Logo
শিরোনাম

পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে রাশেদুলের বাড়ি!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৩৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লালমনিরহাট থেকে রাহেবুল ইসলাম টিটুল

১৭০০ বর্গফুটের একটি বাড়ি, তাতে নেই কোনো ইট। এর বদলে কাজে লাগানো হয়েছে ৮০ হাজার পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল। এ রকম এক অদ্ভুত নির্মাণ উপকরণ দিয়ে বাড়ি বানিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন লালমনিরহাটের এক শিক্ষক দম্পতি।

প্রতিদিন দলে দলে লোক আসছে কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী নওদাবাস গ্রামের এ বাড়িটি দেখতে। বাড়িটি শুধু যে বসবাসযোগ্য তাই নয়, অন্যান্য পাকা বাড়ির চেয়ে শক্তপোক্ত এবং নিরাপদ।

এ ব্যতিক্রমী উদ্যোগ যারা নিয়েছেন, সেই রাশেদুল আলম ও তার স্ত্রী আসমা খাতুন দুজনে ঢাকার শেখ বোরহান উদ্দিন কলেজে পরিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ে লেখাপড়া করেন। পরে তারা সেখানে খণ্ডকালীন শিক্ষকতাও করেন কিছুদিন।


এই দম্পতির দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে রাফিদুল বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। ছোট ছেলেটিরও বাকপ্রতিবন্ধিতা আছে। তাদের কোলাহলমুক্ত পরিবেশে রাখতে বাবা-মাকে পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। এ জন্য শহর ছেড়ে শান্ত পরিবেশে পারিবারিক ভিটায় সন্তানদের নিয়ে এসেছেন ওই শিক্ষক দম্পত্তি।

বাড়িতে এসে তারা ভাবতে থাকেন কী ধরনের বাড়ি করবেন। ইন্টারনেট থেকে স্ত্রী আসমা খাতুন জানতে পারেন পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে ইকো-হাউস নামে পরিবেশবান্ধব বাড়ি তৈরি করছেন জাপানিরা। এতে উৎসাহিত হয়ে এ দম্পত্তি প্লাস্টিকের বাড়ি নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন। দুজন মিলে রপ্ত করতে থাকেন বাড়ি তৈরির কলাকৌশল। সেই সঙ্গে তারা বোতল সংগ্রহ করা শুরু করেন।

শুরুর দিকে অনেকে উপহাস করেছেন। ঘনিষ্ঠ আত্মীয়রা বাধা দিয়েছেন। বলেছেন, এ রকম বাড়ি টেকসই হবে না। কিন্তু কারও কথাই কান দেননি এ দম্পতি।

এমন বাড়ি নির্মাণের খবর গণমাধ্যমে প্রচার হলে এটি দেখতে অনেক মানুষ ভিড় করতে থাকে। ইতোমধ্যে বাড়িটি বোতল হাউজ হিসেবে এলাকায় পরিচিতি লাভ করেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বাড়িটিতে চার রুমের থাকার ঘর আছে। আছে দুটি বাথরুম, রান্নাঘর ও বারান্দা।

১৭০০ বর্গফুটের বাড়িটি নির্মাণে বিভিন্ন আকৃতির প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকি বাথরুমের সেপটিক ট্যাংক ও মেঝেতেও ব্যবহার করা হয়েছে বোতল। বাড়ির ভিত্তিমূলে এক লিটার এবং দেয়ালে ব্যবহার করা হয়েছে আধা লিটারের প্লাস্টিকের বোতল।

বোতলগুলো বালুতে ভর্তি করার পর সিমেন্ট দিয়ে তা দেয়ালে গাঁথা হয়। বোতলে বালু দেয়ায় স্বাভাবিক ইটের তুলনায় ১৫ থেকে ২০ গুণ বেশি শক্ত হয় বলে জানান রাশেদুল। এ ছাড়া বালু গরমে তাপ শোষণ করে ঘরকে অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা রাখে বলে জানান তিনি।

রাশেদুল জানায়, পরিবেশ রক্ষার দায়বদ্ধতা থেকে অভিনব এই বাড়ির কাজে হাত দিয়েছেন তিনি। স্ত্রী আসমা খাতুন তাকে সার্বক্ষণিক সাহস জোগাচ্ছেন। পরিবেশবান্ধব, তাপ শোষক, অগ্নিনিরোধক, ভূমিকম্পসহ বাড়িটি নির্মাণে ইটের তৈরি বাড়ি থেকে ৪০ শতাংশ কম ব্যয় হয়েছে।

নির্মাণকাজ পুরোটা আগামী এক মাসের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। এখনও অনেক লোকজন দেখতে আসছে বলে বোতল ঢাকতে দেয়াল প্লাস্টার করা হয়নি।

রাশেদুল বলেন, আমরা বাড়ি তৈরি করব, কিন্তু ইট দিয়ে নয়। কারণ, ইট তৈরিই হয় পরিবেশের ক্ষতি করে। বোতলের মধ্যে যদি বালু ভরাট করা হয়, তাহলে দুটি বোতল একটি ইটের কাজ করবে।

বাড়িটি তৈরি করতে ৮০ হাজার প্লাস্টিকের বোতল লেগেছে। ওজনে তারা ৬০ মণ বোতল কিনেছিলেন। প্রতি কেজি বোতল প্রকারভেদে কিনতে হয়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকায়। টিনের চালা বাদে দুই থেকে আড়াই লাখ টাকার মধ্যে বাড়ির পুরো কাজ শেষ হবে বলে আশা করছেন তারা।


বাড়ির নির্মাণ শুরু হয় ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। এ পর্যন্ত ৮০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। এখন শুধু প্লাস্টার করা বাকি। এখনই বাড়িতে বসবাস শুরু করেছেন তারা।

রাশেদুল বলেন, প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে বাড়ি করলে আগুন সহজে লাগবে না। এটি শক্তিশালী ফায়ার প্রুফ হিসেবে কাজ করবে। আগুন লাগলে প্লাস্টিকের বোতল গলে যাবে, তখন ভেতরের বালু ঝরে পড়বে, ফলে আগুন নিভে যাবে।

প্লাস্টিকের বোতলে বালু ভরাট করায় এটি ভূমিকম্পসহও হবে। গবেষণাগারে পরীক্ষায় দেখা গেছে, বোতল দিয়ে বানানো বাড়ি রিখটার স্কেলে আট মাত্রার ভূমিকম্প প্রতিরোধ করতে পারে। তা ছাড়া ইটের তৈরি বাড়ির চেয়ে এটি অনেক শক্ত ও টেকসই।

রাশেদুল আরও বলেন, সীমান্ত এলাকার ক্যাম্পগুলোতে বালু দিয়ে বস্তা ভর্তি করে বাংকার তৈরি করে বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি)। সে ক্ষেত্রে খালি বোতলে বালু ভরাট করে বাংকার তৈরি করলে তা আরও শক্তিশালী হবে। ইট দিয়ে এ বাড়ি তৈরি করলে চার লাখের মতো টাকা ব্যয় হতো। বোতলের বাড়ি নির্মাণে খরচ হয়েছে আড়াই লাখ টাকা।

এ গ্রামের বাসিন্দা প্রবীণ সাংবাদিক শেখ আব্দুল আলিম বলেন, ফেলনা বোতল দিয়ে যে বাড়ি করা যায়, তা রাশেদুলের এই বাড়ি না দেখলে কারও বিশ্বাস হতো না। তার এই বাড়ি দেখে এলাকার অনেকে উদ্বুব্ধ হচ্ছেন। অনেকে তাদের কাছ থেকে বাড়ির নকশা করে নিয়ে যাচ্ছেন।

গ্রামের বাসিন্দা রহিম উদ্দিন বলেন, এত কম ট্যাকায় মজবুত বাড়ি হয়, এটা আগোত জানলে হামরাও প্লাস্টিকের বোতল কুড়ায় বাড়ি কইরবার পানু হয়।

পরিবেশবান্ধব হলেও বাড়ি নির্মাণে প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহারের সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন হওয়া উচিত বলে মনে করেন কালীগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী আবু তৈয়ব মো. শামছুজ্জামান।

তিনি বলেন, এটি পরিবেশবান্ধব হতে পারে। কারণ ইট দিয়ে বাড়ি পরিবেশের জন্য হুমকি। এটি ট্রায়াল দিয়ে দেখা যেতে পারে। আরও কিছু বাড়ি হলে বোঝা যাবে, এটি কতটা শক্তিশালী। তবে এটি যে তাপ শোষণ করার ক্ষেত্রে ভালো কাজ করবে, এতে সন্দেহ নেই। গরমকালে শীতল থাকবে বাড়িটি।

নিউজ ট্যাগ: লালমনিরহাট

আরও খবর

লালমনিরহাটে ৫ দিন দেখা নেই সূর্যের

সোমবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২১




কোম্পানীগঞ্জে সংঘর্ষে কাদের মির্জার ছেলেসহ আহত ১০

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ফের নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার অনুসারী ও উপজেলা আ.লীগের কমিটির অনুসারীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ ঘটে। এ ঘটনায় কাদের মির্জার ছেলে তাশিক মির্জাসহ উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছ।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ থানার সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আহতদের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ অন্যান্য ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বিস্তারিত আসছে...


আরও খবর



চলমান লকডাউন কোনোভাবেই বিজ্ঞানসম্মত নয়

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
জনসমাবেশে একেবারেই অংশগ্রহণ করা যাবে না। খুব বেশি প্রয়োজন না হলে ঘর থেকে না বের হওয়া। জীবন জীবীকার জন্য বিধি নিষেধ শিথিল করার পরও কঠোর ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে

দেশব্যাপী লকডাউন কোনোভাবেই বিজ্ঞানসম্মত নয়। এতে সংক্রমণ কমলেও জীবনযাত্রা ও অর্থনীতি স্থবির হয়ে পরে। তাই বর্তমান বাস্তবতায় আর লকডাউন না দিয়ে মাস্ক পরা ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতে প্রশাসনকে তৎপর হওয়ার তাগিদ দেন বিশেষজ্ঞরা। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, বেশী সংক্রমিত এলাকায় স্থানীয় প্রশাসন চাইলে বিধি নিষেধ আরোপ করতে পারে।

মার্চের মাঝামাঝি দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হলে ২৯টি জেলা শহরকে ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবে সংক্রমণ রোধে লকডাউন দেয়া হয় সারাদেশে। এতে কাজ না হওয়ায় ১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করে সরকার।

এ কারণে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় সংক্রমণ কিছু কমলেও সারাদেশের জীবনযাত্রা থমকে যায়। স্থবির হয়ে পরে অর্থনীতি। নিম্নয়ের মানুষ পেটের তাগিদে পথে নামে। শুধু অর্থনৈতিক কারণে নয় বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জোন ভিত্তিক লকডাউনে আক্রান্তদের পর্যবেক্ষণে রাখা যায় সংক্রমণের হারও দ্রুত কমে।

এ বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাবেক আঞ্চলিক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হক বলেন, এটি বিজ্ঞানসম্মত লকডাউন না। এটির কোনও প্রয়োজন ছিল না। দুই সপ্তাহের যে লকডাউন দেয়া হয়েছে তার তেমন কোনও সফলতা আসবে না। কিছুটা সফলতা আসবে কারণ কিছুটা তো নিয়ন্ত্রণ আসছে। বর্তমান বাস্তবতায় গণ-টিকাদান তরান্বিত করে হার্ড ইউনিটি তৈরি করতে হবে।

একই সমস্যা নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, জনসমাবেশে একেবারেই অংশগ্রহণ করা যাবে না। খুব বেশি প্রয়োজন না হলে ঘর থেকে না বের হওয়া। জীবন জীবীকার জন্য বিধি নিষেধ শিথিল করার পরও কঠোর ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। নয়তো আবারও লকডাউনের ঝুঁকিতে পরবে দেশ। করোনা প্রতিরোধে লকডাউন এর চেয়ে মাস্ক পরা ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হবে।

লকডাউন বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, এলাকাভিত্তিক লকডাউনের সিদ্ধান্ত না হলেও স্থানীয় প্রশাসন চাইলে বিধি নিষেধ আরোপ করতে পারবে।

নিউজ ট্যাগ: লকডাউন

আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




আজ বিশ্ব মা দিবস

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
মা দিবসের প্রবক্তা আনা জার্ভিস দিবসটির বাণিজ্যিকীকরণের বিরোধিতা করে বলেছিলেন, মাকে কার্ড দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর অর্থ হলো, তাকে দুই কলম লেখার সময় হয় না। চকলেট উপহার দেওয়ার অর্থ হলো, তা নিজেই খেয়ে ফেলা

বিশ্ব মা দিবস আজ। মা দিবসের মূল উদ্দেশ্য, মাকে যথাযথ সম্মান দেওয়া। যে মা জন্ম দিয়েছেন, লালন-পালন করেছেন, তাকে শ্রদ্ধা দেখানোর জন্য দিনটি পালন করা হয়। যদিও মাকে ভালোবাসা-শ্রদ্ধা জানানোর কোনো দিনক্ষণ ঠিক করে হয় না, তবুও মাকে গভীর মমতায় স্মরণ করার দিন আজ।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ভিন্ন ভিন্ন তারিখে দিনটি পালন করা হয়। ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় রবিবার নরওয়েতে, মার্চের চতুর্থ রবিবার আয়ারল্যান্ড, নাইজেরিয়া ও যুক্তরাজ্যে। আর বাংলাদেশে মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার।

বিশ্বের অনেক দেশে কেক কেটে মা দিবস উদ্যাপন করা হয়। তবে মা দিবসের প্রবক্তা আনা জার্ভিস দিবসটির বাণিজ্যিকীকরণের বিরোধিতা করে বলেছিলেন, মাকে কার্ড দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর অর্থ হলো, তাকে দুই কলম লেখার সময় হয় না। চকলেট উপহার দেওয়ার অর্থ হলো, তা নিজেই খেয়ে ফেলা।

আনা জার্ভিস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাল্টিমোর ও ওহাইওর মাঝামাঝি ওয়েবস্টার জংশন এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তার মা অ্যান মেরি রিভস জার্ভিস সারা জীবন ব্যয় করেন অনাথ-আতুরের সেবায়। মেরি ১৯০৫ সালে মারা যান। লোকচক্ষুর অগোচরে কাজ করা মেরিকে সম্মান দিতে চাইলেন মেয়ে আনা জার্ভিস। অ্যান মেরি রিভস জার্ভিসের মতো দেশজুড়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সব মাকে স্বীকৃতি দিতে আনা জার্ভিস প্রচার শুরু করেন।

পরে ১৯১৪ সালের ৮ মে মার্কিন কংগ্রেস মে মাসের দ্বিতীয় রবিবারকে মা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। এভাবেই শুরু হয় মা দিবসের যাত্রা। এরই ধারাবাহিকতায় আমেরিকার পাশাপাশি মা দিবস এখন বাংলাদেশসহ অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, রাশিয়া ও জার্মানসহ শতাধিক দেশে মর্যাদার সঙ্গে দিবসটি পালিত হচ্ছে।

যদিও করোনার কারণে গত বছরের মতো এবারও দিবসটিতে কোনো আনুষ্ঠানিকতা দেখা যাবে না। তাই বলে ঘরে ঘরে মায়ের ভালোবাসা কুড়াতে কার্পণ্য করবে না সুসন্তান।


আরও খবর



সোনারগাঁয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই সবজি ব্যবসায়ী নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ০১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার দড়িকান্দী এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় সবজিভর্তি পিকআপভ্যানে থাকা দুই ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও দুইজন।

শনিবার ভোরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের আমদী গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে কবির হোসেন (৩৮) ও নাজিরপুর এলাকার রিয়াদ হোসেনের ছেলে আমির মিয়া (৪৪)।

আহত হলেন- একই এলাকার খলিল মিয়া ও আল আমিন নামে অপর দুই সবজি ব্যবসায়ী।

কাচঁপুর হাইওয়ে থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, শনিবার ভোরে একটি পিকআপভ্যানে করে সবজি নিয়ে ঢাকার যাত্রাবাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা হন চার সবজি ব্যবসায়ী।

উপজেলার দড়িকান্দী এলাকায় মহাসড়কে উঠার সময় চট্টগ্রামগামী একটি দ্রুতগতির ট্রাক পিকাপভ্যানকে ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ট্রাকটিকে শনাক্ত করে চালককে আটক করার জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।


আরও খবর



নন্দীগ্রামে মমতা নন, বিজয়ী শুভেন্দু: ঘোষণা কমিশনের

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সেই বিকেল থেকে অনেক দ্বিধা-দ্বন্দ্বের পর শেষ পর্যন্ত নন্দীগ্রাম আসনে শুভেন্দু অধিকারীকেই জয়ী ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন কমিশন। তবে কেউ ভোট পুনর্গনার আবেদন করলে সেটা করা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এর আগে রবিবার (২ মে) বিকেলে প্রথমে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম আসনে জিতেছেন বলে খবর মেলে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যে আবার ফল পরিবর্তন হয়ে শুভেন্দুর দিকে ঝোঁকে। এরপর ফলই স্থগিত ঘোষণা করে কমিশন।

পরে স্থানীয় সময় রাত ৮টার দিকে কমিশন আবার জানায় শুভেন্দু অধিকারী ১ লাখ ৯ হাজার ৬৭৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। মমতা পেয়েছেন ১ লাখ ৭ হাজার ৯৩৭ ভোট।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস ২১৫ এবং ৭৫ আসনে বিজেপি জয়ী বা এগিয়ে রয়েছে।


আরও খবর