Logo
শিরোনাম

রমজানে একসঙ্গে বেশি পণ্য না কেনার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রমজানে একসঙ্গে বেশি পণ্য না কেনার আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, আসন্ন রমজান মাস সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মজুত ও বাজার স্থিতিশীল রাখতে সরকার পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নিয়েছে। কোনো পণ্যের সংকট হবে না, মূল্যও বৃদ্ধি পাবে না। ভোক্তারা যদি একসঙ্গে বেশি পণ্য ক্রয় না করেন, তাহলে বাজারে পণ্যের ওপর এক সঙ্গে বেশি চাপ পড়বে না।

গতকাল রোববার (২২ জানুয়ারি) রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্টিজের উদ্যোগে ক্রিকেট গার্ডেনে আয়োজিত মাসব্যাপী রংপুর শিল্প ও বাণিজ্য মেলা-২০২৩ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রমজান মাসকে কেন্দ্র করে বা স্বাভাবিক সময়ে কোনো ব্যবসায়ী কোনো ধরনের অবৈধ মজুদ করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে এসব পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আসন্ন রমজান মাসকে সামনে রেখে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এসকল পণ্যের আমদানিকারক, বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান এবং পাইকারী ব্যবসায়ীদের সাথে দফায় দফায় আলোচনা চলছে, আরো আলোচনা হবে। সরকার ব্যবসায়ীদের চাহিদা মোতাবেক সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছে।

তিনি বলেন, উৎপাদন ব্যয়ের সঙ্গে সমন্বয় করে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে, এতে অর্থনীতিতে কিছুটা প্রভাব পড়া স্বাভাবিক। গ্যাস দিয়ে যেসব পণ্য উৎপাদন করা হয়, সেসব পণ্যের মূল্যের ওপর কিছুটা প্রভাব পড়বে। নতুন করে গ্যাসের দাম নির্ধারণে আলোচনা চলছে। দেশের মানুষের জন্য ন্যায্যমূল্যে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্টিজ এর সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুসহ অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেন, যুগ্ম-আহ্বায়ক আবুল কাশেম, প্রশাসন ও ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে বাণিজ্যমন্ত্রী তাঁর নির্বাচনী এলাকা কাউনিয়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি অডিটরিয়ামে ওয়ার্ড আ. লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং কাউনিয়ার মধুপুরে তিনদিনব্যাপী অষ্টপ্রহর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন।


আরও খবর

বেড়েছে সবজি-ডিমের দাম

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩




খালেদা জিয়ার ১১ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি ১৫ মে

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলাসহ মোট ১১ মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির দিন পিছিয়ে আগামী ১৫ মে নির্ধারণ করেছেন আদালত।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) এসব মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরার দিন ধার্য থাকলেও অসুস্থতাজনিত কারণে তিনি আদালতে উপস্থিত হতে পারেননি। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার আইনজীবী সময়ের আবেদন করলে তা মঞ্জুর করে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান নতুন এদিন ধার্য করেন।

খালেদা জিয়া ছাড়া এসব মামলায় উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন- বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমান, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।

১১ মামলার মধ্যে যাত্রাবাড়ী থানার একটি হত্যা মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণের বিষয়ে শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। অপর ১০ মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য ছিল। মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যে করার অভিযোগে ২০১৬ সালের ২৫ জানুয়ারি আদালতে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলাটি দায়ের করা হয়।

এদিকে ২০১৫ সালের ২৩ জানুয়ারি রাতে যাত্রাবাড়ীর কাঠেরপুল এলাকায় গ্লোরি পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাসে পেট্রল বোমা হামলা হয়। এতে বাসের ২৯ যাত্রী দগ্ধ ও একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ওই ঘটনায় পরের দিন ২৪ জানুয়ারি খালেদা জিয়াকে হুকুমের আসামি করে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা হয়। এছাড়া ২০১৫ সালে দারুস সালাম থানা এলাকায় নাশকতার অভিযোগে আটটি মামলা দায়ের করা হয়। এই আট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আসামি করা হয়।


আরও খবর



ইস্পাতের বৈশ্বিক উৎপাদন ৩.৭ শতাংশ কমেছে

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দার আশঙ্কা ইস্পাতের বাজারকে নিম্নমুখী চাপে ফেলেছে। শিল্প উৎপাদন থেকে শুরু করে অবকাঠামো নির্মাণসব খাতেই পরিলক্ষিত হচ্ছে ধীরগতি। এ কারণে ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না শিল্প ধাতুটির ব্যবহার। নিম্নমুখী চাহিদার প্রভাবে প্রতি মাসেই কমছে বৈশ্বিক উৎপাদন। সর্বশেষ নভেম্বরে ধাতুটির বৈশ্বিক উৎপাদন গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২ দশমিক ৬ শতাংশ কমেছে। জানুয়ারি-নভেম্বর পর্যন্ত ১১ মাসে উৎপাদন কমেছে ৩ দশমিক ৭ শতাংশ। সম্প্রতি ওয়ার্ল্ড স্টিল অ্যাসোসিয়েশন (ওয়ার্ল্ড স্টিল) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতি মাসেই অপরিশোধিত ইস্পাতের বৈশ্বিক উৎপাদন পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে সংস্থাটি। ৬৪ দেশের ওপর ভিত্তি করে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। বৈশ্বিক উৎপাদনের ৮৫ শতাংশই আসে এসব দেশ থেকে। প্রতিবেদনে বলা হয়, নভেম্বরে অপরিশোধিত ইস্পাতের বৈশ্বিক উৎপাদন দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ৯১ লাখ টনে। ১১ মাসে উৎপাদন হয়েছে ১৬৯ কোটি ১৪ লাখ টন।

বিশ্বের শীর্ষ ইস্পাত উৎপাদক ও ব্যবহারকারী দেশ চীন। চলতি বছর কয়েক ধাপে দেশটিতে রেকর্ড মাত্রায় করোনা সংক্রমণ বেড়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লকডাউনসহ কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করতে হয়েছে দেশটিকে। এতে প্রায় বছরজুড়েই চীনে ইস্পাতের চাহিদা ছিল তলানিতে। বিষয়টিকে বৈশ্বিক উৎপাদন কমার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি দায়ী করা হচ্ছে। জানুয়ারি-নভেম্বর পর্যন্ত দেশটিতে ৯৩ কোটি ৫১ লাখ টন অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন হয়েছে। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় উৎপাদন ১ দশমিক ৪ শতাংশ কমেছে। তবে নভেম্বরে দেশটিতে উৎপাদন ৭ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে ৭ কোটি ৪৫ লাখ টনে উন্নীত হয়েছে। বছরের ১১ মাসে ভারত ও ইরান ছাড়া বাকি সব শীর্ষ দেশেই উৎপাদন ছিল নিম্নমুখী। এর মধ্যে জাপানে উৎপাদন ৬ দশমিক ৯ শতাংশ, যুক্তরাষ্ট্রে ৫ দশমিক ৫, রাশিয়ায় ৭, দক্ষিণ কোরিয়ায় ৬ দশমিক ১, জার্মানিতে ৭ দশমিক ৯, তুরস্কে ১২ দশমিক ৩ ও ব্রাজিলে ৫ দশমিক ৯ শতাংশ কমেছে।

এদিকে জানুয়ারি-নভেম্বর পর্যন্ত ভারতে উৎপাদন ৬ শতাংশ বেড়েছে। উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৪২ লাখ টনে। ইরানে ধাতুটির উৎপাদন ৮ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়ে ২ কোটি ৭৯ লাখ টনে উন্নীত হয়েছে।

ওয়ার্ল্ড স্টিল জানায়, গত বছর করোনা মহামারীর ধাক্কা সামলে বিশ্ব অর্থনীতিতে গতি ফিরতে শুরু করে। ফলে ইস্পাতের বৈশ্বিক চাহিদা ২ দশমিক ৮ শতাংশ বাড়ে। কিন্তু চলতি বছর তা ২ দশমিক ৩ শতাংশ কমবে। চাহিদার পরিমাণ দাঁড়াবে ১৭৯ কোটি ৬৭ লাখ টনে। যদিও আগামী বছর চাহিদা আবারো ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। ওই বছর ১৮১ কোটি ৪৭ লাখ টন ইস্পাতের চাহিদা তৈরি হতে পারে, যা চলতি বছরের তুলনায় ১ শতাংশ বেশি। অবকাঠামো খাতে ঊর্ধ্বমুখী চাহিদা ওই বছর মোট চাহিদা বৃদ্ধিতে প্রধান প্রভাবকের ভূমিকা পালন করবে।

ওয়ার্ল্ড স্টিল ইকোনমিকস কমিটির চেয়ারম্যান ম্যাক্সিমো ভেডোয়া বলেন, নিয়ন্ত্রণহীন মূল্যস্ফীতি, যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রা সংকোচন নীতি, চীনে অর্থনৈতিক বিপর্যয় এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ঊর্ধ্বমুখী জ্বালানি ব্যয়, সুদের হার বৃদ্ধি ও বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলাসহ নানা কারণে ইস্পাত ব্যবহারের খাতগুলো মন্থর হয়ে পড়েছে। এ কারণেই আমরা ইস্পাতের চাহিদা পূর্বাভাস কমাতে বাধ্য হয়েছি।

নিউজ ট্যাগ: ইস্পাত উৎপাদন

আরও খবর



পলিথিনে মোড়ানো ছিল নবজাতকের মরদেহ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ জানুয়ারী ২০23 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ফজরের নামাজ আদায় শেষে রেললাইন দিয়ে হেঁটে পাড় হচ্ছিলেন স্থানীয় কয়েকজন মুসল্লি।এসময় তাদের চোখে পড়ে রেললাইনের পাশে পলিথিনে মোড়ানো একটি বস্তু পড়ে আছে।

কৌতূহল নিয়ে সেটি খুললে তারা বিস্মিত হন। পলিথিনে মোড়ানো ছিল এক নবজাতকের মরদেহ।পরে তারা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে মরদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার আলিনগর ইউনিয়নের মকরমপুর টেন্ডারপাড়া গ্রামের রেললাইনে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান। 

তিনি জানান, নবজাতকের মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। এরইমধ্যে রেলওয়ে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়ন্তা তদন্তের জন্য হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তার পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।


আরও খবর

মহানন্দায় কুমির আতঙ্ক

বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর ২০২২




স্কুলশিক্ষককে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ৭ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কুষ্টিয়ার সদর উপজেলায় স্কুলশিক্ষক রবিউল ইসলামকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ৭ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) বিকেলে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় দেন। বুধবার (৪ জানুয়ারি) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার রাজিতপুর গ্রামের মোকাদ্দেস আলীর দুই ছেলে ফিরোজ ও দেলবার। ফিরোজের ছেলে সবুজ, দেলবারের ছেলে মিজান, একই গ্রামের ইয়ার আলীর ছেলে হোসেন আলী, সদর উপজেলার গজনবীপুর গ্রামের আফিউদ্দিনের ছেলে সাইদুল ইসলাম এবং ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার সিরামপুর গ্রামের রফিউদ্দিনের ছেলে হেলাল।

তবে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা সবাই পলাতক রয়েছেন। এছাড়া এ মামলার আসামি গোলাম সরোয়ার ও রোবেল রানাকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার রনজিতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক রবিউল ইসলামকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে রামদা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে আসামিরা। ২০০৫ সালের ২৯ ডিসেম্বর দুপুরের দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে স্কুল সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আসামিদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের এসআই আবদুল কুদ্দুস আসামিদের বিরুদ্ধে ২০০৬ সালের ৩১ আগস্ট আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত এ মামলায় সাক্ষীদের সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। নির্ধারিত ধার্য তারিখে বিচারক মামলার আসামিদের শাস্তির এই আদেশ দেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে স্কুলশিক্ষককে হত্যা মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় ৭ আসামিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে আসামিরা পলাতক রয়েছেন।


আরও খবর



সরকারি চাকরিতে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ১২৫ পদ শূন্য

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় বা বিভাগ ও অধিদপ্তরে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ১২৫টি পদ শূন্য আছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। আজ বুধবার সংসদের অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের সংসদ অধিবেশন শুরু হলে প্রশ্নোত্তর টেবিলে প্রশ্ন উত্থাপিত হয়।

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদের করা প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সর্বশেষ প্রকাশিত স্ট্যাটিসটিকস অব সিভিল অফিসার্স অ্যান্ড স্টাফস-২০২১ বইয়ের (জুন, ২০২২ সালে প্রকাশিত) তথ্য অনুযায়ী, সরকারের অধীনে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদপ্তর/পরিদপ্তর ও সরকারি কার্যলয় সমূহে বেসামরিক জনবলের মোট শূন্য পদ ৩ লাখ ৫৮ হাজার ১২৫টি।

ফরহাদ হোসেন বলেন, এর মধ্যে প্রথম শ্রেণির ৪৩ হাজার ৩৩৬টি, দ্বিতীয় শ্রেণির ৪০ হাজার ৫৬১, তৃতীয় শ্রেণির ১ লাখ ৫১ হাজার ৫৪৮ এবং চতুর্থ শ্রেণি পদে শূন্য পদ ১ লাখ ২২ হাজার ৬৮০টি। এর মধ্যে ৪০তম বিসিএসে ১ হাজার ৯২৯ জনকে নিয়োগ করা হয়েছে। আর ৪২তম বিশেষ বিসিএসে (স্বাস্থ্য) ক্যাডারে ৩ হাজার ৯৬৬ জন সহকারী সার্জন নিয়োগ করা হয়েছে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৪১তম বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা চলমান। ৪৩তম বিএসএসের লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ণ চলছে, ৪৪তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা গত ১১ জানুয়ারি শেষ হয়েছে। আগামী মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে ৪৫তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি টেস্টের সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারিত আছে।

সরকারি অফিসসমূহে শূন্য পদের বিপরীতে নিয়োগ চলমান প্রক্রিয়া জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দ্বিতীয় শ্রেণির (১০-১৩তম গ্রেড) নিয়োগ পিএসসির মাধ্যমে হয়ে থাকে। ১৪ থেকে ২০তম গ্রেডের নিয়োগ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদপ্তর/সংস্থার নিয়োগবিধি অনুযায়ী হয়ে থাকে। আদালতে মামলা থাকায় নিয়োগবিধি প্রণয়ন কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় এবং পদোন্নতি যোগ্য প্রার্থী না পাওয়ায় কিছু শূন্য পদ পূরণ করা যায় না।

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নুর প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ৪০তম বিসিএসের নন-ক্যাডার পদে ৫ হাজার ৪৩৬টি শূন্য পদের চাহিদাপত্র পাওয়া গেছে। এগুলো যাচাই-বাছাই শেষে প্রকৃত সুপারিশযোগ্য শূন্য পদের সংখ্যা জানানো সম্ভব হবে।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য শামসুন নাহারের প্রশ্নের জবাবে ফরহাদ হোসেন বলেন, স্ট্যাটিসটিকস অব সিভিল অফিসার্স অ্যান্ড স্টাফস-২০২১ প্রতিবেদন অনুযায়ী, দেশের সরকারি চাকারিজীবীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৫৪ হাজার ৯২৭ জন। এর মধ্যে নারী ৪ লাখ ৪ হাজার ৫৯১ জন, যা মোট চাকরিজীবীর প্রায় ২৬ শতাংশ। ২০১০ সালে ছিল ২১ শতাংশ। তিনি প্রথম শ্রেণির পদে নারীদের জন্য আলাদা কোটা না থাকলেও ১৩ থেকে ২০তম গ্রেডে নিয়োগে নারীদের জন্য ১৫ শতাংশ কোটা সংরক্ষণ করা আছে।

নিউজ ট্যাগ: সরকারি চাকরি

আরও খবর