Logo
শিরোনাম

পৃথিবীর বুকে নির্মিত হবে কৃত্রিম চাঁদের রিসোর্ট

প্রকাশিত:সোমবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চাঁদে ভ্রমণ করা যে খুব সহজ কোনো কাজ নয় তা আমাদের অধিকাংশেরই জানা। সর্বশেষ, যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা চাঁদে আবারও মানুষ পাঠানোর লক্ষ্যে প্রাথমিক ক্রুবিহীন মিশন পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে দুই দুইবারের মতো যাত্রা স্থগিত হয়ে যায়। সর্বশেষ মানুষটি চাঁদে যাওয়ার পর পেরিয়ে গেছে ৫০ বছরেরও বেশি সময়। এর আগে মাত্র ১২ জন মানুষ চাঁদের বুকে পা রাখার দুর্লভ সুযোগটি পেয়েছিলেন।

তবে এবার আর চাঁদে গিয়ে চাঁদের অনুভূতি না নিলেও চলবে। পৃথিবীর বুকেই চাঁদ যাওয়ার অভিজ্ঞতা লাভ করা যায় তবে কেমন হবে? এমন অসাধ্যসাধনের পরিকল্পনা করেছে কানাডাভিত্তিক স্থাপত্য প্রতিষ্ঠান দ্য মুন ওয়ার্ল্ড রিসোর্টস ইনকরপোরেশন (এমডব্লিউআর)।

প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের বুকে আরেকটি বিস্ময়কর স্থাপত্যের নজির স্থাপন করতে যাচ্ছে। হুবহু চাঁদের আকৃতির একটি রিসোর্ট নির্মাণ করার পরিকল্পনা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। দুবাইতে নির্মিতব্য দুবাই মুন নামের বিলাসবহুল এই রিসোর্ট নির্মাণে প্রায় ৫ বিলিয়ন ডলার ব্যয় ধরা হয়েছে।

প্রায় ২০০ মিটারের অধিক উচ্চতা সম্পন্ন এ টাওয়ারের বাইরে অংশটি দেখতে হুবহু চাঁদের মতোই হবে। চাঁদের মতোই গোলাকার এই রিসোর্টটির ব্যাস হবে ১৯৮ মিটার। ভেতরের সমতল চাকতির মতো করে করে করে গড়ে তোলা হবে লুনার সারফেস। লুনার সারফেস ঘিরে থাকবে লুনার কলোনি। যেখানে দর্শনার্থীরা শূন্য অভিকর্ষে (জিরো গ্র্যাভিটি) চাঁদে হাঁটার মতো অভিজ্ঞতা পাবেন। আপাতদৃষ্টিতে মনে হবে পুরো যাত্রার কোনো শেষ নেই। পরিবেশবান্ধব স্থাপনাটিতে নভোচারীদের প্রশিক্ষণের জন্য থাকবে স্কাই ভিলা।

এ ছাড়া, স্থাপনাটিতে থাকবে প্রায় ৪ হাজার বিলাসবহুল রিসোর্ট স্যুইট। থাকবে, ৩০০ টি ব্যক্তিগত বাসস্থানও রাখা হবে বিক্রয়ের জন্য। যে কেউ চাইলে এসব স্যুইট কিনতে পারবে। এই স্যুইটগুলোর মালিকেরা একটি বিশেষ ক্লাবের সদস্য হবেন যার আওতায় তাঁরা বিভিন্ন ধরনে সুবিধা লাভ করবেন।

এই চাঁদ রিসোর্ট নির্মাণের ধারণার অন্যতম উদ্যোক্তা মাইকেল হোন্ডারসন খালিজ টাইমসকে বলেছেন, এই প্রকল্পটি ব্যাপক জটিল, বেশ বড় আকারের এবং সম্পূর্ণভাবে আলাদা। দিয়ে এই স্থাপনাটি নির্মাণ করা হবে সে বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে হেন্ডারসন আরও বলেন, আমরা এই স্থাপনায় কার্বন ফাইবার ব্যবহার করব যা বেশ শক্ত এবং দীর্ঘস্থায়ী। এ ছাড়া, মূল কাঠামোতে সোলার সেলও সংযুক্ত করা হবে নিজস্ব বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য।


আরও খবর



মিয়ানমার খোঁচালে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবো: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্র। আমরা যুদ্ধ চাই না। যুদ্ধে মানুষের কষ্ট হয়। আমরা সীমান্ত ও দেশের ভেতরেও শান্তি চাই। মিয়ানমার যদি আমাদের প্রতিনিয়ত খোঁচায়, তাহলে বাধ্য হয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বুধবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমাদের সীমান্ত রক্ষীবাহিনী সার্বক্ষণিক কড়া পাহাড়া দিচ্ছে। তার পেছনে সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য বাহিনীও নিরাপত্তা দিচ্ছে। মিয়ানমারের সাহস নেই আমাদের সরাসরি কিছু করার। ডিস্টার্ব করার অভ্যাস আছে তাদের। এই ডিস্টার্ব নতুন নয়, বহুদিন ধরে করছে। এটা দুনিয়ার মানুষ জানে। আমাদের প্রয়োজন ধৈর্য, আর সেটা আমাদের সরকারপ্রধান দেখাচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, মূল সমস্যা সমাধানের জন্য কথা বলতে হবে। বসতে হবে। বাংলাদেশ মিয়ানমারের সঙ্গে বসার জন্য তৈরি। কিন্তু মিয়ানমার একেকবার একেক কথা বলে। তারা কথা দিয়ে কথা রাখে না।

পূজামণ্ডপ পরিদর্শনকালে পরিকল্পনামন্ত্রীর সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।


আরও খবর



বিজয়া দশমী আজ

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শারদীয় দুর্গাপূজায় আজ বিজয়া দশমী। পাঁচ দিনব্যাপী শারদ উৎসবের শেষ দিন। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় এ উৎসব।

বিসর্জনের দিনে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে দশমীর বিহিত পূজা এবং পূজা শেষে দর্পণ বিসর্জন। দুপুর ১২টায় রয়েছে স্বেচ্ছায় রক্তদান। বিকাল ৪টায় রয়েছে বিজয়া শোভাযাত্রা। শারদীয় দুর্গাপূজার বিজয়া দশমী উপলক্ষ্যে আজ সরকারি ছুটির দিন।

বিজয়া দশমীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে অন্যরকম আবেগ ও মন খারাপ করা এক অনুভূতির সৃষ্টি হয়। কারণ, দশমী মানেই দুর্গা মায়ের ফিরে যাওয়া। অপেক্ষায় থাকতে হবে আরও একটি বছর।

মঙ্গলবার মণ্ডপে মণ্ডপে মহানবমীতে দেবীর বন্দনায় ভক্তকুলে ছিল ভিন্ন এক আবহ। ঢাকঢোল, কাঁসর-ঘণ্টাসহ বিভিন্ন বাদ্য, ধূপ আরতি ও দেবীর পূজা-অর্চনায় ছিল প্রাণখোলা উচ্ছ্বাস। সেই সঙ্গে ছিল এক মানবিক ও সুন্দর পৃথিবীর প্রার্থনা। এদিন সকাল থেকে ঢাকাসহ সারা দেশের মণ্ডপে মণ্ডপে শুরু হয় আনুষ্ঠানিকতা। পুরাণ মতে, এ তিথিতে দেবী দুর্গার আশীর্বাদ নিয়ে লঙ্কার রাজা রাবণকে বধ করেছিলেন দশরথ পুত্র শ্রীরামচন্দ্র। এছাড়া ১০৮টি নীলপদ্ম দিয়ে দেবী দুর্গার পূজা করেছিলেন রামচন্দ্র। তাই এ মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮টি নীলপদ্মে পূজিত হয়েছেন দেবী দুর্গা।

মহানবমীর দিনে দেবী দুর্গাকে প্রাণভরে দেখে নেওয়ার সময়। দুর্গাপূজার অন্তিম দিন বলা যায় মহানবমীর দিনটিকে। পরের দিন কেবল বিজয়া ও বিসর্জনের পর্ব। মহাষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে গত শনিবার শুরু হয় পাঁচ দিনব্যাপী সার্বজনীন শারদীয় দুর্গোৎসব। সনাতনী শাস্ত্র অনুযায়ী, এবার দেবীদুর্গা জগতের মঙ্গল কামনায় গজে (হাতি) চড়ে মর্ত্যলোকে এসেছেন। এতে প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঝড়বৃষ্টি হবে এবং শস্য ও ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে, স্বর্গে বিদায় নেবেন নৌকায় চড়ে। ফলে জগতের কল্যাণ সাধিত হবে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্র থেকে জানা যায়, এবার সারা দেশে ৩২ হাজার ১৬৮টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন হচ্ছে। এসব মণ্ডপে নির্বিঘ্নে উৎসব উদযাপনের জন্য প্রশাসনের পাশাপাশি প্রতিটি পূজা উদযাপন কমিটিও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে। মণ্ডপে মণ্ডপে লাগানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা। এছাড়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সূত্র জানান, এ বছরের শারদীয় দুর্গোৎসব যেন শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপিত হয় সেজন্য কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রাজধানীসহ সারা দেশের মণ্ডপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: বিজয়া দশমী

আরও খবর

আজ কৈলাসে ফিরবেন দেবী

বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২




রানি এলিজাবেথের চেয়ে বেশি হচ্ছে আবের শেষকৃত্যের খরচ

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাপানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের শেষকৃত্য আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তবে এ শেষকৃত্যে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করতে যাচ্ছে দেশটির সরকার। এতে দেশটির জনগণের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। অনেকে প্রশ্ন তুলছেন এত খরচ নিয়ে। জানা গেছে, শিনজো আবের শেষকৃত্যে প্রায় ১ দশমিক ৬৬ বিলিয়ন ইয়েন খরচ হবে, যা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যের চেয়ে অনেক বেশি।

সরকারিভাবে বিপুল অর্থ ব্যয়ে আবের শেষকৃত্যের বিরোধিতা করছেন অনেকেই। কারণ ধারণা করা হচ্ছে, রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যে এক দশমিক তিন বিলিয়ন ইয়েনের কম খরচ হয়েছে। যদিও রানি এলিজাবেথের শেষকৃত্যে কত খরচ হয়েছে তা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়নি। জাপানে সবচেয়ে দীর্ঘ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন শিনজো আবে। চলতি বছরের ৮ জুলাই তাকে হত্যা করা হয়। টোকিওর নিপ্পন বুডোকান এলাকায় একটি রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্য করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার।

একটি তদন্তে দেখা গেছে, শিনজো আবের নিরাপত্তায় গুরুতর ত্রুটি ছিল। নির্বাচনী প্রচারণায় আবে যখন ভাষণ দিচ্ছিলেন তখন ৪১ বছর বয়সী বন্দুকধারী আবের পেছনে ছিলেন। সেখান থেকেই তাকে গুলি করতে সক্ষম হন ওই বন্দুকধারী।

এদিকে ব্রিটেনের প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে তাকে সমাহিত করা হয়।


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




এডিবির কাছে বাংলাদেশের বকেয়া ১১.৬৯ বিলিয়ন ডলার : অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশে ADB-এর ক্রমবর্ধমান অর্থায়ন দাঁড়িয়েছে ২৭.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যার মধ্যে মোট বকেয়া ১১.৬৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশ অত্যন্ত সক্ষমতার সাথে নিয়মিত ঋণ পরিশোধ করে চলেছে। বাংলাদেশের ৫১ বছরের যাত্রায় কখনোই দেশি-বিদেশি ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হয়নি। জিডিপি অনুপাতে বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণের দেশের মধ্যে অন্যতম একটি দেশ, মাত্র ৩৪ শতাংশ।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে, ম্যানিলায় এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)র সদর দপ্তরে বার্ষিক সভার অংশ হিসাবে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সাথে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)র প্রেসিডেন্ট মাসাতসুগু আসাকাওয়ার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের শুরুতে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ADB বাংলাদেশের বিষয়গুলো অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করায় অর্থমন্ত্রী আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

অর্থমন্ত্রী অপ্রত্যাশিত অভিঘাত কোভিড-১৯-এর সংকটে এডিবি দ্রুত সাড়া দেওয়ার ক্ষেতে প্রেসিডেন্টের সক্রিয় এবং গতিশীল নেতৃত্বের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

তিনি আরো বলেন, এডিবি এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্য সংকট পুনরুদ্ধারের জন্য বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল সদস্য দেশগুলোকে দ্রুত ভ্যাকসিন ও ব্যয় সহায়তা দিয়ে সাহায্য করেছে। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে, বাংলাদেশ-এডিবি কান্ট্রি পার্টনারশিপ স্ট্র্যাটেজি (২০২১-২০২৫), বাংলাদেশের জাতীয় উন্নয়ন ও লক্ষ্যগুলির সাথে সমন্বয় করে তৈরি করা হয়েছে। যা আগামী পাঁচ বছরে আমাদের জন্য ১২-১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ সহয়তার যোগান থাকবে বলে আশা করা যায়। আমাদের উন্নয়নের মাইলফলক অর্জনে এডিবির ক্রমাগত সমর্থন বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।

বাংলাদেশর সক্ষমতা ও অগ্রগতি তুলে ধরে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও বিচক্ষণ নেতৃত্বে বাংলাদেশ সকল আর্থ-সামাজিক সূচকে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধন করেছে। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্ব সম্প্রদায়ের দ্বারা ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশ গত ১৩ বছরে গড়ে ৬.৬% জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। কিন্তু কোভিড-১৯ মহামারী এবং বর্তমান ভূ-রাজনৈতিক সংকটের কারণে, খাদ্য, জ্বালানি, সার, এবং আর্থিক সংকট বিশ্বব্যাপী সরবরাহ চেইনকে ব্যাহত করেছে এবং সারা বিশ্বে মূল্যস্ফীতি বাড়িয়েছে। সামাজিক ও অর্থনৈতিক স্থিতিস্থাপকতা নিশ্চিত করার জন্য, আমাদের এডিবি থেকে বাজেট সহায়তার পাশাপাশি নীতি ভিত্তিক ঋণ (PBL) প্রয়োজন।

এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী এডিবির বিশেষ সহযোগিতা কামনা করেন এবং বাংলাদেশও এডিবি সদর দপ্তরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখবে বলে আশা ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা দৃঢ়ভাবে আশা করি যে ADB এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে বিশেষ করে বাংলাদেশকে জলবায়ু অভিযোজন, প্রশমন এবং দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে অসহায় মানুষদের সাহায্য করার জন্য গতিশীল ভূমিকা পালন করতে পারে। আমি বিশ্বাস করি যে জলবায়ু পরিবর্তনের দুর্বলতা মোকাবেলায় মিশ্র অর্থায়নের পরিবর্তে নমনীয় ঋণ সহায়তা হবে বাস্তবসম্মত পদ্ধতি। এছাড়াও ADB চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের উপর বিশেষ মনোযোগ দিয়ে আইসিটি ভিত্তিক উদ্যোক্তা উন্নয়ন, কৃষি বৈচিত্র্যকরণ, স্থিতিস্থাপক স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং মানসম্পন্ন অবকাঠামোর কৃষি প্রবর্তনে তার উদার সহায়তা প্রসারিত করতে পারে।

বাংলাদেশ ও এডিবির সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তিকে গুর্ত্বারোপ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, আগামী বছর বাংলাদেশ ও এডিবির জন্য একটি ঐতিহাসিক মাইলফলক। ২০২৩ সাল আমাদের অংশীদারিত্বের ৫০তম বার্ষিকী হবে। ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে অর্থমন্ত্রী, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ১৬৫ মিলিয়ন বাংলাদেশি নাগরিকদের পক্ষ থেকে এডিবি প্রেসিডেন্টকে বাংলাদেশ সফর এবং ৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপন করার জন্য আমন্ত্রণ জানান।

বিশাল পোর্টফোলিও এবং ADB-এর সাথে দৃঢ় সম্পৃক্ততার কথা বিবেচনা করে, বাংলাদেশ থেকে ADB-এর শীর্ষ ব্যবস্থাপনা ও প্রশাসনে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিশেষ করে ভাইস-প্রেসিডেন্ট নিয়োগ করার কথা বিবেচনা করতে অনুরোধ করেন।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)র প্রেসিডেন্ট মাসাতসুগু আসাকাওয়া বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ও সক্ষমতার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মান বাংলাদেশের সক্ষমতার একটি প্রতীক। এজন্য তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বের বিশেষ প্রসংশা করেন। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সৃষ্ট স্বাস্থ্যগত ও আর্থ-সামাজিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ গৃহীত পদক্ষেপ এবং টিকা কার্যক্রমেরও প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, শুরু থেকেই বাংলাদেশের প্রতি এডিবির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এবারের বার্ষিক সভায় বাংলাদেশ যে বিষয়গুলো তুলে ধরেছে সেগুলোও গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হবে। করোনা মহামারি কাটিয়ে উঠতে বাংলাদেশের সামাজিক এবং অর্থনৈতিক নিরাপত্তা পুনরুদ্ধারে এডিবি শুরু থেকেই বাংলাদেশের পাশে থেকে সহযোগিতা করছে এবং ভবিষ্যতেও বাংলাদেশের পাশে সবসময় এডিবি থাকবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেছেন।


আরও খবর

৩১ ডিসেম্বরের পর পাম অয়েল বিক্রি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




ঢাকাসহ ১২ অঞ্চলের নদীবন্দরে সতর্কতা সংকেত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকাসহ দেশের ১২টি অঞ্চলের নদীবন্দরকে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখা বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এক পূর্বাভাসে এ সতর্কতা জারি করে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক জানিয়েছেন- রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী, বগুড়া, পাবনা, টাংগাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চল সমূহের উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

অন্য এক পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- মৌসুমী বায়ুর অক্ষ উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

এ অবস্থায় শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায়; রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু'এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়া ও বিদ্যুৎ চমকানোসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরণের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারি বর্ষণ হতে পারে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে বগুড়ায়, ১৪ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সৈয়দপুরে, ৩৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আরও খবর