Logo
শিরোনাম

সীমান্ত হত্যা বন্ধ না হওয়া দুঃখজনক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সীমান্তে হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধ হচ্ছে না, এটা দুঃখজনক। বিজিবি ও বিএসএফ তাদের সাধ্যমতো সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে চেষ্টা করছেন।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় লালমনিরহাট ও নীলফামারীর শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণকালে তিনি এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে যেসব শহীদদের কবর দেশের বাহিরে রয়েছে, তাদের দেশে এনে কবর দেওয়ার ইচ্ছা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

র‍্যাবের আয়োজনে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোতাহার হোসেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন র‍্যাবের মহাপরিচালক অতিরিক্ত আইজিপি এম খুরশীদ হোসেন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপস্) কর্নেল কামরুল হাসান, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক টি এম মমিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ও গড্ডিমারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল প্রমুখ।


আরও খবর



ইরানের বিপ্লবী গার্ডকে ‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’ ঘোষণা করতে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইরানে চলমান সরকারবিরোধী বিক্ষোভ থেকে যুক্তরাজ্যের সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে ইরান সরকার। এ ঘটনার জেরে দেশটির সেনাবাহিনী বিপ্লবী গার্ডকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করতে যাচ্ছে ব্রিটেন। যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ব্রিটেনের নিরাপত্তামন্ত্রী টম টুগেনধাত ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুয়েলা ব্রাভারম্যান সমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে টেলিগ্রাফ বলেছে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ব্রিটেন আনুষ্ঠানিকভাবে এই পদক্ষেপ নেবে। ইরানের বিপ্লবী গার্ডকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে অভিহিত করার অর্থ হলো এই গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত হওয়া, এর বৈঠকে উপস্থিত হওয়া এবং জনসমক্ষে এর লোগো বহন করা একটি ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।  তবে যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি বলে রয়টার্স জানিয়েছে। 

গত সেপ্টেম্বরে পুলিশের হেফাজতে থাকা অবস্থায় ইরানের কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর সারা দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। সেই বিক্ষোভ এখনো চলছে। চলমান বিক্ষোভের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গত সপ্তাহে ইরানে থাকা ব্রিটেনের সাত নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে ইরান সরকার। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক ইরানকে দ্বৈত নাগরিকদের আটক করা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই অনুশীলনকে কূটনৈতিক সুবিধা পাওয়ার জন্য ব্যবহার করা উচিত নয়।

এর আগে ২০১৯ সালের এপ্রিলে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ডকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ঘোষণা করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছিলেন, বিপ্লবী গার্ড ইরান সরকারের বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী অভিযান পরিচালনা ও বাস্তবায়ন করার প্রাথমিক মাধ্যম। সে সময় হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ওয়াশিংটন প্রথমবারের মতো অন্য কোনো দেশের সেনাবাহিনীকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে ঘোষণা করেছে। 

নিউজ ট্যাগ: ইরান

আরও খবর



পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীকে হত্যা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্ত্রী বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন- এ সন্দেহে তাকে হত্যা করে দেহ দুই টুকরো করেছে পাষণ্ড এক স্বামী। হত্যার পর দিখণ্ডিত সেই দেহ ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে খালে। 

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে মর্মান্তিক এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তিস্তা ক্যানেলে ওই নারীর দেহাবশেষের সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। হত্যার শিকার নারীর নাম রেণুকা খাতুন (৩০)। অভিযুক্ত স্বামীর নাম আনসারুল।  

পুলিশ জানিয়েছে, শিলিগুড়ির কলেজপাড়ায় একটি বিউটি পার্লারে কাজ শিখতে যেত রেণুকা। ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে তার খোঁজ মিলছিল না। গত ২৪ ডিসেম্বর শিলিগুড়ি থানায় নিখোঁজ ডায়েরি দায়ের করে রেণুকার পরিবার। তারপরই তদন্তে নামে পুলিশ।

আনসারুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তদন্তকারীরা জানতে পারেন, গত ২৪ ডিসেম্বর ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন আনসারুল। তারপর দেহ দুই টুকরো করে চটহাট সংলগ্ন তিস্তা ক্যানেলে ভাসিয়ে দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্বামীকে শিলিগুড়ি আদালতে হাজির করানো হয়। তাকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।


আরও খবর



হাসপাতালে ৫০ শতাংশ মৃত্যু কমবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি অ্যান্ড ক্যাজুয়ালিটি সার্ভিস (ওসেক) এর মাধ্যমে দেশের হাসপাতালগুলোতে রোগী মৃত্যুর হার ৫০ শতাংশ কমে আসবে বলে আশা করছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। সোমবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সেবা কেন্দ্র উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালে রোগীদের সেবার মান নিশ্চিত করতে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস খুবই জরুরি। এরই মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই সেবা চালু করা হয়েছে। দেশের সব বড় হাসপাতালে এটি চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি জেলা হাসপাতালেও এই সেবা চালু করা হবে।

তিনি বলেন, ওসেক চালু হলে হাসপাতালগুলোতে ৫০ শতাংশ মৃত্যু কমে আসবে। ইমার্জেন্সিতেই অর্ধেক রোগী সুস্থ হয়ে ওঠবে। এর ফলে ইনডোরে রোগীর চাপ কমবে। একইসঙ্গে বেশি মানুষ সেবা পাবে। স্বাস্থ্য সেবা মানুষের অধিকার। এজন্য সবাইকে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর ও ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক প্রমুখ।


আরও খবর

৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




রেকর্ড বাণিজ্য ঘাটতি দক্ষিণ কোরিয়ার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ৪ হাজার ৭২০ কোটি ডলার। ২০০৮ সালে বাণিজ্য ঘাটতির হিসাব রাখা শুরুর পর তা রেকর্ড সর্বনিম্ন। গত বছর দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানিতে নতুন রেকর্ড হয়েছে। তবে ক্রমবর্ধমান জ্বালানি মূল্যের কারণে বাণিজ্য ঘাটতিতে পড়েছে দেশটি।

সরকারি উপাত্তে জানা গেছে, ২০২২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার বাণিজ্য ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৭২০ কোটি ডলার, যা দেশটির ইতিহাসে রেকর্ড সর্বোচ্চ এবং ১৯৯৬ সালের রেকর্ড বাণিজ্য ঘাটতির প্রায় দ্বিগুণ। ২০০৮ সালে বাণিজ্য ঘাটতির উপাত্ত রাখা শুরু করে দক্ষিণ কোরিয়া। প্রথম বছরে দেশটির বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ১ হাজার ৩২৬ কোটি ডলার।

দক্ষিণ কোরিয়ার বাণিজ্য, শিল্প ও জ্বালানি মন্ত্রণালয় ১ জানুয়ারি জানায়, ২০২২ সালের ডিসেম্বরে দেশটির রফতানি আয় ছিল ৫ হাজার ৪৮৯ কোটি ডলার। ২০২১ সালের একই মাসের তুলনায় যা ৯ দশমিক ৫ শতাংশ কমেছে। এ নিয়ে টানা তিন মাস রফতানি কমল দক্ষিণ কোরিয়ার। খাতওয়ারি, সেমিকন্ডাক্টর রফতানি কমেছে ২৯ দশমিক ১ শতাংশ এবং ইস্পাত, পেট্রোকেমিক্যাল ও ডিসপ্লে রফতানি কমেছে যথাক্রমে ২০ দশমিক ৯ শতাংশ, ২৩ দশমিক ৮ শতাংশ ও ৩৫ দশমিক ৯ শতাংশ। গত ডিসেম্বরে দক্ষিণ কোরিয়ার জ্বালানি আমদানি ২৭ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৯৬৮ কোটি ডলার। এতে ২০২২-এর শেষ মাসে দেশটির বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ৪৬৯ কোটি ডলার।

২০২২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানি ৬ দশমিক ১ শতাংশ বেড়ে ৬৮ হাজার ৩৯০ কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। দৈনিক গড় রফতানি ছিল ২৫১ কোটি ডলার। দেশটির দৈনিক রফতানি প্রথমবারের মতো ২৫০ কোটি ডলার ছাড়াল। সেমিকন্ডাক্টর রফতানি রেকর্ড সর্বোচ্চ ১২ হাজার ৯২০ কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। গাড়ি রফতানি হয়েছে ৫ হাজার ৪৩০ কোটি ডলারের।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবারের মতো দেশটির রফতানি ১০০ বিলিয়ন বা ১০ হাজার কোটি ডলারের সীমা অতিক্রম করেছে। শীর্ষ তিন রফতানি গন্তব্য আসিয়ান, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) রফতানি বেড়েছে যথাক্রমে ১৪ দশমিক ৮, ১৪ দশমিক ৫ ও ৭ দশমিক ১ শতাংশ। ভারতে দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানি বেড়েছে ২১ শতাংশ। শীর্ষ চার গন্তব্যেই দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানি রেকর্ড সর্বোচ্চ ছিল। গত বছর দক্ষিণ কোরিয়ার আমদানি হয়েছে ৭৩ হাজার ১২০ কোটি ডলার, যা বছরওয়ারি ১৮ দশমিক ৯ শতাংশ বেড়েছে। অপরিশোধিত জ্বালানি তেল, গ্যাস ও কয়লা আমদানিতে বার্ষিক আমদানি ব্যয়ের ২৬ দশমিক ১ শতাংশ গেছে।

ডিসেম্বরে টানা সাত মাসের মতো চীনে রফতানি কমেছে দক্ষিণ কোরিয়ার। বার্ষিক রফতানি কমেছে ৪ দশমিক ৪ শতাংশ। চীনের অর্থনীতিতে শ্লথগতি ও দ্বিতীয়ার্ধে সেমিকন্ডাক্টরের দাম হ্রাসে এমনটা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: দক্ষিণ কোরিয়া

আরও খবর



পাহাড়ি সন্ত্রাসীদের মুক্তিপণ না দিলে মিলবে ৪ কৃষকের লাশ!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের টেকনাফ হ্নীলা লেচুয়াপ্রাং এলাকার অপহরণ হওয়া ৪ কৃষককে মুক্ত করতে ২৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে অপহরণকারী পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা। সোমবার এমন বার্তা দিয়ে তাদের স্বজনদের কাছে মোবাইল ফোন আসে বলে জানিয়েছেন অপহরণ হওয়া আব্দুস সালামের ছোট ভাই ফরিদ।

তিনি বলেন, থানায় অভিযোগ, পুলিশ নিয়ে পাহাড়ে অভিযান, সাংবাদিকদের জানাজানি বা সংবাদ প্রচার করলে কোনো লাভ হবে না; আমাদের পাওনা আমাদের দিয়ে দিলে তোমাদের ভাইয়েরা নিরাপদে বাড়িতে আসবে, তার উল্টো করলে লাশ হয়ে বড়িতে ফিরবে বলে হুমকি প্রদান করেছে সন্ত্রাসীরা।

অপহরণকৃতরা হলেন- মৃত আবুল হোছনের পুত্র আব্দুস সালাম (৪৮), গুরা মিয়ার পুত্র আব্দুর রহমান (৪০), ফজল করিমের ছেলে আব্দুল হাকিম (৪৫) ও রাজা মিয়ার ছেলে মুহিব বুল্লাহ (১৫)।

জানা গেছে, গত শনিবার অপহরণ হওয়া কৃষকেরা তাদের জমিতে কৃষিকাজ করা অর্থাৎ ভুট্টাক্ষেতগুলো হাতির আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পাহাড়ে চৌকি করতে গেলে পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা ৪ জন স্থানীয় কৃষককে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহরণের ২ দিন পার হলেও তাদের পরিবারের সদস্যরা কোনো খোঁজখবর না পাওয়ায় এলাকায় জানাজানি হয়। পর দিন সকালে অপহরণ হওয়া আব্দুস সালামের মোবাইল থেকে তার শ্যালককে ফোন করে তারা নিরাপদে আছেন বলে নিশ্চিত করে অপহরণ চক্রের সদস্যরা।

এ বিষয়ে হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী জানান, কৃষকদের অপহরণের কথা শুনে গতকাল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে তাদের উদ্ধারে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পাহাড়ে গিয়েছিলাম, তবে আজ তাদের স্বজনদের কাছ থেকে তাদের মুক্তি দিতে মোটা অংকের মুক্তিপণ দাবি করছে বলে জানা গেছে।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি মো. আব্দুল হালিম জানান, তাদের অপহরণের বিষয় শুনে তাৎক্ষণিক পাহাড়ে অভিযান চালিয়েছি। ভুক্তভোগীদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের উদ্ধারে পুলিশ কাজ করছে।


আরও খবর