Logo
শিরোনাম

সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
রিটে সারাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়ি, উপাসনালয় ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ীদের খুঁজে বের করতে বিচার বিভাগীয় তদন্তের আর্জি জানানো হয়

কুমিল্লাসহ দেশের ছয়টি জেলায় সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা তদন্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা জজদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ৬০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে সংশ্লিষ্টদের বলা হয়েছে। কুমিল্লা ছাড়া অন্য পাঁচ জেলার মধ্যে রয়েছে- চাঁদপুর, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, রংপুর ও ফেনী।

একইসঙ্গে এ বিষয়ে রিটের শুনানি নিয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। রুলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নিরাপত্তা দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে উসকানিমূলক পোস্ট সরানো এবং সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে করা রিটের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এদিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া।

এর আগে গত ২৬ অক্টোবর সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্টের উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া সব ধরনের উসকানিমূলক পোস্ট ও ভিডিও অপসারণের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন দায়ের করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার সাহাসহ দুই আইনজীবীর পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের অন্য আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া এ রিট আবেদন দায়ের করেন।

রিটে সারাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়ি, উপাসনালয় ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ীদের খুঁজে বের করতে বিচার বিভাগীয় তদন্তের আর্জি জানানো হয়। একইসঙ্গে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন এবং ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। এতে হিন্দু সম্প্রদায়কে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ দোষী কর্মকর্তাদের আদালতে হাজির করার নির্দেশনাও চাওয়া হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি), বাংলাদেশ টেলি কমিউনিকেশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান, কুমিল্লা, চাঁদপুর, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, রংপুর, ফেনীর ডিসি-এসপিসহ ১৯ জনকে রিটে বিবাদী করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: হাইকোর্ট

আরও খবর



অচল কক্সবাজার, ৫০ হাজার পর্যটক বিপাকে

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ, মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে প্রায় অচল হয়ে পড়েছে পর্যটন শহর কক্সবাজার। এতে শহরবাসীর সঙ্গে বিপাকে পড়েছেন সেখানে ভ্রমণ করতে আসা ৫০ হাজার পর্যটক।

রোববার (৩১ অক্টোবর) বিকেল থেকে শহরের প্রধান সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে কয়েকশ মানুষ। এতে করে সড়কটিতে থাকা দুই পাশের কয়েক হাজার দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। সন্ধ্যার পর সৈকত এলাকার সব হোটেল-মোটেল ও দোকানপাটও বন্ধ হয়ে যায়।

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা যুবলীগ নেতা মোনাফ সিকদারকে গুলি করার নির্দেশদাতা হিসেবে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভা মেয়র মুজিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা প্রচেষ্টা মামলা হয়েছে।

রোববার বেলা ১২টায় মেয়র মুজিবকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি দায়ের করেন গুলিবিদ্ধ মোনাফের বড় ভাই। ওই মামলায় আরও আটজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়।

মামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিকেলের দিকে কলাতলী ডলফিন মোড়ে সড়ক অবরোধ করেন মেয়র মুজিবের অনুসারীরা। এ সময় তারা প্রধান সড়কের মাঝখানে টায়ার জ্বালিয়ে, পৌরসভার ময়লা আবর্জনাবাহী ট্রাক রাস্তার ওপর রেখে যান চলাচলে বাধা সৃষ্টি করেন।

এছাড়াও বিক্ষুব্ধ অনুসারীরা কক্সবাজার শহরের বিভিন্নস্থানে দোকানপাট, বাস কাউন্টারও বন্ধ করে দিয়েছেন। এ ঘটনায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে শহরবাসী ও পর্যটকদের মাঝে।

গত বুধবার (২৭ অক্টোবর) রাতে শহরের কলাতলীর সুগন্ধা পয়েন্টে মোনাফ সিকদারকে গুলি করা হয়। পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে সেখানে তিনি চিকৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনার পর আহত মুনাফ সিকদার এক ভিডিও বার্তায় বলেন, আমাকে মুজিবুর রহমান মেয়রের নির্দেশে গুলি করা হয়েছে। ওরা গুলি করার সময় বলছিলতুই মুজিব চেয়ারম্যানের সাথে লাগছিস? মুজিব চেয়ারম্যানের সাথে আর লাগবি? এই বলে পিছন থেকে গুলি করে পালিয়ে যায়।

তার বক্তব্যের ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

এ বিষয়ে জানার জন্য মেয়র মুজিবুর রহমানকে কয়েকদফা ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, হত্যাচেষ্টা ধারায় মেয়র মুজিবকে প্রধান আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আতঙ্কে পর্যটক ও শহরবাসী

মেয়র মুজিবুরের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার পরপরই সন্ধ্যা থেকে পুরো শহর আতঙ্কের শহরে পরিণত হয়েছে। মেয়রের অনুসারীদের নানা উচ্ছৃঙ্খল কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষ ও পর্যটকদের মাঝে ভীতির সৃষ্টি হয়। ঘটনাস্থলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি দেখা যায়নি।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মুনীরুল গিয়াস বলেন, অপরাধীদের চিহ্নিত ও গ্রেফতার করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ। কারও ইন্ধনে এ ঘটনা হলে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে।


আরও খবর



পুরুষের স্তন ক্যান্সার হলে কীভাবে বুঝবেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্তন ক্যান্সার সাধারণত নারীর মধ্যেই বেশি প্রচলিত। তবে পুরুষেরও কিন্তু এটি হওয়ার ঝুঁকি থাকে। আর আমরা নারীর স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতন থাকলেও কিন্তু পুরুষের ক্ষেত্রে তেমন সচেতন হতে দেখা যায় না।

পুরুষের স্তন ক্যান্সার বিরল হলেও কিন্তু এমন নয় যে এটি হয়ই না। সম্ভাবনা কম থাকলেও এটি হতেই পারে।

তাই পুরুষের স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাকে একেবারে উড়িয়ে দেওয়া উচিত নয়। এ জন্য পুরুষের স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ ও উপসর্গ সম্পর্কে নিজেকে সচেতন করা উচিত। জানুন পুরুষের স্তন ক্যান্সার কীভাবে বুঝবেন

১. একটি স্তনে ব্যথাহীন পিণ্ড

পুরুষের স্তন ক্যান্সার হলে একটি স্তনে ব্যথাহীন পিণ্ড দেখা যেতে পারে। এমনটি মনে হলে দ্রুতই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

২. স্তনবৃন্ত দেবে যাওয়া

স্তন ক্যান্সারের আরেকটি লক্ষণ হচ্ছে স্তনবৃন্ত দেবে যাওয়া। স্তন ক্যান্সার হলে আপনার স্তনে এমন পরিবর্তন দেখা দিতে পারে। আবার স্তনে পিণ্ড বা ফোলাভাবও দেখা দিতে পারে।

৩. স্তনের ত্বকে জ্বালা বা ডিম্পলিং

স্তনের ত্বকে জ্বালাপোড়া ও ডিম্পলিং দেখা দিতে পারে স্তন ক্যান্সার হলে।

৪. স্তনবৃন্ত স্রাব

স্তন ক্যান্সার হলে পুরুষেরও স্তনে স্তনবৃন্ত স্রাব দেখা যেতে পারে।

৫. স্তনের বোঁটা টেনে যাওয়া বা স্তনবৃন্তের জায়গায় ব্যথা হওয়া

স্তন ক্যান্সার হলে এটি আরেকটি উপসর্গ। এমনটি হলে স্তনের বোঁটা টেনে যাওয়া বা স্তনবৃন্তের জায়গায় ব্যথা হতে পারে।

এই লক্ষণগুলো হচ্ছে স্তন ক্যান্সারের প্রাথমিক সতর্কীকরণ লক্ষণ। তবে কিছু লক্ষণ রয়েছে, যেগুলো থেকে আরও ভালোভাবে বোঝা যায় যে, ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়ছে। যেমন লিম্ফ নোড ফুলে যাওয়া, স্তনে ব্যথা এবং হাড়ের ব্যথা হলে সেটি আরও গুরুতর কিছু হতে পারে।

সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মতে, বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকিও বাড়ে। বেশিরভাগ স্তন ক্যান্সার ৫০ বছর বয়সের পরে হয়ে থাকে বলে স্বাস্থ্য সংস্থা পরামর্শ দেয়। এ ছাড়া নিয়মিত স্তন স্ক্রিনিং পুরুষের মধ্যে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকির কোনো লক্ষণ শনাক্ত করার একটি কার্যকর উপায় হতে পারে।


আরও খবর



আজও রায় হয়নি মডেল তিন্নি হত্যার

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

১৯ বছর আগে ঢাকার কেরানীগঞ্জে মডেল সৈয়দা তানিয়া মাহবুব তিন্নি হত্যা মামলার রায় ঘোষণা থেকে উত্তোলন করে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ৫ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। মামলার একমাত্র আসামি বরিশাল-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক অভি।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) ঢাকার সপ্তম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ কেশব রায় চৌধুরী আদালতে এ রায় ঘোষণা করার কথা ছিল। এদিন মডেল তিন্নির বাবা সৈয়দ মাহবুব করিম ও চাচা সৈয়দ রেজাউল করিম মামলার সাক্ষ্য দেয়ার জন্য আবেদন করেন। আদালত মামলাটি রায় ঘোষণা উত্তোলন করে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ৫ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ২৬ অক্টোবর একই আদালতে রায় ঘোষণার দিন ধার্য ছিল। ওই দিন বিচারক রায় ঘোষণা না করে ১৫ নভেম্বর নতুন দিন ধার্য করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০০২ সালের ১০ নভেম্বর রাতে খুন হন তিন্নি। এর আগে ৬ নভেম্বর তিন্নিকে তার স্বামী সাক্কাত হোসেন পিয়ালের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে বাধ্য করেন অভি। তিন্নিও তাকে তালাক দেন। ওই দিনই পিয়ালকে তার দেড় বছর বয়সী কন্যাসন্তানসহ রাজধানীর বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়। এরপর বিয়ে করার জন্য অভিকে চাপ দিতে থাকেন তিন্নি। একপর্যায়ে তিন্নি বিষয়টি সাংবাদিকদের কাছে ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দেন।

১০ নভেম্বর রাতে মাথায় আঘাত করে তিন্নিকে হত্যা করা হয়। এরপর গুমের উদ্দেশ্যে ওই রাতে বুড়িগঙ্গার ১ নম্বর চীন মৈত্রী সেতুর ওপর থেকে নদীতে ফেলে দেওয়া হয় মরদেহ। কিন্তু পানিতে নয়, মরদেহটি পড়ে পিলারের উঁচু অংশে। পরদিন সকালে মরদেহ ঘিরে উৎসুক জনতা ভিড় করে।

কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহালের পর ময়নাতদন্ত করে। মর্গে চারদিন রাখার পর ১৫ নভেম্বর অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয় তিন্নিকে।

অন্যদিকে, তিন্নির চাচা সৈয়দ রেজাউল করিম কেরানীগঞ্জ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন। মরদেহ উদ্ধারের দিন একই থানায় একটি হত্যা মামলা করেন থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. শফি উদ্দিন। মামলায় অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের আসামি করা হয়।

মামলাটি চাঞ্চল্যকর হিসেবে ২০০২ সালের ২৪ নভেম্বর এর তদন্তভার সিআইডিতে ন্যস্ত হয়। এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের এএসপি মোজাম্মেল হক আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে ৪১ জনকে সাক্ষী করা হয়। এছাড়াও এ মামলায় ২২টি আলামত জব্দ করা হয়।

২০১০ সালের ১৪ জুলাই ঢাকার সপ্তম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তিন্নি হত্যা মামলায় আসামি অভির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।


আরও খবর



ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম নারী সেঞ্চুরিয়ান শারমিন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
মুরশিদা খাতুনকে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৯৭ বলে ৯৬ রান যোগ করেন শারমিন। ৫টি চারে ৫৬ বলে ৪৭ রান করে থামেন মুরশিদা

ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি করলেন বাংলাদেশ নারী দলের ব্যাটার শারমিন আকতার।

আজ ওয়ানডে বিশ্বেকাপের বাছাই পর্বে গ্রুপ-বির ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ১৩০ রানের ইনিংস খেলেন শারমিন। তার সেঞ্চুরিতে বাছাই পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ ২৭০ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে  যুক্তরাষ্ট্রকে। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটিই সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয় বাংলাদেশ নারী দলের।

হারারের সানরাইজ স্পোটর্স ক্লাব মাঠে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। মুরশিদা খাতুনকে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৯৭ বলে ৯৬ রান যোগ করেন শারমিন। ৫টি চারে ৫৬ বলে ৪৭ রান করে থামেন মুরশিদা।

অধিনায়ক নিগার সুলতানা ৩৩ রানে আউট হন। তবে তৃতীয় উইকেটে ফারজানা হককে নিয়ে ১৩৭ রানের জুটি গড়েন শারমিন। ৬২ বলে ৬টি চারে ৬৭ রান করে থামেন ফারজানা। এই জুটি গড়ার পথে ইনিংসে ৪৩তম ওভারের প্রথম বলে বাউন্ডারি মেরে তিন অংকে পা রাখেন শারমিন। সেঞ্চুরি করতে ১১৭ বল খেলেন ২৫ বছর বয়সী এই ডান-হাতি ব্যাটার।

ইনিংসের শেষ পর্যন্ত ব্যাট করে দলকে বড় সংগ্রহই এনে দেন শারমিন। ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩২২ রানের পাহাড় গড়ে বাংলাদেশ। নিজেদের ওয়ানডে ইতিহাসে এটিই সর্বোচ্চ দলীয় রান বাংলাদেশ নারী দলের। বাংলাদেশের আগের সর্বোচ্চ দলীয় রান ছিলো ৯ উইকেটে ২১১। যা ২০১৯ সালে লাহোরে পাকিস্তান নারী দলের বিপক্ষে করেছিলো বাংলাদেশ। ১৪১ বল খেলে ১১টি চারে নিজের নান্দনিক ও স্মরনীয় ইনিংসটি খেলেন শারমিন।

জবাবে ৩২৩ রানের বড় টার্গেটে খেলতে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে যুক্তরাষ্ট্র। ৩০ দশমিক ৩ ওভারে ৫২ রানে অলআউট হয় যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের মাত্র দুই ব্যাটার দুই অংকের কোটা স্পর্শ করতে পারেন। তারা নরিস সর্বোচ্চ ১৬ রান করেন। বাংলাদেশের সালমা খাতুন ১০ রানে, ফাহিমা খাতুন ৫ রানে ও রুমানা আহমেদ ১১ রানে ২টি করে উইকেট নেন। নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে ৩ উইকেটে হারিয়ে আসরে শুভ সূচনা করে বাংলাদেশ।

নিউজ ট্যাগ: শারমিন আকতার

আরও খবর



২০০ কোটি প্রতারণায় অভিযুক্তের সঙ্গে জ্যাকলিনের ‘ঘনিষ্ঠ’ ছবি

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে প্রেম করতেন জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ। অতীতে এমনই দাবি করেছিলেন সুকেশের আইনজীবী। এ বার সামনে এল এক ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি। তাতে জ্যাকলিনের সঙ্গীর মুখ পুরো দেখা না গেলেও অনুমান, সেই ব্যক্তিই সুকেশ।

এক ওষুধ সংস্থার প্রাক্তন মালিক শিবেন্দ্র সিংহ এবং মালবেন্দ্র সিংহের পরিবারকে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণায় অভিযুক্ত সুকেশ এবং তাঁর স্ত্রী লীনা পাল। অভিযুক্তের সঙ্গে সম্পর্কের গুঞ্জনকে ভুয়ো বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন রেস থ্রি-র অভিনেত্রী। সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসা ঘনিষ্ঠ ছবিটি নতুন করে উস্কে দিয়েছে সেই বিতর্ক।

কী দেখা যাচ্ছে সেই ছবিতে?

নিজস্বীতে নায়িকার গালে চুমু দিচ্ছেন এক ব্যক্তি। জ্যাকলিনের মুখে হাসি। ছবিতে সঙ্গের ব্যক্তির মুখ অর্ধেকটা ধরা পড়েছে। তাতেই মনে করা হচ্ছে, তিনি আর কেউ নন, সুকেশ।

সূত্রের খবর, চলতি বছরের এপ্রিল-জুন মাস নাগাদ ছবিটি তোলা হয়েছে। সুকেশ তখন অন্তর্বর্তী জামিন পেয়ে হাজতের বাইরে ছিলেন। সেই সময়ে নাকি জ্যাকলিনের সঙ্গে চার বার দেখা হয়েছিল তাঁর। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) সূত্রে খবর, জ্যাকলিনের জন্য একটি ব্যক্তিগত বিমানেরও ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন সুকেশ।

অক্টোবর মাসে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণার মামলায় একাধিক বার জেরা করা হয় জ্যাকলিনকে। অভিনেত্রীর মুখপাত্রের বিবৃতিতে লেখা জ্যাকলিনকে শুধুমাত্র এই মামলার সাক্ষী হিসেবে তলব করে ইডি। তিনি নিজের বয়ান রেকর্ড করেছেন। পরবর্তীতে ডাকলে তিনি একই ভাবে তদন্তকারী সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা করবেন।


আরও খবর