Logo
শিরোনাম

পণ্য আমদানির নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার ২

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৮৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিদেশ থেকে পণ্য আমদানি করে দেয়ার কথা বলে ৩৫ জন ব্যবসায়ীর ৩ কোটি টাকা আত্মসাৎকারী একটি সংঘবদ্ধ চক্রের দুজনকে গ্রেফতার করেছে  পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। আজ বুধবার (২৫ মে) সিআইডি সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানানো হয়।

সিআইডি জানায়, ব্যবসায়ীদের অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে ইকোম্যাক্স কার্গোর চেয়ারম্যান আরাফাত হোসাইন এবং পরিচালক (অর্থ) মো. নাজিম উদ্দিনকে মঙ্গলবার যাত্রাবাড়ী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

সংস্থাটি জানায়, তিন সদস্যের একটি প্রতারক চক্র এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যবসার নামে ইকোম্যাক্স কার্গো নাম দিয়ে একটি ভুয়া প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। চক্রটি যাত্রাবাড়ী এলাকায় অফিস ভাড়া করে দামী ফার্নিচার দিয়ে অফিস সাজিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

সিআইডি আরো জানায়, অল্প সময়ে ও কম খরচে চীন থেকে গ্রাহকদের চাহিদা মোতবেক যেকোনো পণ্য সরবরাহ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পণ্যের ৫০ শতাংশ টাকা অগ্রীম গ্রহণ করতো প্রতারক চক্রটি। চট্টগ্রাম বন্দরে মালামাল পৌঁছে যাওয়ার কথা বলে আরো ২০ শতাংশ টাকা নিয়ে নিতো। আস্থা অর্জন করার জন্য তারা চুক্তিপত্র করতো। তাদের প্রতিশ্রুত পণ্যের মধ্যে রয়েছে গার্মেন্টস এক্সেসরিজ, কম্পিউটার যন্ত্রাংশ, মেডিকেল সরঞ্জাম, বাইক, কাপড়, সিলিকা জেল, লোগো ইত্যাদি।

জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, চক্রটি তাদের ভাড়া করা মার্কেটিং অফিসারদের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পাঠিয়ে যার যে রকম পণ্য প্রয়োজন তা চীন থেকে আনিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করত। পরবর্তীতে বিভিন্ন সমস্যার অজুহাত দেখিয়ে সময়ক্ষেপণ করে মোটা অংকের টাকা সংগ্রহ করে অফিস ও মোবাইল নম্বর বন্ধ করে পালিয়ে যায় চক্রটি।

তিনি বলেন, চক্রের এক সদস্য চীনে পড়াশোনা করতেন এবং আরেক সদস্য চীন থেকে মেডিকেল সরঞ্জাম ক্রয়ের জন্য যাতায়াত করতেন বলে জানা গেছে। এখন পর্যন্ত ৩৫ জন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে আনুমানিক ৩ কোটি টাকা আত্মসাতের প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়া গেছে। এছাড়া আরো অনেক ভুক্তভোগীর কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করেছে বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করতে নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ ও সিলেট জেলার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনা। আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টায় তেজগাঁওয়ের পুরাতন বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারযোগে তিনি রওনা হন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বিষটি নিশ্চিত করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচি অনুযায়ী, তিনি বন্যাকবলিত অঞ্চল পরিদর্শন শেষে সিলেট বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন। সিলেটে নির্ধারিত কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। পরে দুপুর ১টায় সিলেট থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী ।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্র জানা যায়, দুটি হেলিকপ্টারে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীরা বন্যাকবলিত অঞ্চল পরিদর্শন করবেন। একটি হেলিকপ্টারে প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব, এসএসএফের মহাপরিচালক, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব, একান্ত সচিব-১, ব্যক্তিগত চিকিৎসক, এডিসি ও বিটিভির ক্যামেরাম্যান যাওয়ার কথা রয়েছে।

আরেকটি হেলিকপ্টারে তথ্যমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পরিবেশমন্ত্রী, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক, মির্জা আজম, আহমদ হোসেন ও সুজিত রায় নন্দী, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব, পিজিআরের কমাণ্ডার, প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-১, এসএসএফের ৪ জন এবং মিডিয়া সদস্য ৪ জন যাওয়ার কথা রয়েছে।


আরও খবর



কুড়িগ্রামে পাহাড়ি ঢলে ৪০ গ্রামের মানুষ পানিবন্দি

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় আকস্মিক বন্যা দেখা দিয়েছে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার ৪ ইউনিয়নের ৪০ গ্রামের অন্তত ৩০ হাজার মানুষ। পানিতে তলিয়ে গেছে ১০৭ হেক্টর জমির ধান, পাট ও শাকসবজি। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন শ্রমজীবী মানুষ। ২১ বিদ্যালয়ে পানি ওঠায় ব্যাহত হচ্ছে নিয়মিত পাঠদান।

বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, রৌমারীর চার ইউনিয়নের ৪০ গ্রামের অন্তত ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে যাদুরচর ইউনিয়নের ঝাউবাড়ী, গুচ্ছগ্রাম, বকবান্দা নামাপাড়া, বকবান্দা ব্যাপারী পাড়া, চর লালকুড়া, মধ্য লালকুড়া, উত্তর লালকুড়া, আলগার চর, উত্তর আলগার চর, বিক্রি বিল, লাটিয়াল ডাঙ্গা, পাহাড়তলী, তিন ঘড়ি পাড়া, পুরাতন যাদুর চর, যাদুর চর পূর্ব পাড়া, শ্রীফলগতি এবং রৌমারী সদর ইউনিয়নের বাওয়াইরগ্রাম,  দুবলাবাড়ী, রতনপুর, কলাবাড়ি, বড়াইবাড়ি, চুলিয়ারচর, উত্তর বারবান্দা, ইজলামারী, ফুলবাড়ি, ভুন্দুরচর, নয়ারচর, গোয়ালগ্রাম, চান্দারচর, খাটিয়ামারী, মাদারটিলা, পূর্বইজলামারী, কড়াইকান্দি ও ঠনঠনিপাড়া, চর শৌলমারী ইউনিয়নের ডিগ্রির চর, নামাজের চর, শান্তির চর, ঘুঘুমারী চর, মিয়ার চর, সুখের বাতি পাড়ের চর, সোনা পুর, দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের চর গয়টা পাড়া, কাউনিয়া চর, আমবাড়ি, মাদাইডাঙ্গা, ঝগড়ার চর, ধর্মপুর, কাউয়ার চর, টাপুর চর ও হাজির হাট এলাকার অন্তত ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

কাশিয়াবাড়ি গ্রামের আবুল হোসেন বলেন, এবার আড়াই বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছিলাম। এর মধ্যে দেড় বিঘা জমির ধান কাটতে পারলেও ভারত থেকে হঠাৎ পাহাড়ি ঢল এসে এক বিঘা জমির ধান তলিয়ে নিয়ে গেছে। এতে ২১ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।

যাদুরচর ইউনিয়নের পুরাতন যাদুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, বিদ্যালয়ে ও বাড়ির চারপাশে পানি উঠায় নিয়মিত স্কুলে যেতে পারছে না তারা। এতে পড়াশুনার খুব ক্ষতি হচ্ছে।

পুরাতন যাদুরচর এলাকার কৃষক হাজী আব্দুস সামাদ বলেন, হঠাৎ পাহাড়ি ঢল নামায় এলাকার সব রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। এখন নৌকা ছাড়া বাড়ি থেকে বের হওয়ার কোনো উপায় নাই। ছেলে-মেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না। 

লালকুড়া গ্রামের কৃষক সাঈদ বলেন, হঠাৎ বন্যার পানি আইসা জমিতে রাখা সব খড় ভাসাইয়া নিয়া গেছে। এখন গরুরে খাওয়ামো কী এ চিন্তায় আছি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কাউয়ুম চৌধুরী বলেন, অতি বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার ১০৭ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। এর মধ্যে আউশ ধান ৪৮ হেক্টর, পাট ৪২, শাকসবজি ১২ ও ৫ হেক্টর জমির তিল তলিয়ে গেছে। পাহাড়ি পানি ৫ দিন স্থায়ী হলে ক্ষেতের সব ফসল নষ্ট হয়ে যাবে।

রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আশারাফুল আলম রাসেল বলেন, সরেজমিনে বন্যাকবলিত এলাকাগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে। বন্যার্ত পরিবারগুলোর তালিকা করা হচ্ছে। আপাতত ফান্ডে যা আছে তা থেকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে। ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাগুলো মেরামতে কাজ চলছে। এছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আরও চাহিদার আবেদন করা হয়েছে।


আরও খবর



রাজধানীতে গৃহবধূকে হত্যা, দেবর আটক

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর শ্যামপুর পশ্চিম জুরাইনে দেবরের দায়ের কোপে নাজমা আক্তার (৩২) নামে গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছেন। শনিবার সকালে আইসি গেট এলাকার একটি বাসায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আরেক দেবর নাসির আহমেদ সোহেল (৩০) ও তার স্ত্রী সাদিয়া আক্তার রিমা (২৫) আহত হয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শ্যামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল আলম বলেন, জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে নাজমা আক্তারকে দেবর আবুল কালাম আজাদ সেন্টু কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে মুমূর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনায় দেবর আবুল কালাম আজাদ সেন্টুকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নাজমার স্বামী আগেই মারা গেছেন। সেন্টুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে, বিস্তারিত পরে জানানো হবে।


আরও খবর



যুদ্ধাস্ত্র পাঠালে নিশানা বদলের হুমকি পুতিনের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পশ্চিম যদি ইউক্রেনকে ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করা বন্ধ না করে, তা হলে নিশানা বদল করবে মস্কো, হুঙ্কার ছাড়লেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাঁর কথায়, সংঘর্ষ আরও বাড়াতেই এ ভাবে অস্ত্র পাঠানো হচ্ছে কিভে।

রুশ সংবাদ সংস্থাকে পুতিন বলেছেন, কিভকে যদি এ ভাবে একের পর এক দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠায় পশ্চিমি শক্তিরা, আমরা যথার্থ ভাবেই তা শেষ করব আমরা আমাদের অস্ত্র ব্যবহার করব। এখনও যে সব জায়গায় হামলা করিনি, এ বারে সেখানে আঘাত হানব। রুশ টেলিভিশনে দেখানো হয়েছে এই সাক্ষাৎকার। কোথায় হামলা করার কথা ভাবছেন, সে বিষয়ে খোলসা করেননি পুতিন।

সদ্যই আমেরিকা ঘোষণা করেছে, তারা হিমার মাল্টিপল রকেট লঞ্চ সিস্টেম পাঠাবে। ৮০ কিলোমিটার দূরের নিশানায় আঘাত করতে পারে এটি। এ ছাড়াও কোটি কোটি ডলারের অস্ত্রসাহায্য করছে আমেরিকা। এতে ক্ষুব্ধ রাশিয়া। যুদ্ধ-বিশারদদের ব্যাখ্যা, আমেরিকার হিমার রাশিয়ার হাতে থাকা সিস্টেমের থেকে সামান্য বেশি শক্তিশালী। এর অর্থ, এ বারে কিভের বাহিনীও ইউক্রেন থেকে রাশিয়ার সেনাঘাঁটিতে হামলা চালাতে পারবে। মস্কো কিছুই করতে পারবে না। আমেরিকান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অবশ্য দাবি করেছেন, তাঁরা এমন কোনও অস্ত্র ইউক্রেনকে দেবেন না, যাতে রাশিয়ার জমিতে কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়। তবে যুদ্ধে কোনও পক্ষই কাউকে বিশ্বাস করে না।

পুতিন অবশ্য বলেছেন, আমেরিকা এমন কোনও নতুন অস্ত্র দিচ্ছে না ইউক্রেনকে। সোভিয়েত যুগে তৈরি ওই ধরনের অস্ত্র ইউক্রেনের কাছে ছিল।তা ছাড়া, মিসাইল লঞ্চার সিস্টেমের থেকে গুরুত্বপূর্ণ কোন ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হচ্ছে। রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, আমেরিকা যে সিস্টেমটি পাঠাচ্ছে, ওতে ৪৫-৭০ কিলোমিটার দূরত্বের ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়। ও সব কিছুই না। ওদের আসল উদ্দেশ্য, যুদ্ধ দীর্ঘায়িত করা।


আরও খবর



বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে সংশয়ে ডি মারিয়া

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আর্জেন্টিনা দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের একজন আনহেল ডি মারিয়া। সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে দারুণ ছন্দেও ছিলেন তিনি। তবুও কাতার বিশ্বকাপে দলে জায়গা পাওয়া নিয়ে নিশ্চিত নন এই মিডফিল্ডার। পিএসজিকে বিদায় জানানো এই তারকা মনে করেন, কেবল লিওনেল মেসি ছাড়া দলে বাকি সবার জায়গা অনিশ্চিত।

বয়স ৩৪ হলেও খেলায় ধার কমেনি ডি মারিয়ার। লিওনেল স্কালোনির দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ তিনি। দলটির রেকর্ড ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পথচলায় তার রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে তার গোলেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েছিল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

যেভাবে খেলছেন, তাতে বছরের শেষে হতে যাওয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে ডি মারিয়ার না থাকাটাই হবে বিস্ময়কর। জাতীয় দলে আপাতত জায়গা নিয়ে শঙ্কা না থাকলেও ক্লাব পর্যায়ে ভবিষ্যৎ গন্তব্য নিয়ে অনিশ্চয়তায় আছেন দি মারিয়া। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর এখন ক্লাবহীন তিনি। সূত্রের খবর, এক বছরের চুক্তিতে তাকে দলে টানতে আগ্রহী ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস।

রবিবার এক সাক্ষাৎকারে ডি মারিয়া তুলে ধরেন ক্লাব পরিবর্তনের সঙ্গে জাতীয় দলে জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার বিষয়টি। তার মতে, দলে জায়গা ধরে রাখতে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে তাকে। তিনি বলেন, কাতার বিশ্বকাপের দলে) একমাত্র লিওনেল মেসির জায়গা নিশ্চিত। এখন থেকে চার মাস পরে কী হবে, কেউ জানে না। আমাকে ক্লাব পরিবর্তন করতে হবে, সেখানে আবার মানিয়ে নিতে হবে, খেলতে হবে এবং ভালো অনুভব করতে হবে - যা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে।

আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার তালিকায় দি মারিয়া আছেন চতুর্থ স্থানে (১২২)। তালিকায় তার আগে রয়েছেন মেসি (১৬২), হাভিয়ের মাসচেরানো (১৪৭) ও হাভিয়ের জানেত্তি (১৪৫)। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩১টি ম্যাচ খেলেছেন দি মারিয়া। ৫টি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৮টি।

গুঞ্জন রয়েছে, জুভেন্টাসের পাশাপাশি দি মারিয়াকে দলে টানতে চেষ্টা করছে বার্সেলোনাও। বর্তমানে ছুটিতে থাকা সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা অবশ্য এই মুহুর্তে সেসব নিয়ে ভাবছেন না। তিনি বলেন, ইউভেন্তুস ইতালির সবচেয়ে বড় ক্লাব এবং আমার প্রতি আগ্রহী দলগুলোর একটি। এই মুহূর্তে আমি এটা নিয়ে একটু চিন্তা করছি, তবে এখন আমার পূর্ণ মনোযোগ পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটানো। বার্সেলোনা বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি এবং আগে আমাকে সবসময় তাদের বিপক্ষে খেলতে হয়েছে।


আরও খবর