Logo
শিরোনাম

সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন ডিএসইতে

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেট উপস্থানের পর শেয়ারবাজারে প্রথম কার্যদিবস পতনে হয়েছে। এদিন শেয়ারবাজারের প্রধান প্রধান সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর। তবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েয়ে।

জানা গেছে, আজ ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন ২ হাজার ৬৬৯ কোটি ৩৮ টাকা টাকার লেনদেন হয়েছে। যা ১০ বছর ৬ মাস বা ২ হাজার ৪৯১ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে ২০১০ সালের ৬ ডিসেম্বর আজকের চেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছিল। ওই দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৭১০ কোটি টাকার।

আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৫.১৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৩৮.২৯ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৬.১৩ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৮.৯৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ২৯৯.৩০ পয়েন্টে এবং ২ হাজার ২২২.৫৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে আজ ৩৬৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৪৫টির বা ৩৯.৬২ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২০১টির বা ৫৪.৯২ শতাংশের এবং ২০টির বা ৫.৪৬ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৬.৪৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৫০৭.০২ পয়েন্টে। সিএসইতে আজ ২৯২টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৩০টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৪৩টির আর ১৯টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ১৫৯ কোটি ৮২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।


আরও খবর



সাগরে লঘুচাপ, তিন নম্বর সতর্কতা সংকেত

প্রকাশিত:শনিবার ১২ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় সমুদ্রবন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। শনিবার জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ জানান, লঘুচাপটির অবস্থান উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায়। এর কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় মেঘ তৈরি হচ্ছে।

তিনি বলেন, এর ফলে সমুদ্রবন্দর ও উপকূলীয় এলায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এজন্য কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পযন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলার পরামর্শ দিয়েছে অধিদপ্তর।

এদিকে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু (বর্ষা) সারাদেশে বিস্তৃত হয়েছে। এর প্রভাবে দেশের অধিকাংশ এলাকায় বৃষ্টির প্রবণতা বাড়ছে।

গত ২৪ ঘন্টায় সবচেয়ে বেশি ৭৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে খুলনার কুমারখালীতে। এসময় ঢাকায় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয় ৩০ মিলিমিটার।

আবহাওয়ার পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্হায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারক জানান, দুয়েকদিনের মধ্যে লঘুচাপটি ঘনীভূত হয়ে স্থলভাগে পৌঁছলে তা নিম্নচাপে রূপ নেবে। এ সময় মাঝারি থেকে ভারি ধরনের বৃষ্টি হবে অনেক এলাকায়। বৃষ্টি ঝরিয়ে তা ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়বে।


আরও খবর



নেতানিয়াহু যুগের অবসান, ক্ষমতায় নাফতালি বেনেট

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দীর্ঘ ১২ বছর পর ইসরায়েলে ক্ষমতার পট পরিবর্তন হলো। বিনইয়ামিন নেতানিয়াহু ক্ষমতা হারিয়েছেন। নতুন প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন কট্টর ইহুদি জাতীয়তাবাদী রাজনীতিক নাফতালি বেনেট। এ খবর বিবিসি বাংলার।

রবিবার (১৩ জুন) বিকালে ৬০-৫৯ ভোটে ডান-বাম এবং মধ্যপন্থী সাতটি দলের সমন্বয়ে গঠিত নতুন কোয়ালিশন সরকার ইসরায়েলের পার্লামেন্ট ক্নেসেটের অনুমোদন পেয়েছে। প্রায় চার ঘন্টা ধরে এ অধিবেশন চলে।

কোয়ালিশন শরীকদের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী আগামী দুই বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালের আগস্ট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী থাকবেন কট্টর জাতীয়তাবাদী দল ইয়ামিনার নেতা নাফতালি বেনেট। তারপর তাকে ক্ষমতা তুলে দিতে হবে মধ্যপন্থী রাজনীতিক ইয়ার লাপিদের হাতে। যিনি নতুন এই কোয়ালিশন তৈরির নেতৃত্বে ছিলেন।

নেতানিয়াহু এখন হবেন বিরোধী দলীয় নেতা। তিনি ইসরায়েলের সবচেয়ে প্রভাবশালী রাজনীতিক। তবে তিনি গত ২৩ মার্চ অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সরকার গঠন করতে ব্যর্থ হন। ইসরায়েলের ১৪তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৯৯৬ সালে প্রথমবার ক্ষমতায় আসেন নেতানিয়াহু। এরপর ১৮তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ২০০৯-২০২১ সাল পর্যন্ত টানা ১২ বছর ইসরায়েলকে শাসন করেন তিনি।

এদিকে, বেনেট প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবার পরপরই মার্কিন জো বাইডেন তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

কে এই নাফতালি বেনেট

৪৯ বছরের নাফতালি বেনেট একসময় নেতানিয়াহুর খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন। ২০০৬ সাল থেকে দুবছর তিনি নেতানিয়াহুর চিফ অব স্টাফ হিসাবে কাজ করেন। ২০০৮ সালে অবশ্য তার সাথে মনোমালিন্য তৈরি হয় এবং লিকুদ পার্টি থেকে বেরিয়ে বেনেট কট্টর ইহুদি দল জিউয়িশ হোম পার্টিতে যোগ দেন এবং ২০১৩ সালে প্রথম এমপি হিসাবে নির্বাচিত হন।

তার কট্টর ডানপন্থী আদর্শ নিয়ে কোনো রাখঢাক নেই। বিভিন্ন সময় বড়াই করে তিনি বলেছেন নেতানিয়াহুর চেয়েও তিনি বেশি ডানপন্থী। অতি ধার্মিক ইহুদিদের মত অধিকাংশ সময়ে মাথায় কিপা (এক ধরণের টুপি) পরে থাকেন। উদারপন্থী ইহুদিদের সুযোগ পেলেই উপহাস করেন।

বলতে গেলে মি. বেনেট ইহুদি জাতীয়তাবাদ এবং জাত্যভিমানের এক প্রতীক।


আরও খবর



নতুন সিনেমায় সোহানা সাবা

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নতুন ছবির কাজ শুরু করেছেন অভিনেত্রী সোহানা সাবা। মাসুমা তানির আজ একটি বিশেষ দিন ছবির কাজ নিয়ে ব্যস্ত এখন তিনি।

সাবা জানান, ঈদের আগে ছবিটির কিছু শুটিং হয়েছিল। ঈদের ছুটির পর চলতি মাসের প্রথমদিনে ফের চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে ফিরেছেন।

তিনি জানালেন, গেলো বছর লকডাউনের কয়েক মাস ঘরবন্দি ছিলাম। অপেক্ষায় ছিলাম এই খারাপ সময় কেটে যাওয়ার। কিন্তু পরবর্তীতে মনে হলো এটি খুব সহজে আমাদের ছেড়ে যাবে না। আমরা কাজের মানুষ কাজের মধ্যেই থাকতে হয়। তাই কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শুটিংয়ে আমরা মাস্ক পরছি। হ্যান্ড স্প্রে ব্যবহার করছি।

এর আগে গেল বছর লকডাউনের আগে আফজাল হোসেনের মানিকের লাল কাঁকড়া ছবির শুটিং শুরু করেন সাবা। তার বিপরীতে আছেন ফেরদৌস আহমেদ। এরই মধ্যে ছবিটির কয়েক দফা শুটিং হয়েছে।


আরও খবর



পিরিয়ডের সময় তলপেটে যখন তীব্র ব্যথা

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১১১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মেয়েদের মাসিক শুরুর পর তাকে কাউন্সিলিংয়ের পাশাপাশি অন্তত ছয় মাস পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের অধ্যাপক শিউলী চৌধুরী বলছেন, জীবনের শুরুতে ভয় বা মাসিক সংক্রান্ত সমস্যা কাটিয়ে ওঠার সঙ্গে মেয়েদের মানিয়ে নিতে সহায়তা করবে।

মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ অনেক মেয়ের জন্যই খুবই কষ্টদায়ক হয়ে দাঁড়ায়। আবার অনেকে স্বাভাবিকের থেকে অনেক বেশি সময় ধরে তলপেটে প্রচুর ব্যথা অনুভব করেন।

মেয়ে এবং তার পরিবারের করণীয়: অধ্যাপক শিউলি চৌধুরীর মতে প্রথমত কাউন্সিলিং প্রয়োজন। দ্বিতীয়ত তাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ সুষম ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং তৃতীয়ত বিশ্রাম। এমন পরিস্থিতিতে এসব বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি আরও বলছেন, প্রচুর রক্তক্ষরণের ফলে রক্তস্বল্পতা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে পরে জটিল সমস্যা হতে পারে। তাই এই সময় পুষ্টিকর বিশেষ করে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার অধিক পরিমাণ খেতে হবে। মাসিকের সময় মেয়েদের শরীর থেকে ভিটামিন ও খনিজ বের হয়। তাই এই সময় চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদের সঙ্গে কথা বলে সুষম খাদ্যের তালিকা করা উচিত।

এ বিষয়ে মায়েদের উচিত মেয়ের সমস্যার শুরু থেকেই খোলামেলা আলাপ করা এবং কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে ৬ মাস পর্যন্ত ক্যালেন্ডার বা গণনার মাধ্যমে মাসিকের সময়কাল পর্যবেক্ষণ করে ডায়েরিতে নোট করা।

এ অধ্যাপকের মতে, মাসিকের সময় মেয়েদের শরীরে হরমোনাল পরিবর্তন হয়ে থাকে। অনেকের নিয়মিত মাসিক হলেও কারও কারও ক্ষেত্রে দেরি করে হয়ে থাকে। আবার অনেকের রক্তক্ষরণ বেশি হয় যা রক্তস্বল্পতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই এই সময় উদ্বিগ্ন না হয়ে পরিচর্যা করা উচিত।

মাসিককে কেন্দ্র করে মেয়েদের শরীরের পরিচর্যার কিছু বিষয়কে বিবেচনায় রাখার জন্য বলছেন এ বিশেষজ্ঞ। বিষয়গুলো হলো-

পুষ্টিকর খাবার বিশেষ করে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ।

হাইজিন সম্পর্কে ধারণা।

পর্যাপ্ত বিশ্রাম।

খাবারে পর্যাপ্ত প্রোটিন ও ভিটামিন নিশ্চিত করা।

প্রয়োজনে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের সহায়তা নেয়া।

ইউনিসেফের পরামর্শ :

বাবা-মা ও পরিবারের অন্য নারীদের সঙ্গে কথা বলা।

স্যানিটারি ন্যাপকিন বা পরিষ্কার কাপড় ব্যবহার করা এবং অভিজ্ঞদের কাছে ব্যবহার বিধি জেনে নেয়া।

মাসিকের সময় ব্যবহৃত পোশাক নোংরা পানিতে না ধোয়া বরং সাবান ও পরিষ্কার পানি দিয়ে ভালো করে ধোয়া।

মাসিকের কাপড় অন্ধকার ও স্যাঁতস্যাঁতে জায়গায় না শুকিয়ে বরং পরিষ্কার জায়গায় রোদে শুকানো ও নিরাপদ জায়গায় সংরক্ষণ।

পুষ্টিকর খাবার বিশেষ করে দুধ, মাছ, মাংস, ডিম, শাক সবজি ও ফলমূল খেতে হবে। অন্য সময়ের তুলনায় বেশি খাবার খাওয়া।

তলপেটের ব্যথার সময় বোতলে গরম পানি নিয়ে স্যাক দিলে আরাম পাওয়া যাবে।

অতিরিক্ত ব্যথা বা সংরক্ষণ হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

বিশ্রামে থাকতে হবে, তবে স্কুলে যাওয়া বা ঘরের কাজ করার মতো স্বাভাবিক কাজ করা অব্যাহত রাখা।

মাসিকের সময় চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে কিছু ব্যায়াম শরীর ও মনকে ভালো রাখতে পারে।



আরও খবর

যে ৫ খাবার লিভারের চর্বি দূর করে

বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১




চ্যাম্পিয়নদের হালি দিয়ে জার্মানির প্রথম জয়

প্রকাশিত:রবিবার ২০ জুন ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৪০জন দেখেছেন
Image

একদিকে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল, অন্যদিকে সর্বোচ্চ তিনবারের শিরোপা জয়ী দল জার্মানি। ফলে লড়াই যে হবে উত্তেজনাপূর্ণ, তার আভাস ছিল আগেই। মাঠের খেলায়ও মিলল এর ছাপ। দুই দলের আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে মিলেছে রোমাঞ্চকর এক লড়াই দেখার সুযোগ।

যেখানে ছয় গোলের ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে চলতি ইউরো কাপে নিজেদের প্রথম জয় তুলে নিয়েছে জার্মানি। নিজেদের ইউরোর ইতিহাসে প্রথমবারের মতো হালি তথা চার গোল হজম করে ম্যাচটি ৪-২ গোলে হেরেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল।

অথচ আলিয়াঞ্জ এরেনায় হওয়া ম্যাচটিতে বেশি গোল করেছে পর্তুগালের খেলোয়াড়রাই। বিশেষ করে প্রথমার্ধে হওয়া তিন গোলের তিনটিই ছিল তিন পর্তুগিজ খেলোয়াড়ের। কিন্তু এর মধ্যে দুইটিই ছিল আত্মঘাতী। ফলে ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যেতে হয়েছে ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।

পরে দ্বিতীয়ার্ধেও হয়েছে সমান তিন গোল। যেখানে দুই গোল করে ম্যাচের ফল নিজেদের পক্ষে করে নিয়েছে জার্মানি। ম্যাচে এক গোল ও এক এসিস্ট করে ৪-২ গোলে পরাজয়ের সাক্ষী হতে হয়েছে পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। সবমিলিয়ে ম্যাচের ছয় গোলের মধ্যে চারটিই ছিল পর্তুগালের খেলোয়াড়দের।

কিন্তু সেই চার গোলের দুইটি আবার নিজেদের জালেই ঢুকিয়েছেন রুবেন ডিয়াজ ও রাফায়েল গুইরেইরো। যে কারণে দ্বিতীয়ার্ধে জার্মানির দুই খেলোয়াড় গোল করেও, তারা ম্যাচটি জিতেছে ৪-২ গোলের ব্যবধানে। জার্মানির পক্ষে গোল দুইটি করেছেন কাই হাভার্জ ও রবিন গোসেনস।

ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই প্রথম গোল করে ফেলেছিল জার্মানি। দুর্দান্ত গতিময় আক্রমণে পর্তুগালের রক্ষণকে এলেমেলো করে দিয়ে লাফিয়ে ওঠা ভলিতে বল জালে জড়িয়েছিলেন রবিন গোসেনস। কিন্তু সেই আক্রমণের শুরুতে অফসাইডে ছিলেন সার্জি জিনাব্রি। ফলে বাতিল হয়ে যায় সেই গোল।

মিনিট দশেক পর উল্টো প্রথম বৈধ গোলের দেখা পায় পর্তুগাল। সেই গোলের আক্রমণের শুরুটা ছিল জার্মানির কর্নার কিক থেকে। টনি ক্রুসের নেয়া কর্নার হেডে ক্লিয়ার করেন রোনালদো। সেখান থেকে বল ধরে দ্রুতগতিতে এগিয়ে যান বার্নার্দো সিলভা।

তাকে সঙ্গ দিতে সামনে এগিয়ে যান ডিয়োগো জোতা। পরে সুবিধামতো জায়গায় বলটি জোতার উদ্দেশ্যে বাড়িয়ে দেন বার্নার্দো। ততক্ষণে নিজেদের ডি-বক্স থেকে জার্মানির ডি-বক্সে পৌঁছে যান রোনালদো। জোতার এগিয়ে দেয়া বলে পা ছুঁইয়ে দলকে লিড এনে দেন পর্তুগালের অধিনায়ক।

জাতীয় দলের হয়ে এটি তার ১০৭তম গোল। আর মাত্র দুই গোল হলেই ইরানের আলি দাইয়ের করা ১০৯ গোলের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলবেন রোনালদো। এছাড়া এই গোলের মাধ্যমে ইউরো ও বিশ্বকাপ মিলে মিরোস্লাভ ক্লোজার করা ১৯ গোলের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন সিআরসেভেন।

অবশ্য এই গোলের লিডের আনন্দ বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি পর্তুগাল। একের পর এক আক্রমণে তাদের রক্ষণভাগের নাভিশ্বাস তুলে ফেলেছিল জার্মানি। যার সুফল তারা পায় ৩৫ মিনিটে গিয়ে। জশুয়া কিমিচের দেয়া ক্রসে ভলি করেন গোসেনস। সেই বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালেই ঢুকিয়ে দেন রুবেন ডিয়াজ।

পর্তুগালের হতাশা আরও বাড়ে চার মিনিটের মধ্যে দ্বিতীয় আত্মঘাতী গোল হজম করার মাধ্যমে। এবার প্রতিপক্ষের হয়ে স্কোর করেন গুইরেইরো। ডি-বক্সের মাঝামাঝি থাকা জিনাব্রির উদ্দেশ্যে ক্রস দিয়েছিলেন থমাস মুলার। কিন্তু মাঝপথে সেটি ফেরাতে গিয়ে উল্টো আত্মঘাতী গোলই করে বসেন গুইরেইরো।

যার ফলে নিজেরা কোনো গোল না করেও প্রথমার্ধে ২-১ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জার্মানি। তবে দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে আর অন্যের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয়নি তাদের। ম্যাচের ৫১ মিনিটের মাথায় মুলারের কাছ থেকে বল পেয়ে বাম পাশ দিয়ে নিচু ক্রস বাড়ান গোসেনস। ছয় গজের বক্সে অপেক্ষায় থাকা হাভার্জ স্কোরলাইন করেন ৩-১।

চতুর্থ গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি জার্মানদের। সাজানো গোছানো আক্রমণে ম্যাচের ৬০ মিনিটের সময় হালিপূরণ করে তারা। এবার জশুয়া কিমিচের ক্রসে লাফিয়ে ওঠা হেডারে স্কোরশিটে নাম তোলেন পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা রবিন গোসেনস।

চার গোল দিয়ে দেয়ার পর ১৩ মিনিটের মধ্যে চারজন খেলোয়াড় পরিবর্তন করেন জার্মান কোচ জোয়াকিম লো। যার প্রভাব পড়ে জার্মানির মাঠের খেলায়ও। শুরুর গতিময় আক্রমণ আর শেষদিকে দেখা যায়নি। উল্টো ৬৭ মিনিটের সময় দ্বিতীয় গোল হজম করে তারা। রোনালদোর এসিস্ট থেকে পর্তুগালের দ্বিতীয় গোলটি করেন ডিয়োগো জোতা।

বাকি সময়ে ব্যবধান কমানোর প্রাণপন চেষ্টা করেছে ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু গোলের দেখা আর পায়নি। ফলে হাঙ্গেরির বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় দিয়ে যাত্রা শুরুর পর দ্বিতীয় ম্যাচেই ৪-২ গোলের ধাক্কা খেতে হলো তাদের। এবার শেষ ম্যাচে ফ্রান্সের বিপক্ষে পয়েন্ট পেতেই হবে পর্তুগালকে।

চলতি ইউরো কাপের ডেথ গ্রুপ 'এফ' এর সবার দুই ম্যাচ শেষে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে অবস্থান করছে ফ্রান্স। প্রথম ম্যাচ হেরে যাওয়া জার্মানি ৩ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এসেছে দুইয়ে। তিন নম্বরে অবস্থান করছে পর্তুগাল আর ফ্রান্স রুখে দিয়ে ১ পয়েন্ট পাওয়া হাঙ্গেরির অবস্থান সবার শেষে।


আরও খবর