Logo
শিরোনাম

শিক্ষার প্রতিষ্ঠান খোলার তারিখ পেছাতে পারে : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৭১০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার তারিখ পেছানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। গত কয়েকদিন ধরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় শুক্রবার শিক্ষামন্ত্রী এ তথ্য জানান।

দেশে টানা তৃতীয় দিনের মত হাজারের বেশি করোনার নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। আজ দৈনিক শনাক্তের হার ৬ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। দৈনিক শনাক্তের হার গত ৫ জানুয়ারি ছিল ৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ। এরপর কমতে কমতে তা ৩ শতাংশের নিচেও নেমেছিল। তবে মার্চের শুরু থেকে করোনা শনাক্তের হার বাড়ছে।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ ঘোষণা করা হয়। করোনার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে বেশ কয়েক ধাপ বাড়ানোর পর আগামী ৩০ মার্চ স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার কথা ছিল।


আরও খবর



ভাঙ্গায় ট্রেনের সাথে নসিমনের ধাক্কায় শিবচরের ২ যুবক নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ২১ মার্চ 20২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মাদারীপুর থেকে দেলোয়ার হোসাইন

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় রাজশাহীগামী মধুমতি এক্সপ্রেস নামে রেলগাড়ীর সাথে নসিমনের (শ্যালো ইঞ্জিনচালিত) সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুজন।

শনিবার (২০ মার্চ) দুপুর দুইটার দিকে ভাঙ্গার নোয়াপাড়ার জানদি নামকস্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, শিবচর উপজেলার দত্তপাড়ার আনন্দবাজার গ্রামের আরব ফরাজির ছেলে রফিক ফরাজি (৩৫) ও একই গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে সোহেল মিয়া (২১)।

ভাঙ্গা রেল স্টেশনের ম্যানেজার মো. শাজাহান জানান, রাজশাহী হতে মধুমতি এক্সপ্রেসটিপ ভাঙ্গা স্টেশনের মাত্র এক কিলোমিটার দুরে থাকতে জানদি রেল ক্রসিং অতিক্রম করার সময় ওই নসিমনটি রেল ক্রসিং পেরিয়ে ট্রেনের সাথে ধাক্কা খায়। একজন চালক ও তিনজন আরোহীসহ নসিমনটি তাল গাছের গুড়ি নিয়ে যাচ্ছিলো।

তিনি জানান, জানদির ওই রেলক্রসিংয়ে পথচারী ও পরিবহন চালকদের নিজ দ্বায়িত্বে সড়ক পারাপার হওয়ার নির্দেশ সম্বলিত একটি সাইনবোর্ড টানানো রয়েছে। কিন্তু তারা ওই ঘোষণা না মেনেই রেলের ক্রসিং পেরিয়ে রেলপথে উঠে আসে।

ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের দ্বায়িত্বরত চিটকিৎসক আক্তারুজ্জামান নিহতদের পরিচয় পরিচয় নিশ্চিত করে জানান, এ দুর্ঘটনায় আবুল হোসেন নামে গুরুতর আহত আরো একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


আরও খবর



নাইজেরিয়ায় হামলায় ১১ সেনা নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নাইজেরিয়ার অস্ত্রধারীদের হামলায় এক কর্মকর্তাসহ সেনাবাহিনীর ১১ সদস্য নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির বেনু রাজ্যে এই ঘটনা ঘটে। সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র এই ঘটনাকে বিনা উসকানিতে আক্রমণ বলে মন্তব্য করেছেন।

ঘটনার পর নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে।

রয়টার্স নিউজ এজেন্সিকে একটি সূত্র জানিয়েছে, অপরাধীদের খুঁজে বের করতে সেনাবাহিনীর পরিচালিত অভিযানের ভয়ে বেসামরিক নাগরিকরা কোনসিসায় পালিয়ে যাচ্ছে। সেখানে এক স্থানীয় নেতার বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

আফ্রিকার সবথেকে জনবহুল দেশ নাইজেরিয়ায় সহিংসতা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত সোমবার নাইজেরিয়ার দক্ষিণে ভারি অস্ত্রধারীরা হামলা চালিয়ে ১৮শ কারাবন্দীকে মুক্ত করে নিয়ে যায়। এছাড়া সাম্প্রতিক মাসে বন্দুকধারীরা উত্তরপশ্চিম নাইজেরিয়ার স্কুল থেকে কয়েকশ স্কুল শিক্ষার্থীকে অপহরণ করে।

সর্বশেষ ঘটনার বিষয়ে নাইজেরিয়া সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মোহাম্মদ এরিমা বলেন, রুটিন অভিযান পরিচালনার সময় প্রাথমিকভাবে সেনারা নিখোঁজ হয়। এরপর অনুসন্ধান এবং উদ্ধারকারী দল তাদের মৃতদেহ খুঁজে পায়। ঘটনার হোতাদের খুঁজে বের করতে কাজ চলেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এই ধরনের ঘৃণ্য অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা হবে। তবে আক্রমণ সম্পর্কে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

নিউজ ট্যাগ: নাইজেরিয়া

আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




এসএসসির ফরম পূরণ শুরু ১ এপ্রিল, হচ্ছে না টেস্ট পরীক্ষা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ শুরু হতে যাচ্ছে আগামী ১ এপ্রিল থেকে। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এবার এসএসসির টেস্ট (নির্বাচনী) পরীক্ষা নেওয়া হবে না।

রবিবার (২১ মার্চ) ঢাকা বোর্ড থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ৭ এপ্রিল পর্যন্ত বিলম্ব ফি ছাড়া ফরম পূরণ করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। আর বিলম্ব ফিসহ ১০ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত অনলাইনে ফরম পূরণ করা যাবে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছর যোগ্যতা নির্ধারণী হিসেবে এসএসসির নির্বাচনী পরীক্ষা হবে না বলেও জানিয়েছে ঢাকা বোর্ড।

বলা হয়েছে, শিক্ষার্থীদের তথ্য ও সম্ভাব্য তালিকা ঢাকা বোর্ডের ওয়েবসাইটে ২৮ মার্চ প্রকাশ করা হবে। সম্ভাব্য তালিকা থেকে আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৭ এপ্রিল পর্যন্ত বিলম্ব ফি ছাড়া অনলাইনে ফরম পূরণ করতে পারবেন এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা। বিলম্ব ফি ছাড়া অনলাইনে ফি জমা দেয়ার শেষ সময় ৮ এপ্রিল।

আর বিলম্ব ফিসহ ১০ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত এসএসসির ফরম পূরণ করা যাবে। পরীক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা বিলম্ব ফিসহ ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত ফি জমা দেয়া যাবে।

এ বছর প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসএসসির ফরম পূরণ বাবদ সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৭০ টাকা, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের থেকে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮৫০ টাকা এবং মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮৫০ টাকা ফি নিতে বলেছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।

এসএসসি পরীক্ষার ফি বাবদ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পত্রপ্রতি ১০০ টাকা, ব্যবহারিকের ফি বাবদ পত্রপ্রতি ৩০ টাকা, একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্টের ফি বাবদ পরীক্ষার্থীপ্রতি ৩৫ টাকা, মূল সনদ বাবদ শিক্ষার্থীপ্রতি ১০০ টাকা, বয়েজ স্কাউট ও গার্লস গাইড ফি বাবদ ১৫ টাকা এবং জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ফি বাবদ পরীক্ষার্থী প্রতি ৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এছাড়া অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা অনিয়মিত ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া জিপিএ উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের তালিকাভুক্তি ফি ১০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

সেই হিসাবে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসএসসির ফরম পূরণ বাবদ সর্বোচ্চ এক হাজার ৯৭০ টাকা, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ৮৫০ টাকা এবং মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ৮৫০ টাকা ফি নিতে পারবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

এছাড়া রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে জিপিএ উন্নয়নে আগ্রহী এবং ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় চার বিষয় পর্যন্ত অকৃতকার্যরা প্রতিষ্ঠানপ্রধান বরাবর আবেদন করে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।



আরও খবর



মানসিক অবসাদে মাদকাসক্ত শ্রীলেখা মিত্র

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অভিনেত্রী শ্রীলেখা মানসিক অবসাদে ভুগছেন। বিখ্যাত অভিনেত্রী হলেও তার মনে সুখ নেই, সংসারে আনন্দ নেই। একাকীত্বে ভুগতে থাকা শ্রীলেখা একসময় মাদকাসক্তে হয়ে পড়েন। তার জীবনের মোড় ঘুরাতে এগিয়ে আসে শঙ্খ। বদলে যায় সবকিছু।

এমন গল্পে তৈরি হয়েছে সিনেমা লুপ। মৃন্ময় সরকারের পরিচালনায় এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন শ্রীলেখা মিত্র। সম্প্রতি শুটিং শেষ হয়েছে সিনেমাটির। এখন অপেক্ষা মুক্তির।

বাস্তবেও কি অবসাদে ভুগেন শ্রীলেখা? এমন প্রশ্নের উত্তরে এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, হুম, ডিপ্রেসন হয় আমার। আমি তো একজন মননশীল মানুষ, আমার মতো একজন সেনসিটিভ মানুষ চারপাশের এত অবক্ষয় দেখে কী করে ঠিক থাকবে? অবসাদে তো আসবেই। আমি চালাক নই, কিন্তু আমি বুদ্ধিমতী। আর বুদ্ধিমতী বলেই চারপাশের মানুষের মুখ আর মুখোশের পার্থক্যটা বুঝি। যত সেই মুখোশগুলো খুলে যাচ্ছে, ততই আমি নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছি। আমি একা হয়ে যাচ্ছি। কিন্তু আমি এতে ভালো আছি। আমার খুব ছোট পৃথিবী, সেই পৃথিবী নিয়ে আমি খুশি।

সিনেমার সঙ্গে বাস্তবের শ্রীলেখার পার্থক্য তুলে ধরে এ অভিনেত্রী আরো বলেন, ছবির শ্রীলেখা অনিশ্চয়তায় ভোগেন। শ্রীলেখার মতো অনেকেই এই ইন্ডাস্ট্রিতে অনিশ্চয়তায় ভোগেন। আর তাই তো তারা আজকাল কোনো না কোনো দলের কাছে নিজেদের বিক্রি করে দিচ্ছেন। শ্রীলেখা মিত্র কিন্তু কোনো অনিশ্চয়তায় ভোগেন না। কারণ আমি আয়-ব্যয়ের মধ্যে ভারসাম্য করতে পারি, বাকিরা পারেন না।

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলেখা মিত্র

আরও খবর



‘তিস্তা চুক্তি না হওয়ায় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ব্যর্থতা নেই’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

তিস্তা চুক্তি নিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো ব্যর্থতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে তথ্য মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন বিষয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

প্রেস ব্রিফিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, তথ্যসচিব খাজা মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

তিস্তা চুক্তি নিয়ে সরকার ধূম্রজালে রেখেছেবিএনপির এমন বক্তব্যের বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে তো অনেক দূরে এগিয়েছি আমরা। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এ ব্যাপারে অনেক দূর এগোনো হয়েছে। কিন্তু ভারতের সংবিধান অনুযায়ী রাজ্য সরকারের অনুমতি লাগে। যেহেতু এটি ভারতের একটি রাজ্য এবং বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে, এখানে অবশ্যই রাজ্য সরকারের অনুমোদন লাগে। তাই এখানে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো ব্যর্থতা নেই। তাদের যে একাগ্রতা, সেটি আছে।

তিনি বলেন, রাজ্য সরকারের অনুমোদন পেলে সেটি হবে। এটি তারাও (বিএনপি) বোঝে, বুঝেও না বোঝার ভান করে। এটি অপ্রাসঙ্গিক হলেও প্রসঙ্গ বানানোর চেষ্টা করছে। আসলে বিএনপি কোনো ইস্যু খুঁজে পাচ্ছে না বলে খড়কুটো ধরে চেষ্টা করছে, এছাড়া অন্য কিছুই নয়।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এজন্য সরকারকে বিএনপির একটি অভিনন্দন দেওয়া প্রয়োজন ছিল, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীকে। প্রধানমন্ত্রী মানবিক দিক বিবেচনা করে খালেদা জিয়াকে তার শাস্তি ছয় মাসের জন্য স্থগিত রেখেছেন, কিন্তু বিএনপি ধন্যবাদ দিতে ব্যর্থ হয়েছে। আসলে বিএনপি ধন্যবাদ দেওয়ার সংস্কৃতি লালন করে না। কাউকেই ধন্যবাদ দিতে পারে না।

ইউটিউব, ফেসবুক ও ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ইউটিউব এবং ফেসবুককে ক্রমাগতভাবে বলে যাচ্ছি ট্যাক্স দেওয়ার জন্য। তারা প্রথমদিকে তো সবকিছুতেই প্রত্যাখ্যান করেছিল। এখন তারা একমত করে যে, তাদের ট্যাক্স দিতে হবে। এই বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের কমিটি কাজ করছে। তাদের সুপারিশ এলে তখন আমি বলতে পারব, আমরা কী করতে পারব। তবে এটি সত্য, অন্য দেশ থেকে পরিচালিত হয়ে আমাদের দেশে ব্যবসা করছে এবং অন্যের ব্যবসাকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে, যিনি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তাকে কোনো লভ্যাংশের অংশ দেবে না, সেটি হওয়া অনুচিত।

ড. মাহমুদ বলেন, একটি নীতিমালার ভিত্তিতে যাতে এগুলো পরিচালিত হয় এবং একইসাথে তারা যে ব্যবসা করছে, সেখানে সে ব্যবসা করার জন্য ট্যাক্স দিচ্ছে না, সেটি যাতে ট্যাক্সের আওতায় আসে, সেজন্য সরকার কাজ করছে। বিশেষ করে আমাদের মন্ত্রণালয় কাজ করছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েক দফা মিটিং হয়েছে। আমরা খুব সহসাই এজন্য একটি নীতিমালা তৈরি করে সেটি স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করতে পারবো বলে আশা করছি। সহসাই আমরা এটি সম্পাদন করতে পারব। তারা যাতে ট্যাক্সের আওতায় আসে, সেটিও আমরা করছি।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশ সফরে আসছেন, সেখানে সীমান্ত হত্যা নিয়ে কোনো আলোচনা থাকবে কিনাএমন প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সীমান্ত হত্যা নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। ইতোমধ্যে সীমান্ত হত্যা অনেক কমেও গেছে। আগে যে সীমান্ত হত্যা হতো, সেটি এখন অনেক কমে গেছে। তবে আমরা চাই সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোঠায় আসুক। এটি নিয়ে সবসময় দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে আলোচনা হচ্ছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়েও আলোচনা হচ্ছে।


আরও খবর