Logo
শিরোনাম

অতিরিক্ত ওষুধ সেবন করে লক্ষাধিক মার্কিনির মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রয়োজনের অতিরিক্ত ওষুধ সেবনের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণ হারিয়েছেন এক লাখ সাত হাজারের বেশি মানুষ। মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবন করে গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে বিপুল সংখ্যক এসব মানুষ প্রাণ হারান। যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা বিষয়ক প্রধান সরকারি সংস্থা সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)এই তথ্য সামনে আনে।

মূলত বিপুল এই প্রানহানিকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্রমবর্ধমান মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনের মহামারিতে আরেকটি দুঃখজনক রেকর্ড হিসেবে দেখা হচ্ছে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানির এই সংখ্যাটি আগের বছরের তুলনায় অর্থাৎ ২০২০ সাল থেকে ১৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। মূলত মারা যাওয়া ব্যক্তিদের ডেথ সার্টিফিকেট পর্যালোচনা করে আনুমানিক একটি প্রতিবেদনে তৈরি করে থাকে সিডিসি।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অন ড্রাগ অ্যাবিউজের ডিরেক্টর ড. নোরা ভলকো মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে প্রাণহানির সর্বশেষ এই পরিসংখ্যানকে সত্যিই বিস্ময়কর বলে আখ্যায়িত করেছেন।

এদিকে সিডিসির এই পরিসংখ্যান প্রকাশের পর সরব হয়েছে হোয়াইট হাউসও। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই বাসভবন ও কার্যালয় থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে মৃত্যুর ক্রমবর্ধমান সংখ্যাকে অগ্রহণযোগ্য বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি ঘোষিত নিজেদের জাতীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ কৌশলের বিষয়টিও সামনে আনা হয়েছে বিবৃতিতে। একইসঙ্গে এই ধরনের প্রাণহানি প্রতিরোধে আরও বেশি মানুষকে যথাযথ চিকিৎসার অধীনে আনা, মাদক পাচারকে ব্যাহত করা এবং ওভারডোজ-রিভার্সিং ওষুধ নালোক্সোনের সহজলভ্যতা আরও প্রসারিত করার আহ্বানও জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

আলজাজিরা বলছে, গত ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে যুক্তরাষ্ট্রে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। মূলত এই ধরনের প্রাণহানি বৃদ্ধির সূচনা হয়েছিল ১৯৯০-এর দশকে আফিম সংক্রান্ত একটি ব্যথানাশক ওষুধের মাত্রাতিরিক্ত সেবনের মাধ্যমে। এরই ধারবাহিকতায় হেরোইন এবং অতি সম্প্রতি অবৈধ ফেন্টানাইলের সেবনের কারণে প্রাণহানি বেড়েছে অনেক বেশি। ফেন্টানাইল এবং অন্যান্য সিনথেটিক জাতীয় ওষুধের মাত্রাতিরিক্ত সেবনের কারণে গত বছর প্রাণহানির সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭১ হাজার। যা আগের বছরের তুলনায় ২৩ শতাংশ বেশি। এছাড়াও কোকেন সম্পর্কিত মৃত্যু ২৩ শতাংশ এবং মেথ ও অন্যান্য উদ্দীপক সম্পর্কিত মৃত্যুর সংখ্যা ৩৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবনের কারণে হওয়া মৃত্যুর পেছনে প্রায়ই একাধিক ওষুধকে দায়ী করা হয়। কর্মকর্তারা বলছেন, অন্যান্য ওষুধ ক্রমবর্ধমানভাবে ছেটে ফেলে কিছু মানুষ একাধিক ওষুধ এবং সস্তা ফেন্টানাইল গ্রহণ করে। আর এটি প্রায়শই হয় ক্রেতাদের অজান্তেই।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চলমান করোনাভাইরাস মহামারি জটিল এই সমস্যাটিকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে কারণ লকডাউন ও অন্যান্য বিধিনিষেধ মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের আরও বিচ্ছিন্ন করেছে এবং তাদের জন্য চিকিৎসা পাওয়াও কঠিন করে তুলেছে।

অবশ্য অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবনের কারণে মৃত্যুর প্রবণতা ভৌগলিকভাবে একেক স্থানে একেক রকম। আলজাজিরা বলছে, ২০২১ সালে আলাস্কায় এই ধরনের প্রাণহানি ৭৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা যুক্তরাষ্ট্রের যেকোনো অঙ্গরাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। অন্যদিকে হাওয়াইতে অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবনের কারণে মৃত্যু কমেছে ২ শতাংশ।

নিউজ ট্যাগ: যুক্তরাষ্ট্র

আরও খবর



যে কারণে ভাইরাল হলো পূজার ভিডিও

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাঙালি অভিনেত্রী পূজা ব্যানার্জি। তবে বাংলায় কাজ করেছেন কমই। তার বিচরণ মুম্বাই পাড়ায়। হিন্দি সিরিয়াল, টিভি শোতে নিয়মিত কাজ করেন পূজা। বর্তমানে তাকে দেখা যাচ্ছে দেব কা দেব মহাদেব নামের একটি সিরিয়ালে। সিরিয়ালে পার্বতী নামে শিবের ঘরণীর ভূমিকায় অভিনয় করেন পূজা। তার সাদামাটা রূপ দর্শকদেরও বেশ পছন্দের। পর্দার বাইরে ইনস্টাগ্রামে অবশ্য সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম অভিনেত্রী। নিজেকে সর্বদা খোলামেলা রূপে উপস্থাপন করতেই ভালোবাসেন তিনি।

এবার পূজা শেয়ার করলেন শাড়ি পরার একটি ভিডিও। সেই ভিডিও হুড়মুড় করে হয়ে গেলো ভাইরাল। এতে দেখা গেল, ব্লাউজের ফিতা আটকে শাড়ির কুচি গুঁজে নিচ্ছেন। এরপর লিপস্টিক লাগাচ্ছেন ঠোঁটে, কানে পরছেন দুল। ভিডিওটিতে ১ লাখের বেশি রিঅ্যাকশন এসেছে। সঙ্গে আছে হাজারো মন্তব্য। প্রত্যেকেই পূজার আকর্ষণীয় রূপের প্রশংসা করেছেন। প্রতিনিয়ত ভক্তদের এভাবেই মাতিয়ে রাখেন অভিনেত্রী। পরে আবার ওই শাড়ি পরা ছবিও শেয়ার করেছেন পূজা। সেগুলোতেও লক্ষাধিক রিঅ্যাকশন পড়েছে। বোঝাই যাচ্ছে, বাঙালি নায়িকাকে শাড়িতে দেখে মন ভরেছে ভক্তদের।

উল্লেখ্য, পূজা ব্যানার্জি ২০০৮ সালে কাহানি হামারি মুহাব্বাত কি সিরিয়ালের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেন। এর দুই বছর পর অভিনেত্রী নাম লেখান সিনেমায়। তার প্রথম সিনেমা তেলেগু ভাষার ভিদু থেডা। ২০১২ সালে মাচো মাস্তানা সিনেমার মাধ্যমে টলিউডে অভিষেক হয় পূজার। এরপর তাকে দেখা গেছে চ্যালেঞ্জ ২, লাভেরিয়া, রকি, গ্রেট গ্র্যান্ড মাস্তি, হইচই আনলিমিটেড ইত্যাদি সিনেমায়।

নিউজ ট্যাগ: পূজা ব্যানার্জি

আরও খবর



বিজয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রান তুলেছেন তামিম

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা লিগের সদ্য শেষ হওয়া আসরের শুরু থেকেই ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়েছেন এনামুল হক বিজয়। লিগের ইতিহাসে এক আসরে রেকর্ড সর্বোচ্চ ১ হাজার ১৩৮ রান করেছেন প্রাইম ব্যাংকের এই তারকা ওপেনার।

বিজয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লিগের শেষদিকে রান তুলেছেন প্রাইম ব্যাংকের আরেক তারকা ওপেনার তামিম ইকবাল। লিগের শেষ তিন ম্যাচে দেশসেরা এই ওপেনার সংগ্রহ করেন যথাক্রমে- ৯০, ১০৯ ও ১৩৭ রান।

শেখ জামালের বিপক্ষে ৮৫ বলে ১০টি চার আর ৪ ছক্কায় করেন ৯০ রান। পরের ম্যাচে রূপগঞ্জ টাইগার্সের বিপক্ষে ৮১ বলে ৯টি চার আর ৭টি ছক্কায় তামিম খেলেন ১০৯* রানের ঝলমলে এক ইনিংস।

বৃহস্পতিবার গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে লিগের শেষ ম্যাচে ১৩১ বলে ১৩টি চার আর ৬টি ছক্কায় তামিম করেন ১৩৭ রান।

এদিন উদ্বোধনীতে এনামুল হক বিজয়ের সঙ্গে ২১৫ রানের জুটি গড়েন তামিম। ৯০ রানে ফেরেন বিজয়। তামিম-বিজয়ের অনবদ্য ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ৩৫৫ রান করে ৭৮ রানের দাপুটে জয় পায় প্রাইম ব্যাংক।

এদিন সেঞ্চুরি করার মধ্য দিয়ে লিস্ট ক্রিকেটে দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ২১টি শতকের সাহায্যে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ১৪৯ রান করেন তামিম।

 


আরও খবর



মাহিন্দা রাজাপাকসের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করা প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে শ্রীলঙ্কার আদালত। বৃহস্পতিবার (১২ মে) আদালত একইসঙ্গে মাহিন্দার ছেলে নামাল ও ১৫ সহযোগীর ওপরও দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

কলম্বোর ম্যাজিস্ট্রেট আদালত পুলিশকে সোমবারের শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। ওই সংঘর্ষে ৯ জন নিহত ও দুই শতাধিক আহত হয়েছে। এছাড়া বিপুল পরিমান সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি হয়েছে। আদালতের কাছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের আবেদনও করা হয়েছিল।

আদালতের এক কর্মকর্তা বলেছেন, ম্যাজিস্ট্রেট গ্রেপ্তারের আদেশ দিতে রাজী হননি। কারণ যে কোনো সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তারের ক্ষমতা খোদ পুলিশেরই রয়েছে।

টানা বিক্ষোভের মুখে সোমবার পদত্যাগ করেন মাহিন্দা রাজাপাকসে। ওই দিন সন্ধ্যায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে মাহিন্দার সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সহিংসতায় আহতরা দাবি করেছেন, রাজধানীতে তাদের বিক্ষোভ চলাকালে রাজপাকসে ও তার সহযোগীরা তাদের তিন হাজার সমর্থককে লেলিয়ে দিয়েছিল। তারা শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা চালায়। পরে বিক্ষোভকারীরা রাজাপাকসের বাড়িতে হামলা চালালে তাকে নৌবাহিনীর একটি ঘাঁটিতে নিয়ে যাওয়া হয়।


আরও খবর



৩৩ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু নেই

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৮৮৮ জনে। শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে কারো মৃত্যু হয়নি। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা ২৯ হাজার ১২৭ জন অপরিবর্তিত থাকল।

শনাক্ত রোগীদের মধ্যে ২১ জন ঢাকার বাইরের ১২ জেলার বাসিন্দা। গত কয়েক সপ্তাহ শুধু ঢাকাসহ দুয়েকটি জেলায় করোনাভাইরাস শনাক্ত রোগী পাওয়ার কথা জানাচ্ছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। মঙ্গলবার ঢাকার চেয়ে ঢাকার বাইরে রোগী বেশি পাওয়া যায়। বুধবার তা আরও বাড়ল।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যুর খবর আসেনি। ফলে এ নিয়ে টানা ২১ দিন কোভিডে মৃত্যুহীন থাকল বাংলাদেশ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ হাজার ১৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে এই ৩৩ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

তাদের মধ্যে ১২ জন ঢাকা মহানগর ও জেলার বাসিন্দা। ঢাকা বিভাগের গাজীপুর, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ জেলায় একজন করে রোগী পাওয়া গেছে, টাঙ্গাইলে পাওয়া গেছে তিনজন।

এছাড়া চট্টগ্রামে দুজন,  কক্সবাজারে দুজন, কুড়িগ্রামে একজন, যশোরে একজন, খুলনায় চারজন, কুষ্টিয়ায় একজন এবং সিলেট জেলায় তিনজন রোগী পাওয়ার কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে দৈনিক শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ। আগের দিন এই হার শূন্য দশমিক ৫৪ শতাংশ ছিল।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৮৮৮ জন। মৃত্যুর সংখ্যা আগের মতই ২৯ হাজার ১২৭ জন রয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারীর শুরুর দিকে ২০২০ সালের ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর থেকে একটানা ২১ দিন কখনোই মৃত্যুহীন ছিল না।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছে ২৪৯ জন। তাদের নিয়ে ১৮ লাখ ৯৮ হাজার ৩১২ সুস্থ্য হয়ে উঠলেন। এই হিসাবে দেশে এখন সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২৫ হাজার ৪৪৯ জন। অর্থাৎ তারা কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর এখনও সুস্থ হননি। মহামারীর মধ্যে সার্বিক শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ৯২ শতাংশ। আর মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ২০২০ সালের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০২১ সালের ৫ অগাস্ট ও ১০ অগাস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা।

বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৬২ লাখ ৫৫ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫১ কোটি ৮৮ লাখের বেশি।


আরও খবর



বিদেশিদের কাছে নালিশ না করে আমার কাছে আসুন: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শ্রমিকদের জন্য সরকার এতকিছু করার পরও কিছু নেতা আছে যারা বিদেশিদের কাছে নালিশ করতে পছন্দ করেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, জানি না শ্রমিকদের এখানে কোনো স্বার্থ আছে কি না। নিজের দেশের বিরুদ্ধে অন্যের কাছে না বলে, কোনো দাবি-দাওয়া থাকলে আমাকে জানান। মহান মে দিবস উপলক্ষে রোববার শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, শ্রমিকদের কল্যাণে যে তহবিল রয়েছে সেখানে অনেক শিল্প মালিক ঠিক মতো টাকা দেন না। এটা দুঃখজনক। যে কোনো প্রতিষ্ঠান চালাতে গেলে মালিকের যেমন শ্রমিকের ওপর দায়িত্ব থাকবে, তেমনি শ্রমিকেরও মালিকের ওপর দায়িত্ব থাকবে। শ্রমিকরা সুস্থ পরিবেশ পাচ্ছে কিনা সেটা মালিকদের দেখতে হবে। তাতে উৎপাদনও বাড়বে, মালিক-শ্রমিক উভয়ই লাভবান হবে। তিনি বলেন, শ্রমিক-দিনমজুর তথা খেটে খাওয়া মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন করার জন্যই আমাদের রাজনীতি। আমরা মানুষের কথা ভাবি, মানুষের কল্যাণে কাজ করি।

শ্রমিকের মুখে হাসি না ফুটলে শান্তি নেই জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, শ্রমিকদের ভাগ্যোন্নয়নে সবসময়ই চেষ্টা করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। গরিব কৃষক ও শ্রমিকের মুখে যতদিন হাসি না ফুটবে, ততদিন আমার মনে শান্তি নেই।


আরও খবর