Logo
শিরোনাম

সিলেটে অটোরিকশাকে ট্রাকের চাপা, পাঁচজন নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ০২ মে 2০২1 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৮০৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

আজ রবিবার সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশা আচমকা মহাসড়কে উঠলে দ্রুতগামী একটি ট্রাক অটোরিকশাটিকে চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন নিহত হয়। এ ছাড়া হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজনের

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় ট্রাকচাপায় দুই শিশুসহ অটোরিকশার পাঁচ আরোহী নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে চারজন একই পরিবারের সদস্য বলে জানা গেছে। এ সময় আহত হয়েছে আরও দুজন। উপজেলার ফেরিঘাট এলাকায় সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে আজ রবিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), তাঁর মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), ছেলে তাহমিদ হোসেন (৩ মাস), বোন হাবিবুন নেছা (৩৮) ও এক‌ই গ্রামের অটোরিকশাচালক হোসেন আহমদ (৩৫)।

পুলিশ জানায়, আজ রবিবার সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশা আচমকা মহাসড়কে উঠলে দ্রুতগামী একটি ট্রাক অটোরিকশাটিকে চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন নিহত হয়।  এ ছাড়া হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজনের মৃত্যু হয়। নিহতদের মধ্যে দুই শিশু রয়েছে। এ ছাড়া আহত দুজনকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দস্তগীর আহমেদ দুর্ঘটনার তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে উদ্ধারকাজ চালানো হচ্ছে।


আরও খবর

সিলেটে হোটেল থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

শুক্রবার ২০ জানুয়ারী ২০23




হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের রোডমার্চে পুলিশের বাধা

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাত দফা দাবি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় অভিমুখে স্মারকলিপি দিতে রমনা কালীমন্দির থেকে রোডমার্চ শুরু করে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ। আজ শনিবার টিএসসি হয়ে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে পৌঁছালে রোডমার্চ সামনে এগোতে দেয়নি পুলিশ।

জানা যায়, রমনা কালীমন্দির থেকে রোডমার্চ শুরু করে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ। রোডমার্চ শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে পৌঁছালে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা হয়। এরপর রোডমার্চ সমাপ্ত করে দেওয়া হয়। এ সময় পরিষদের অন্যতম সভাপতি নিম চন্দ্র ভৌমিকের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি কমিটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্মারকলিপি দিতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে সাত সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অভিমুখে রওনা দেয়। প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন রানা দাশ গুপ্ত, কাজল দেবনাথ, উষাতন তালুকদার, জয়ন্ত কুমার দে, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জে এল ভৌমিক, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক চন্দ্র নাথ পোদ্দার।


আরও খবর



‘দাও ফিরে সে অরণ্য’

প্রকাশিত:রবিবার ২২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্যস্ততাহীন জীবন কাটাবেন বলে পানামার এক দ্বীপে ৯ একর জমি কেনেন হাভিয়ের লিহো। মন চাইলে ঘরে থাকবেন। মন চাইলে সার্ফ বোর্ডে সমুদ্রের ঢেউ কেটে এগিয়ে যাবেন। আর্জেন্টিনায় জন্ম হাভিয়েরের। চেয়েছিলেন লাতিন আমেরিকার যানজট থেকে দূরে আরাম-আয়েশে বাকি জীবন কাটিয়ে দেবেন। সে কারণেই দ্বীপে নির্বাসন। তবে টেকসই বনায়নের প্রতি ভালোবাসা তার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিল।

বিবিসি বলছে, হাভিয়েরের কেনা জমিটি পানামার ক্যারিবীয় উপকূলের বাস্তিমেন্তোস দ্বীপে। আগে বন ছিল। উজাড় করেই তার কাছে বিক্রি করা হয়। হাভিয়ের চাইলেন বন ফিরিয়ে আনতে। স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে এক টুকরো জমিকে সমৃদ্ধ অরণ্যে পরিণত করেন। নাম দেন আপ ইন দ্য হিল ইকো-ফার্ম। পঞ্চাশোর্ধ্ব হাভিয়ের চান তার এই উদ্যোগ যেন উদাহরণ হয়ে থাকে। যেন অন্যরাও তার মতো বনানী ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট হন।

হাভিয়ের তার জমির এক পাশে আসবাব তৈরির জন্য কাষ্ঠল উদ্ভিদ লাগিয়েছেন। আরেক অংশে চকলেটের জন্য আছে কোকোয়া গাছ। ওপরের দিকে ঔষধি গাছের বাগান আছে। বাকিটা ফলদ বৃক্ষ, শাকসবজি আর ফুলের গাছে পূর্ণ। এখানে যে পণ্য ও ফসল হয়, তা স্থানীয়ভাবেই বিক্রি করেন তিনি।

১৯৯৬ সালে কেনা জমির চেহারাই বদলে দিয়েছেন হাভিয়ের। সে সময় পারমাকালচার সম্পর্কে ধারণা ছিল তার। চাষাবাদের টেকসই এই পদ্ধতিতে রিসাইক্লিংয়ে জোর দেয়া হয়, যেন পৃথিবীর ক্ষতি কমিয়ে আনা সম্ভব হয়। একে তো কীটনাশকমুক্ত, তা ছাড়া সবকিছুই পুনর্ব্যবহারযোগ্য। এই পদ্ধতিতে চাষাবাদের জন্য আগে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর কাছ থেকে মূল বিষয়গুলো জানতে হয়েছে হাভিয়েরকে। কাছেই দ্বীপের আদিবাসী এনগাবে বুগলে জনগোষ্ঠীর বেশ কিছু স্থাপনা রয়েছে।

৫৩ বছর বয়সী বেঞ্জামিন আগুইলারের সঙ্গে ২০০০ সালে দেখা হয় হাভিয়েরের। তাকে খামারে গাছ কাটার কাজে সাহায্য করতে অনুরোধ জানান হাভিয়ের। কীভাবে চাষবাস করতে হবে, কী কাজে কোন গাছ লাগাতে হবে- এসব বিষয়ে বেঞ্জামিনই পরামর্শ দেন হাভিয়েরকে। কেবল হাভিয়ের নন, বন রক্ষায় আদিবাসীদের জ্ঞান কাজে লাগাচ্ছে পানামার স্মিথসোনিয়ান ট্রপিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউটও (এসটিআরআই)। গবেষণা ইনস্টিটিউটটির গবেষণা সহযোগী অধ্যাপক ক্যাথেরিন পটভিন পানামার আদিবাসী জনগোষ্ঠীর সঙ্গে ২০ বছরের বেশি সময় ধরে কাজ করছেন। এভাবে কাজের বড় সুবিধা নিয়ে তিনি বলেন, আদিবাসীরা ধনী হতে কিংবা বড় প্রতিষ্ঠান গড়ার আশায় চাষবাস করে না। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির প্রচলিত ধারণাও তাদের নেই। তারা স্থিতিশীলতা চায়। নিজ এলাকায় দীর্ঘকাল ধরে টিকে থাকতে চায়।

আদিবাসীদের জমি ব্যবস্থাপনার পদ্ধতিও পরিবেশবান্ধব। যেমন- বনাঞ্চল অক্ষুণ্ণ রাখলে সেখানকার মাটি পানি শুষে নিতে পারে। এতে একদিকে বন্যার আশঙ্কা কমে। আবার শুষ্ক মৌসুমে খরা প্রতিরোধেও কাজ করে। হাভিয়ের দেখলেন, নতুন করে বৃক্ষরোপণ শুরুর পর থেকে তার জমির উর্বরতা বেড়েছে। বেড়েছে জীববৈচিত্র্যও। তার জমিতে বানর, পাখি, মৌমাছি, আর্মাডিলোসহ বেশ কয়েক প্রজাতির প্রাণী ফিরেছে।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হলো স্ট্রবেরি ডার্ট প্রজাতির ব্যাঙ। নিকটবর্তী একটি দ্বীপের নামকরণ এই প্রাণীর নামেই করা হয়। তবে পর্যটন ও বন নিধন বৃদ্ধি পাওয়ায় এই প্রজাতির ব্যাঙ পরিমাণে কমেছে। হাভিয়ের বলেন, তিন বছরের বেশি সময় ধরে আমরা কখনোই ব্যাঙ দেখিনি। অথচ এখন তারা সব জায়গায়।

হাভিয়েরের কাজটি ছোট পরিসরে হলেও তাকে অনুসরণ করে পানামার অন্য অঞ্চলে একই ধরনের প্রকল্প চালু আছে। যেমন বন্যার কবল থেকে পানাম খাল রক্ষায় পুনর্বনায়ন প্রকল্পে নেতৃত্ব দেন এসটিআরআইয়ের বিজ্ঞানী জেফারসন হল। আবার গত অক্টোবরে এনগাবে-বুগলে জনগোষ্ঠীর সঙ্গে একটি চুক্তি করে এসটিআরআই। তাদের সঙ্গে নিয়ে ওই এলাকায় পুনর্বনায়ন প্রকল্প পরিচালনা এর উদ্দেশ্য।

জেফারসন হল বলেন, দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্কের শুরুতে আমরা। আমাদের শেখার কেবল শুরু। বৃক্ষরোপণে মানুষ কতটা উদ্যমী হতে পারে, তা দেখে আমরা অভিভূত হয়েছি, তবে অবাক হইনি। হাভিয়েরের প্রকল্পটি ছোট হতে পারে। তবে পৃথিবীকে বাসযোগ্য রাখতে ছোট উদ্যোগও যে সহায়ক, তার বড় প্রমাণ।

 

নিউজ ট্যাগ: হাভিয়ের লিহো

আরও খবর



৭ মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল ইন্দোনেশিয়া

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শক্তিশালী এক ভূমিকম্পে পূর্ব ইন্দোনেশিয়া কেঁপে ওঠে। তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি এবং কোনো সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়নি।আজ বুধবার (১৮ জানুয়ারি) ৭ মাত্রার ভূমিকম্পের পর কিছু বাসিন্দা বাড়ি ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করেন।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ জানিয়েছে যে এটি উত্তর মালুকু প্রদেশের টোবেলো থেকে ১৫০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে সমুদ্রের তলদেশে ৬০ কিলোমিটার গভীরে ঘটেছে।

ইন্দোনেশিয়ার আবহাওয়া, জলবায়ুবিদ্যা এবং জিওফিজিক্স এজেন্সি সুনামির কোনো সতর্কতা জারি করেনি। হনলুলুতে প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্কীকরণ কেন্দ্র সংক্ষিপ্তভাবে বলেছে যে নিকটবর্তী ইন্দোনেশিয়ান উপকূলে একটি সম্ভাব্য হুমকি রয়েছে কিন্তু কিছু পরেই বিজ্ঞপ্তিটি তুলে নেয়।

টোবেলোর বাসিন্দা পিয়াস ওহোইউতুন বলেছেন যে ভূমিকম্পের সময় কিছু মানুষ বাড়ি থেকে দ্রুত বের হয়ে যান।ওহোইউতুন বুধবার জানান, আমি কিছুটা কম্পন অনুভব করেছি। কেউ কেউ বাড়ি ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করে। বুধবার সকালে পূর্ব ইন্দোনেশিয়ায় ৬.১ মাত্রার একটি ভূমিকম্পও অনুভূত হয়। কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।


আরও খবর



ই-কমার্সে গতি কমবে প্রবৃদ্ধির

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিদায় নিলো ২০২২ সাল। বছরটিতে করোনার ধাক্কা কাটিয়ে ভ্রমণ-পর্যটনের মতো কিছু শিল্প যেমন দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল, তেমনি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে নতুন করে সংকটে পড়েছিল জ্বালানি-অর্থনীতির মতো বেশ কিছু খাত। দেশে দেশে রেকর্ড পরিমাণ বেড়ে গিয়েছিল জীবনযাত্রার ব্যয়। চিন্তার বিষয় হলো, কিছু ক্ষেত্রে এই ধারা অব্যাহত থাকতে পারে ২০২৩ সালেও।

দ্য ইকোনমিস্টের প্রতিবেদন অনুসারে, নতুন বছরে জীবনযাত্রার উচ্চ ব্যয়ভার খুচরা ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েরই সমান ক্ষতি করতে পারে। এমনকি ই-কমার্স খাতে প্রবৃদ্ধিও ঝিমিয়ে পড়তে পারে, বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলোতে। সেখানে ভোক্তাদের খরচ বাঁচানোর চেষ্টা এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর সুদের হার বৃদ্ধিতে খুচরা বিক্রেতাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের পরিকল্পনা বাধাগ্রস্ত হবে।

বিশ্বের বৃহত্তম অনলাইন-শপিং বাজার চীনে অর্থনৈতিক সংকটের কারণে প্রবৃদ্ধি ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই পশ্চিমা ভোক্তাদের প্রলুব্ধ করার জন্য আলিবাবা-পিনডুওডুওর মতো চীনা ই-কমার্স জায়ান্টরা দাম কমানোর পথে হাঁটবে। ছোট পারিবারিক ব্যবসাগুলো ডিজিটালাইজড হওয়ায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং লাতিন আমেরিকায় ই-কমার্স আরও বেশি ছড়িয়ে পড়বে। ২০২৩ সালে অ্যামাজনযে পাঁচটি বাজারে প্রবেশের পরিকল্পনা করছে তার মধ্যে কলম্বিয়া, নাইজেরিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো তিনটি উন্নয়নশীল দেশ রয়েছে।

নতুন বছরে অনলাইনে খুচরা পণ্য বিক্রির প্রবৃদ্ধি ধীরগতির হবে। ২০২৩ সালে বিশ্বব্যাপী খুচরা বিক্রির মাত্র ১৪ শতাংশ হতে পারে অনলাইনে, যা ২০২২ সালের তুলনায় নামমাত্র বেশি। এ বছর অনলাইন ও অফলাইন বিক্রি আরও বেশি একীভূত হবে। ধনী দেশগুলোতে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে ক্লিক-অ্যান্ড-কালেক্ট পদ্ধতি। এ থেকে যুক্তরাজ্যের আয় দাঁড়াতে পারে ১ হাজার ১৯০ কোটি ইউরো (১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার), যা ২০১৩ সালের তুলনায় তিনগুণ বেশি।

গুদাম এবং অন্যান্য ব্যাক-এন্ড কার্যক্রম স্বয়ংক্রিয়করণের মাধ্যমে শ্রমব্যয় কমাবে খুচরা বিক্রেতারা। যেমন- নতুন ডিস্ট্রিবিউশন হাব অস্ট্রেলিয়ায় পণ্য হ্যান্ডলিংয়ে ২০০টি রোবট নিযুক্ত করতে চলেছে ডিপার্টমেন্টাল স্টোর চেইন মায়ার। রোবটগুলো কোম্পানিটির ৭০ শতাংশ অনলাইন অর্ডার সামলাবে বলে আশা করা হচ্ছে। ফ্যাশন ও বিলাসবহুল ব্র্যান্ডগুলো মেটাভার্সে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করবে এ বছর। ১৯৯৭ সালের পরে জন্ম নেওয়া, অর্থাৎ জেনারেশন জেডর এক-চতুর্থাংশ মানুষের কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে তারা।

নিউজ ট্যাগ: ই-কমার্স

আরও খবর



শ্যালিকাকে কুপিয়ে হত্যা করল দুলাভাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় সুমাইয়া আক্তার (১৪) নামের এক কিশোরীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলার বেলছড়ি ইউনিয়নের আমবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সুমাইয়া আমবাগান এলাকার মো. আব্দুর রহমান জামালের মেয়ে। হত্যার সঙ্গে সুমাইয়ার দুলাভাই মো. সাগর জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে।

পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে মাটিরাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, ঘটনার সময় সুমাইয়া বাড়িতে একাই ছিল। এ সময় তার দুলাভাই মো. সাগর তাকে ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে তার হাত ও কান কেটে যায়। প্রচুর রক্তক্ষরণে সুমাইয়া ঘটনাস্থলেই মারা যায়। এ সময় প্রতিবেশীসহ এগিয়ে এলে সাগর পালিয়ে যান।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থলের পাশ থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। হত্যার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ।

নিউজ ট্যাগ: কুপিয়ে হত্যা

আরও খবর

কড়াইয়ের গরম তেলে পড়ে শিশুর মৃত্যু

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩