Logo
শিরোনাম

সার্বিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিলের একাদশ কেমন হবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ১ টায় সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে তিতের শীর্ষরা। বিশ্বকাপে ব্রাজিলের একাদশ কেমন হবে টা নিয়ে বেশ লুকোচুরি করেছে ব্রাজিল টিম ম্যানেজমেন্ট। এমনকি ব্রাজিলের অনুশীলনেও ছিলো বেশ বিধিনিষেধ। কিছু ছবি তোলা ও ভিডিও ধারণ করা ছাড়া অনুশীলন দেখার সুযোগ দেওয়া হয়নি সংবাদমাধ্যমকে।

তবে এতো কিছুর পরও ফাঁস হয়েছে সার্বিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিলের প্রথম ম্যাচের একাদশ। আর এই একাদশ ফাঁস করেছে ব্রাজিলেরই টেলিভিশন চ্যানেল গ্লোবো। গ্লোবো তাদের এক প্রতিবেদনে বলছে, ব্রাজিলের কোচ তিতে প্রচলিত ধারার বাইরের একাদশ নামাবেন। একজন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার কম খেলিয়ে মনোযোগ দিয়েছেন আক্রমণভাগে।

আক্রমণভাগে নেইমার ও রিচার্লিসনের সঙ্গে দুই পাশে থাকবেন রাফিনহা ও ভিনিসিয়ুস। আর রক্ষণভাগে থাকবেন থিয়াগো সিলভা ও মার্কুইনহোজ। আর লেফট ও রাইট ব্যাকে থাকবেন দানিলো ও অ্যালেক্স সান্দ্রো। তবে ফাঁস হওয়া এই একাদশ নিয়েই ব্রাজিল মাঠে নামে কিনা টা ম্যাচ শুরু হলেই বোঝা যাবে।

ব্রাজিলের ফাঁস হওয়া একাদশ: অ্যালিসন বেকার ( গোলরক্ষক), দানিলো, থিয়াগো সিলভা, মার্কুইনহোজ, অ্যালেক্স সান্দ্রো, কাসেমিরো, লুকাস পাকুয়েতা, রাফিনহা, রিচার্লিসন, নেইমার ও ভিনিসিয়ুস জুনিয়র।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




কাতার বিশ্বকাপের খাবারদাবার

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সৌদি আরব-আর্জেন্টিনা এবং জাপান-জার্মানি দ্বৈরথে মরুর বুকে উঠেছে ঝড়। হিসাবনিকাশ বদলে গেছে খানিক। আর আমাদের দেশের ফুটবল সমর্থকদের শীতের আমেজ গেছে পালিয়ে! চায়ের কাপ হাতে বিস্তর বিতর্ক হলো অফসাইড নিয়ে। এই শেষ নভেম্বরের মধ্য রাতে হাইভোল্টেজ খেলা দেখতে গিয়ে আমাদেরও খুব কম মুড়ি-চানাচুর কিংবা নাগেটস-নুডলস উড়ে যাচ্ছে না! টেলিভিশনের সামনে বসে উত্তেজনায় আমাদেরই যদি এ অবস্থা হয়, তাহলে যাঁরা মাঠে ফুটবল নৈপুণ্যের ভেলকি দেখিয়ে চলেছেন, সেই মেসি-নেইমার-এমবাপ্পেদের কী অবস্থা, সেটা সহজে অনুমান করা যায়। সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ে জাতীয় দল কাতারে ল্যান্ড করেছে ৪ হাজার পাউন্ড মাংস নিয়ে! দেশ দুটির ফুটবল সংস্থা খেলোয়াড়দের বাড়ির স্বাদে খাইয়ে-দাইয়ে ভালো খেলতে অনুপ্রাণিত করতে চেয়েছে বলে দেশ থেকেই বয়ে এনেছে মাংস।

এদিকে লাখ লাখ ফুটবল সমর্থক সৌদি আরবের চেইন রেস্তোরাঁ আলবাইকের চিকেন উইংস এবং আমেরিকান ম্যাকডোনাল্ডের বার্গার খেয়ে ফ্যান জোনগুলো মাতিয়ে রেখেছেন। স্থানীয় রেস্তোরাঁগুলোতে উপচে পড়ছে মানুষ কাতারের স্থানীয় খাবার খেতে। তাই মাজবুস, মাদরাউবা, উম্মে আলী, লুকাইমাত, কুনাফা, শর্মা কিংবা করক চা বা কাহওয়া কফির মতো স্থানীয় জনপ্রিয় খাবারগুলোরও এখন রমরমা অবস্থা। কিছুটা কম দামে এগুলো খেতে পারছেন কাতারের বিদেশি অতিথিরা। ফলে রেস্তোরাঁগুলোর রান্নাঘরে চাপ বেড়েছে বিস্তর! 

যাঁরা বালুকাময় মরুভূমিতে রাতে তাঁবুতে থাকার রোমাঞ্চ উপভোগ করছেন, তাঁরা পাচ্ছেন প্যাকেজ খাবার। সাধারণভাবে সেসব প্যাকেজে থাকছে তাজা ও শুকনো ফল, বার্গার কিংবা হটডগ, ডোনাট, কফির স্যাশে, পানির বোতল ও জুস। কোনো কোনো প্যাকেজে স্থানীয় খাবারের সঙ্গে থাকছে গ্রিক সালাদ। কাতারে যাওয়া দর্শকদের অনেকেই, বিশেষ করে এশিয়ান দেশগুলোর দর্শকেরা চেখেদেখছেন স্থানীয় খাবারগুলো। কাতারের খাবারের সঙ্গে এশিয়ার বিভিন্ন দেশের খাবারের রন্ধনপ্রণালি ও স্বাদে মিল আছে বলেই এশিয়ানরা এদিকে খানিক এগিয়ে আছে। কিন্তু এ বিশ্বকাপে বিতর্ক চলছিল একেবারে শুরু থেকে। আর সেটা খেলা নিয়ে নয়। ছিল পানীয় নিয়ে। কাতার বিশ্বকাপে অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় পাওয়া যাবে কি না, সে বিতর্ক ছিল বিশ্বকাপ আসরের একেবারে শুরু থেকে। তারপর বহু জল ঘোলা করে একটা সমাধানে পৌঁছেছে আয়োজক দেশ কাতার এবং ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফা। পানীয় নিয়ে বিতর্কের অবসান হলেও নতুন বিতর্ক শুরু হয়েছে খাবারের মান ও দাম নিয়ে!

এককথায়, কাতার বিশ্বকাপ এখন ফুটবল উন্মাদনার পাশাপাশি খাবার নিয়েও এক দারুণ উন্মাদনাময় সময় কাটাচ্ছে। এই উন্মাদনায় মেসি, নেইমার কিংবা রোনালদো কী খাচ্ছেন?

মেসি: এ তথ্য এখন সবাই জানে যে আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিও মেসির বয়স ৩৫ বছর। এ বয়সে সব মানুষকেই খাবারদাবারের বিষয়ে কিছুটা সচেতন হতে হয়। আর মেসির মতো একজন পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়কে তো অনেক কিছুই মেনে চলতে হয় ক্যারিয়ারের জন্য। ফলে তাঁকে এখন খাবারদাবার নিয়ে যথেষ্ট সচেতন হতে হয়েছে। একসময় চিনি আর চর্বিযুক্ত প্রক্রিয়াজাত খাবারে অভ্যস্ত লিও মেসি এখন উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবারে অভ্যস্ত হয়েছেন। তবে আগের খাবার যে একেবারে ছেড়ে দিয়েছেন, তাও নয়। পরিমিত করেছেন। জানা যায়, এখন মেসির ডায়েটে এক দিকে থাকে প্রক্রিয়াজাত খাবার আর অন্যদিকে থাকে ফল, প্রোটিন ও শিম-জাতীয় খাবার। এসব খাবার থেকে শক্তি নিয়েই তিনি মাতিয়ে চলেছেন ফুটবল বিশ্ব।

নেইমার: নেইমার দা সিলভা সান্তাস জুনিয়র, যাঁকে আমরা সংক্ষেপে নেইমার নামেই জানি। পাঁচ ফুট নয় ইঞ্চি উচ্চতার এ ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় সপ্তাহে কমপক্ষে পাঁচ দিন জিম করে কাটান। এ ছাড়া খেলার দিনগুলোতে আলাদা শারীরিক পরিশ্রম তো আছেই। নেইমার যেসব খাবার খান না তার তালিকা বেশ বড়। তাতে আছে সব ধরনের লাল মাংস, প্রক্রিয়াজাত খাবার, দুধ দিয়ে বানানো যেকোনো খাবার, সব ধরনের জাঙ্ক ফুড, ভাজা খাবার, রাসায়নিক উপকরণে তৈরি খাবার এবং কৃত্রিম ভাবে বিভিন্ন উপকরণ সংযোজন করা খাবার। তাহলে তিনি কী খান? এ তালিকাও নেহাত ছোট নয়। এতে আছে ডিম, টার্কি, এভোকাডো, অ্যাসপারাগাস, মিষ্টি আলু, সবজি, মুরগির মাংস, মাছ, ভাত, বিভিন্ন ধরনের বীজ, বাদা, বাদামের মাখন, প্রোটিন শেক ও পানি। তিনি দিনে দুই বার প্রোটিন শেক খেয়ে থাকেন। 

রোনালদো: সিআর সেভেন হিসেব পরিচিত তিনি। ফিট থাকতে কঠোর জীবনযাপন করেন রোনালদো। কিছুদিন আগে এক সংবাদ সম্মেলনে কোমল পানীয়র বোতল নিজের সামনে থেকে সরিয়ে রাখার জন্য আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। রোনালদো একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, আমি প্রচুর পরিমাণে হোলগ্রেইন কার্ব, ফলমূল এবং শাকসবজিসহ উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার খাই এবং চিনিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলি। রোনালদোর ব্যক্তিগত ডায়েটিসিয়ান জানিয়েছেন, তিনি প্রতিদিন তিন থেকে চার ঘণ্টা পরপর  ছয় বার খাবার খান। বহুবার বহু জায়গায় রোনালদোর সন্তানেরা জানিয়েছেন, রোনালদো আইসক্রিম, মিষ্টি জাতীয় খাবার এবং জাঙ্ক ফুড খাওয়া পছন্দ করেন না। তিনি সোর্ড ফিশ, টুনা এবং মুরগির মাংসের খাবার পছন্দ করেন। এ ছাড়া আছে গোটা শস্য, সবজি ও প্রচুর ফল। রোনালদোর খাদ্যতালিকায় আছে সি-উইড নামের একটি সামুদ্রিক খাবার। এ ছাড়া আছে পনির দেওয়া হ্যাম এবং কম চর্বিযুক্ত দই। 

নিউজ ট্যাগ: কাতার বিশ্বকাপ

আরও খবর

আপনার আজকের দিন- ৩০ নভেম্বর, ২০২২

বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২

আজকের রাশিফল!

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২




বিয়ের দেড় মাসের মাথায় বিদ্যুৎস্পর্শে স্বামী-স্ত্রী নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকার কেরানীগঞ্জের আঁটিবাজার এলাকায় বিয়ের দেড় মাসের মাথায় বিদ্যুৎস্পর্শে স্বামী-স্ত্রীর নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) সকালে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ইনচার্জ মামুন-অর-রশিদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, বুধবার (৯ নভেম্বর) রাত ১২টার দিকে আঁটিবাজারের সুমন হাউজিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন, ইসমাইল (২০) ও তার স্ত্রী মোসাম্মৎ কাজল আক্তার (১৮)। ইসমাইল কেরানীগঞ্জ আমবাগিচা এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা মো. আলীর ছেলে। বর্তমানে আঁটিবাজার সুমন হাউজিং এলাকায় একটি বাসার চারতলায় পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন।

স্থানীয় ফারুক আহমেদ বলেন, বুধবার রাতে বিদ্যুতের তার থেকে স্টিলের পাইপের মাধ্যমে কিছু একটা নামাতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বিয়ের দেড় মাসের মাথায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হলো।

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ইনচার্জ মামুনুর রশিদ বলেন, বুধবার রাতে বিদ্যুৎস্পর্শে স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। একই সঙ্গে মামলা প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর



‘সুনামগঞ্জে আ.লীগের সম্মেলনের সঙ্গে কারও মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক নেই’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মঙ্গলবার বলেছেন, আরমান নামের ওই ব্যক্তির মৃত্যুর সঙ্গে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় আয়োজিত দলীয় সম্মেলনের কোনো সম্পর্ক নেই।

কাদের বলেন, তিনি (আরমান) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, এতে আওয়ামী লীগের সম্মেলনের কোনো সম্পর্ক নেই। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচার বন্ধ করতে গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

মঙ্গলবার ঢাকায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের সদর দপ্তরে জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা পরিষদের ২৯তম সভায় যোগদানের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এসব কথা বলেন।

সোমবার সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলায় আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন চলাকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আজমল হোসেন চৌধুরী ওরফে আরমান নামে ২৭ বছর বয়সী এক যুবক নিহত ও ৪০ জন আহত হয়েছেন।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল আলম জানান, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছিল এবং সোমবার অনুষ্ঠান চলাকালে সম্মেলনের মঞ্চে অবস্থান নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল তর্কাতর্কি হয়। ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা একপর্যায়ে সংঘর্ষে রূপ নেয়। আহত অবস্থায় আরমানকে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হলে বিকালে তার মৃত্যু হয় বলে ওসি জানান।


আরও খবর



কক্সবাজারে ১০১ ইয়াবা কারবারির দেড় বছর করে কারাদণ্ড

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের টেকনাফে আত্মসমর্পণ করা ১০১ ইয়াবা কারবারিকে দেড় বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া অস্ত্র মামলা থেকে তাদের খালাস দেওয়া হয়েছে।  বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরের দিকে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাঈল এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আদালতে ১৭ আসামি উপস্থিত ছিলেন। অন্যরা পলাতক রয়েছেন। 

এসব তথ্য নিশ্চিত করে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর মো. ফরিদুল আলম জানান, ১০১ জনের প্রত্যেককে ১ বছর ৬ মাস করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। তবে দায়ের করা অস্ত্র মামলা প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের খালাস দেওয়া হয়। এর আগে বেলা ১১টার দিকে আদালতে আনা হয় কারাগারে থাকা ১৭ আসামিকে। এরপর সাড়ে ১২টার দিকে রায় পড়া শুরু করেন বিচারক। 

নথি পর্যালোচনায় আদালত বলেন, ২০১৯ সালে ৩৭ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী বন্ধুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। ২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ৩ লাখ ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ও ৩০টি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। আত্মসমর্পণকারী আসামিরা উদ্ধার করা আলামত তাদের বলে স্বীকার করেন। অস্ত্র মামলায় ৩৪ জন সাক্ষী সাক্ষ্য দিয়েছেন। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল মাঠে ১০২ জন ইয়াবা কারবারি আত্মসমর্পণ করনি। মামলা চলাকালে সোহেল নামে এক আসামি কারাগারে মারা যান। আত্মসমর্পণের পর তাদের কাছ থেকে ৩ লাখ ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ৩০টি দেশীয় তৈরি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে টেকনাফ মডেল থানায় মাদক ও অস্ত্র আইনে মামলা করে পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহা। 

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ২১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ এবং আসামিদের পক্ষে সাক্ষীদের জেরা করা হয়। আলামত প্রদর্শন, রাসায়নিক পরীক্ষার ফলাফল যাচাই, আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়াসহ মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষ হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ইয়াবা কারবারি

আরও খবর

টেকনাফে পর্যটকবাহী জাহাজে আগুন

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




দেশে ডলার সংকট নয়, ঘাটতি আছে : পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, টাকা থাকলেই অপচয় করা যাবে না, দেশে ডলার সংকট নয়, ঘাটতি আছে।  নতুন বছরের মার্চ কিংবা এপ্রিল থেকে দেশে ডলারের ঘাটতি থাকবে না। শনিবার দুপুরে সুনামগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে জেলা স্টেডিয়ামে দুইদিনব্যাপী আয়োজিত কুস্তি খেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্বে মূল্যস্ফীতি কমে আসছে। গত তিনমাসে বাংলাদেশেও মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমেছে। আশা করি ডিসেম্বর মাসে আরও কমবে। সার্বিকভাবে দেশের মূল্যস্ফীতি ভালো আছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো.জাহাঙ্গীর হোসেন, পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো. জাকির হোসেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান ইমদার রেজা চৌধুরী, ক্রীড়া সংস্থার কুস্তি কমিটির সদস্য সচিব আব্দুল্লা আল নোমান প্রমুখ।

দুই দিনের কুস্তি প্রতিযোগিতায় সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর,  তাহিরপুর,  জামালগঞ্জ ও শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৫ টি টিম অংশগ্রহণ করেছে।


আরও খবর