Logo
শিরোনাম

সাংবাদিক আফরোজার বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৮৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

দৈনিক আমাদের অর্থনীতির রংপুর বিভাগীয় প্রতিনিধি আফরোজা সরকারের ডিজিটাল আইনসহ সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্র। সোমবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এই দাবি জানায় সংগঠনটি।

মানববন্ধনে জানানো হয়, ২০২১ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কমিটিতে আবারো পূর্বের কমিটি নির্বাচিত হয়।

হঠাৎ কয়েকজন নামধারী গণমাধ্যমকর্মী সভা শেষে বহিরাগত সন্ত্রাসীসহ সেখানে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তারা ক্লাবের সদস্যদের মারধর করেন। এতে ক্লাবের পাঁচ সদস্য আহত হন। আহতদের মধ্যে ক্লাবের নবনির্বাচিত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজম পারভেজ ও সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আফরোজা সরকারের অবস্থা গুরুতর ছিল। হামলাকারীরা এ সময় চেয়ার, টেবিল, ফ্যানসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন। গুরুতর অবস্থায় সাংবাদিক আজম পারভেজ ও আফরোজা ছয় দিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। হাসপাতালে থাকা অবস্থায় হামলাকারীরা আফরোজা ও আজম পারভেজসহ ১২ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

ঘটনাটি নিয়ে ফেস দ্যা পিপল নামক একটি ফেসবুক লাইভ পেইজে কথা বললে আফরোজার বিরুদ্ধে তিনটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা ও দুটি হামলা মারপিট এবং ছিনতাইয়ের মামলা দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু আফরোজাসহ সকল সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারসহ হামলার ঘটনার বিচারও হামলাকারীদের শাস্তি দাবি করেন।

মানববন্ধনে দিলরুবা খান, জান্নাতুল ফেরদৌস পান্না, শাহনাজ পলি, ফাতেমা বেগমসহ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সেই সঙ্গে সংঘতি জানাতে উপস্থিত ছিলেন বিএফইউজের কোষাধ্যক্ষ খায়রুজ্জামান কামাল, ডিইউজের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম। বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হরলাল রায় সাগর, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যনিবাহী সদস্য সুশান্ত সাহা।

নিউজ ট্যাগ: সাংবাদিক আফরোজা

আরও খবর



কালিয়াকৈরে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন, স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গাজীপুরে কালিয়াকৈরে পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় স্বামীর হাতে আঁখি আক্তার (২৩) নামে এক নারী খুন হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনগত (৯ জুন) রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় স্বামী আকবর হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নিহত আখি আক্তার (২৩) ভোলা সদর থানার রামদাসপুর এলাকার মাহবুবুর আলম সরদারের মেয়ে এবং একই এলাকার আকবর হোসেনের (২৬) স্ত্রী। 

কালিয়াকৈর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মনিরুজ্জামান খান জানান, কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা পল্লী বিদ্যুৎ মন্ডলপাড়া এলাকায় আনোয়ার মণ্ডলের বাসায় স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন আকবর হোসেন। তিনি সবজি বিক্রেতা এবং স্ত্রী আখি আক্তার পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। 

বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে আকবর হোসেন শিল দিয়ে তার স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন। পরে গলায় গামছা পেচিয়ে তার মৃত্যু নিশ্চিত করেন আকবর। 

স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের স্বামীকে আটক এবং মরদেহ উদ্ধার করে। 

আকবর হোসেন জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানান, স্ত্রীর পরকীয়ার কারণে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে তিনি তার স্ত্রীকে হত্যা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।  


আরও খবর



ভানি এখন আরও আত্মবিশ্বাসী

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যশরাজ ফিল্মসের হাত ধরে ক্যারিয়ার শুরু ভানি কাপুরের। ৯ বছরের ক্যারিয়ারে হিন্দি সিনেমার সংখ্যা মাত্র ছয়টি। চারটিই যশরাজ ফিল্মসের। ২০১৩ সালে প্রথম হিন্দি সিনেমা শুদ্ধ দেশি রোমান্স মুক্তির পর ছয় বছরে তাঁর মাত্র দুটি সিনেমা মুক্তি পায়—‘বেফিকরেওয়ার। সিনেমা মুক্তির এই দীর্ঘসূত্রতার অন্যতম কারণ যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে চুক্তি।

এত দিন যশরাজের ঘরের নায়িকা বলেই পরিচিত ছিলেন ভানি। এমনকি যশরাজ ফিল্মসের কর্ণধার আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে প্রেম চলছে বলেও গুঞ্জন ছিল। তিন বছর হলো চুক্তি শেষ হয়েছে যশরাজের সঙ্গে। ভানি হলেন মুক্ত। প্রস্তুতি নিলেন নতুন করে শুরুর। হুট করেই চলে এল করোনা। তবু থেমে থাকলেন না তিনি। গত বছর যশরাজের বাইরে মুক্তি পায় বেল বটমচণ্ডীগড় করে আশিকি সিনেমা দুটি। দ্বিতীয়টিতে ট্রান্সজেন্ডার নারীর চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়ান ভানি।

আবারও যশরাজ ফিল্মসের সিনেমা নিয়ে পর্দায় আসছেন ভানি। আগামী ২২ জুলাই মুক্তি পাবে ভানি অভিনীত শমসেরা। সিনেমায় রণবীরের বিপরীতে অভিনয় করছেন তিনি। সঞ্জয় দত্ত ও রণবীরের মতো অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে অভিনয় করে ভীষণ খুশি তিনি। ভানি বলেন, আগে কখনো এ ধরনের সিনেমায় কাজ করিনি। এতে যে সিনেম্যাটিক অভিজ্ঞতা পেয়েছি, তা লার্জার দ্যান লাইফ ধরনের। আমি পরিচালক করণ মালহোত্রার পিরিয়ড বা ইতিহাসনির্ভর সিনেমার বড় ভক্ত।

শমসেরায় সোনা চরিত্রে দেখা যাবে ভানিকে। নিজের অভিনীত চরিত্রটি নিয়ে এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, সিনেমায় আমার অভিনীত চরিত্রটির নাম সোনা। মানসিকভাবে খুব শক্ত, আত্মবিশ্বাসে ভরপুর স্বাধীন একটি চরিত্র। অভিনয়ের জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নিতে হয়েছে। কারণ, পিরিয়ড সিনেমায় এর আগে অভিনয় করিনি।

সহশিল্পী হিসেবে রণবীর কাপুর সম্পর্কে ভানি বলেন, অভিনয়ের প্রতি রণবীরের যে ডেডিকেশন, তা এতদিন পর্দায় দেখেছি। এবার সামনে থেকে দেখলাম। চরিত্রের এতটা গভীরে গিয়ে রণবীরের মতো অনেকেই কাজ করতে পারে না। তবে এই রণবীরকে আগে কেউ দেখেননি। রণবীর সত্যিই নিজেকে একদম বদলে ফেলতে জানেন।

নিউজ ট্যাগ: ভানি কাপুর

আরও খবর

২৭ বছরের সম্পর্কে ইতি টানলেন মীর!

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২

বড় পর্দায় বাম-কংগ্রেস সন্ত্রাস

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




ড. ইউনূসের গ্রামীণ আমেরিকার ‘দূত’ জেনিফার লোপেজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অলাভজনক ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ আমেরিকার ন্যাশনাল শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন হলিউড কেন্দ্রিক ল্যাটিন গায়িকা, অভিনেত্রী ও ফ্যাশন আইকন জেনিফার লোপেজ।

জানা গেছে, ২০৩০ সালের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি শহরের ৬০০,০০০ লাতিন উদ্যোক্তার ১৪ বিলিয়ন ডলার ব্যবসায়িক মূলধন এবং ছয় মিলিয়ন ঘণ্টার আর্থিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দিতে গ্রামীণ আমেরিকার যে মিশন, তা সম্পন্ন করতে ভূমিকা রাখবেন লোপেজ। এ ছাড়া ন্যাশনাল অ্যাম্বাসাডর হিসেবে হলিউডের জনপ্রিয় গায়িকা, অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী, ফ্যাশন আইকন লোপেজ লাতিন নারী উদ্যোক্তাদের অনুপ্রেরণা দেবেন। গ্রামীণ আমেরিকা ক্ষুদ্রঋণ প্রকল্পের আওতায় আর্থিক স্বাধীনতা ও শিক্ষা অর্জনের গুরুত্ব সম্পর্কেও তিনি নারীদের বোঝাবেন।

এ বিষয়ে জেনিফার লোপেজ বলেছেন, 'এই দেশে লাতিন হয়ে থাকাটা সব সময়ই আমার জন্য গর্বের বিষয়। গ্রামীণ আমেরিকার সঙ্গে অংশীদারত্বের সুযোগ পেয়ে আমি খুবই কৃতজ্ঞ। আমরা কর্মসংস্থান এবং নেতৃত্বের পথ তৈরি করছি। এই সম্প্রদায়ের মধ্যে অনেক শক্তি রয়েছে এবং আমরা এটিকে কাজে লাগাচ্ছি। এই অংশীদারত্ব ব্যবসার ক্ষেত্রে লাতিন নারীদের জন্য সমতা, অন্তর্ভুক্তি এবং সুযোগ তৈরি করবে।'

সম্প্রতি এবিসি টেলিভিশনে প্রচারিত 'গুড মর্নিং আমেরিকা'য় হাজির হন জেনিফার। সেখানে জানান, কেন তিনি পরবর্তী ৮ বছরে ছয় লাখ লাতিন উদ্যোক্তার ছোট ব্যবসা গড়ে তুলতে গ্রামীণ আমেরিকা কর্তৃক ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষুদ্রঋণ প্রদানের পরিকল্পনাকে সাহায্য করছেন।