Logo
শিরোনাম

অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স সম্পন্ন করা যে কারণে জরুরি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ সম্পর্কে কমবেশি সবারই ধারণা আছে! শরীরে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়েছে। রোগ ও লক্ষণভেদে চিকিৎসক ৭-১৪ দিন পর্যন্ত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ গ্রহণের পরামর্শ দিতে পারেন। অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ গ্রহণের পর রোগী খুব দ্রুতই সুস্থ হয়ে উঠতে শুরু করেন। আর সুস্থ হতেই কমবেশি সবাই অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করা বন্ধ করে দেন।

অনেকেরই হয়তো জানা নেই, অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স সম্পন্ন না করলে শরীরে এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স সম্পন্ন করা কতটা জরুরি।

অ্যান্টিবায়োটিক কি: অ্যান্টিবায়োটিক হলো এমন এক ওষুধ যা ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে ও তাদের সংখ্যার বৃদ্ধি ঠেকায়। অ্যান্টিবায়োটিক দ্বারা চিকিত্সা করা হয় এমন রোগের মধ্যে আছে- শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ- হুপিং কাশি ও নিউমোনিয়া, ত্বকের সংক্রমণ ইত্যাদি। যদিও অ্যান্টিবায়োটিক সর্দি-কাশির চিকিত্সা করে না, তবে ভাইরাল সংক্রমণ যদি স্ট্রেপ্টোকক্কাস ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট হয় সেক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিক দেন চিকিৎসক। কোন ধরনের ব্যাকটেরিয়া অ্যান্টিবায়োটিক চিকিত্সা করে, তার মধ্যেও পার্থক্য আছে। অ্যামোক্সিসিলিনের মতো ব্রড-স্পেকট্রাম অ্যান্টিবায়োটিক ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিকে প্রভাবিত করে। পেনিসিলিনের মতো সংকীর্ণ-স্পেকট্রাম অ্যান্টিবায়োটিক কয়েকটি ভিন্ন ধরণের ব্যাকটেরিয়াকে প্রভাবিত করে।

অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ করা কেন জরুরি: প্রেসক্রিপশনে ঠিক যতদিন ওষুধ চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়, ততদিনই তা অনুসরণ করতে হবে না হলে অসুস্থতা সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে। ওষুধ গ্রহণের পর উপসর্গ চলে গেলেও, ব্যাকটেরিয়া শরীরে থাকতে পারে। অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স শেষ হওয়ার আগে আপনি যদি চিকিত্সা বন্ধ করেন, তবে অবশিষ্ট ব্যাকটেরিয়াগুলো ক্রমাগত বৃদ্ধি পেতে পারে। যদি এই ব্যাকটেরিয়াগুলো অ্যান্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধী হয়ে ওঠে, তবে তারা সম্ভাব্য আরও বেশি ক্ষতি করতে পারে। পরবর্তী সময়ে আপনি আবারও অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন ও এবারের অসুস্থতা থেকে সুস্থ হতে আরও বেশি সময় লাগতে পারে। আবার অ্যান্টিবায়োটিকের অতিরিক্ত ব্যবহার করাও বিপদের কারণ হতে পারে। বিশেষ করে যখন সেগুলো সঠিক চিকিত্সার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত না হয়। ধরুন, আপনি সর্দি-কাশির সমস্যায় স্ট্রেপ থ্রোটের জন্য প্রযোজ্য অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করছেন কিন্তু আদৌ আপনার শরীরে অসুস্থতা সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া নেই।

এক্ষেত্রে দীর্ঘদিন একটানা অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের ফলে আপনি আরও অসুস্থ হয়ে পড়বেন। তাই নির্দিষ্ট অসুস্থতার জন্য সঠিক অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করা জরুরি। প্রতি বছর অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সের (এএমআর) কারণে প্রত্যেক দেশের ধনী, গরিব, নারী, পুরুষ, শিশু, বৃদ্ধ নির্বিশেষে প্রায় সাত লাখ মানুষ মারা যাচ্ছে। গবেষণায় দেখা গেছে, ২০৫০ সাল নাগাদ এএমআরের কারণে প্রতিবছর অতিরিক্ত ১০ লাখ ১৭ হাজার ৬০০ কোটি টাকা স্বাস্থ্য খাতে খরচ হবে বলে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে বিশ্ব অ্যান্টিবায়োটিক সচেতনতা সপ্তাহ ২০২২। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রতি বছরের মতো এ বছর ১৮-২৪ নভেম্বর অ্যান্টিবায়োটিক সচেতনতা সপ্তাহ পালন করছে।


আরও খবর



জানুয়ারিতে গ্যাস সংকট কাটবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, আগামী জানুয়ারি থেকে শিল্প খাতে গ্যাস সংকট কেটে যাবে। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) সিরামিক এক্সপো বাংলাদেশ- ২০২২ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তৈরি পোশাকের মতো সিরামিকসহ যেসব খাতের পণ্য বিদেশে রপ্তানি করতে চায় তাদের সব সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে। বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাত হলো সিরামিক শিল্প। চাহিদার ৮৫ ভাগ পূরণ হচ্ছে দেশে উৎপাদিত সিরামিক পণ্যে। এ ছাড়া বিশ্বের ৫০ দেশের এক বিলিয়ন ডলারের সিরামিক পণ্য রপ্তানি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার সিরামিক পণ্যের উৎপাদন ও রপ্তানি বাড়াতে ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহযোগিতা দিচ্ছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএমইএ) সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিসিএমইএ মহাসচিব ইরফান উদ্দিন প্রমুখ।


আরও খবর



যুক্তরাষ্ট্রে কট্টর রিপাবলিকান এমপিকে হারালেন ফিলিস্তিনি তরুণী

প্রকাশিত:শনিবার ১২ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ইতিহাস গড়লেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী ফিলিস্তিনি তরুণী রুয়া রোমান (২৯)। জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ৯৭ নম্বর জেলা থেকে ২০২০ সালের নির্বচনে বিজয়ী রিপাবলিকান নেতা জন চেংকে তিনি বিপুল ভোটে হারিয়ে জর্জিয়া জেনারেল অ্যাসেম্বলির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। খবর আরব নিউজের।

নির্বাচনে ইসলাম-বিদ্বেষী ও কট্টরপন্থী ওই রিপাবলিকান হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ সদস্যকে বিপুল ভোটে পরাজিত করেছেন। ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত এ তরুণী মোট ৫৮ শতাংশ ভোট পেয়ে রিপাবলিকান এমপি জন চেংকে পরাজিত করে নজির সৃষ্টি করেছেন।

রুয়া রোমান জর্জিয়া থেকে নির্বাচিত প্রথম মুসলিম নারী এবং ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত এমপি।

ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে পরিচিত রিপাবলিকান এমপি জন চেং এর দিক থেকে ভোটাররা তার বর্ণবাদী আচরণের জন্য মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন মধ্যবর্তী নির্বাচনে। নির্বাচনি প্রচারাভিযানে ফিলিস্তিন এ তরুণী বহুবার রিপাবলিকানদের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হন।

নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে তিনি ভোটারদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমি অত্যন্ত সৌভাগ্যবতী, কারণ জনগণ আমার প্রতি আস্থা রেখেছেন। আমার কাজের মাধ্যমে জনগণকে এর প্রতিদান দিতে চাই এবং সবার বিশ্বাস অর্জন করতে চাই।


আরও খবর



প্রাথমিক শিক্ষকের পদ সংখ্যা বাড়ছে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে বাড়ানো হচ্ছে পদের সংখ্যা। যদিও বিজ্ঞপ্তিতে ৩২ হাজার ৫৭৭ জনের নিয়োগের কথা জানানো হয়েছিল কিন্তু বর্তমানে শূন্যপদের সংখ্যা বিবেচনায় এই সংখ্যা আরো প্রায় ১০ হাজার বাড়ানোর বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ানোর বিষয়ে ইতোমধ্যে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মূলত সে কারণেই গত সপ্তাহে এই নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ না করে আর দুই সপ্তাহ সময় নেয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে আগামী ১৪ ডিসেম্বর পদের সংখ্যা বাড়িয়ে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে।

সূত্র জানায়, প্রাথমিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ৩২ হাজার ৫৭৭টি পদের সঙ্গে আরো ১০ হাজার পদ যুক্ত করা হতে পারে। সে জন্যই সহকারী শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত ফল আগামী ১৪ ডিসেম্বর প্রকাশের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ জানান, আমরা স্টাডি করছি, কত সংখ্যক সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। তার ভিত্তিতে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত পদের চাইতে এ সংখ্যা বাড়ানো হবে। তিনি আরো জানান, এ নিয়োগ পরিচালনায় গত দুই বছর সময় পার হয়েছে। শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য আবেদন করা অনেকে বিভিন্ন জায়গায় ভালো চাকরি করছেন। সবগুলো বিষয় নিয়ে আমরা পর্যালোচনা করছি। দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শূন্য পদের সংখ্যা নির্ণয় করে শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়াতে কাজ করা হচ্ছে।

সর্বশেষ শূন্য সব পদে নিয়োগ দেয়া হবে কি না জানতে চাইলে সচিব বলেন, এ বিষয়ে আমরা স্টাডি করছি। আমরা শূন্য পদ ধরবো, না কী চলতি বছরের ২২ জুন ধরবো, নাকি জানুয়ারি পর্যন্ত ধরবো তা নিয়ে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এর ওপরে সুবিধাবঞ্চিত এলাকায় কত সংখ্যক শিক্ষক পদ শূন্য রয়েছে এগুলো নিয়ে কাজ করছি। আগামী ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে আমাদের কাজ শেষ হবে। ১৪ ডিসেম্বর শিক্ষক নিয়োগের ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

এ দিকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) সূত্রে জানা যায়, সহকারী শিক্ষকের পদসংখ্যা বাড়িয়ে ৪৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ঘোষণা দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরে এ সংখ্যা কমিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ৩২ হাজার ৫৭৭টি পদে নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় মন্ত্রণালয়। সে কারণে নিয়োগ পরীক্ষায় আবেদন করা প্রার্থীরা আন্দোলনে নামে। দফায় দফায় তারা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর ঘেরাও করে আন্দোলন চালিয়ে যায়। পরে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সব শূন্য পদে নিয়োগ দিতে বলা হয়। তার ভিত্তিতে মন্ত্রণালয় শিক্ষক নিয়োগের জন্য পদ বাড়ানো সিদ্ধান্ত নিয়ে ফলাফল প্রকাশের সময় পিছিয়ে দেয়।

ডিপিই সূত্র জানায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা, ২০১৯-এর ৮ ধারার ২ নম্বর উপধারার (ঘ)-তে বলা হয়েছে, নির্ধারিত কোটার শিক্ষকদের মধ্যে প্রত্যেক ক্যাটাগরিতে (নারী ৬০ শতাংশ, পোষ্য ২০ শতাংশ ও অবশিষ্ট পুরুষ) অবশ্যই ২০ শতাংশ বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রিধারী প্রার্থীদের নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। তবে শর্ত থাকে, এভাবে ২০ শতাংশ কোটা পূরণ না হলে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া যাবে।

জানা গেছে, এ নিয়োগে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা তিন ধাপে নেয়া হলেও চূড়ান্ত ফল একবারেই প্রকাশ করা হবে। প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ৪০ হাজার ৮৬২ জন, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৫৯৫ এবং তৃতীয় ধাপে ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন। ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর সহকারী শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্য পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এ নিয়োগ পরীক্ষায় মোট আবেদন করেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন প্রার্থী।

বর্তমানে সারা দেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৬৫ হাজার ৬২০টি। এসব বিদ্যালয়ে শিক্ষক আছেন ৩ লাখ ৫৯ হাজার ৯৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ শিক্ষক ১ লাখ ২৬ হাজার ৪৩০ এবং নারী শিক্ষক ২ লাখ ২৯ হাজার ৯৩৬ জন।


আরও খবর



বিশ্বকাপে ইনজুরি টাইমের হিসেব দিলেন ফিফা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মধ্যপ্রাচ্যের মাটিতে প্রথমবার বিশ্বকাপের আসর বসেছে কাতারে। মরুর বুকে যেমন প্রথম বিশ্বকাপ তেমন অনেকগুলো নতুন নিয়মও এসেছে এবারের বিশ্বকাপে। তার ভেতরেই ভক্ত সমর্থকদের মধ্যে আলোচনার জন্ম দিয়েছে প্রতিটি ম্যাচেই ইনজুরি টাইমের পরিমাণ বাড়িয়ে দেওয়া।

বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত গ্রুপ পর্বের প্রথম রাউন্ডের ১২টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি ম্যাচেই দলগুলো লম্বা সময় ধরে অতিরিক্ত সময়ে খেলতে বাধ্য হচ্ছে, যা চোখে পড়ার মতোই একটি ঘটনা।

সাধারণত দুই অর্ধে ৪৫ মিনিট করে ৯০ মিনিটে একটি ফুটবল ম্যাচ শেষ হয়। তবে এর সুঙ্গে ইনজুরি, খেলোয়াড় বদলি ও গোলের পর তার উদযাপনের জন্য নির্ধারিত সময়ের বাইরে অতিরিক্ত সময় যোগ করা হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এর আগে রেফারিরা হয়তো ৩ থেকে ৪ মিনিট করে অতিরিক্ত সময় যোগ করেছেন। কিন্তু এবার শুরু থেকেই তার ব্যতিক্রম ঘটেছে। ইতোমধ্যেই যোগ করা সময়ের পরিধি দেখে অনেকেই তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

ইংল্যান্ড-ইরানের মধ্যকার ম্যাচে প্রথমার্ধে ১৫ মিনিট ইনজুরি টাইম ছিল। যদিও ইরানিয়ান গোলরক্ষকের ইনজুরির কারনে বেশ খানিকটা সময় নষ্ট হয়েছে। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে যোগ করা হয় আরো ১৪ মিনিট।

নেদারল্যান্ড বনাম সেনেগালের মধ্যকার ম্যাচটিতে দ্বিতীয়ার্ধে ১১ মিনিট ইনজুরি টাইম দেওয়া হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্র-ওয়েলসের ম্যাচে ছিল ১১ মিনিট। আর্জেন্টিনা-সৌদি আরবের ম্যাচেও দ্বিতীয়ার্ধে ১৪ মিনিট ইনজুরি টাইম দেওয়া হয়েছিল।

অতিরিক্ত টাইম বেশি দেওয়ার ব্যাপারে বিশ্ব ফুটনলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রতিটি মিনিটের খেলা যাতে মাঠে গড়ায় তা নিশ্চিত করাই এবারের আসরের মূল লক্ষ্য।

এ সম্পর্কে এক সংবাদ সম্মেলনে ফিফা রেফারিজ কমিটির চেয়ারম্যান পিয়ারলুইজি কলিনা বলেন, বিশ্বকাপ হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট। বিশ্বকাপে ৬৪ ম্যাচের আগে রেফারিজ প্যানেলের ১২৯ জন রেফারিকে একটি সহজ বার্তা দেওয়া হয়েছিল, প্রতিটি অর্ধে অতিরিক্ত সময়ের ব্যপারে রেফারিরা যেন নির্ভূল ভাবে গণনা করতে পারে। নির্দিষ্ট কোন ঘটনার জন্য ক্ষতি হওয়া প্রতিটি সেকেন্ড যেন দুই দলই ক্ষতিপূরণ হিসেবে ফিরে পায়।

কলিনা আরও বলেন, অতিরিক্ত সময়ের মধ্যে যুক্ত থাকবে ইনজুরি চিকিৎসা, বদলি, পেনাল্টি কিক, লাল কার্ড এবং বিশেষ করে গোলের পর লম্বা সময় ধরে তা উদযাপন। একটি দল যদি তিন থেকে চারটি গোল দেয় তবে স্বাভাবিক ভাবেই ঐ ম্যাচটিতে তিন থেকে পাঁচ মিনিট নষ্ট হবে। এই সময়গুলো অবশ্যই ইনজুরি টাইম হিসেবে যোগ হবে।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




রাজধানীর খিলগাঁওয়ে ট্রাকের ধাক্কায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঘুরতে বের হয়ে রাজধানীর খিলগাঁও ফ্লাইওভারে ট্রাকের ধাক্কায় তিন বন্ধু নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দিনগত রাত ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- মো. জজ মিয়া (৩৬), আল আমিন (৩৪) ও মো. মেহেদী হাসান (২৮)।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, এই তিনজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন সালাউদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। তারা সবাই বন্ধু। ঘুরতে বের হয়েছিলেন।

তিনি বলেন, খিলগাঁও ফ্লাইওভারে ওঠার পর একটি দ্রুতগামী ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনজনই গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তিনজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

আল আমিন দক্ষিণ মুগদা এলাকায় থাকতেন। জজ মিয়াও একই এলাকায় থাকতেন। আর মেহেদী হাসানের বাসা মুগদা মেডিকেলের পাশে। তাদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা। 


আরও খবর