Logo
শিরোনাম

‘পেগাসাস স্পাইওয়্যার’: যেভাবে স্মার্টফোনের নিয়ন্ত্রণ নেয়

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ডিজিটাল দুনিয়ায় আমাদের জীবনের অন্যতম উপাদান স্মার্টফোন। এই স্মার্টফোনের মধ্যেই অনেকেই রাখেন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। আর বিশ্বজুড়ে তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার নানা ধরনের অভিযোগ প্রায়ই গণমাধ্যমে পাওয়া যায়। এজন্য বিভিন্ন স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সম্প্রতি বহুল আলোচিত স্পাইওয়্যার হল  ইসরায়েলি একটি সংস্থাকর্তৃক উদ্ভাবিত পেগাসাস স্পাইওয়্যার

ইসরায়েলি সংস্থা এনএসও গ্রুপের তৈরি এই পেগাসাস স্পাইওয়্যার দিয়ে বিশ্বজুড়ে কয়েক হাজার সরকারি কর্মী, সাংবাদিক, বড় রাজনীতিবিদের ফোনে আড়ি পাতারও অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ৫০ হাজারের বেশি ফোন নম্বরের একটি তালিকা ফাঁস হয়। ধারণা করা হচ্ছে, ২০১৬ সাল থেকে এনএসওর গ্রাহকেরা এসব নম্বরে আড়ি পেতেছে।

খুদে বার্তা ও কলের মাধ্যমে আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের স্মার্টফোনের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে স্পাইওয়্যার। এর মাধ্যমে স্মার্টফোনে স্পাইওয়্যারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইনস্টল হয়ে যায়। এমনকি মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী স্পাইওয়্যারের সেই কলটি রিসিভ না করলেও সফটওয়্যারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইনস্টল হয়ে যেতে পারে। এরপর আক্রমণকারী ওই ফোনের পুরো সিস্টেম নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়। এটা এতটাই ভয়ঙ্কর যে, একবার স্পাইওয়্যারটি ইনস্টল হয়ে গেলে সহজেই যে কারও হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেজিং ও কথা বলা, ভয়েস কল, পাসওয়ার্ড, কন্টাক্ট তালিকা, বিভিন্ন ইভেন্টের ক্যালেন্ডার, ফোনের মাইক্রোফোন এমনকি ক্যামেরার নিয়ন্ত্রণ ও তাদের হাতে চলে যায়। 

ভিক্টিমের মোবাইলের ব্যবহৃত ক্যামেরা দিয়েও যেকোনো সময় ছবি ও ভিডিও ধারণের ক্ষমতা রাখে স্পাইওয়্যারটি। এছাড়া যেকোনো মুহূর্তে মোবাইল লোকেশন চালু করে স্পাইওয়্যার দেখতে পারবে ভিক্টিম এখন কোথায় আছেন। এদিকে, আমরা অনেকেই আছি যারা আমাদের মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো এনক্রিপ্ট করে রাখি। কিন্তু আতঙ্কের বিষয় হলো এই স্পাইওয়্যারটি এনক্রিপ্ট করা ফাইলও পড়তে পারে।

মোবাইল ফোনকে সুরক্ষিত রাখার কিছু পরামর্শ: ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। ফোনে অপরিচিত সাইটের লিংক আসলে তাতে প্রবেশ করবেন না। ফোন যেন অন্য কেউ ব্যবহার করতে না পারে সেজন্য সব ধরনের লক চালু করে দিন। ফোনের নির্ধারিত ওয়েবসাইট ছাড়া অন্য কোনও ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপস আপডেট করবেন না।


আরও খবর



নৌকাবাইচ দেখতে গিয়ে ব্রহ্মপুত্রে ডিঙ্গিডুবি, দুই শিশু নিখোঁজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের পাগলা এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদে নৌকা ডুবে দুই শিশু-কিশোর নিখোঁজ হয়েছে। এ ঘটনায় জীবিত উদ্ধার আরও ৫ শিশু-কিশোরের অবস্থা গুরুতর।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার পাঁচবাগ ইউনিয়নের চরশাঁখচূড়া গ্রাম সংলগ্ন ব্রহ্মপুত্র নদে এই ঘটনা ঘটে।

নিখোঁজ দুই শিশু ও কিশোর হলো- চরশাঁখচড়া গ্রামের মনির মিয়ার ছেলে ইয়াছিন (৭) ও রাহাতের ছেলে সিফাত (১৬)।

স্থানীয়রা জানান, বিকেলে চরশাঁখচূড়া গ্রামের একদল শিশু-কিশোর একটি ডিঙি নৌকায় চড়ে স্থানীয় সাহেবের চরে নৌকা বাইচ দেখতে রওনা হয়। কিন্তু নৌকাটি কিছু দূর যেতেই ডুবে যায়। এ সময় অন্যরা সাঁতরে তীরে উঠতে সক্ষম হলেও শিশু ইয়াছিন ও কিশোর সিফাত নিখোঁজ হয়।

এ ঘটনায় চরশাঁখচূড়া গ্রামের সাহিদের ছেলে ফালান (১১), রাহাতের ছেলে ইয়ামিন (৯), ছামাদের ছেলে সিয়াম (১৯) ও সারোয়ারসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়। তাদের মধ্যে ইয়াসিন ও ফালানকে কিশোরগঞ্জ এবং সিয়ামকে হোসেনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে নৌকা ডুবির খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে কিশোরগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের একটি ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ডুবুরি দলের টিম লিডার আমিনুর রহমান বলেন, তিন সদস্যের একটি টিম নিয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু নানা কারণে রাতে উদ্ধার অভিযান চালানো সম্ভব না। তাই সকালে উদ্ধার অভিযান শুরু হবে।


আরও খবর

ফুলপুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




জেনে নিন রাজধানীতে আজকের লোডশেডিং শিডিউল

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে বিদ্যুতের ঘাটতি কমাতে ১৯ জুলাই থেকে চলছে শিডিউল করে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং। প্রতিদিনই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় লোডশেডিং কার্যক্রম পরিচালনা হচ্ছে।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে সেই ধারাবাহিকতায় শুরু হবে লোডশেডিং কার্যক্রম। চলবে রাত ১২টা পর্যন্ত।

রাজধানীর বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) এলাকায় আজ কোনো লোডশেডিং রাখা হয়নি। তবে ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) কোথায়-কখন লোডশেডিং করবে, সে তালিকা জানিয়ে দিয়েছে।

ডেসকো আওতাভুক্ত যেসব এলাকায় আজ লোডশেডিং হবে তা জানতে ক্লিক করুন।


আরও খবর

জেনে নিন রাজধানীতে কখন কোথায় লোডশেডিং

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




ইউরোপের সবচেয়ে বেশি ও কম বাসযোগ্য শহর

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পশ্চিম ইউরোপের অনেক মানুষের কাছে করোনা মহামারি এখন অতীতের কোনো বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাস্ক পরা মানুষের সংখ্যা কমে গেছে এবং লকডাউনও একটি দূরবর্তী বিষয়, যেটি আসলেই একটি বেদনাদায়ক স্মৃতিও বটে। স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার এই বিষয়টি যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদ সাময়িকী দ্য ইকোনমিস্ট-এর সহযোগী সংস্থা ইআইইউর একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছে।

সমীক্ষাটিতে স্থিতিশীলতা, স্বাস্থ্যসেবা, সংস্কৃতি ও পরিবেশ, শিক্ষা এবং অবকাঠামোসহ বিভিন্ন বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ১০০ নম্বরের ভিত্তিতে বিশ্বের বিভিন্ন শহরের বাসযোগ্যতা নিরূপণের চেষ্টা করা হয়েছে। ১৭২টি শহরকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এই সমীক্ষায়। যেখানে সংস্থাটি পশ্চিম ও পূর্ব ইউরোপের মধ্যে বিস্তর ফারাক খুঁজে পেয়েছে। এ বছরের সমীক্ষায় বিশ্বের সবচেয়ে বাসযোগ্য শহরগুলোর মধ্যে অনেকগুলোই পশ্চিম ইউরোপে রয়েছে। যার মধ্যে ভিয়েনা পাঁচ বছরে তৃতীয়বারের মতো শীর্ষস্থান দখল করেছে। অন্য আরও দুটি শহর কোপেনহেগেন ও জুরিখ, সেরা পাঁচে জায়গা করে নিয়েছে।

কিন্তু মহাদেশের বাকি অংশের শহরগুলোর কি অবস্থা? পশ্চিম ইউরোপজুড়ে শহরগুলো পুনরায় চালু হওয়ার ফলে এ অঞ্চলের গড় স্কোর তাদের প্রাক-মহামারি অবস্থানে ফিরে গেছে। ফলে এই বিষয়টি এসব শহরকে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বাসযোগ্য অঞ্চলের করে তোলে। সামগ্রিক তালিকায়, বছরের সবচেয়ে বড় দশটি উন্নত শহরের মধ্যে একটি ছাড়া বাকি সবগুলোই পশ্চিম ইউরোপে (ব্যতিক্রম, লস অ্যাঞ্জেলস, ১৮ অবস্থানে পৌঁছেছে)। জার্মানির তিনটি শহর রয়েছে তালিকায়। এগুলো হলো ড্যুসেলডর্ফ, ফ্রাঙ্কফুর্ট ও হামবুর্গ। বসবাসযোগ্য হিসেবে গড়ে তোলার জন্য কোভিড ব্যবস্থা সহজ করার পর সংস্কৃতি বিষয়ে স্কোর বেড়েছে। তবে মহাদেশের সর্বত্র একই ধরনের উন্নতি হয়নি। পূর্ব ইউরোপের শহরগুলো কোভিড-যুগের হ্রাস থেকে ধীর গতিতে বসবাসযোগ্য হিসেবে পুনরুদ্ধার করছে।

পূর্বের গড় স্কোর এখন পশ্চিমের তুলনায় ২০ পয়েন্ট কম। ধীরগতির ভ্যাকসিন কার্যক্রমের কারণে এরই মধ্যে স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। অনেক শহরই দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। সমীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত তুরস্কের একমাত্র শহর ইস্তাম্বুলের স্কোর ইউরোপের মধ্যে সর্বনিম্ন। দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের অধীনে ক্রমবর্ধমান কর্তৃত্ববাদী নেতৃত্ব, সেই সঙ্গে মূল্যস্ফীতি জীবনযাত্রার মানকে ম্লান করেছে।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বা টিআই বিশ্বের সর্বত্র পরিচিত একটি অ-লাভজনক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। আন্তর্জাতিক উন্নয়নে বিভিন্ন সংস্থা ও রাজনৈতিকভাবে সম্পৃক্ত দুর্নীতি পর্যবেক্ষণপূর্বক সাধারণের কাছে তুলে ধরাই এই সংস্থার মূল লক্ষ্য। টিআই-এর তথ্য মতে, আজারবাইজানের রাজধানী বাকু ইউরোপের সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে একটি। যা সমীক্ষার হিসাবে, ইউরোপের দ্বিতীয় নিম্ন বসবাসযোগ্য শহর।

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের শাসনামলে নিপীড়নের ঝুঁকিতে মস্কো ও সেন্ট পিটার্সবার্গ পেছনে পড়ে। সমীক্ষা ইউনিটের বিশ্লেষকরা চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ইউক্রেন আগ্রাসনের কারণে কিয়েভে তাদের জরিপ শেষ করতে পারেননি। ইউক্রেনের রাজধানী ২০১৪ সাল থেকে ইউরোপীয় সমীক্ষায় দ্বিতীয় থেকে শেষ পর্যন্ত এসেছে। রাশিয়ার গ্যাসের ওপর অনেক দেশের নির্ভরতার কারণে মুদ্রাস্ফীতি ইউরোপে বিশেষভাবে আঘাত করেছে। জিনিসের উচ্চমূল্য শহরের জীবনের আনন্দকে ম্লান করে দিচ্ছে। লকডাউন-পরবর্তী জীবনযাত্রাকে আরও সংকটে ফেলবে মন্দা, এমন আশঙ্কা আর উদ্বেগ রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: লকডাউন

আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




বগুড়ায় বাস উল্টে ২ যাত্রী নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বগুড়ার নন্দীগ্রামে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস উল্টে দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১৬ জন। বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার কাথম-কালিগঞ্জ সড়কে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতেরা হলেন—নন্দীগ্রাম উপজেলার রনজাই তেঘরী গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী তাহেরা খাতুন (২২) ও নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার হাপানিয়া গ্রামের জমসেদ আলীর মেয়ে জুথি (২২)।

স্থানীয়রা বলছে, বগুড়া থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস নন্দীগ্রাম উপজেলার পণ্ডিতপুকুর যাচ্ছিল। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উপজেলার দলগাছা এলাকার সড়কের পার্শ্বে খাদে পরে যায়। এতে কমপক্ষে ১৮ জন যাত্রী আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় নন্দীগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় আহত ৫ জনকে বগুড়া শহীদ জিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৫টার দিকে ওই দুজনের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, দুর্ঘটনায় নিহত দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে রাখা হয়েছে। বাসটি জব্দ করা হয়েছে। বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।


আরও খবর

বগুড়ায় আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২




জি কে শামীমের মামলার রায় আজ, যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুবলীগের নেতা এসএম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম ও তার সাত দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলার রায় ঘোষণা আজ (২৫ সেপ্টেম্বর)। জিকে শামীম ও তার সাত দেহরক্ষীর সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দাবি করেছেন রাষ্ট্রপক্ষ। অপরদিকে, আসামি পক্ষের আইনজীবী তাদের খালাস প্রত্যাশা করছেন। রবিবার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ শেখ ছামিদুলের আদালত এ রায় ঘোষণা করবেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর সালাহউদ্দিন হাওলাদার বলেন, আসামির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ রয়েছে তা রাষ্ট্রপক্ষ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। তদন্ত কর্মকর্তা ও সাক্ষীরা আদালতে এসে সাক্ষী দিয়েছে। তারা আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণে বলেছেন আসামিরা ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। তাই সাক্ষ্য, প্রমাণ, বিচার-বিশ্লেষণে আমরা আশা করছি আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হবে।

অপরদিকে, আসামি পক্ষের আইনজীবী শাহিনুর ইসলাম বলেন, আমরা আশা করছি আসামিরা মামলা থেকে খালাস পাবেন। কারণ আসামিদের কাছ থেকে যে অস্ত্র পাওয়া গেছে সেটার লাইসেন্স আছে। তাছাড়া অস্ত্রটি উদ্ধার হয়েছে তার বাসা থেকে। আসামি এই অস্ত্র দিয়ে কাউকে হুমকি দেননি।  অপব্যবহার করেননি। যদি আসামি এ অস্ত্রের অপব্যবহার করতো তাহলে অপরাধী হিসাবে বিবেচনা করা যেতো। এ ছাড়াও তদন্ত কর্মকর্তা ও সাক্ষীরা কেউ বলেনি আসামিরা ক্যাসিনোতে জড়িত ছিল বা চাঁদাবাজি করতো। তাই আমরা আশা করছি রায়ে আসামিরা খালাস পাবেন।

এর আগে, গত ২৮ আগস্ট রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামি পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য ২৫ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন। মামলার অপর আসামিরা হলেন জি কে শামীমের ৭ দেহরক্ষী জাহিদুল ইসলাম,  শহিদুল ইসলাম, কামাল হোসেন, সামসাদ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন ও মুরাদ হোসেন। ২০১৯ সালের ২৭ অক্টোবর অস্ত্র মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে র‌্যাব। ২০২০ সালের ২৮ জানুয়ারি একই আদালত আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে অভিযোগ গঠন করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু হলে  রাজধানীর নিকেতনে শামীমের বাসা ও অফিসে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে ৮টি আগ্নেয়াস্ত্র, বিপুল পরিমাণ গুলি, ১৬৫ কোটি টাকার এফডিআর এবং নগদ প্রায় এককোটি ৮১ লাখ টাকা, বিপুল পরিমাণ বিদেশি মুদ্রা এবং মদ জব্দ করে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদক ও মানি লন্ডারিং আইনে ৩টি মামলা করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: জি কে শামীম

আরও খবর