Logo
শিরোনাম

সড়ক বিভাগের গাড়িতে মাদক, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী বরখাস্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সরকারি গাড়িতে ফেনসিডিল বহনের অভিযোগে গাজীপুর সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোসা. ফেরদৌস বেগমকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। একইসঙ্গে গাড়ির চালক মো. খোকন আহমেদকে অপসারণ ও তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও ওই ঘটনায় নির্বাহী প্রকৌশলী মো: শরীফুল আলমকে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার পরিচয় দেওয়ার অভিযোগে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে সোমবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, গত ১৯ আগস্ট ১৩১ বোতল ফেনসিডিল বহনকালে গাজীপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর নামে রেজিষ্ট্রেশনকৃত সরকারি গাড়ি কুমিল্লা জেলায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কর্তৃক আটক হয়। গাড়িটি গাজীপুর সড়ক উপ-বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোসা. ফেরদৌস বেগম সরকারি বাহন হিসেবে ব্যবহার করেন।

মাদক বহনকালে গাড়ি আটকের সংবাদ ২২ আগস্ট (সোমবার) একটি বেসরকারী টেলিভিশনের (যমুনা টেলিভিশন) সংবাদে প্রচার হয়। অনুমতি ব্যতীত জেলার বাইরে গাড়ি চালানোর বিষয়টি এ পর্যন্ত কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়নি। এতে প্রতীয়মান হয়, মোসা. ফেরদৌসী বেগম এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। যা সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ এর ২ (খ) অনুযায়ী অসদাচরণের সামিল। তদন্ত শেষে প্রমাণিত হলে ৩ (খ) ও ৪ (৩) অনুযায়ী গুরুদণ্ড আরোপযোগ্য।

একই দিন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ শের মাহমুদ মুরাদ স্বাক্ষরিত একটি পত্রে বলা হয়েছে, কর্মস্থলের বাইরে কুমিল্লা জেলায় মাদক বহনকালে নিয়ন্ত্রণাধীন সরকারি গাড়ি ও তার চালক আটক হওয়ায় সংশ্লিষ্ট অফিসের প্রধান হিসেবে নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব পালনে তিনি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।

এমতাবস্থায় সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ অনুযায়ী কর্তব্য পালনে অবহেলা প্রদর্শনের কারণে ২ (খ) অনুযায়ী অসদাচরণের অভিযোগে কেন তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে না-এ জন্য আগামী সাত দিনের মধ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে কারণ দর্শানোর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও একই দিন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ শের মাহমুদ মুরাদ স্বাক্ষরিত অপর একটি পত্রে বলা হয়েছে, নির্বাহী প্রকৌশলী সড়ক বিভাগ, গাজীপুরের নামে রেজিষ্ট্রেশনকৃত গাড়িতে (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-২৮৪৫) ১৩১ বোতল ফেনসিডিলসহ গত ১৯ আগস্ট (শুক্রবার) কুমিল্লা জেলায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কর্তৃক আটক হয়।

গাড়িটির চালক মো. খোকন আহমেদ কুমিল্লায় সরকারি গাড়িটিতে মাদক বহনকালে আটক হন। উল্লেখিত গাড়ি চালক সরকারি কর্মচারি নন এবং শ্রমিক মজুরি কোডে নিয়োজিত আছেন। এমতাবস্থায় শ্রমিক মজুরী কোডে নিয়োজিত মো. খোকন আহমেদকে অপসারণ ও তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।

 


আরও খবর



আমির খানকে অনুসরণ করতে গিয়ে হাসপাতালে পাকিস্তানি নায়ক!

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অভিনয় জগতে অনেকেই বলিউডের মি. পারফেকশনিস্ট’ আমির খানকে অনুসরণ করে। এর ব্যতিক্রম ঘটেনি পাকিস্তানের অভিনেতাদের ক্ষেত্রেও। তবে আমিরের পথে হাঁটতে গিয়ে একেবারে হাসপাতালেই ভর্তি হন পাকিস্তানের জনপ্রিয় অভিনেতা ফাওয়াদ খান।

ফাওয়াদ খানের নতুন ছবি দ্য লেজেন্ড অব মৌলা জাট’-এ অভিনয়ের জন্য নিজের চেহারা নিয়ে অনেক কঠিন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন এই অভিনেতা। চরিত্রের প্রয়োজন অনুযায়ী চেহারা তৈরি করতে গিয়ে শেষমেষ আর ঝক্কি সামলাতে পারেননি তিনি। ভর্তি হন হাসপাতালে।

পাকিস্তানি অভিনয়শিল্পী হলেও বলিউডের একাধিক ছবিতে কাজ করা ফাওয়াদ খান সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন, নিজের জন্য যা করলাম, তা মোটেই ঠিক হয়নি। কখনোই এমনটা আর করব না।’

নতুন ছবির জন্য পেশিবহুল চেহারার প্রয়োজন ছিল। তাই ফাওয়াদের ওজন বাড়াতে হয় ২৫ কেজির মতো। ডায়াবেটিসের সমস্যা থাকায় এই অভিনেতার পক্ষে ওজন বাড়ানোটা বেশ কষ্টসাধ্য ছিল।

ফাওয়াদের ভাষায়, আমি ক্রিশ্চিয়ান বেল নই। আমির খানও নই আমি। উনারা যেটা করেন, সেটা করতে চেষ্টা করেছিলাম। এতে আমাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। কারণ আমার কিডনি কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছিল।’

বেশ কিছুদিন হাসপাতালে থাকার পরও এই অভিনেতার পুরোপুরি তিন মাস সময় লেগেছিল। চিকিৎসক ধীরে ধীরে হাঁটা আর দুশ্চিন্তা না করার পরামর্শ দিয়েছিলেন, যা এখনও মেনে চলছেন এই অভিনেতা। তাই আগামী দিনে এই পথে আর পা বাড়াতে চান না পাকিস্তানি অভিনয়শিল্পী ফাওয়াদ খান।


আরও খবর

দুরন্তপনার ৫ বছর

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




নৌকাডুবিতে পঞ্চগড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮ জনে দাঁড়িয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত আরও ১৮ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়। এর মধ্যে জেলার আওলিয়ার ঘাট এলাকা থেকে দুই জনের, দেবীগঞ্জের করতোয়া ঘাট এলাকা থেকে চার জনের, সালডাঙ্গা ইউনিয়নের করতোয়া নদী থেকে তিন জনের ও দিনাজপুরের একটি নদী থেকে দুই জনের মরদেহ উদ্ধার হয়।

এর আগে রোববার নৌকিডুবির পর ২৫ জনের আর সোমবার আরও ২৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। নৌকাডুবির ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান পঞ্চগড় জেলার অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট দীপঙ্কর রায় এ পর্যন্ত ৬৮ জনের মরদেহ উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া ৪ জন এখনো নিখোঁজ আছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

পঞ্চগড় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী উপ পরিচালক শেখ মো. মাহাবুবুল আলম মঙ্গলবার সকালে সমকালকে বলেন, সকাল থেকে পঞ্চগড় এবং আশপাশের জেলার আটটি ফায়ার সার্ভিস ইউনিট উদ্ধার কাজ করছে। এর বাইরে রংপুর, কুড়িগ্রাম এবং রাজশাহী থেকে তিনটি ডুবুড়ি দলে মোট ৯ জন উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছেন।  এখন পর্যন্ত ৬৬ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আরও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

এদিকে মর্মান্তিক এই নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজের স্বজনরা মঙ্গলবার ভোর থেকেই ঘটনাস্থল করতোয়ার আওলিয়ার ঘাট ও এর আশপাশে নিজ উদ্যোগে তাদের নিখোঁজ স্বজনদের খোঁজ করছেন।

রোববার দুপুরে বোদা বদ্বেশ্বরী মন্দিরে মহালয়া উৎসব উৎযাপন করতে শতাধিক সনাতন ধর্মাবলম্বী মাড়েয়া এলাকা থেকে বদ্বেশ্বরী মন্দিরে যাচ্ছিলেন। ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী ওঠানোর জন্য আওলিয়া ঘাটের করতোয়া নদীর মাঝে যাত্রীসহ ডুবে যায় নৌকাটি।


আরও খবর



নায়িকা শিমু হত্যায় স্বামী ও বন্ধুর বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুকে খুনের মামলায় স্বামী খন্দকার সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বন্ধু এসএমওয়াই আবদুল্লাহ ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। রবিবার ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব হাসান এ অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন।

অভিযোগপত্র গ্রহণসংক্রান্ত শুনানির জন্য রবিবার দিন ধার্য ছিল। মামলার বাদীর কোনো আপত্তি না থাকায় শুনানি শেষে আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করে মামলা বিচারের জন্য প্রস্তুত হয়েছে বলে আদেশ দেন। নথি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিচারের জন্য নথিটি ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে পাঠাবেন। এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. শহীদুল ইসলাম দুজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে, পারিবারিক কলহের জের ধরে চিত্রনায়িকা শিমুকে খুন করেন তার স্বামী নোবেল। আর এই খুনে প্রত্যক্ষভাবে সহযোগিতা করেন তার বন্ধু ফরহাদ।

অভিযোগপত্র আরও বলা হয়েছে, হত্যাকাণ্ডের আলামত নষ্ট করতে নোবেলকে সহায়তাও করেছেন তার বন্ধু ফরহাদ। অভিনেত্রী শিমু কলাবাগানের বাসা থেকে নিখোঁজ হওয়ার পর গত ১৭ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জের হযরতপুর ব্রিজের কাছে তার বস্তাবন্দি লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনার পর শিমুর ভাই হারুনুর রশিদ বাদী হয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় তার স্বামী নোবেল ও বন্ধু এসএমওয়াই ফরহাদসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ডে নেয়। পরে তারা পৃথক ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দিয়ে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে নোবেল বলেন, ঝগড়ার পর তিনি তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। নোবেল সারা রাত লাশের সঙ্গেই ছিলেন এবং পর দিন সকালে তার বন্ধু ফরহাদকে গ্রিন রোডের বাড়িতে ডাকেন। পরে বন্ধুর সহায়তায় নোবেল কেরানীগঞ্জে লাশ ফেলে দেন।


আরও খবর

দুরন্তপনার ৫ বছর

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা জ্যঁ লুক গদার আর নেই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিংবদন্তি ফরাসি-সুইস চলচ্চিত্র নির্মাতা, চিত্রনাট্যকার ও চলচ্চিত্র সমালোচক জ্যঁ লুক গদার আর নেই। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। জ্যঁ লুক গদারের পরিবার জানিয়েছে, শান্তিপূর্ণভাবে নিজ বাসায় তার মৃত্যু হয়েছে। তার শেষকৃত্যে আনুষ্ঠানিক কোনো আয়োজন করা হবে না।

১৯৬০ এর দশকে ফ্রান্সে নতুন ধারার চলচ্চিত্র নির্মাণে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জ্যঁ লুক গদার। যুদ্ধোত্তর কালের সবচেয়ে প্রভাবশালী চলচ্চিত্র নির্মাতাদের একজন জ্যঁ লুক গদার। চলচ্চিত্রের কাহিনী বর্ণনা, ধারাবাহিকতা, শব্দ ও ক্যামেরার কাজ নিয়ে নিরীক্ষা চালিয়েছিলেন তিনি। তার এই নিরীক্ষা অন্যদেরও প্রভাবিত করেছে।

বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চলচ্চিত্র নির্মাণের গৎবাঁধা নিয়ম থেকে বেরিয়ে নতুন স্টাইলে চলচ্চিত্র নির্মাণের আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন জ্যঁ লুক গদার। এই ক্ষেত্রে তার যুগান্তকারী একটি সিনেমা হলো ‌ব্রেথলেস। প্রায় শতাধিক সিনেমা নির্মাণের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি।

নতুন ধারার চলচ্চিত্র নির্মাণে জ্যঁ লুক গদার যে কাঠামো দাঁড় করিয়েছিলেন তাতে প্রভাবিত হয়েছিলেন কুইন্টিন তারান্তিনো থেকে মার্টিন স্করসিসের মতো খ্যাতনামা চলচ্চিত্র নির্মাতারা।

নিউজ ট্যাগ: জ্যঁ লুক গদার

আরও খবর

দুরন্তপনার ৫ বছর

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




আর্মেনিয়ায় আজারবাইজানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা : নিহত ৫০

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিতর্কিত নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলের দখলদারি নিয়ে আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার বিরোধী ফের জড়াল রক্তক্ষয়ী সীমান্ত সংঘর্ষে। মঙ্গলবার ভোররাতে আর্মেনিয়ার ছটি সেনাঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে আজারবাইজান। আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনয়ান জানিয়েছেন, সে দেশের ৫০ জন সেনা আজারবাইজানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হয়েছেন।

আর্মেনিয়া সেনা আজারবাইজানের আগ্রাসনের সমুচিত জবাবদিতে তৈরি বলেও জানিয়েছেন নিকোল। বস্তুত, আজারবাইজানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরে সীমান্তে প্রত্যাঘাতের চেষ্টাও করেছে আমের্নিয়ার ফৌজ। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের আবহেই সাবেক সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রের আরও দুই দেশের দ্বন্দ্ব এ বার পুরোদস্তুর যুদ্ধের রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজানের পাশে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছে তুরস্ক।

বিতর্কিত নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলের দখল নিয়ে ২০২০ সালে দুদেশের যুদ্ধে প্রায় সাড়ে ছহাজার মানুষ নিহত হয়েছিলেন। সে সময় মস্কোর মধ্যস্থতায় সংঘর্ষ বিরতি হয়েছিল। কিন্তু এ বার ইউক্রেন সমস্যায় ব্যতিব্যস্ত ভ্লাদিমির পুতিনের পক্ষে সেই ভূমিকা নেওয়া সম্ভব হয় বলেই কূটনীতি বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন। যদিও নিকোল মঙ্গলবার বলেন, আমরা আশাবাদী, এ বারও রাশিয়া মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা নেবে।

৪,৪০০ বর্গকিলোমিটারের নাগোরনো-কারাবাখের অধিকার নিয়ে আর্মেনিয়া-আজাবাইজান মতবিরোধের সূচনা ১৯৮৮ সালে। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর সদ্যস্বাধীন দুই দেশের মতবিরোধ গড়ায় সামরিক সঙ্ঘাতে। সোভিয়েত জমানায় আজারবাইজানের অন্তর্ভুক্ত এই অঞ্চলের প্রায় দেড় লক্ষ বাসিন্দার অধিকাংশই আর্মেনীয় খ্রিস্টান। তাঁরা আজারবাইজানের অধীনে থাকতে নারাজ।

১৯৯৪ সালের লড়াইয়ের পর থেকে তা আর্মেনিয়ার মদতে পুষ্ট মিলিশিয়া গোষ্ঠী আর্টসাক ডিফেন্স আর্মি দখলে ছিল। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ওই অঞ্চল দখল করতে অভিযান শুরু করেছিল আজারবাইজান ফৌজ। প্রাথমিক ভাবে তাদের সঙ্গে সেখানকার সংখ্যাগরিষ্ঠ আর্মেনীয় বাসিন্দাদের মিলিশিয়া বাহিনী আর্টসাক ডিফেন্স আর্মির সংঘর্ষ বাধে। এর পর যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে আর্মেনিয়া ফৌজও। কিন্তু দেড় মাসের যুদ্ধে নাগোরনো-কারাবাখের বিস্তীর্ণ অংশ দখল করে নিয়েছিল আজারবাইজান সেনা। সামরিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ মনে করছেন, এ বার তুরস্কের মদতে পুরো এলাকা দখল করতে সক্রিয় তারা।

 


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২