Logo
শিরোনাম

প্রশিক্ষিত নার্স বাড়ানোর কার্যক্রম চলছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে বর্তমানে সরকারের তুলনায় নার্স কম জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, প্রশিক্ষিত নার্স বাড়ানোর কার্যক্রম চলছে।

সোমবার স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্তে সংসদে বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল সংশোধন বিল ২০২৩ পাস হয়।

এর আগে এ বিলেন আলোচনায় দেশের স্বাস্থ্য সেবায় নার্সদের উন্নত প্রশিক্ষন এবং মেডিকেল টেকনোলজিস্ট বাড়ানোর তাগিদ দেন সংসদ সদস্যরা।

বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে ৪৫ হাজার নার্স সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। সেইসাথে ৩৫০ ইনস্টিটিউট কাজ করছে দক্ষ নার্স গড়ে তুলতে। আগামীতে স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে সরকার বদ্ধপরিকর বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।


আরও খবর

৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




মেট্রোরেলে চড়তে যাদের লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে না

প্রকাশিত:শনিবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

উদ্বোধনের পর থেকে মেট্রোরেল চালু থেকে আগারগাঁও স্টেশন এবং উত্তরা স্টেশনে যাত্রীদের দীর্ঘলাইন দেখা যাচ্ছে। কোনও কোনও সময় লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘ হয়ে এক থেকে দেড় কিলোমিটার পর্যন্ত চলে যাচ্ছে।

মেট্রোরেল চালুর আজ তৃতীয় দিন শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) আগারগাঁও এবং উত্তরা প্রান্তেও দেখা গেছে যাত্রীদের দীর্ঘলাইন। এই দীর্ঘ লাইন এড়াতে এবং সরাসরি টিকেট পাঞ্চ করে ট্রেনে উঠতে এমআরটি পাস নেওয়ার কথা বলছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

আগারগাঁও মেট্রোরেল স্টেশন ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান বলেন, মেট্রো রেলের যাত্রীরা যারা সিঙ্গেল যাত্রার টিকিট কিনছেন, তারা যদি নিয়মিত যাত্রী হয় তাদের অনুরোধ জানাই এমআরটি পাস কিনে নেন।

এমআরটি পাস কিনলে কোথাও লাইন ধরতে হবে না। সরাসরি এসে তিনি এফসি গেটে পাসটি স্পর্শ করেই উঠতে পারছেন মেট্রোরেলে। গত কয়েকদিনে অনেকেই এই পাস কিনেছেন। এজন্য লাইনের দৈর্ঘ্যও কমে এসেছে। এমআরটি পাস কিনলে মেট্রোরেলে ভ্রমণ করতে কোনও ঝামেলা থাকবে না।

তিনি বলেন, তৃতীয় দিনে মেট্রোরেলে চড়তে যাত্রীদের তেমন লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে না। জনগণ ইতোমধ্যে অভ্যস্ত হয়ে উঠছেন। মেশিনগুলো সঠিকভাবে পারফর্ম করছে, আমরা প্রচুর টেকনিশিয়ান রেখেছি। কোনও সমস্যা হলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: মেট্রোরেল

আরও খবর



লালমাইয়ের টিলাগুলোতে পাতা মেলেছে চা গাছ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কুমিল্লা জেলার লালমাইয়ের টিলাগুলোতে সবুজ পাতা মেলেছে চা গাছগুলো। পৌষের মিষ্টি রোদে নতুন কুড়িগুলো আকাশের দিকে তাকিয়ে আছে। বছর দুয়েকের মধ্য ডালপালাগুলো ঝুপড়ি হয়ে উঠবে। পরিপূর্ণ হবে গাছগুলো। গাছের ডাল থেকে কঁচি পাতা সংগ্রহ করা হবে। সেই পাতা থেকে হবে চা। চায়ের সুঘ্রাণে মনমাতাবে সবার। এমন স্বপ্ন নিয়েই কুমিল্লা লালমাই পাহাড়ে গড়ে তোলা হয়েছে একটি চা বাগান।

চা বাগানের মালিক তারিকুল ইসলাম মজুমদার শখের বসেই কুমিল্লা লালমাই পাহাড়ের বড় ধর্মপুর এলাকায় প্রায় এক একর জমিতে ছয় হাজার চা গাছ রোপণ করেছেন। তার ইচ্ছে এখানে চাপাতা প্রক্রিয়াকরণের কারখানাও করবেন। লালমাই পাহাড়ে উৎপাদিত চা  দেশ ও দেশের বাহিরে বিখ্যাত হবে। সে লক্ষ্য গত বছরে মার্চ মাসে ৩ হাজার এবং জুন জুলাই মাসে আরো ৩ হাজার চা গাছ রোপণ করেন। অদূর ভবিষ্যতে আরো অন্তত ৬ হাজার একর জমিতে অন্তত ১০ হাজার চা গাছ রোপণ করার ইচ্ছে রয়েছে।

তারিকুল ইসলাম মজুমদার বলেন, শখের বসে চা বাগান তৈর করেছি। বিটি ২ জাতের চা গাছ রোপণ করেছি। বর্তমানে এ জাতের চায়ের রং স্বাদ খুবই চমৎকার। বাজারে বিটি ২ জাতের চাহিদা ব্যাপক। শ্রীমঙ্গলে আমার এক উপজাতি বন্ধু আছে। তার নাম  জিডি সান। সে খাসিয়াদের রাজা। চা বাগান করতে সেই মূলত আমাকে  সহযোগিতা করেছে। জিডি সান দলবল নিয়ে কুমিল্লায় আসেন। এখানে আমার দেখাদেখি অন্যরা উদ্যোগী হবে চা বাগান করতে। পাশাপাশি আমি এখানে চা তৈরির কারখানা করার ইচ্ছে আছে। যেন লালমাই পাহাড়ে উৎপাদিত চা কুমিল্লা জেলার চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা যায়।

জিডি সান জানান, লালমাই পাহাড়ের মাটি চা চাষের জন্য খুবই উপযোগী। তারপর আমি চা বাগান করতে আগ্রহী হই। এর আগে শ্রীমঙ্গলে চায়ের বাগান করতে গিয়ে আমি সফল হই নি। তবে লালমাই পাহাড়ে চা বাগান শুরু করেছি। নিজের জেলায় নিজের বাড়ির কাছে।  আশাকরি ব্যর্থ হবো না।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, লালমাই পাহাড় চা চাষের জন্য অনেক উপযোগী। লাল মাটির এ পাহাড়ে যদি বৃহৎ আকারে চা চাষের পরিকল্পনা করা যায় তাহলে এখান থেকে চা নিয়ে ভালো কিছু করা সম্ভব। সে লক্ষ্য পূরণে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উদ্যোক্তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম সাপোর্ট করবে।

নিউজ ট্যাগ: লালমাই টিলা

আরও খবর

লোগো পদ্ধতি ধান চাষে ফলন বাড়ে

মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩

লালশাক চাষ করার সহজ উপায়

মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩




দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যশোরে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা আজ বৃহস্পতিবার যশোরে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা ১২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। আরও ২-১ দিন সারা দেশে এমন তীব্র ঠান্ডা থাকবে। তারপর তাপমাত্রা একটু বাড়বে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ ড. মোহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, উচ্চচাপ বলয় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ জুড়ে অবস্থান করছে। উচ্চচাপ বলয় থাকায় উত্তর-পশ্চিম থেকে হিমেল বাতাস বাংলাদেশের দিকে প্রবাহিত হওয়ার একটা সুযোগ সৃষ্টি হয়। কয়েকদিন মধ্যরাত থেকে দীর্ঘ সময় ধরে কুয়াশা রয়েছে। দিনে সূর্যের আলো ভূপৃষ্ঠকে উত্তপ্ত করতে পারে না। গড় তাপমাত্রা কমে যাওয়ার কারণে ঠাণ্ডার তীব্রতা বেড়েছে। দিনের চেয়ে রাত বড় হওয়ায় রাতে অনেকক্ষণ ধরে ঠাণ্ডা পড়ে। ঘন কুয়াশা ও বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ কম থাকার কারণে শীতের অনুভূতিও তীব্রতা পাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, রাতের তাপমাত্রা ৯-১৫ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে। এর ফলে সারা মাসে ঠাণ্ডা থাকবে। কিন্তু শীতের তীব্রতা কমতে থাকবে। রাজশাহী, পাবনা, দিনাজপুর, যশোর, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গায় আরও ২-৩ দিন শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে। মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা দুপুর পর্যন্ত থাকতে পারে।


আরও খবর

কড়াইয়ের গরম তেলে পড়ে শিশুর মৃত্যু

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩




১৬ জানুয়ারি: ইতিহাসের এই দিনে

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজকের দিনটি কাল হয়ে যায় অতীত। তাই প্রতিটি দিনই এক একটি ইতিহাস। আজ ১৬ জানুয়ারি ২০২৩, সোমবার। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের আজকের এই দিনে কি কি ঘটেছিল। কে কে জন্ম নিয়েছিলেন ও মৃত্যুবরণ করেছিলেন।

ঘটনাবলি :

৯২৯ - স্পেনের মুসলিম শাসক আবিদ উর রহমান স্পেনের কর্ডোভায় রাজধানী স্থাপন করেন।

১৪৯২ - স্পেনিশ ভাষার প্রথম গ্রামার রানি ইসাবেলা প্রথম এর কাছে হস্তান্তর করে।

১৬০৫ - বিখ্যাত উপন্যাস ডন কুইকসোট এর প্রথম প্রকাশ।

১৬৬৬ - ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফ্রান্স ও হল্যান্ডের যুদ্ধ ঘোষণা।

১৭৬১ - ফরাসিদের কাছ থেকে পন্ডিচেরি দখল নেয় ব্রিটিশরা।

১৭৬৮ - কলকাতায় প্রথম ঘোড়দৌড় শুরু হয়।

১৯২০ - লিগ অব নেশন্সের প্রথম সভা প্যারিসে অনুষ্ঠিত হয়।

১৯২২ - কুমিল্লায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম গ্রেফতার হন।

১৯২৯ - বিবিসির প্রথম পত্রিকা দি লিসেনার প্রথম প্রকাশিত হয়।

১৯৪৫ - অ্যাডলফ হিটলার ব্যাঙ্কারে অবস্থান গ্রহন করেন।

১৯৫৬ - মিসরের প্রসিডেন্ট গামাল আবদেল নামের প্যালিস্টাইন মুক্ত করার ঘোষণা দেন।

১৯৬৬ - নাইজেরিয়ায় সামরিক শাসক জেনারেল আগুইয়ির ক্ষমতা গ্রহণ।

১৯৬৯ - প্রাক্তন সৌভিয়েত ইউনিয়নের দুটো নভোযানের প্রথমবার সংযোগ সম্পাদিত হয়। সংযুক্ত হওয়ার পর এ দুটো নভোযান মহাশূন্যে আরও ৪ ঘণ্টা পরিভ্রমণ করে।

১৯৭০ - গাদ্দাফি লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।

১৯৭৫ - অ্যাংগোলার স্বাধীনতা স্বীকৃতি দেয় পতুর্গাল।

১৯৭৯ - ইরানের শাহ পরিবারসহ ইরান থেকে পলায়ন করে।

১৯৮২ - ৪৫০ বছর বিছিন্ন অবস্থা থাকার পর ভ্যাটিকান আর ব্রিটেনের মধ্যে আবার কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৯১ - উপসাগরীও যুদ্ধ: আমেরিকা ইরাকের সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করে।

২০০০ - রিকার্ডো লাগোস চিলির প্রথম সমাজবাদী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

২০০১ - কঙ্গোর প্রসিডেন্ট লুরান্ট কাবালা নিজ দেহরক্ষির হাতে নিহত হন।

২০০২ - জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ সর্বসম্মতিক্রমে ওসামা বিন লাদেন, আল-কায়েদা এবং অবশিষ্ট তালেবান সদস্যদের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা জারি এবং সম্পদ জব্দ করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২০০৬ - আফ্রিকার প্রথম দেশ হিসেবে লাইবেরিয়ায় নারী প্রেসিডেন্ট অ্যালেন-জনসন সিরলিফের অভিষেক।

জন্ম :

১৮৭৪ - বিখ্যাত কানাডীয় কবি রবার্ট সার্ভিস।

১৯০১ -বাঙালি ভাষাতাত্ত্বিক ও সাহিত্য বিশারদ সুকুমার সেন।

১৯১০ - ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের বাঙালি বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাস।

১৯১৯ - বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এম মনসুর আলী।

১৯৩৩ - খ্যাতিমান মার্কিন লেখিকা ও সাহিত্য সমালোচক সুসান সনট্যাগ।

১৯৮৭ - ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিতর্কিত মার্কিন সাহিত্যিক কাব্য বিশ্বনাথন।

মৃত্যু : 

১৯১৫ - ঢাকার নবাব খাজা সলিমুল্লাহ।

১৯৩৮ - জনপ্রিয় বাঙালি কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।

২০০১ - রাজধানী কিনসাসায় নিজ দেহরক্ষীর গুলিতে নিহত হন কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্ট লরা কাবিলা।

২০০১ - নেপালের যুবরাজ দীপেন্দ্র কর্তৃক রাজা বীরেন্দ্র বীর বীক্রম শাহদেব ও রানী ঐশ্বর্য সহ ১১ জন বন্দুকের গুলিতে নিহত হন।


আরও খবর

১৮ জানুয়ারি: ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

১৭ জানুয়ারি: আজকের এই দিনে

মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩




বিশ্বকাপ ছুঁয়ে বিতর্কে জড়ানো শেফ সল্ট বে আবার আলোচনায়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স বিশ্বকাপ ফাইনালের পর ট্রফি ধরে বিতর্ক তৈরি করেছিলেন সল্ট বে। ক্ষিপ্ত ফিফা সেই ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। একটি ফুটবল প্রতিযোগিতায় তাঁকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ফিফা। এ বার আরও একটি জনপ্রিয় অনুষ্ঠানের আয়োজকরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেন তুরস্কের খ্যাতনামী শেফকে।

ফিফার নিয়ম অনুযায়ী বিশ্বকাপ ট্রফিতে হাত দিতে পারেন বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলাররা, ফিফার সভাপতি এবং কোনও রাষ্ট্রপ্রধান। তার বাইরে কারও ট্রফি ছোঁয়ার অধিকার নেই। অথচ বিশ্বকাপ ফাইনালের পর আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের সঙ্গে ছবি তোলার সময় ট্রফি স্পর্শ করেছিলেন সল্ট বে। সারা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীদের তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন তিনি। দিন কয়েক আগে ফিফা জানিয়েদিয়েছে, ইউএস ওপেন কাপ সকার প্রতিযোগিতার ফাইনাল দেখতে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করতে পারবেন না তুরস্কের খ্যাতনামী শেফ। এ বার ক্যালিফোর্নিয়ার রোলিং লাউড মিউজিক উৎসবের আয়োজকরাও তাঁকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেন। ২০১৫ সালে এই সঙ্গীত উৎসব শুরু হয়। একেক বছর একেক দেশে আয়োজিত হয় উৎসব।

বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স ম্যাচের পর একাধিক ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন সল্ট বে। সেই দেখেই বিরক্ত ফুটবল-ভক্তরা। প্রায় প্রতিটি ভিডিয়োতেই তিনি আর্জেন্টিনা দলের ফুটবলারদের থেকে কাড়াকাড়ি করছেন ট্রফি। মেসির দৃষ্টি আকর্ষণের যে চেষ্টা সল্ট বে করেছেন, তা সব থেকে বেশি বিরক্তি উদ্রেক করেছে ফুটবল-ভক্তদের। দুবার লিয়োনেল মেসি তাঁকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন। সল্ট বে নাছোড়। অগত্যা মেসি বাধ্য হয়েই ৩৯ বছরের শেফের সঙ্গে বিশ্বকাপ হাতে একটি ছবি তোলেন। সেই ছবি পরে সমাজমাধ্যমে পোস্ট করেন সল্ট বে।

তাঁর এই কাণ্ড দেখে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ইউএস ওপেন কাপ কর্তৃপক্ষ। এটি আমেরিকার সব থেকে পুরনো ফুটবল প্রতিযোগিতা। সেই প্রতিযোগিতার ফাইনাল দেখতে ঢুকতে পারবেন না সল্ট বে।

সল্ট বের আসল নাম নুসরেত গোকসে। মাংসের স্টেক বানানোয় বিশেষজ্ঞ। পৃথিবীর বিভিন্ন শহরে রয়েছে তাঁর স্টেক হাউস। সেখানে খেতে আসেন খ্যাতনামীরা। তাঁর ফলোয়ারের তালিকাতেও রয়েছেন বিখ্যাতরা। ইনস্টাগ্রামে নুসরেতের ফলোয়ারের তালিকায় রয়েছেন লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও, ডেভিড বেকহ্যাম। তাঁর রেস্তরাঁয় এসে খেয়ে কাঁটা-চামচ চেটেছেন দিয়েগো মারাদোনা থেকে কিলিয়ন এমবাপে। সমাজমাধ্যমে সেই ছবি পোস্ট করেছেন নুসরেত ওরফে সল্ট বে।

নিউজ ট্যাগ: শেফ সল্ট বে

আরও খবর