Logo
শিরোনাম

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় তানভীর আহমেদ (২৩) নামে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। গত রোববার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেলে সৌদি আরবের মদিনায় স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে এ দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য খুরশিদ উদ্দিন। নিহত তানভীর কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের খামা মাটির মসজিদ এলাকার বকুল মিয়ার ছেলে।

নিহত তানভীরের পিতা কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানায়, সংসারে স্বচ্ছলতা আনার আশায় উপার্জন করতে সৌদি আরবে যান তানভীর। তিনি সেখানকার নভেলটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। রোববার ওমরাহ শেষে ফেরার পথে মদিনায় তাকে বহন করা গাড়িটি সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়। এতে সে গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।


আরও খবর



ফোনের বাজারে চীনের আধিপত্যকে চ্যালেঞ্জ করতে চায় ভারত

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০১৪ সালের দিকে ভারতে বিক্রি হওয়া ফোনের বেশিরভাগই ছিল আমদানিকৃত। তবে কয়েক বছর ধরে দেশটিতে বেশ পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। ইন্ডিয়া সেলুলার অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স অ্যাসোসিয়েশনের (আইসিইএ) মতে, ২০২২ সালে ভারতে বিক্রি হওয়া প্রায় সব ফোনই স্থানীয়ভাবে তৈরি। এসব ফোনের বেশিরভাগই ভারতে অবস্থানরত তাইওয়ানের ফক্সকন বা দক্ষিণ কোরিয়ার স্যামসাংয়ের মতো কোম্পানিগুলোর তৈরি। তবে ভারতে ফোন উৎপাদনকারী স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও দ্রুত বাড়ছে।

মাইক্রোম্যাক্স ইনফরমেটিক্স সেই প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি। ২০০৮ সালে মোবাইল ফোনের বাজারে এই প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়। মাত্র দুই বছরের মধ্যে এটি ভারতের বৃহত্তর নির্মাতা কোম্পানির তালিকায় চলে আসে। পাশাপাশি তাদের ফোনগুলো দামেও সস্তা।

মাইক্রোম্যাক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা রাজেশ আগারওয়াল বলেন, চীনা স্মার্টফোন নির্মাতাদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করা বেশ কঠিন। তার প্রতিষ্ঠান যদি নতুন কোনও ফোন নিয়ে আসে, ভারতে সেটি ১০ লাখ বিক্রি হবে বলে আশা করেন তিনি। কিন্তু চীনা কোনও ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তা এক কোটি বা তার বেশিও বিক্রি করতে পারে। যা চীনা কোম্পানিগুলোর জন্য বড় সুবিধা।

তবে এটি ভারতের জন্য কেবল শুরু জানিয়ে তিনি বলেন, ব্যাটারি, ক্যাবল ছাড়াও স্ক্রিন ও কম্পিউটার চিপের মতো পার্টসগুলো নিজেদের তৈরী করতে হবে। ভারত সরকারও এই পদক্ষেপ ত্বরান্বিত করতে চায়। এটি সরকারের নীতিমালাগুলোর একটি, যার লক্ষ্য ভারতের সব ধরনের উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানো।

২০২১ সালে টেলিকম ও নেটওয়ার্কিং সরঞ্জামের জন্য প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেন্টিভ (পিএলআই) স্কিম চালু করেছে ভারতের সরকার। পিএলআই স্কিমটি ভারতে তৈরি মোবাইল ফোনের উপকরণে ভর্তুকি দেয়। এতে প্রতিযোগিতা এবং উৎপাদন উভয় বাড়তে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইন্ডিয়া সেলুলার অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স অ্যাসোসিয়েশনের (আইসিইএ) তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে ভারতীয় ফোনের ১৫ থেকে ২০ শতাংশ যন্ত্রাংশ স্থানীয়ভাবে তৈরি হয়। পিএলআই স্কিমের লক্ষ্য হল এটিকে ৩৫ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা।

ভারতীয় ফোন নির্মাতা লাভা ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান হরি ওম রাই ভবিষ্যদ্বাণী করে বলেছেন, মোবাইল ফোন নির্মাতাদের জন্য ভারত পরবর্তী গ্লোবাল হাব হয়ে উঠবে। সারা বিশ্বের সংস্থাগুলো চীনা পণ্যের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল হওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন। হরি ওম রাই বলেন, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১৮ শতাংশ ভারতে বাস করে। দেশের জিডিপি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটি বিশ্বের বৃহত্তম বাজারগুলোর একটি হয়ে উঠবে।

নিউজ ট্যাগ: ভারত

আরও খবর



কম্বোডিয়ায় ক্যাসিনোতে আগুন, নিহত ১০

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কম্বোডিয়ায় একটি হোটেল-ক্যাসিনোতে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে থাইল্যান্ড সীমান্তবর্তী পোইপেট শহরের গ্র্যান্ড ডায়মন্ড সিটি হোটেলে আগুন লাগে। সে সময় ভবনটির ভেতরে প্রায় চারশ লোক ছিল বলে পুলিশের বরাত দিয়ে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে লোকজনকে হোটেলের উপরের তলাগুলো থেকে নিচে লাফ দিতে বা পড়ে যেতে দেখা গেছে।

হোটেলটিতে অনেক থাই নাগরিকও ছিলেন, পরে তারা সীমান্ত পেরিয়ে নিজ দেশে ঢুকে পড়েন, বলেছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। আগুনের সূত্রপাত কীভাবে কর্তৃপক্ষ তা খতিয়ে দেখছে। বৃহস্পতিবার সকালে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ব্যাংকক পোস্ট।

এ ঘটনায় আহত অনেককে থাইল্যান্ডের সা কায়েও প্রদেশের হাসপাতালগুলোতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা প্যারিসভিত্তিক একটি বার্তা সংস্থাকে বলেছেন।

দুই দেশের মধ্যে থাকা অন্যতম সীমান্ত ক্রসিং পোইপেটের ক্যাসিনোগুলো থাই নাগরিকদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। থাইল্যান্ডে জুয়া খেলা নিষিদ্ধ হওয়ায় অনেকেই সীমান্ত পেরিয়ে এই ক্যাসিনোগুলোতে যান।


আরও খবর



গণতন্ত্র ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে পরামর্শ দেবে যুক্তরাষ্ট্র: ডোনাল্ড লু

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ২১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ সফররত যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু বলেছেন, গণতন্ত্র, সুষ্ঠু নির্বাচন, মানবাধিকার ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে বাংলাদেশকে পরামর্শ দিতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এসব বিষয়ে বাংলাদেশের পাশে থাকতে চায় তাঁর দেশ।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেছেন মার্কিন সরকারের এ মন্ত্রী। আজ রোববার (১৫ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুনবাগিচনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক হয়। এসময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

ব্রিফিংয়ে ডোনাল্ড লু বলেন, জিএসপি সুবিধা চালু হলে প্রথমে বাংলাদেশ এ সুবিধা পাবে। গণতন্ত্র ও মানবাধিকার আমাদের কেন্দ্রবিন্দু। এটা নিয়ে আমরা পরামর্শ দিই।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নিয়ে যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে উল্লেখ করে মার্কিন এ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) নিয়ে আমাদের ভালো আলোচনা হয়েছে। সন্ত্রাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে।

বহুল আলোচিত মার্কিন ডিপ্লোমেট ও সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ভারত হয়ে বাংলাদেশে পৌঁছান। ঢাকা সফরের প্রথম দিনেই তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেন। বিমানবন্দর থেকে সরাসরি তিনি মন্ত্রীর ইস্কাটনস্থ সরকারি বাসভবনে (পররাষ্ট্র ভবন) যান। সেখানে প্রায় দেড় ঘণ্টার বেশি সময় ধরে একান্তে বৈঠক করেন তারা। ওই বৈঠকের বিষয়ে কেউই সাংবাদিকদের কিছু বলেননি।

ঢাকা আসার আগে দুদিন নয়াদিল্লিতে কাটিয়েছেন মার্কিন সহকারী মন্ত্রী। সেখানে ভারত সরকার এবং দেশটির রাজনৈতিক নেতৃত্বের সঙ্গে এশিয়া অঞ্চলের বিভিন্ন বিষয়, সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে তার। দিল্লির সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, দিল্লিতে থাকাকালে ভারত-চীন সীমান্ত উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে বেইজিংয়ের আগ্রাসী কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছেন এশিয়া এক্সপার্ট ডোনাল্ড লু।


আরও খবর



পরকীয়ার টান : ১০ বছরের সংসার ফেলে তিন গৃহবধূ উধাও

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে পরকীয়ার টানে ১০ বছরের সংসার জীবন ও স্বামী-সন্তান ফেলে উধাও হয়েছেন তিন গৃহবধূ। তাদের খুঁজে না পেয়ে সোমবার তিন গৃহবধূর স্বামীরা বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

তিনজনের মধ্যে একজন কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার বারারা গ্রামের। তাদের সংসারে ৮ বছর বয়সের একটি মেয়ে ও ৬ বছর বয়সের একটি ছেলে রয়েছে।

আরেকজন বন্দর উপজেলার দেউলী চৌরাপাড়া এলাকার। তাদের সংসারে ৭ বছর বয়সের একটি ছেলে রয়েছে। অপরজন বন্দর উপজেলার সোনাকান্দা এনায়েতনগর এলাকার। তাদের সংসারে ৬ বছর বয়সের ও ৪ বছর বয়সের দুইটি মেয়ে রয়েছে।

এক গৃহবধূর স্বামী জানান, প্রায় ১০ বছর আগে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। তাদের এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। সংসারে আর্থিক অনটনের কারণে স্ত্রী গার্মেন্টসে কাজ নেয়। সেখানে কাজ করার সুবাদে তার স্ত্রীর সঙ্গে একটি ছেলের পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই প্রেমের টানে তাকে এবং সন্তানদের ফেলে ৩ জানুয়ারি সকালে কাজের কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি।

আরেক গৃহবধূর স্বামী জানান, প্রায় ৭ বছর আগে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। তাদের একটি ছেলে রয়েছে। সংসারে অর্থ সংকটের জন্য স্ত্রী গার্মেন্টসে কাজ নেয়। সেখানে কাজ করার সূত্রে তার স্ত্রীর সঙ্গে একটি ছেলের পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই প্রেমের টানে সংসার ও সন্তানকে ফেলে ৮ জানুয়ারি সকালে কাজের কথা বলে চলে যায়।

আরেকজন গৃহবধূর স্বামী জানান, প্রায় ১০ বছর আগে তাদেরও  পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ফেসবুকের মাধ্যমে স্ত্রীর সঙ্গে একটি ছেলের পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই প্রেমের টানে ৮ জানুয়ারি সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে যায়। আর ফিরে আসেনি।

নিউজ ট্যাগ: পরকীয়ার টান

আরও খবর



কানাডায় বাড়ি কিনতে পারবেন না বিদেশিরা

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বাড়ি কেনার সুযোগ বন্ধ করে দিচ্ছে কানাডা। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে দেশটিতে বাড়ির দাম আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। 

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানায়, এ বিষয়ে একটি আইনও পাস করেছে কানাডার সরকার। নতুন আইন অনুযায়ী, ২০২৩ সালের প্রথম দিন থেকেই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ওপর বাড়ি কেনা বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হলো। মূলত নিজ দেশের নাগরিকদের আবাসন সমস্যা বেড়ে যাওয়ায় এমন পদক্ষেপ। 

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানা যায়, এই নিষেধাজ্ঞা শুধু শহর অঞ্চলের জন্য প্রযোজ্য হবে। এ ছাড়া বিনোদনমূলক সম্পত্তি কেনার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য নয় বলে জানিয়েছে অটোয়া কর্তৃপক্ষ।  দাম বেশি হওয়ায় অনেক কানাডিয়ান বাড়ি কিনতে পারছিলেন না। এ অবস্থায় ২০২১ সালের নির্বাচনী প্রচারে দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো দুই বছরের জন্য এমন পদক্ষেপের প্রস্তাব দেন। 

সে সময় ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি জানায়, কানাডায় বাড়ি কেনা মুনাফাখোর, ধনী ব্যবসায়ী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে আগ্রহের বিষয়ে পরিণত হয়েছে। এতে বাড়িগুলোর দাম আকাশ ছোঁয়া হয়েছে। বাড়ি তো জনগণের, বিনিয়োগকারীদের জন্য নয়।

এদিকে কানাডিয়ান রিয়েল এস্টেট অ্যাসোসিয়েশনের মতে, ২০২২ সালের শুরু থেকে বাড়ির দাম কমেছে। বাড়ির দাম গড়ে সর্বোচ্চ ৮ লাখ কানাডিয়ান ডলার থেকে কমে ৬ লাখ ৩০ হাজার কানাডিয়ান ডলারে নেমে এসেছে।  এ ছাড়া দেশটির জাতীয় আবাসন সংস্থা কানাডা মর্টগেজ অ্যান্ড হাউজিং করপোরেশন এক প্রতিবেদনে বলেছে, ২০৩০ সালের মধ্যে কানাডায় প্রায় ১ কোটি ৯০ লাখের মতো আবাসন ইউনিট প্রয়োজন হবে। এ ক্ষেত্রে অন্তত ৫৮ লাখ নতুন বাড়ি নির্মাণ করতে হতে পারে। 

নিউজ ট্যাগ: কানাডা

আরও খবর