Logo
শিরোনাম

সমুদ্রে বাসা বেঁধেছি, শিশিরে ভয় পাই না : মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | ১২৮৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ছয় শতাধিক মানুষকে গুম করেছে। হাজারো মানুষকে বিনা বিচারে হত্যা করেছে। এসব করে আমাদেরকে কি দমিয়ে রাখতে পেরেছে? আমরা তো সমুদ্রে বাসা বেঁধেছি। সুতরাং সেখানে এক বিন্দু শিশির ভয় পাই না।

আজ রোববার বিকেলে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দিয়ে আমাদের নেতা তারেক রহমানের কিছু যায় আসে না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে বন্দি। আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা। আজকে সকালে মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদকে আটক করেছে। বরিশাল যাওয়ার পথে ইশরাকসহ অন্যদের ওপর হামলা করে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করেছে যুবদল কেন্দ্রীয় সংসদ।

সংগঠনের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল মোনায়েম মুন্নার পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম, রুহুল কবির রিজভী, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, কামরুজ্জামান রতন, যুবদলের শফিকুল ইসলাম মিল্টন, কামরুজ্জামান দুলালসহ অনেকেই।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ইনশাআল্লাহ তারেক রহমান ফিরে আসবেন। মামলাগুলো প্রত্যাহার করা হবে। আমাদেরকে নতুন বাংলাদেশ গড়তে হবে।

তিনি বলেন, বরিশালের সমাবেশে বয়োবৃদ্ধ খলিল সরদার মাঠে তিন দিন ধরে বাউফল থেকে এসে শুয়ে ছিলেন। তিনি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এসেছিলেন। এ রকম অসংখ্য সাধারণ মানুষ পরিবর্তনের আশায় এসেছেন। আসুন আমরা সবাই মিলে নতুন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাই।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ছয় শতাধিক মানুষকে গুম করেছে। হাজারো মানুষকে বিনা বিচারে হত্যা করেছে। এসব করে আমাদেরকে কি দমিয়ে রাখতে পেরেছে? আমরা তো সমুদ্রে বাসা বেঁধেছি। সুতরাং সেখানে এক বিন্দু শিশির ভয় পাই না।

আজ রোববার বিকেলে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দিয়ে আমাদের নেতা তারেক রহমানের কিছু যায় আসে না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে বন্দি। আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা। আজকে সকালে মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদকে আটক করেছে। বরিশাল যাওয়ার পথে ইশরাকসহ অন্যদের ওপর হামলা করে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করেছে যুবদল কেন্দ্রীয় সংসদ।

সংগঠনের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল মোনায়েম মুন্নার পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম, রুহুল কবির রিজভী, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, কামরুজ্জামান রতন, যুবদলের শফিকুল ইসলাম মিল্টন, কামরুজ্জামান দুলালসহ অনেকেই।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ইনশাআল্লাহ তারেক রহমান ফিরে আসবেন। মামলাগুলো প্রত্যাহার করা হবে। আমাদেরকে নতুন বাংলাদেশ গড়তে হবে।

তিনি বলেন, বরিশালের সমাবেশে বয়োবৃদ্ধ খলিল সরদার মাঠে তিন দিন ধরে বাউফল থেকে এসে শুয়ে ছিলেন। তিনি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এসেছিলেন। এ রকম অসংখ্য সাধারণ মানুষ পরিবর্তনের আশায় এসেছেন। আসুন আমরা সবাই মিলে নতুন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাই।


আরও খবর