Logo
শিরোনাম

পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের ৯০তম সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা

পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তফসিল অনুযায়ী, আগামী বছরের ৫ জানুয়ারি ৭০৭ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের ৯০তম সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ৭ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ৯ ডিসেম্বর, আপিল দায়েরের সময় ১০-১২ ডিসেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি ১৩ ও ১৪ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ১৫ ডিসেম্বর, প্রতীক বরাদ্দ ১৭ ডিসেম্বর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৫ জানুয়ারি বুধবার।

এর আগে গত, ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের দুই দফায় ৩৬৯টি এবং ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৮ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হবে তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপি নির্বাচন। আগামী ২৩ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ৮৪০টি ইউপি নির্বাচন।

প্রসঙ্গত, দেশে চার হাজার ৫৭১টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। এরমধ্যে প্রায় চার হাজার ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকি ইউনিয়নগুলোতে মামলা জটিলতার কারণে নির্বাচন আটকে রয়েছে।


আরও খবর



পণ্য ডেলিভারি দিতে ড্রোন আনছে অ্যামাজন

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট। বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে বসে অন্য প্রান্তের পণ্য কেনা যায় এই সাইটটিতে। যতই দিন যাচ্ছে ততই গ্রাহকদের জন্য আরও সহজ করছে অ্যামাজন ব্যবহার। এবার অত্যাধুনিক ড্রোন দিয়ে অর্ডারকারীদের দুয়ারে প্রোডাক্ট ডেলিভারি করবে জনপ্রিয় ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজন।

বিশ্বে সর্বপ্রথম অ্যামাজনের এই পরিষেবার সুবিধা পাবেন আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার অন্তর্গত লকফোর্ড শহরে বসবাসকারী মানুষেরা। তবে ড্রোনের মাধ্যমে পণ্য হাতে পাওয়ার জন্য অবশ্য ক্রেতাদের সাইন আপ করতে হবে। নতুন এই পরিষেবা চালুর জন্য অ্যামাজনের দরকার ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সবুজ সংকেত। শুধু তারপরই জেফ বেজোস কর্তৃক চালিত সংস্থাটি ড্রোন মাধ্যমে সাধারণ ক্রেতাদের বাড়িতে পণ্য পৌঁছে দিতে সক্ষম হবে।

শপিং জায়ান্ট কয়েক বছর ধরেই গ্রাহকদের ড্রোনের মাধ্যমে পণ্য সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছিল। এমনকি করোনার সময় অনেক জায়গায় ওষুধ এবং জরুরি জিনিস পাঠাতে বিভিন্ন দেশে ড্রোন ব্যবহার করেছিল অ্যামাজন। ড্রোনের সাহায্যে পণ্য ডেলিভারির প্রক্রিয়া শুরুর উদ্দেশ্যে অ্যামাজন শতাধিক সদস্য নিয়ে একটি দল তৈরি করেছি। সেখানে বিজ্ঞানী, ইঞ্জিনিয়ার, মহাকাশ গবেষক, পরিকল্পনাকারীর ছিল বশ কয়েকজন। এদের সমবেত প্রচেষ্টাতেই চলতি বছরে লকফোর্ডের বাসিন্দারা প্রাইম এয়ার পরিষেবার মাধ্যমে ঘরে বসে অর্ডার করা পণ্য হাতে পাবেন।

প্রাইম এয়ার পরিষেবা অর্থাৎ ড্রোন মাধ্যমে পণ্য ডেলিভারির জন্য অ্যামাজন এফএএ অর্থাৎ পূর্বে উল্লিখিত ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সাথে একযোগে কাজ করেছে। এই মুহূর্তে প্রাইম এয়ার সেই তিন কোম্পানির মধ্যে অন্যতম যারা এর মধ্যেই এফএএ ক্যারিয়ার সার্টিফিকেশন প্রক্রিয়া সফলভাবে অতিক্রম করেছে। আকাশপথে ড্রোন পরিচালনার জন্য এই অনুমোদনটি একান্ত জরুরি। এই ড্রোনের মাধ্যমে প্রোডাক্ট পেতে হলে তাদের আলোচ্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রাইম এয়ার-নির্বাচিত পণ্য অর্ডার করতে হবে। এর ফলে তারা অর্ডার ডেলিভারির নির্দিষ্ট তারিখ এবং অর্ডার স্ট্যাটাস ট্র্যাক করার বিকল্প পেয়ে যাবেন। এরপর নির্দিষ্ট দিনে ডেলিভারি লোকেশনে অ্যামাজনের ড্রোন পৌঁছে যাবে এবং উপযুক্ত সুরক্ষার সঙ্গে ক্রেতার হাতে প্রোডাক্ট পৌঁছে দেবে।


আরও খবর



পুরুষের যেসব স্বভাব দেখে নারীরা প্রেমে পড়ে

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারীর মন জয় করা নাকি সহজ নয়! আসলে এটি খুব বেশি কঠিনও নয়। কারণ কিছু স্বভাব রয়েছে, যেগুলো কোনো পুরুষের মধ্যে দেখতে পেলে মেয়েরা সহজেই প্রেমে পড়ে যান। আপনি হয়তো প্রেয়সীর মন জয় করার চেষ্টা করছেন, সে কী পছন্দ করবে এবং কী করবে না তা বুঝতে পারছেন না। তাহলে আপনার জেনে নিতে হবে সহজ সমাধান। আপনার কোন আচরণগুলো মেয়েরা খেয়াল করে এবং এর প্রভাব কী হতে পারে তা জেনে নিন-

ব্যক্তিত্ব: একজন আত্মবিশ্বাসী পুরুষের চেহারায় আলাদা দৃপ্তি থাকে। আপনার চোখে-মুখে সেই দৃপ্তি প্রকাশ পেলে তা আপনাকে সহজেই অন্যের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলবে। আপনি যদি চোখে চোখ রেখে কথা বলতে পারেন, আপনার দৃষ্টি যদি স্বচ্ছ এবং প্রাণোচ্ছল হয়, তবে তা মেয়েরা সহজেই বুঝতে পারবে। আই কন্ট্যাক্ট দুজন মানুষের মধ্যে সম্পর্ক আরও সুন্দর করতে পারে। এছাড়া আপনি যদি সৎ ও দায়িত্বশীল হন, তবে মেয়েরা আপনার ব্যক্তিত্বের প্রেমে পড়বে। কিন্তু মিথ্যা বলার অভ্যাস থাকলে আপনাকে এড়িয়ে চলবে।

ফ্যাশন সেন্স: ফ্যাশন সেন্স বা পোশাকের স্টাইল নারী-পুরুষ সবার ক্ষেত্রেই সমান গুরুত্বপূর্ণ। মেয়েরা এই বিষয়ে সব সময়েই খেয়াল করে। কোনো পুরুষ ফর্ম্যাল আউটফিট পরলে তা তার ক্ষমতার দিকটি প্রকাশ করে। আবার কোনো পুরুষ ক্যাজুয়াল আউটফিট পরলে তার চরিত্রের মজার দিকগুলো প্রকাশ পায়। তাই পুরুষের ড্রেসিং স্টাইলের দিকে খেয়াল রাখা জরুরি। কারণ এটি মেয়েদের কাছে তার সম্পর্কে বার্তা পৌঁছে দেয়।

রসবোধ: পুরুষ মানেই সব সময় গম্ভীর হয়ে থাকবে, এই ধারণা থেকে বের হয়ে আসুন। মেয়েরা মিশুক, প্রাণোচ্ছ্বল পুরুষকে বেশি পছন্দ করে। এদিকে আপনি যদি গম্ভীর হয়ে বসে থাকেন, তবে আপনার কাছে আর কে ঘেঁষবে! আপনার বুদ্ধিদীপ্ত রসবোধ তাকে সহজেই আকৃষ্ট করবে। আপনার মজার সব কথা শুনে মানুষ যদি নির্মল আনন্দ পায়, তবে খেয়াল করে দেখুন, আপনার দিকে কেউ একজন মুগ্ধ চোখে তাকিয়ে আছে!

নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি: নারীর প্রতি আপনার দৃষ্টিভঙ্গি কী, সেটি খেয়াল করে দেখে মেয়েরা। আপনি যদি নারীর প্রতি গতানুগতিক ধারণা পোষণ করে থাকেন তাহলে খুব সহজেই বুঝতে পারবে এবং আপনাকে এড়িয়ে চলবে। আপনি যদি নারীকে সম্মান জানান, তাদের কাজ ও ত্যাগের কথা স্বীকার করেন তবে এই স্বভাব আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলবে।

নিউজ ট্যাগ: নারীর প্রেম

আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




পরকীয়ার জেরে নববধূকে জবাই করে হত্যা, স্বামী আটক

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় নববধূকে জবাই করে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। এমন লোমহর্ষক ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নিহত নববধূ রুপালী বেগম (২০) উপজেলার কবিরহাট পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মনির চৌকিদারের বাড়ির সিরাজ মিয়ার মেয়ে।

রোববার (১২ জুন) সকাল পৌনে ৯টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এর আগে, শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে উপজেলার ঘোষবাগ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব সোনাদিয়া গ্রামের আবু তাহের বাবুল মেম্বারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ঘাতক স্বামী ইউসুফ নবী রুবেলকে (২৬) রক্তমাখা ছোরাসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। সে উপজেলার ঘোষবাগ ইউনিয়নের পূর্ব সোনাদিয়া গ্রামের আবু তাহের বাবুল মেম্বারের বাড়ির মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, গত তিন মাস আগে পারিবারিক ভাবে রুবেলের সাথে বিয়ে হয় রুপালী বেগমের। কিছু দিন আগ থেকেই পরকীয়ার জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ দেখা দেয়। এ পরকীয়ার জেরে শনিবার দিবাগত রাতে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা দেখা দেয়। একপর্যায়ে স্বামী রুবেল তার স্ত্রী পারভীনকে গায়ের ওড়না দিয়ে হাত-পা বেঁধে ফল কাটার ছুরি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে।

ওসি আরও জানায়, ওই সময় ঘরে থাকা বৃদ্ধ মায়ের চিৎকারে বাড়ির লোকজন এসে হত্যাকারীকে আটক। প্রাথমিকভাবে জানা যায়,পরকীয়ার জেরে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা ছোরা হত্যাকারীর দেখানো মতে ঘরের ভেতর থেকে উদ্ধার করা হয়।

পরকীয়ার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের ভাসুর রফিককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় এনে রাখা হয়েছে। লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


আরও খবর

অভাব অনটনে কৃষকের আত্মহত্যা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




ব্যারেলে ২ ডলারের বেশি কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অপরিশোধিত জ্বালানি তেল ব্যবহারের দিক থেকে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় দেশ চীন। কিন্তু কভিড-১৯ ভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ প্রবাহে দেশটিতে জ্বালানি তেলের চাহিদা বাড়ার কোনো আশাই দেখা যাচ্ছে না। তার ওপর মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে মুনাফার হার আরো বৃদ্ধির উদ্বেগ তো রয়েছে। এসব চাপের মুখে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম একদিনের ব্যবধানে ২ ডলারেরও বেশি কমেছে।

তথ্য বলছে, কয়েক দিন আগেও করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ার প্রত্যাশার কথা জানিয়েছিল চীন। কিন্তু আবারো দেশটিতে সংক্রমণ বাড়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। বেইজিংয়ের সবচেয়ে ঘনবসতি জেলা চাওইয়াং সম্প্রতি তিন ধাপে গণপরীক্ষার ঘোষণা দিয়েছে। উদ্দেশ্য ভয়াবহ সংক্রমণ চিহ্নিত করে তা প্রতিরোধ করা। অন্যদিকে গত শুক্রবার প্রকাশিত হয়েছে মার্কিন মূল্যস্ফীতির সরকারি নথি। ঊর্ধ্বমুখী মূল্যস্ফীতি মুদ্রাবাজারের জন্য দুঃসংবাদ বয়ে এনেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মুনাফার হার আরো বাড়ানো হবে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গতকাল আইসিই ফিউচারস এক্সচেঞ্জ ইউরোপে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আন্তর্জাতিক বাজার আদর্শ ব্রেন্টের দাম ব্যারেলপ্রতি ২ ডলার ৩৪ সেন্ট বা ১ দশমিক ৯ শতাংশ কমেছে। প্রতি ব্যারেলের মূল্য স্থির হয়েছে ১১৯ ডলার ৬৭ সেন্টে। অন্যদিকে নিউইয়র্ক মার্কেন্টাইল এক্সচেঞ্জে (নিমেক্স) মার্কিন বাজার আদর্শ ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের দাম ব্যারেলপ্রতি ২ ডলার ৩৬ সেন্ট বা ১ দশমিক ৯ শতাংশ কমেছে। প্রতি ব্যারেলের মূল্য স্থির হয়েছে ১১৮ ডলার ৩১ সেন্টে।

অয়েল ব্রোকার পিভিএমের টমাস ভারগা বলেন, বেইজিংয়ে কভিড ভাইরাসের সংক্রমণ নতুন করে বেড়ে যাওয়ায় জ্বালানি তেলের বাজার নিম্নমুখী চাপে পড়েছে। চলমান পরিস্থিতির কারণে সহসাই পণ্যটির চাহিদায় পুনরুদ্ধার নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। চলতি বছরের শুরুতে বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারীর প্রভাব কমতে শুরু করলে ঘুরে দাঁড়ায় জ্বালানি তেলের চাহিদা। একের পর এক চাহিদা বৃদ্ধির পূর্বাভাস দেয় বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠানগুলো। ঠিক এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে যায়। এতে আকাশচুম্বী চাহিদার বিপরীতে সরবরাহ সংকুচিত হওয়ার উদ্বেগ দেখা দেয়। ফলে এ বছর আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। মার্চে ব্রেন্টের দাম ব্যারেলপ্রতি ১৩৯ ডলার স্পর্শ করে, যা ২০০৮ সালের পর সর্বোচ্চ। গত সপ্তাহে উভয় বাজার আদর্শের গড় দাম ১ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে।

এদিকে সরবরাহ এখনো সংকুচিত। রফতানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক ও এর জোট প্রতি মাসেই উত্তোলন বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থ। কারণ জোটটির অনেক দেশেই উত্তোলন সক্ষমতায় ঘাটতি রয়েছে। লিবিয়ায় উত্তোলন খুব বাজেভাবে কমেছে। এছাড়া পশ্চিমা দেশগুলোর অব্যাহত নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়ার উত্তোলনও ব্যাপক প্রতিবন্ধকতার মধ্যে। অন্যদিকে ওপেক প্লাসের টেকনিক্যাল প্যানেল সম্প্রতি অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা পূর্বাভাস কমিয়েছে। এনার্জি ইন্টেলিজেন্স রিপোর্টের পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়। জোটটির বাজার পর্যালোচনা প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছর অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা দৈনিক ৩৪ লাখ ব্যারেল করে বাড়বে। আগের পূর্বাভাসের তুলনায় চাহিদার পরিমাণ দৈনিক দুই লাখ ব্যারেল করে কমানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: জ্বালানি তেল

আরও খবর



মাস্ক পরা ভুলে গেলো সবাই?

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে করোনা সংক্রমণের বিস্তার আবারও বেড়ে চলেছে। যদিও বেশ কিছু দিন তা নিম্নমুখী থাকায় স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের কথা ভুলতে বসেছে সাধারণ মানুষ। হাট-বাজার, দোকান, শপিং মল সব জায়গায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনীহা থেকে সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, মানুষ একদমই মাস্ক পরে না। করোনা শনাক্তের হার বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক টেকনিক্যাল কমিটি যেসব পরামর্শ দিয়েছে, তার মধ্যে আছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য জনসাধারণকে পুনরায় উদ্বুদ্ধ করতে সব ধরনের গণমাধ্যমে অনুরোধ জানাতে হবে। সব ক্ষেত্রে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা, নো মাস্ক নো সার্ভিস নীতি প্রয়োগ করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, জনসমাগম বর্জন করা।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বলছে, গত জানুয়ারিতে করোনা আক্রান্তের হার ছিল একদিনে সর্বোচ্চ ৩৩ শতাংশ। সেদিন শনাক্ত হয়েছিল ১৫ হাজার ৪৪০ জন। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের দাপটেও একদিনে এত রোগী পাওয়া যায়নি। এরপর শনাক্তের হার ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে ফেব্রুয়ারিতে। মার্চ থেকে জুনের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত ছিল। এরপর থেকে আবারও ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে শনাক্তের হার। ৬ জুন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১ শতাংশের নিচে থাকলেও ৭ জুন থেকে ১ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। আড়াই মাস পর ১২ জুন আবারও একদিনে শতাধিক শনাক্ত হয়। ৭ জুন থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত ৯ দিনে শনাক্ত হয় ৮৮৩ জন। এরমধ্যে ১৫ জুন একদিনে দুই শতাধিক শনাক্ত হয়। এরপর শনাক্ত আরও বেড়ে সোমবার (২০ জুন) শনাক্তের হার ১০ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। সোমবার শনাক্ত হয়েছেন ৮৭৩ জন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা ছড়িয়ে পড়ার অন্যতম প্রধান বাহন হলো শ্বাসনালি থেকে বেরিয়ে আসা ক্ষুদ্র জলকণা (ড্রপলেট), যা কথা বলা, গান গাওয়া, কাঁশি বা হাঁচি দেওয়ার সময় বেরিয়ে আসে। যদিও গবেষণা চলমান রয়েছে, তবে আমরা এখন জানি যে ভাইরাস এমন মানুষের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে, যাদের মধ্যে আক্রান্ত হওয়ার কোনও লক্ষণ নেই। এর অর্থ হচ্ছে, কিছু মানুষ সংক্রমিত হতে পারে, এমনকি কোনও ধরনের উপসর্গ ছাড়াই। যেসব জায়গায় কোভিড-১৯-এর প্রাদুর্ভাব বেশি সেসব স্থানে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ। তবে জনাকীর্ণ স্থানগুলোতে অন্যদের কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রাখা সবসময় সম্ভব নয়, যে কারণে এই ধরনের পরিস্থিতিতে সবাইকে সুরক্ষিত থাকার জন্য কাপড়ের তৈরি মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও ওমিক্রন প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারের ওপরে গুরুত্বারোপ করেছে। কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে মাস্কের কার্যকারিতা বিষয়ে যথাযথ বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়ায় সবচেয়ে বড় গবেষণাটি হয় বাংলাদেশে, যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে। গবেষকরা ৬০০টি গ্রামে প্রায় ৩ লাখ ৪০ হাজার মানুষকে বিনামূল্যে সার্জিক্যাল ও কাপড়ের মাস্ক বিতরণ করে এবং বিভিন্নভাবে মাস্কের সঠিক ব্যবহার ও উপকারিতা জানায়। ২০২১-এ এই গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ইউরোপে করা প্রায় একই ধরনের আরেকটি গবেষণার তথ্যও প্রকাশিত হয় ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে।

দুটি গবেষণাতেই দেখা যায়, সবাই যদি যথাযথভাবে মাস্ক ব্যবহার করে, তবে কোভিড সংক্রমণের হার ৫৩ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে আনা সম্ভব। ব্যাংকক শহরে অন্য একটি গবেষণায় দেখা যায়, কোভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে থাকার সময় মাস্কের যথাযথ ব্যবহার সংক্রমণের ঝুঁকি প্রায় ৭৭ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে আনে। মাস্কের সর্বোচ্চ কার্যকারিতা তখনই নিশ্চিত করা যায়, যখন এটি সবাই সঠিক নিয়মে পরবে বলে উল্লেখ করা হয় ওই গবেষণায়।

মাস্ক পরতে সমস্যা নেই, তবে অনেক সময় অস্বস্তি লাগে বলে জানান একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত হাবীব আহমেদ। তিনি বলেন, সুরক্ষার জন্য মাস্ক পরা দরকার, তবে অনেক সময় অস্বস্তি লাগে। এই বিষয়ে করণীয় কী? মাস্ক পরলে অনেকেরই নিশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। কারও কারও ক্ষেত্রে শ্বাসকষ্ট বা অ্যাজমার মতো শারীরিক সমস্যার কারণে এই অস্বস্তি লাগতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, তাদের ক্ষেত্রে মাস্ক পরাটা জরুরি না। তবে এই সমস্যাটা বেশিরভাগের ক্ষেত্রেই মানসিক। কানাডার মনস্তাত্ত্বিক রোগ বিষয়ক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সিবিটি অ্যাসোসিয়েটসের মতে, এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে শ্বাস-প্রশ্বাসের একটি ব্যায়াম যা বক্স ব্রেথিং নামে পরিচিত। এই প্রক্রিয়ায় ১-৪ পর্যন্ত গুনতে গুনতে শ্বাস নিন, ৪ পর্যন্ত গুনতে গুনতে দম ধরে রাখুন, ৪ পর্যন্ত গুনতে গুনতে শ্বাস ছাড়ুন এবং ৪ পর্যন্ত গুনতে গুনতে আবার শ্বাস নিন। অর্থাৎ ধীরগতিতে শ্বাস নিন, কয়েক সেকেন্ড শ্বাস ধরে রেখে আবার ধীরগতিতে ছাড়ুন। এতে আপনার স্নায়ু শান্ত হবে, শ্বাসতন্ত্রের উপকার হবে এবং মাস্ক পরে শ্বাস গ্রহণ ও ত্যাগের অভ্যাস হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর পুনরায় মাস্ক পরার বিষয়ে প্রচার প্রচারণা শুরু করবে বলে জানিয়েছেন অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. সায়েদুর রহমান বলেন,  করোনায় আক্রান্ত একবার হোক কিংবা একাধিকবার হোক, ওমিক্রন হোক কিংবা ডেল্টাই হোক, ভ্যারিয়েন্ট যদি একবার প্রবেশ করে তাহলে মানুষ আক্রান্ত হবে। টিকা নেওয়া থাকলে রোগের তীব্রতা কম হবে, কিন্তু আক্রান্ত হবেন না এটা ঠিক না। মাস্ক না থাকলেও শুধু টিকা নেওয়া থাকলে যে আক্রান্ত হবে না, এটা ভুল কথা। সুতরাং, মাস্ক অবশ্যই পরা জরুরি। এখন যে ঢেউ শুরু হয়েছে তাতে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি, যদি না ভাইরাসটিকে শরীরে প্রবেশ করতে বাধা দেওয়া না হয়।

নিউজ ট্যাগ: মাস্ক

আরও খবর

আঙ্গুল ফোটানো কি খারাপ?

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2