শিরোনাম

পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ১০০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের ৯০তম সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা

পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তফসিল অনুযায়ী, আগামী বছরের ৫ জানুয়ারি ৭০৭ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের ৯০তম সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ৭ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ৯ ডিসেম্বর, আপিল দায়েরের সময় ১০-১২ ডিসেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি ১৩ ও ১৪ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ১৫ ডিসেম্বর, প্রতীক বরাদ্দ ১৭ ডিসেম্বর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৫ জানুয়ারি বুধবার।

এর আগে গত, ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের দুই দফায় ৩৬৯টি এবং ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৮ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হবে তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপি নির্বাচন। আগামী ২৩ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ৮৪০টি ইউপি নির্বাচন।

প্রসঙ্গত, দেশে চার হাজার ৫৭১টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। এরমধ্যে প্রায় চার হাজার ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকি ইউনিয়নগুলোতে মামলা জটিলতার কারণে নির্বাচন আটকে রয়েছে।


আরও খবর



কক্সবাজারে দলবেঁধে ধর্ষণ : পুলিশকে জানিয়েও সাড়া পাননি ওই নারী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৬৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে ঘুরতে যাওয়া নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ, জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে সহায়তা চাইলেও তাৎক্ষণিক এগিয়ে আসেনি পুলিশ। পরে ভুক্তভোগী ঘটনাটি র‍্যাবকে জানান। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দিনগত রাত দেড়টার দিকে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের হোটেলে এ ঘটনা ঘটে।

র‍্যাব জানায়, বুধবার (২২ ডিসেম্বর) সকালে ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে স্বামী-সন্তানসহ কক্সবাজার বেড়াতে এসে শহরের হলিডে মোড়ের একটি হোটেলে ওঠেন। পরে বিকেলে সৈকতের লাবনী পয়েন্টে যান। সেখানে অপরিচিত এক যুবকের সঙ্গে তার স্বামীর ধাক্কা লাগে। এ সময় এ নিয়ে কথা-কাটাকাটি হয়। এর জেরে সন্ধ্যার পর পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে ভুক্তভোগী নারীর ৮ মাসের সন্তান ও স্বামীকে অটোরিকশা করে কয়েকজন তুলে নিয়ে যায়। পরে অন্য আরেকটি অটোরিকশায় তাকে তুলে নেয় ৩ যুবক। পর্যটন গলফ মাঠের পেছনে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে তারা।

এর পর ভুক্তভোগীকে জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেলে নিয়ে আরেক দফা ধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনা কাউকে জানালে সন্তান ও স্বামীকে হত্যা করা হবে জানিয়ে রুম বাইরে থেকে বন্ধ করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ধর্ষকরা। পরে ভুক্তভোগী গৃহবধূ জাতীয় জরুরি সেবা নাম্বার ৯৯৯-এ কল করেন। পুলিশ তাকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দেয়। পরে র‍্যাব এসে তাকে উদ্ধার করে। তার স্বামী ও সন্তানকে উদ্ধার করা হয় পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে।

ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগ, ৯৯৯-এ ফোন করার পর আমাকে ফোন দেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার এক কর্মকর্তা। তার নাম-পরিচয় না বললেও পুরো বিষয়টি আমি তাকে বলি। কিন্তু তিনি আমার কাছে না এসে উল্টো থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করার পরামর্শ দেন। একপর্যায়ে আমি হোটেলে-মোটেল জোনে বসানো সাইনবোর্ড থেকে র‍্যাবের নম্বর পাই। যোগাযোগ করা হলে তারা দ্রুত এগিয়ে আসে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে? যেখানে জরুরি সেবার জন্য ফোন দিলে তাৎক্ষণিক সাড়া দেওয়ার কথা ছিল। সেটা আমি পাইনি।

এদিকে ফোন পাওয়ার পর র‍্যাব ভুক্তভোগী নারীর স্বামী-সন্তানকে পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে উদ্ধার করে। পরে হোটেলের ক্লোজড সার্কিট (সিসিটিভি) ক্যামেরার ফুটেজ দেখে দুজনকে শনাক্ত করার কথা জানায় র‌্যাব।

র‍্যাবের ভাষ্য, ওই দুই যুবক হলেন কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইসলাম ও আব্দুল জব্বার জয়া। আরেক জনের পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

ওই এ ঘটনার পর জিয়া গেস্ট ইনের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে র‍্যাব। এতে দেখা যায় তিন যুবক অটোরিকশায় এক নারীকে নিয়ে আসেন। দুজন ওই নারীর সঙ্গে থাকেন। আরেকজন হোটেলের রুম বুকিং দেন। সে সময় রিসিপশনে হোটেলের ব্যবস্থাপক ছোটন ছিলেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে যুবকরা বেরিয়ে গেলেও ওই নারীকে নামতে দেখা যায়নি।

র‍্যাব জানায়, এই ফুটেজ থেকে দুজনকে শনাক্তের পর ওই নারীকে তাদের ছবি দেখানো হয়। তিনি তাদের চিনতে পেরেছেন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার এক কর্মকর্তা জানান, গত বছর আশিকের নেতৃত্বে কয়েকজন এক যুবককে ছুরিকাঘাত করে সবকিছু ছিনিয়ে নেয়। এই মামলায় তিনি জেলে ছিলেন। প্রায় ৪ মাস আগে জেল থেকে বের হওয়ার পর তাকে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে দেখা যায়। আশিক এলাকায় মাদক ও যৌনকর্মী সরবরাহের কাজ করে। জয়া তার অন্যতম সহযোগী। তিনি আরও জানান, ভুক্তভোগী নারীকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এ অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মুনীরুল গিয়াস সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এই তথ্যটি আমার জানা নেই। আমি খোঁজ নিচ্ছি।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রফিকুল ইসলাম বলেন, ৯৯৯-এ সার্বক্ষণিক মোবাইল টিম মাঠে থাকে। এমন তো হওয়ার কথা নয়। যদি কেউ দায়িত্বে অবহেলা করে। তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কক্সবাজার র‍্যাব-১৫-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খায়রুল ইসলাম সরকার বলেন, এ ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক না কেন তাদের কঠোর শাস্তি পেতে হবে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। ওই নারী মামলা করবেন। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।


আরও খবর



আন্দোলনে চরম ব্যর্থতাই বিএনপির একমাত্র প্রাপ্তি : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনে জনগণ থেকে প্রত্যাখ্যান আর আন্দোলনে চরম ব্যর্থতাই বিএনপির একমাত্র প্রাপ্তি।

শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে তার বাসভবনে ব্রিফিংকালে তিনি একথা বলেন।

সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে ওয়ার্ম আপ চলছে, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, কোনো ওয়ার্ম আপেই কাজ হবে না, নেতিবাচক এবং হঠকারী রাজনীতির কারণে জনগণ বিএনপিকে চিনে ফেলেছে।

যাদের পায়ের নিচে থেকে মাটি সরে যাচ্ছে, তারা আবার সরকার পতনের দিবাস্বপ্ন দেখছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নেয়নি বলেই ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।

ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, সরকার পতন, আন্দোলন- এসব মুখরোচক শব্দের বৃষ্টি বর্ষণ করে কোনো লাভ নেই। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ব্যালটের মাধ্যমে নির্বাচন ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো বিকল্প নেই, তাই অলি-গলি পথে না হেঁটে নির্বাচনমুখী হওয়ার জন্য বিএনপি নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সরকার স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে, মানুষের অধিকার হরণ করেছে- বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা যখন এসব কথা বলেন তখনও স্বাধীনতা বিরোধী উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী তাদের বগলদাবায়।

তিনি বলেন, দেশবিরোধী সকল অপশক্তির অভিন্ন প্লাটফর্ম হচ্ছে বিএনপি। যারা নিজেরাই স্বাধীনতার চেতনা নস্যাতে জন্মলগ্ন থেকেই অপতৎপরতা চালাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশের স্বাধীনতা এসেছে, জনগণকে সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগই এর সুরক্ষা দিতে পারে বলে দাবি করেন ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি এদেশে ভোটারবিহীন নির্বাচন করে মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেছিল, হরণ করেছিল কৃষক-শ্রমিকের অধিকার এ কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভোট না দেওয়ার অভিযোগে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর নির্যাতন চালিয়েছিল, আগুন সন্ত্রাসের মাধ্যমে মানুষের স্বাধীন চলাচলের অধিকার হরণ করেছিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছেন, দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে নিয়েছেন এ কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, এজন্যই সরকারের উন্নয়নের রাজনীতিতে বিএনপি ঈর্ষাকাতর।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নিজেদের অন্ধকার ভবিষ্যত দেখে হতাশায় কাতর, জনগণের সামনে দাঁড়ানোর সাহস এবং বলার মতো কিছুই নেই বিএনপির।

তিনি বলেন, তাই তো বিএনপি মিথ্যাচারের সঙ্গী ও অপপ্রচারের বন্ধু হয়েছেন এবং জোট বেঁধেছে অপরাজনীতির সাথে।

নিউজ ট্যাগ: ওবায়দুল কাদের

আরও খবর



সিরাজগঞ্জের সংঘর্ষ: ৪ মামলায় আসামি ৭ শতাধিক

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে সিরাজগঞ্জের সমাবেশকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ-বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় চারটি মামলা দায়ের হয়েছে। এসব মামলায় জেলা বিএনপির বেশ কজন শীর্ষ নেতাসহ অজ্ঞাত সাড়ে ৭শ জনকে আসামি করা হয়েছে।

শনিবার (১ জানুয়ারি) সকালে সিরাজগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজ্জাদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, চার মামলার মধ্যে পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি ও উজ্জল হোসেন নামে এক ব্যক্তি বাদী হয়ে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) রাতে এই মামলাগুলো দায়ের করা হয় বলে জানান তিনি।

মামলার আসামিদের মধ্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু, সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান দুলাল, সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান তালুকদার রানাসহ একাধিক শীর্ষ নেতা রয়েছেন।

পরিদর্শক (তদন্ত) সাজ্জাদুর রহমান বলেন, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে ২৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০০/১৫০ জনকে আসামি করে একটি, উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলীম হোসাইন বাদী হয়ে ২৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ২০০/২৫০ জনকে আসামি করে একটি এবং উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদ হাসান বাদী হয়ে ২৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২/৩শ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে রেলওয়ে কলোনি মহল্লার আওয়ামী লীগ কর্মী উজ্জল হোসেন বাদী হয়ে ৪০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫০/৬০ জনকে আসামি করে আরও একটি মামলা দায়ের করেন।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সমাবেশে মিছিল নিয়ে আসার সময় বিএনপির সঙ্গে যুবলীগ-ছাত্রলীগ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।  এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ, ইটপাটকেল নিক্ষেপের এক পর্যায়ে শহরের কলেজ রোড, ইলিয়ট ব্রিজ এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।


আরও খবর



১৫ লাখ টন জ্বালানি তেল কিনবে সরকার

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের চাহিদা মেটাতে ১৫ লাখ ৮০ হাজার টন জ্বালানি তেল কিনবে সরকার। এ লক্ষ্যে পৃথক দুটি প্রস্তাব সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল সভায় প্রস্তাবগুলোর অনুমোদন দেওয়া হয়।

তথ্য মতে, জিটুজি (সরকার টু সরকার) চুক্তির ভিত্তিতে বিভিন্ন দেশের ৭টি প্রতিষ্ঠান থেকে ১৫ লাখ ৮০ হাজার টন পরিশোধিত জ্বালানি তেল কিনবে সরকার।

এরমধ্যে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অধীন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) মাধ্যমে জি-টু-জি ভিত্তিতে ৬টি রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান (পিটিটি থাইল্যান্ড, ইএনওসি আরব আমিরাত, পেট্রোচিনা, বিএসপি, ইন্দোনেশিয়া, পিটিএলসিএল মালয়েশিয়া ও ইউনিপেক চীন) এর কাছ থেকে ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে জুন সময়ের জন্য ১৪ লাখ ৯০ হাজার মেট্রিক টন পরিশোধিত জ্বালানি তেল ৮ হাজার ৪১৭ কোটি ২৩ লাখ টাকায় আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান নুমালীগড় রিফাইনারি লিমিটেডের (এনআরএল) কাছ থেকে ৯০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল (০.০০৫% সালফার) ৫১২ কোটি ৪৮ লাখ টাকায় আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: অর্থমন্ত্রী

আরও খবর



বাড়ে মিয়া ছোটে মিয়ার জন্য ১৯৬ কোটি টাকা নিচ্ছেন অক্ষয়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শিরোনাম শুনে চোখ কপালে উঠতে পারে, কপাল কুঁচকে যেতে পারে। ১৯৬ কোটি টাকা মানে বলিউডের একেকটি সিনেমার পুরো আয়ের সমান। আর এই পরিমাণ অর্থই কিনা অক্ষয় কুমার একা নেবেন!

সিনেমার নাম বাড়ে মিয়া ছোটে মিয়া। নির্মাণ করবেন আলী আব্বাস জাফর। এই সিনেমার জন্যই ১৭০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক হাঁকিয়েছেন অক্ষয়। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৯৬ কোটি টাকার বেশি। বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে এমনটা দাবি করেছে বলিউডভিত্তিক গণমাধ্যম কইমই।

শোনা যাচ্ছে, এই সিনেমার বাজেট হবে প্রায় ২৮০ কোটি রুপি। এতে অক্ষয়ের সঙ্গে থাকছেন তরুণ তারকা টাইগার শ্রফ। তিনিও নিচ্ছেন মোটা অংকের পারিশ্রমিক। তবে তার অংকটা এখনো জানা যায়নি।

অক্ষয় কুমার গত এক দশক ধরেই সাফল্যের শিখরে রয়েছেন। একের পর এক হিট সিনেমা দিয়ে নিজেকে সফলতম তারকায় পরিণত করেছেন। করোনার ধাক্কায় যখন পুরো বলিউড বড় ধাক্কা খেয়েছে, তখন অক্ষয়ের সূর্যবংশী সিনেমার মাধ্যমে ফিরে আসে প্রাণ। সিনেমাটি দেখতে হলে দর্শকের ভিড় জমে, বক্স অফিসে তোলে ঝড়। তাই স্বাভাবিকভাবেই নিজের পারিশ্রমিক বাড়িয়ে নিয়েছেন অভিনেতা।

বাড়ে মিয়া ছোটে মিয়া নামে বলিউডে আরও একটি সিনেমা নির্মিত হয়েছিল। সেখানে অভিনয় করেন অমিতাভ বচ্চন ও গোবিন্দ। এটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৯৮ সালে। ওই সময় সিনেমাটি সুপারহিট হয়। অক্ষয়-টাইগারের সিনেমাটি ওই সিনেমার রিমেক নয়, কেবল আগের নামটি নেওয়া হয়েছে। এটি নির্মিত হবে ধুন্ধুমার অ্যাকশন গল্পে।

 


আরও খবর