Logo
শিরোনাম

পুলিশ ভাইয়েরা, আপনারা সাবধান হয়ে যান: রুমিন

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ছাত্রদল নেতা নয়ন লিফলেট বিতরণ করার কারণে বিনা দোষে, বিনা কারণে গুলি করে 'পুলিশ লীগ' হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এবং জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

তিনি বলেন, 'এই বিচার বাঞ্ছারামপুরের মাটিতেই হবে। পুলিশ ভাইয়েরা, আপনারা সাবধান হয়ে যান। আমার দেশের আমার ভাইয়ের উপরে গুলি চালাবেন, একটা একটা করে জবাব দিতে হবে। তারা মনে করে শেখ হাসিনা থাকলে তারা টিকতে পারবে।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়নের চরশিবপুর গ্রামে এক শোকসভায় তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি নিহত ছাত্রদল নেতা নয়নের নানার বাড়িতে তার মা, স্ত্রী ও পরিবারবর্গের সঙ্গে দেখা করে তাদের প্রতি সমবেদনা জানান। পরে নয়নের শোকসভায় অংশ নেন।

রুমিন ফারহানা বলেন, আপনারা যেভাবে ২০১৪ ও ১৮-তে বিনাভোটে লুটপাটের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছেন, মনে কইরেন না ২০২৪ সালে সেই ওয়াকওভার পাবেন। বাংলাদেশের মানুষ আপনাদের সমীচীন জবাব দেবে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চক্রান্তে ভোট কারচুপির মাধ্যমে ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসেছেন। তারপর থেকে বিনা ভোটে নির্লজ্জের মতো ক্ষমতায় বসে আছেন। আপনারা মনে করেন এর জবাব দিতে হবে না। সবকিছুর হিসাব আমরা নেব। কেন আমার হাজার হাজার ভাইকে গত ১৪ বছরে বিনা দোষে হত্যা করা হয়েছে। কেন আমার ভাইদের গুম করা হয়েছে। এই যে রাস্তায় রাস্তায় বাধা দিচ্ছেন, পথে পথে পুলিশের তল্লাশি, গণপরিবহন বন্ধ রাখছেন, সম্মেলনে মানুষের যাওয়া কি বন্ধ রাখতে পারছেন। যে যেভাবে করেই সমাবেশস্থলে উপস্থিত হচ্ছেন। একটা জনসমাবেশ দেখেন জনসমুদ্র।

বিএনপির এই নেত্রী বলেন, কেন আপনারা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে রাজনীতি থেকে দূরে সরে রেখেছেন, সে জবাব আপনাদের দিতে হবে। আমাদের ৩৫ লাখ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে কেন মিথ্যা মামলা দিয়ে রেখেছেন। আপনাদের ভয়টা আমরা বুঝি।

প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আরও ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল।

গত ১৯ নভেম্বর বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লার বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে লিফলেট বিতরণকালে পুলিশের গুলিতে নিহত হন ছাত্রদল নেতা নয়ন।


আরও খবর



নওগাঁয় ড্রেন পরিষ্কার করতে গিয়ে মিললো মাথার খুলি

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নওগাঁয় পৌরসভার ড্রেন পরিষ্কার করতে গিয়ে আবর্জনার সঙ্গে পাওয়া গেছে মানুষের মাথার খুলি। সোমবার (৭ নভেম্বর) সকালে নওগাঁ পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের পাটালিড়মোড়ের একটি ড্রেনে খুলিটি পাওয়া যায়।

পৌরসভার পরিচ্ছন্নতাকর্মী খাইরুল বলেন, প্রতিদিনের মতো আজ সকালে পাটালিড়মোড়ের একটি ড্রেন পরিষ্কারের কাজ করছিলাম। সে সময় আবর্জনার মধ্যে মানুষের মাথার খুলি দেখতে পাই। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই।

এ বিষয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ফয়সাল বিন আহসান বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। উদ্ধার হওয়া মাথার খুলিটি পুলিশ হেফাজতে নেবো। পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: নওগাঁ

আরও খবর



মাধবদীতে কিশোরকে হত্যা, গ্রেফতার ৪

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

 নরসিংদীর মাধবদীতে পায়ে থুতু ফেলাকে কেন্দ্র করে মোবারক হোসেন (১৮) নামে এক কিশোরকে হত্যার ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. আল আমিন।

এর আগে, রোববার (১২ নভেম্বর) দিনগত রাতে মাধবদী ও আড়াইহাজার থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

নিহত মোবারক হোসেন নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার সাতগ্রাম ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি এবার মাধবদীর এসপি ইনস্টিটিউশনের ছাত্র হিসেবে সদ্য সমাপ্ত এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- নরসিংদী সদরের দক্ষিণ বিরামপুর এলাকার আলী আহম্মেদের ছেলে আরাফাত (১৯), মধ্য বিরামপুরের আব্দুর রহিমের ছেলে রাহাত (১৮), মাধবদী থানার দড়িপাড়া এলাকার সেলিমের ছেলে অলিউল্লাহ (২১) ও একই এলাকার আব্দুস সালামের ছেলে অলি (১৮)। 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১০ নভেম্বর বিকেল ৪টার দিকে মোবারক হোসেন রিক্সাযোগে বাড়ি ফেরার পথে মাধবদীর বাহাদুরপুরে পাকা রাস্তার মাথায় এলে তার মুখে থুতু আসে। পরে সেই থুতু ফেললে ইয়াছিন মিয়া নামে এক কিশোরের গায়ে না পড়ে পায়ের সামনে গিয়ে পড়ে। এতে ইয়াছিন মোবারককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এ নিয়ে তর্কাতর্কির একপর্যায়ে তাদের মধ্যে মারামারি হয়। ইতোপূর্বে মোবারক এর সঙ্গে ইয়াছিন এর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আড়াইহাজার থানার বাহাদুরপুর এলাকায় বিভিন্ন তুচ্ছ ঘটনায় একাধিক বার ঝগড়া বিবাদ ও মারামারি হয়। এই ঝগড়া বিবাদকে কেন্দ্র করে ইয়াছিন ও তার অপরাপর সহযোগীরা পরিকল্পনা করে হত্যার জন্য সুযোগ খোঁজতে থাকে। 

এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার (১২ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় মাধবদী থানাধীন দক্ষিণ বিরামপুর আউয়ালের চায়ের দোকানের সামনে মোবারক হোসেনকে পেয়ে ইয়াছিন ও অন্যান্য সহযোগিরা পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার রড, চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল, ছুরি নিয়ে কিছু বোঝার আগেই মোবারকের ওপর অতর্কিতভাবে আক্রমণ করে কুপিয়ে জখম করে।

স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় মোবারককে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে দাঁড়িয়ে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। পরে ১২ নভেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোবারকের মৃত্যু হয়। 

এ ঘটনায় রোববার মাধবদী থানায় মামলা দায়ের করার হয়। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ও প্রযুক্তির সহায়তায় মাধবদী ও আড়াইহাজার থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৪ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। 

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল আমিন বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। গ্রেফতারদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর সঙ্গে জড়িত বাকিদেরও গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

নিউজ ট্যাগ: কিশোরকে হত্যা

আরও খবর



বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবারও ফিফার সভাপতি ইনফান্তিনো

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৬৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আরও চার বছর ফিফা সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। এবারও তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো ফিফার সভাপতি হলেন ইনফান্তিনো।

ফিফার বিবৃতি অনুযায়ী, গত বুধবার ছিল ডেডলাইন। একমাত্র ব্যক্তি হিসেবে নিজের নাম দিয়েছেন ইনফান্তিনো। কনমেবল, এএফসি ও সিএফ সবারই সমর্থন পেয়েছেন তিনি।

ইনফান্তিনো বলেন, ফিফার ২০০ সদস্য, ছয় ফেডারেশনর সবাইকে ধন্যবাদ, যারা আমাকে সমর্থন দিয়েছেন। বিশ্ব ফুটবলের জন্য আরও চার বছর কাজ করতে পারব দেখে নিজে খুব সম্মানিত বোধ করছি।

এর আগে ২০১৬ সালে এএফসির সভাপতি শেখ সালমান বিন ইব্রাহিম আল খলিফাকে ফাইনাল রাউন্ডে হারিয়ে তিন বছরের জন্য ফিফার সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন  ইনফান্তিনো। এরপর ২০১৮ বিশ্বকাপের পর ২০১৯ সালে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিন বছরের জন্য নির্বাচিত হন তিনি।  


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




বাগেরহাট কারাগারে হাজতির মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাগেরহাট জেলা কারাগারে মো. সেলিম ফরাজী (৭০) নামে এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করে কারাগার কর্তৃপক্ষ। মৃত সেলিম ফরাজী বাগেরহাট শহরের হরিনখানা এলাকার কাশেম ফরাজীর ছেলে।

বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক ডা. অসীম কুমার সমাদ্দার জানান, ঠান্ড ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় গুরুতর অসুস্থ্য হাজতি সেলিম ফরাজীকে শুক্রবার রাত ১২টার কিছু আগে কারাগার থেকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে কারা কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালে আনার কিছুক্ষণ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান পুলিশ পরিদর্শক এস এম আশরাফুল আলম জানান, গত ২১ নভেম্বর বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে চুরির অভিযোগে সেলিম ফরাজীসহ দুইজন জনতার হাতে আটক করে পুলিশে দেয়। এরপর থেকে আদালতের নির্দেশে সেলিম ফরাজী বাগেরহাট করাগারে আটক ছিলেন।

বাগেরহাট জেলা কারাগারের জেল সুপার এ এস এম কামরুল হুদা জানান, একটি চুরি মামলায় আটক হয়ে আসামি সেলিম ফরাজী গত ২১ নভেম্বর থেকে বাগেরহাট জেলা কারাগারে ছিলেন। শুক্রবার রাতে হঠাৎ তার শ্বাসকষ্টসহ অসুস্থতা দেখা দিলে চিকিৎসার জন্য তাকে বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির কিছুক্ষণ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আইনি প্রক্রিয়া শেষে শনিবার বিকেলে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তন্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



পার্কে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ : তালেবান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কাবুলে নারীদের পার্কে যাওয়া নিষিদ্ধ করল তালেবান। যে কোনও ধরনের পার্ক এবং মেলায় নারীরা প্রবেশ করতে পারবেন না। দেশটির রাজধানী কাবুলে এমনই ফতোয়া জারি করা হয়েছে।

আফগানিস্তানে মেয়েদের একা একা রাস্তাঘাটে চলাফেরা করা আগেই নিষিদ্ধ করেছিল তালেবান। কেবল মাত্র পুরুষ সঙ্গী সঙ্গে থাকলেই নারীরা ঘরের বাইরে বের হতে পারেন। তবে এ বার পুরুষসঙ্গী থাকলেও নারীরা পার্কে বা মেলায় যেতে পারবেন না। কাবুলের পার্কগুলোতে তাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

তালেবান সরকারের মুখপাত্র মহম্মদ আকিফ সাদেক মহাজির বলেছেন, ১৫ মাসের বেশি সময় ধরে আমরা নিয়মকানুন বলবৎ করে সমস্ত সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করে চলেছি। কিন্তু তার পরেও দেখা যাচ্ছে নানা জায়গায় আইন ভাঙা হচ্ছে। অনেক জায়গাতেই পুরুষ এবং নারীরা এক সঙ্গে মিশে যাচ্ছেন। নারীরা অনেক ক্ষেত্রে হিজাব পরছেন না। এ সব দেখে আমরা নতুন সিদ্ধান্ত নিলাম। আপাতত পার্ক এবং মেলায় নারীদের নিষিদ্ধ করা হল।

তালেবান শাসিত আফগানিস্তানে মেয়েদের জন্য সর্বত্র হিজাব এবং বোরখা পরা বাধ্যতামূলক। একা একা রাস্তায় মেয়েদের চলাফেরা করাও নিষিদ্ধ। এ ছাড়া, দেশে উচ্চ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে মেয়েদের স্কুলও বন্ধ করে রেখেছে সরকার। এই পরিস্থিতিতে সরকারের মেয়েদের জন্য পার্ক বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে একেবারেই মানতে পারছেন না কাবুলের নারীরা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে একটি সাক্ষাৎকারে কাবুলের এক নারী বছেন,আমরা বদ্ধ জায়গায় বসে বসে খুবই হতাশ। স্কুল নেই, কোনও কাজ নেই, আমাদের কিছু অন্তত দেওয়া উচিত, যা আমরা উপভোগ করতে পারব।

আরেক তরুণী বলেন, ইসলামে নারীদের পার্কে যাওয়ায় কোনও নিষেধাজ্ঞা নেই। তবু আমাদের এই আনন্দ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। নিজেদের দেশেই আমরা পরাধীন। এই দেশে থাকার কোনও মানেই হয় না।

সরকারের সিদ্ধান্তে খুশি নন পার্ক কর্তৃপক্ষও। তারা জানাচ্ছেন, নারীরা পার্কে না এলে বাচ্চারাও আসবে না। এভাবে চলতে থাকলে পার্ক বন্ধ হয়ে যাবে। নারীদের থেকে বিনোদনের অন্যতম উপাদান কেড়ে নেওয়ায় আন্তর্জাতিক মঞ্চেও সমালোচনার মুখে তালেবান।


আরও খবর