Logo
শিরোনাম

শরীরে ক্যানসার আছে কি না বুঝে নিন লক্ষণ দেখেই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ক্যানসার হলো এক মারণব্যাধি। প্রাথমিক অবস্থায় ক্যানসার শনাক্ত করা গেলে বেশিরভাগ রোগীই সুস্থ হয়ে ওঠেন সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে। তবে ক্যানসার যদি শরীরে ছড়িয়ে পড়ে তাহলে রোগীর সারভাইভ করার সম্ভাবনা খুব কমই থাকে। তাই ক্যানসার নিয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। জীবনযাত্রায় অনিয়ম, একাধিক শারীরিক সমস্যা কিংবা বংশগত কারণেই বেশিরভাগ মানুষ ক্যানসারে আক্রান্ত হন। এই রোগ থেকে পরিত্রান পাওয়ার একমাত্র উপায় হলো ক্যানসার প্রতিরোধে সজাগ থাকা সবারই।

সাধারণ কিছু শারীরিক সমস্যাও হতে পারে ক্যানসারের মারাত্মক লক্ষণ। অনেকেই জ্বর, ঠান্ডা, কাশি, পেটে ব্যথা, ক্লান্তি, ওজন কমে যাওয়াসহ বেশ কিছু শারীরিক সমস্যাকে অবহেলা করেন। এসব সাধারণ সমস্যাই হতে পারে ক্যানসারের মারাত্মক লক্ষণ। জেনে নিন ক্যানসারের সাধারণ কয়েকটি লক্ষণ সম্পর্কে। যেগুলো দেখা দিলে অবহেলা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ত্বকে সমস্যা: ত্বকের ক্যানসারের লক্ষণ হিসেবে দেখা দেয় ত্বক ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া, নতুন দাগ কিংবা ফুসকুড়ির সমস্যা। এক্ষেত্রে ত্বকে এমন দাগ হতে পারে যা কিছুটা অস্বাভাবিক। এমন কিছু ত্বকে দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

অতিরিক্ত কাশি: এই ক্যানসারের সবচেয়ে সাধারণ ও গুরুতর লক্ষণ হলো কাশি। যারা ধূমপায়ী নন তাদেরও এ লক্ষণটি দেখা দেয়। একই সঙ্গে হাঁপানি, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যাও ফুসফুস সংক্রমণের লক্ষণ। পাশাপাশি রক্ত কাশিও হতে পারে। যা ক্যনসারের মারাত্মক লক্ষণ।

স্তনে পিণ্ড, ব্যথা বা তরল নিঃসরণ: প্রতিবছর বিশ্বের হাজারো নারী স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। স্তনের যে কোনো সমস্যা যেমন- ব্যথা, স্তনবৃন্ত পরিবর্তনসহ কোনো তরল পদার্থ বের হলে দ্রুত চিকিৎসকের শরনাপন্ন হতে হবে। তিনি পরীক্ষা করবেন ও একটি ম্যামোগ্রাম, এমআরআই বা বায়োপসি করার সুপারিশ দেবেন।

পেট ফুলে থাকা: পেলভিক বা নারীর জননাঙ্গের ক্যানসারের উপসর্গগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- পেট ফুলে থাকা, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা, ক্লান্তি, ওজন হ্রাস, পিঠে ব্যথা ইত্যাদি।

প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া: বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষের মধ্যে মূত্রনালির সমস্যা দেখা দেয়। এক্ষেত্রে প্রসাবে জ্বালা-পোড়া, ঘন ঘন প্রসাব হওয়া ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে। এসব লক্ষণ সাধারণভাবে নেবেন না, কারণ এটি হতে পারে প্রোস্টেট ক্যানসারের লক্ষণ।

ঠান্ডা বা গলা ব্যথা: গলায়, বগলসহ শরীরের বেশ কয়েকটি স্থানে শিমের বীজের মতো গ্রন্থি থাকে। যখন এসব গ্রন্থি কোনো কারণে ফুলে ওঠে তখন আপনি ঠান্ডা বা গলা ব্যথায় ভুগতে পারেন। কিছু ক্যানসার যেমন লিম্ফোমা ও লিউকেমিয়ার ক্ষেত্রেও এ ধরনের ফোলাভাব হতে পারে।

রক্তাক্ত মল: স্বাস্থ্যের বিভিন্ন সমস্যার ইঙ্গিত দেয় মলের সঙ্গে রক্ত বের হওয়ার লক্ষণ। হেমোরয়েড বা কোলন ক্যানসারের উপসর্গ হতে পারে রক্তাক্ত মল। একই সঙ্গে প্রস্রাবে রক্ত দেখা দেওয়া মূত্রনালির সংক্রমণ, কিডনি ও মূত্রাশয়ের ক্যানসারের কারণ হতে পারে।

অণ্ডকোষে মাংসপিণ্ড: পুরুষরা যদি অণ্ডকোষের মধ্যে ফোলাভাব দেখতে পান তাহলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। অণ্ডকোষে ব্যথাহীন ফোলাভাব বা মাংসপিণ্ডও কিন্তু টেস্টিকুলার ক্যানসারের সবচেয়ে সাধারণ লক্ষণ।

গিলতে কষ্ট হওয়া: সাধারণত ঠান্ডা, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বা ওষুধ খাওয়ার সময় গিলতে কষ্ট হতে পারে। তবে সব সময়ই যদি গিলতে অসুবিধা বা কষ্ট হয় তাহলে কণ্ঠনালির ক্যানসারে ভুগতে পারেন। এক্ষেত্রে চিকিৎসক বেরিয়াম এক্স-রে করার পরামর্শ দেবেন।

মাসিক ছাড়া রক্তপাতা হওয়া: সব নারীর ক্ষেত্রেই প্রতি মাসে পিরিয়ড হওয়া স্বাভাবিক। তবে শারীরিক সম্পর্ক করার সময় কিংবা অন্য যে কোনো কারণে পিরিয়ড ছাড়াই অধিক রক্তপাতের লক্ষণ দেখা দেওয়া চিন্তার কারণ হতে পারে। জরায়ু বা যোনি ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে এটি।

মুখে ঘা: অনেকেরই মুখে সাদা, লাল দাগ বা ঘা হয়ে থাকে। যা সহজে সারতে চায় না। বিশেষ করে যদি আপনি ধূমপান করেন তাহলে এমন ঘা অবহেলা করবেন না। হতে পারে এটি মুখের ক্যানসারের লক্ষণ। একই সঙ্গে যদি চোয়াল নাড়তে সমস্যা হয় বা মুখে ব্যথা ও দুর্গন্ধ হয়ে থাকে তাহলে দেরি না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ওজন কমে যাওয়া: হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। এটি অগ্ন্যাশয়, পাকস্থলী, খাদ্যনালি, ফুসফুসসহ বিভিন্ন ক্যানসারের প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে।

জ্বর: শারীরিক বিভিন্ন অসুখের প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে দেখা দেয় জ্বর। কিছু ওষুধের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়াতেও এটি হতে পারে। তবে দীর্ঘদিন ধরে জ্বরে ভোগা রক্তের ক্যানসারের কারণ হতে পারে যেমন- লিউকেমিয়া বা লিম্ফোমা।

বদহজম: প্রায়ই কি আপনি বদহজমে ভুগছেন? এটি সাধারণ কোনো সমস্যা নয়। হতে পারে এটি পেটের ক্যানসারের লক্ষণ।

ক্লান্তি: অত্যাধিক ক্লান্তিও ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। লিউকেমিয়ার মতো ক্যানসারের প্রাথমিক লক্ষণ হলো ক্লান্তি। আবার কোলন বা পেটের ক্যানসারের রোগীরাও খুব ক্লান্ত বোধ করেন। তাই দীর্ঘদিন ধরে ক্লান্তিভাব পিছু না ছাড়লে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।


আরও খবর



কদর বেড়েছে সোয়েটার ও গরম কাপড়ের

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলা কার্তিক মাসে নভেম্বরের শুরুতেই প্রকৃতিতে কিছুটা শীতের আগমনী বার্তা পাওয়া যাচ্ছিল। রাতের তাপমাত্রা কমে অগ্রহায়ণের আগমনের সাথে প্রকৃতি জানান দিয়েছে শীত এসেছে। ফলে গ্রামাঞ্চলে সকালে ও রাতে ঠাণ্ডা হিমেল অনুভূতি পাকাপোক্ত হয়েছে। তবে শহরাঞ্চলে পুরোপুরি শীতের দেখা এখনও তেমন পাওয়া যায়নি। কিন্তু শীতের আবহেই রাজধানীর বাজারে কদর বেড়েছে সোয়েটার, জ্যাকেট, রেডিমেড ব্লেজার, শাল চাদর, হুডি, মোটা গেঞ্জিসহ অন্যান্য গরম পোশাকের।

রাজধানীর প্রায় প্রতিটি মার্কেট, বিপনিবিতানসহ ফুটপাতে এখন শীতের গরম কাপড়ের জমজমাট ব্যবসা চলছে। ক্রেতারাও দেখে শুনে নিজের এবং পরিবারের জন্য কেনাকাটা করছেন। অপরদিকে ফ্যাশন সচেতন তরুণ-তরুণীরা সাধ্যানুযায়ী ছুটছেন বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দোকানগুলোতে।

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকার গ্লোব শপিং সেন্টার, নুরজাহান সুপার মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট, নূর ম্যানশন মার্কেট, ধানমন্ডী হকার্স মার্কেট, ঢাকা নিউ সুপার মার্কেট, চন্দ্রিমা সুপার মার্কেটসহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। এদিকে গ্লোব শপিং সেন্টারে দেখা মিলল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া রবিন ও সজিব নামের দুই শিক্ষার্থীর। বিভিন্ন দোকানে দোকানে ঘুরে দেখছিলেন শীতের সোয়েটার এবং জ্যাকেট। তারা বললেন, শীতের পোশাক কিনতে আসিনি। শুধুমাত্র দেখে পছন্দ করতে এসেছি। সাধারণত শীতের জ্যাকেট একবার কেনা হলে পরের এক-দুই  বছর আর কেনা হয় না। তাই দীর্ঘদিন ব্যবহার করা যাবে এবং দেখতেও বেশ সুন্দর হবে এমন একটি জ্যাকেট চাই।

সরেজমিনে ঘুরে আরও দেখা যায়, সাধারণত বিভিন্ন ছোট মার্কেটে ও ফুটপাতে কাপড়ের দাম শুরু হচ্ছে তিনশত টাকা থেকে পাঁচশত টাকায়। আর বড় মার্কেটে জ্যাকেট বা সোয়েটারের দাম সর্বনিম্ন আটশত থেকে পনেরশ টাকার মধ্যে শুরু হচ্ছে। তবে দোকান, ব্র্যান্ড ও কাপড়ের গুণগত মান ভেদে রয়েছে দামের ভিন্নতা ও ফারাক।

নুরজাহান সুপার মার্কেটের জেমি ফ্যাশনের বিক্রেতা জালালুদ্দিন বলেন, এবার আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছি। প্রতি দোকানেই নতুন করে অনেক টাকা লগ্নি করা হয়েছে। এবছর শীত বেশি পড়বে এমন খবরে আগের তুলনায় অনেক পোশাক তোলা হয়েছে। আগের বছরের তুলনায় দামও বেড়েছে প্রায় ২০-৩০ শতাংশ। হাতাওয়ালা টি শার্ট, শীতের টুপি, জ্যাকেট, ডেনিম শার্ট, হুডিসহ বিভিন্ন কালেকশন রয়েছে। ব্র্যান্ডের মধ্যে দোকানে রেড টেপ, সিকে, কেলভিন, পোলো, ডেনিম, ডমির বিদেশি জ্যাকেটগুলো এসেছে।  সর্বনিম্ন দুইহাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ আটহাজার টাকা পর্যন্ত দামের জ্যাকেট এখানে রয়েছে। বেশিরভাগ তরুণই আমার দোকানে ক্রেতা। বেচা-বিক্রি যা হচ্ছে তা নিয়ে মোটামুটি সন্তুষ্ট। তবে শীত বাড়ার সাথে সাথে এর পরিমাণ আরও বাড়বে বলেও প্রত্যাশায় এই বিক্রেতার।

জাইমা ফ্যাশন নামের আরেক দোকানের বিক্রেতা আবুল হোসেন বলেন, আমরা দেশ-বিদেশের বিভিন্ন ধরনের কাপড় সংগ্রহে রেখেছি। যার যার সাধ্যনুযায়ী স্বল্পমূল্যে শীতের কাপড় সংগ্রহ করতে পারবেন। নিউমার্কেটের অধিকাংশ শীতের কাপড়ের দোকানই খুচরা বিক্রির দোকান। এবার বেশি দামেই জ্যাকেট সোয়েটার আনতে হয়েছে। ফলে খুচরা বাজারেরও কিছুটা প্রভাব পড়েছে। শুধু ছেলেদের উপযোগী শীতের পোশাকই নয় বরং মেয়েদের জন্যও রাখা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের কালেকশন। সালোয়ার কামিজের সাথে পরার জন্য রয়েছে লং জ্যাকেট, পঞ্চ, মোটা কাপড়ের টপস ও কার্ডিগেন। শাড়ির সাথে পড়ার জন্য রয়েছে পাতলা শালের চাদর, ফুলস্লিভ ব্লাউজসহ বিভিন্ন হাতা কাটা সোয়েটার। রয়েছে পশমী বা উলের তৈরি ট্রাউজারও।

অপরদিকে এখন মার্কেটে যেসব ক্রেতারা আসছেন তাদের মধ্যে অধিকাংশই গ্রামের পরিবার-পরিজন কিংবা প্রিয়জনদের জন্যই কেনাকাটা করছেন। শামীম হোসেন নামের এক ক্রেতার সাথে কথা বলে জানা গেল, ছুটিতে গ্রামের বাড়ি পঞ্চগড় যাবেন। তাই বাবা-মা ও পরিবার পরিজনদের জন্য শীতের কাপড় কিনেছেন তিনি।

তহুরা খাতুন নামের আরেক ক্রেতা বলেন, শীত মাত্রই শুরু হচ্ছে। তাই সোয়েটার আর জ্যাকেটের চাহিদা বেশি। বিক্রেতারা ঠিক এই সুযোগটাই নিচ্ছেন। আগের তুলনায় অনেক বেশি দাম চাইছেন তারা। ছোট বাচ্চাদের সোয়েটার যেগুলো গতবছর চারশ-পাঁচশ টাকায় পাওয়া যেত সেগুলো এখন আটশ-বারশো টাকা দাম চাইছেন। আর জ্যাকেটগুলোর দাম তো আরও বেশি। শীত বাড়ার সাথে সাথে হয়তো দাম কিছুটা কমে আসবে। আর ঢাকায় তেমন ঠান্ডা পড়েও না। গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে যাবো তাই বাচ্চাদের জন্য কিছু শীতের পোশাক নিয়ে নিচ্ছি।


আরও খবর

আপনার আজকের দিন- ৩০ নভেম্বর, ২০২২

বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২

আজকের রাশিফল!

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২




অবশেষে ঢাকায় আসছেন নোরা ফাতেহি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সব জল্পনা-কল্পনার পর অবশেষে ঢাকায় আসছেন ভারতীয় অভিনেত্রী নোরা ফাতেহি। তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে ঢাকায় আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, মন্ত্রণালয় শিল্পীর আগমনের অনুমতি দিয়েছে, যা বাংলাদেশে নারী ক্ষমতায়ন শীর্ষক গ্লোবাল অ্যাচিভারস অ্যাওয়ার্ডের একটি ডকুমেন্টারি শুটিংয়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এজন্য আবেদন করেছিল উইমেন লিডারশিপ করপোরেশন।

এ বিষয়ে উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের সভাপতি ইশরাত জাহান মারিয়া বলেন, নোরা ফাতেহি আমাদের একটি ডকুমেন্টারির শুটিংয়ে অংশ নেবেন। আমাদের একটি অনুষ্ঠান আছে সেটিতে তিনি থাকবেন। মূলত মন্ত্রণালয়ের কাছে সেভাবেই আমরা অনুমতি চেয়েছি। মন্ত্রণালয় আমাদের সেভাবেই অনুমতি দিয়েছে। ১৮ নভেম্বর নোরা ফাতেহিকে নিয়ে আমাদের অনুষ্ঠানটি যথা সময়ে হবে। তবে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী এর বাইরে কোনো অনুষ্ঠানে তিনি অংশ নিতে পারবেন না।

এর আগে নোরা ফাতেহির ঢাকার মঞ্চে নাচার সব প্রস্তুতি শেষ হলেও অনুমতি দেয়নি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। ১৭ অক্টোবর এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তার বাংলাদেশ সফরের অনুমতি বাতিল করেছিল মন্ত্রণালয়। উপসচিব মোহাম্মদ খালেদ হোসেনের সই করা এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানানো হয়, দেশে বৈদেশিক মুদ্রার মজুত সুসংহত রাখতে নোরা ফাতেহিকে ঢাকায় আসার অনুমতি দেওয়া যাচ্ছে না।

নিউজ ট্যাগ: নোরা ফাতেহি

আরও খবর



হাসপাতালে আরও ৩৬৬ ডেঙ্গুরোগী

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি। তবে একই সময়ে আরও ৩৬৬ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ডেঙ্গুবিষয়ক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ২১০ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ঢাকার বাইরে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১৫৬ জন।

এ নিয়ে বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে এক হাজার ৮৩৭ জন ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৫০টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন এক হাজার ৮৪ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৭৫৩ জন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে ২৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও মোট ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬ হাজার ৪৯৬ জনে।


আরও খবর



ঘোষণা হল ১৭তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার তারিখ

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) ১৭তম নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেছে। আজ সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্কুল-২ ও স্কুল পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। আর কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত।

২০২০ সালের ২৩ জানুয়ারি শিক্ষক নিবন্ধনের ১৭তম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এতে আবেদন করেন ১১ লাখ ৭২ হাজার ২৮৬ জন। ওই বছরের ১৫ মে প্রিলিমিনারির তারিখ ঘোষণা করা হয়। তবে করোনার কারণে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।

১৭তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা তিন ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথমে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের দ্বিতীয় ধাপে লিখিত পরীক্ষা হবে। শেষ ধাপে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হবে।


আরও খবর



কাপড় থেকে দাগ তোলার ৩ উপায়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ নভেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পছন্দের পোশাকটিতে দাগ পড়ে গেলে মন খারাপ হওয়া খুবই স্বাভাবিক। কারণ বেশিরভাগ দাগই একবার বসে গেলে আর উঠতে চায় না। তাই বলে কাপড়টি বাতিল করে দেবেন? একদমই না। মাংসের ঝোল, কফি কিং বা চায়ের দাগ, চকোলেটের দাগ- যা-ই হোক না কেন তুলে ফেলার আছে সহজ কিছু উপায়। লন্ড্রিতে না গিয়ে বাড়িতেই তুলে ফেলতে পারবেন কাপড়ের নাছোড়বান্দা দাগ। তাই বেখেয়ালে কাপড়ে দাগ পড়লেও মন খারাপ করবেন না। বরং উপায় জেনে নিয়ে নিজেই পরিষ্কার করতে পারবেন। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কাপড়ে হঠাৎ দাগ পড়ে গেলে তা তোলার ৩টি উপায়-

ট্যালকম পাউডার ব্যবহার: পোশাকে তেল-ঝোলের দাগ পড়লে তা তোলার জন্য ব্যবহার করুন ট্যালকম পাউডার। যেখানে দাগ পড়েছে সেখানটাতে ট্যালকম পাউডার ভালো করে ছড়িয়ে দিন। এবার কাপড়ের সেই অংশের ঠিক নিচের দিকে একটি ব্লটিং পেপার রাখুন। আরও কিছুটা পাউডার নিন। এবার দাগের জায়গাটিতে ভালো করে ঘষে দিন। এতে দাগ অনেকটাই উঠে যাবে। এরপর কাপড়ে লেগে থাকা হলদে দাগ তোলার জন্য পানিতে ডিটারজেন্ট মিশিয়ে দাগের উপর মাখিয়ে দিন। এভাবে শুকাতে দিন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে কাপড়ের দাগ উঠে যাবে ।

ভিনেগার ও মুলতানি মাটি: কাপড়ের দাগ তোলার জন্য অন্যতম একটি উপায় হলো ভিনেগার ও মুলতানি মাটির ব্যবহার। এই দুই উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এটি কাপড়ের যেকোনো দাগ তোলার জন্য দারুণ কার্যকরী। এবার মিশ্রণটি কাপড়ে যেখানে দাগ পড়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন। এভাবে কিছুক্ষণ রেখে দিন। শুকিয়ে গেলে ভেজা কাপড় দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন।

অ্যামোনিয়া সলিউশন: আপনার পোশাকে যদি চকোলেটের দাগ লেগে যায় তবে তার তোলার অন্যতম ভালো উপায় হলো অ্যামোনিয়া সলিউশন ব্যবহার। কাপড়ে চকোলেট লেগে গেলে প্রথমে ভালো করে শুকিয়ে যাওয়া চকোলেট ঝেড়ে ফেলুন। এর ৫ মিনিট পর অ্যামোনিয়া সলিউশন এক ফোঁটা এক ফোঁটা করে দাগের উপর ফেলুন। এরপর অন্য একটি কাপড় দিয়ে দাগের উপর ঘষুন। কিছুক্ষণ পর ভালো করে ধুয়ে নিন।

নিউজ ট্যাগ: লন্ড্রি

আরও খবর

আপনার আজকের দিন- ৩০ নভেম্বর, ২০২২

বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২

আজকের রাশিফল!

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২