Logo
শিরোনাম

পিরিয়ডের সময় করোনার টিকা নেয়ার বিষয়ে যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা

প্রকাশিত:রবিবার ০২ মে 2০২1 | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ড্যানিয়েল জোন্স বলেছেন, হালকা কিংবা ভারী, অনিয়মিত এবং যন্ত্রণাদায়ক পিরিয়ডের সঙ্গে করোনার টিকার সম্পৃক্তার কোনো তথ্য বা গবেষণা এখনো পাওয়া যায়নি

মাসিক ঋতুস্রাব বা পিরিয়ড চলাকালীন সময় নারীরা মহামারি করোনাভাইরাসের টিকা নিতে পারবে কিনা- এ নিয়ে অনেকের প্রশ্ন রয়েছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বেশ কথা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। তাদের মতে নারীরা পিরিয়ডের সময় করোনার টিকা নিতে পারবে। এ নিয়ে ভয়ের কিছু নেই।

ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের গবেষক অ্যালিস লু কুলিগান এবং র‌্যান্ডি হাটার এপিস্টেন এ বিষয়ে জানিয়েছেন, টিকা নেয়ার ফলে পিরিয়ডে অস্বাভাবিকতা বা সমস্যা হয়েছে তার কোনো তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এ কারণে নিশ্চিত হয়ে বলা যাচ্ছে না যে করোনার টিকা নেয়ার জন্য পিরিয়ডে সমস্যা হয়েছে।

টেক্সাসের বোর্ড সার্টিফায়েড প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ড্যানিয়েল জোন্স বলেছেন, হালকা কিংবা ভারী, অনিয়মিত এবং যন্ত্রণাদায়ক পিরিয়ডের সঙ্গে করোনার টিকার সম্পৃক্তার কোনো তথ্য বা গবেষণা এখনো পাওয়া যায়নি। তবে যে সকল নারীদের সমস্যা হয়েছে তা ঠিক কি জন্য হয়েছে সে বিষয়ে বলা কঠিন। পিরিয়ড খুবই জটিল একটি প্রক্রিয়া। স্ট্রেস, ঘুম, ওষুধ এবং পরিবেশগত কারণে প্রভাব পড়তে পারে পিরিয়ডে। করোনার টিকা যদি নারীদের পিরিয়ডে প্রভাবও ফেলে সেক্ষেত্রে অবাক হওযার কিছু নেই। তবে এই বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে কিছু বলার জন্য আরও বিস্তর গবেষণার পরই বলা যাবে।

প্রসঙ্গত, করোনার টিকা নেয়ায় পিরিয়ডে প্রভাব পড়ার মতো গুজব ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয়। তাতে বলা হয়, পিরিয়ডের পাঁচ দিন আগে-পরে টিকা নেয়া উচিত নয়। এই সময় নারীদের সতর্ক থাকা উচিত। ওই সময় নারীদের টিকা না নিলেই ভালো। এছাড়া কারণ হিসেবে বলা হয়েছ পিরিয়ডের সময় নারীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা স্বাভাবিক সময়ের থেকে কম থাকে। তাই এ সময় টিকা নিলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে।

এদিকে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তথ্যটি একদমই গুজব। এর কোনো সত্যতা নেই। অযথাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এভাবে কাউকে গুজব না ছড়ানোর জন্যও বলেছেন বিশেষজ্ঞরা।


আরও খবর



বাংলাদেশিদের ওপর দক্ষিণ কোরিয়ার ভিসা নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ থেকে দক্ষিণ কোরিয়ায় যাওয়া যাত্রীদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশি নাগরিকদের উপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটির সরকার। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দেশটিতে থাকা বাংলাদেশ দূতাবাস এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ থেকে দক্ষিণ কোরিয়ায় আগত যাত্রীদের মধ্যে কভিড-১৯ পজিটিভ হিসেবে শনাক্তের হার বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষিতে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার বাংলাদেশি নাগরিকদের উপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। ১৬ এপ্রিল থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারি ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার গত বছরের ২৩ জুন বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি দেশের নাগরিকদের সে দেশে প্রবেশের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এর ফলে কোরিয়া গমনেচ্ছু বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী এবং কর্মীর শিক্ষা ও কর্মজীবন হুমকির মুখে পড়ে।

পরিস্থিতি বিবেচনায়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও সিউলে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস শুরু থেকেই এই ভিসা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের সাথে যোগাযোগ শুরু করে।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে ফোনালাপকালে বাংলাদেশি নাগরিকদের ওপর আরোপিত এ ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বিশেষ অনুরোধ জানান। এছাড়া ঢাকায় নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জেন কিউনের সাথে বৈঠক করে বিষয়টি সমাধানের তাগিদ দেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনও।

সরকারের নিরবিচ্ছিন্ন কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফলে দীর্ঘ ৮ মাস পর বাংলাদেশের নাগরিকদের ওপর আরোপিত ভিসা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয় দক্ষিণ কোরিয়া। এ সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুনরায় প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে দক্ষিণ কোরিয়া গমনেচ্ছু বাংলাদেশি নাগরিকরা ঢাকাস্থ দক্ষিণ কোরিয়ার দূতাবাসের মাধ্যমে ভিসার আবেদন শুরু করেন।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




ঈদের পর লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়তে পারে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের কারণে চলমান লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আজ বলেন, আমাদের পরিকল্পনা আছে আর এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর।

কারণ দেশে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। এটা ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে। সংক্রমণ এড়াতে এই সিদ্ধান্ত আগামী ১৬ মে জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের সবাইকে মাস্ক পরতে হবে। মাস্ক পরলেই নিরাপদ, আর না পরলে বিপদ- এই কথাটি মাথায় রাখতে হবে। চলতি বছর করোনা সংক্রমণ বাড়ায় গত ৫ এপ্রিল থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত ঢিলেঢালা লকডাউন পালন হলেও সংক্রমণ আরও বেড়ে যাওয়ায় ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। আর এবারের ঈদে লঞ্চ-ট্রেন এবং দূরপাল্লার বাস বন্ধ রাখা হয়েছে। 

 


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




করোনায় দেশে মৃত্যুর সকল রেকর্ড ছাড়ালো

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সর্বাত্মক লকডাউনর পঞ্চম দিন রোববার (১৮ এপ্রিল) দেশে করোনায় সর্বোচ্চ ১০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০ হাজার ৩৮৫ জনে। এর আগে শনিবার (১৭ এপ্রিল) একদিনে সর্বোচ্চ ১০১ জনের মৃত্যু হয়।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩ হাজার ৬৯৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এতে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ১৮ হাজার ৯৫০ জনে।

করোনাভাইরাস নিয়ে রোববার (১৮ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, রোববার (১৮ এপ্রিল) সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন ১১ হাজার ৮০৬ জন এবং নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ লাখ ৮৯ হাজার ১১৩ জন। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩০ লাখ ২৩ হাজার ৮১৩ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ কোটি ১৩ লাখ ৫৩৮ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১ কোটি ৯৯ লাখ ১৪ হাজার ৭৮৭ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ২৩ লাখ ৭২ হাজার ১১৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৮০ হাজার ৭৫৬ জনের।

আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন এক কোটি ৪৭ লাখ ৮২ হাজার ৪৬১ জন এবং মারা গেছেন এক লাখ ৭৭ হাজার ১৬৮ জন।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ৩৯ লাখ ১৩৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৭১ হাজার ৮৮৯ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ লাখ ৬০ হাজার ১৮২ জন। ভাইরাসটিতে মারা গেছেন এক লাখ ৫৯৩ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে রাশিয়া রয়েছে পঞ্চম স্থানে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ৪৬৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন এক লাখ ৫ হাজার ১৯৩ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ, তুরস্ক সপ্তম, ইতালি অষ্টম, স্পেন নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।


আরও খবর



ভারতে করোনা শনাক্তে বিশ্ব রেকর্ড, মৃত্যুও ৪ হাজার ছুঁই ছুঁই

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মহামারি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিধ্বস্ত ভারত। এ ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টে দেশটিতে প্রতিদিনই রেকর্ডসংখ্যক মানুষ আক্রান্ত এবং মারা যাচ্ছেন। এরই মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে আক্রান্ত হয়ে ৩ হাজার ৯ শতাধিক মানুষ মারা গেছে এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ১৪ হাজারের বেশি মানুষ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, শুক্রবার (৭ মে) সকাল পর্যন্ত আক্রান্তে বিশ্বে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩ হাজার ৯২০ জন। এরআগে বৃহস্পতিবার দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৯৮২ জন, যা এখন পর্যন্ত দেশটিতে সর্বোচ্চ মৃত্যু।

এ ছাড়া দেশটিতে নতুন করে বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ ৪ লাখ ১৪ হাজার ৪৩৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দেশটিতে ৪ লাখ ১২ হাজার ৬১৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট সংক্রমণ হয়েছেন ২ কোটি ১৪ লাখ ৮৫ হাজার ২৮৫ জন। আর এ নিয়ে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৭১ জনের।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন আরও ১৩ হাজার ৭৪৫ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ৮ লাখ ৪৪ হাজার ৩৯৯ জনের শরীরে। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩২ লাখ ৬৯ হাজার ৩৪০ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ৬৬ লাখ ৮১ হাজার ৫২৪ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৩ কোটি ৪৮ লাখ ৫৫ হাজার ৯০৫ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৩৩ লাখ ৬৮ হাজার ৬১৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৯৪ হাজার ৬ জনের।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিল এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ৫০ লাখ ৯ হাজার ২৩ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ১৭ হাজার ১৭৬ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭ লাখ ২৮ হাজার ৯০ জন। ভাইরাসটিতে মারা গেছেন এক লাখ ৫ হাজার ৮৫০ জন।

এই তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে তুরস্ক। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৯ লাখ ৭৭ হাজার ৯৮২ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪২ হাজার ১৮৭ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় রাশিয়া ষষ্ঠ, যুক্তরাজ্য সপ্তম, ইতালি অষ্টম, স্পেন নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।


আরও খবর



দেশে ভারতীয় ভিসা কেন্দ্রের কার্যক্রম স্থগিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ মে ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকাসহ দেশজুড়ে ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলির কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। ঢাকায় ভারতীয় দূতাবাসের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক পোস্টে এ তথ্য জানানো হয়।

ওই পোস্টে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ১৪-২১ এপ্রিল পর্যন্ত বাস্তবায়িত লকডাউনের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জুড়ে সমস্ত ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলির কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

ওই পোস্টে আরও জানানো হয়, ইতোমধ্যে জমা দেওয়া আবেদনসমূহের বিষয়ে জানতে এবং যেকোনো জরুরি অনুরোধের জন্য [email protected] এই ঠিকানায় যোগাযোগ করতে হবে।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১