।

এসময় শিশুদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখনই আমি তোমাদের মাঝে আসি, তখনই আমার মনে পড়ে আমার ছোট ভাই শেখ রাসেলকে, মাত্র ১০ বছরে যাকে ঘাতকের বুলেট কেড়ে নিয়েছে। তোমাদের মাঝেই আমি শেখ রাসেলকে খুঁজে পাই। আমি চাই, আমাদের দেশের আজকের শিশু-কিশোরদের জীবন নিরাপদ হোক, সুন্দর হোক, অর্থবহ হোক। তারা সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠুক। আজকের শিশুরাই আগামী দিনে বাংলাদেশের কর্ণধার হবে।

তিনি বলেন, আমি চাই, আমাদের দেশটা আরও চমৎকারভাবে গড়ে উঠুক। যেখানে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ স্থান পাবে না। সাম্প্রদায়িকতা বা সন্ত্রাসবাদ থেকে মুক্ত থাকবে। আজকের শিশু যারা বড় হবে, তারা উদার মন নিয়ে বড় হবে। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে। দেশকে সুন্দরভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং গঠন করার কাজ করবে।


আরও খবর



ডনবাসের সেই শহর দখলে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে রুশ সেনারা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইউক্রেনের ডনবাসে শক্তিশালী হামলা চালাচ্ছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ভাড়াটে সেনাবাহিনী ওয়াগনার গ্রুপও। ডনবাসের গুরুত্বপূর্ণ সোলদার শহর দখলে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে।

জানা গেছে, রুশ সেনাদের পাশাপাশি সেখানে অংশ নিয়েছে কুখ্যাত ভাড়াটে সেনাবাহিনী ওয়াগনার গ্রুপের বিপুল সেনা। সোলদার ডনবাসের অন্যতম একটি বড় বাণিজ্যিক ও শিল্পোন্নত শহর। এটি আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বাখমুতের পাশে অবস্থিত। বাখমুতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে তীব্র লড়াইয়ে লিপ্ত আছে রুশ ও ইউক্রেনের সেনারা।

ইউক্রেনের উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী হান্না মালইয়ার রুশ হামলার ব্যাপারে টেলিগ্রামে জানিয়েছেন, শহরটি দখল করার প্রথম প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেওয়া হয়। কিন্তু পরবর্তীতে রাশিয়ার ওয়াগনার গ্রুপের সেনারা আবারও দ্রুত ফিরে আসে। সঙ্গে নিয়ে আসে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র।

ওয়াগনার গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ইয়েভগিনি প্রিগোজিন গত শনিবার জানান তিনি বাখমুত শহর দখল করতে চান কারণ এ শহরের মাটির নিচে কিছু সুড়ঙ্গ আছে। যেখানে ট্যাংক, কামানসহ অন্যান্য অস্ত্র মজুদ করে রাখা যায়। তবে প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে রাশিয়া বা ইউক্রেন কোনো দেশই সাফল্য পাচ্ছে না বলে দাবি করেছেন ইউক্রেনের সামরিক বিশেষজ্ঞ ওলেহ ঝানোভ।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলনস্কি এক ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন, সোলাদার শহরের কোনো ভবন আর অক্ষত নেই। সব ধসিয়ে দিয়েছে রুশ সেনারা। তবে তিনি জানিয়েছেন, এই লড়াইয়ে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে রুশ সেনারাই এবং শহরের সব জায়গায় পড়ে আছে তাদের মরদেহ।

নিউজ ট্যাগ: ডনবাসে হামলা

আরও খবর