Logo
শিরোনাম

সরকারি এলপিজির দাম বাড়াতে চায় বিপিসি

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ১২ কেজি তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) মূল্য বর্তমানে যেখানে ১ হাজার ২৪২ টাকা, সেখানে সরকারি প্রতিষ্ঠান এলপি গ্যাস লিমিটেডের (এলপিজিএল) সাড়ে ১২ কেজির এলপিজির মূল্য গ্রাহক পর্যায়ে ৫৯১ টাকা। তবে এর সুফল পায় না গ্রাহক। সিন্ডিকেট, ক্রস ফিলিং করে বেসরকারি কোম্পানির সিলিন্ডারে নিয়ে বিক্রিসহ রয়েছে নানান অভিযোগ। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) বলছে, সরকারি পর্যায়ের এ এলপিজির দাম বাড়ালে রাষ্ট্রীয় অর্থ অপচয় কমবে।

প্রতিযোগিতামূলক বাজারে অপেক্ষাকৃত অর্ধেকের চেয়েও কমে এলপিজি বিক্রি করে দীর্ঘদিন ধরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সরকারি প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে ক্ষতি পোষাতে নিজেদের সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম বাড়িয়ে এক হাজার টাকা করার জন্য বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনকে (বিইআরসি) প্রস্তাব দিয়েছে এলপিজিএল। গত মে মাসে দেওয়া ওই চিঠিতে চারটি বিকল্প প্রস্তাবও দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

এলপিজিএল কর্তৃপক্ষ বলে আসছে, আগে সরকারি এলপি গ্যাসের মূল্য বিপিসি নির্ধারণ করলেও ২০২১ সালের এপ্রিল থেকে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মতো সরকারি এলপিজির মূল্যও নির্ধারণ করে আসছে বিইআরসি। বিইআরসি বেসরকারি বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানের এলপিজির দাম সৌদি কার্গো প্রাইসের (সিপি) ওপর নির্ধারণ করে। অন্যদিকে এলপিজিএলের বোতলজাত গ্যাস আমদানি করতে হয় না বলে স্থানীয় মূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দাম নির্ধারণ করে বিইআরসি। ২০২১ সালের ১২ এপ্রিল থেকে এলপিজিএলের সাড়ে ১২ কেজি গ্যাসের মূল্য ভোক্তা পর্যায়ে ৫৯১ টাকা নির্ধারণ করে। বর্তমানে ওই দর বলবৎ থাকলেও ভোক্তা পর্যায়ে সেই সুফল পৌঁছায় না। অন্যদিকে এ মূল্য নির্ধারণ করার সময় বিপণন কোম্পানি পদ্মা, মেঘনা, যমুনা অয়েলের সমান পরিবহন ব্যয় (ফ্রেইটপুল চার্জ) এবং কমিশন নিয়ে এলপিজিএলের সঙ্গে টানাপোড়েনও তৈরি হয়।

জানা যায়, এলপিজি তৈরির মূল উপাদান প্রোপেন ও বিউটেন বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়। প্রতি মাসে এলপিজির এই দুই উপাদানের মূল্য প্রকাশ করে সৌদি আরামকো। এটি কার্গো মূল্য (সিপি) নামে পরিচিত। এই সৌদি সিপি ভিত্তিমূল্য ধরে দেশে এলপিজির দাম সমন্বয় করেছে বিইআরসি। ৩৫:৬৫ হিসাবে প্রোপেন ও বিউটেনের মিশ্রণ হিসেবে গড় মূল্য নির্ধারণ করা হয়। চলতি মাসে (জুন) সৌদি আরামকোর প্রতি টন প্রোপেন ও বিউটেন ছিল ৭৫০ ডলার করে। এর আগে গত এপ্রিল মাসে সর্বোচ্চ দর ওঠে এলপিজির। ওই মাসে প্রতি টন প্রোপেন ৯৪০ ডলার এবং বিউটেন ৯৬০ ডলার হিসেবে বিক্রি হয় এলপিজি। এদিকে দেশে ভোক্তা পর্যায়ে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের এলপিজির মূল্য প্রতি মাসের শুরুতে নির্ধারণ করে বিইআরসি। ২০২১ সালের এপ্রিল থেকে এ দর নির্ধারণ করে আসছে বিইআরসি। সবশেষ গত ২ জুন বেসরকারি ১২ কেজির এলজিপির মূল্য ১ হাজার ২৪২ টাকা নির্ধারণ করে। এর আগে গত এপ্রিল মাসে আন্তর্জাতিক বাজারে ঊর্ধ্বমুখী দরের কারণে এখানেও ১২ কেজি এলপিজির মূল্য সর্বোচ্চ ১ হাজার ৪৩৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়। পরে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলে দেশেও সমন্বয় করা হয়।

বিপিসি সূত্রে জানা যায়, সরকারি প্রতিষ্ঠান এলপি গ্যাস লিমিটেডে উৎপাদিত গ্যাসের মূল্য আগে নির্ধারণ করতো অভিভাবক প্রতিষ্ঠান বিপিসি। গত বছর সরকারি নির্দেশে এলপিজির দাম নির্ধারণ করছে বিইআরসি। সবশেষ ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে বিপিসি প্রতি সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম নির্ধারণ করে ৬শ টাকা। কিন্তু সরকারি সিদ্ধান্তে ২০২১ সালের ১২ এপ্রিল প্রথমবারের মতো ভোক্তা পর্যায়ে সাড়ে ১২ কেজির সিলিন্ডার ৫৯১ টাকা খুচরা মূল্য নির্ধারণ করে দেয় বিইআরসি। ভোক্তা পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৫৯১ টাকায় বিক্রির কথা থাকলেও খোদ এলপিজিএল কার্যালয়ের গেটেই ৮০০-৮৫০ টাকায় বিক্রির তথ্য চাউর হয়। এ কারণে গত বছরের মাঝামাঝি প্ল্যান্ট গেটে ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজি বিক্রি বন্ধ করে দেয় এলপিজিএল।

এলপিজিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু হানিফ স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে বলা হয়, ভোক্তা পর্যায়ে ৫৯১ টাকা মূল্য নির্ধারণের সময় ব্যয় বিভাজনে এলপি গ্যাস লিমিটেডের প্রদত্ত ছক অনুসরণ না হওয়ায় এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারের রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামত এবং সিলিন্ডারের অবচয় বাবদ ব্যয় বাদ পড়ায় এলপি গ্যাস লিমিটেড আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিপিসির অধীন এলপিজি বহনকারী কোম্পানির মার্জিন ও সমান পরিবহন ভাড়া (ফ্রেইটপুল) হ্রাস করায় বিপণন কোম্পানিগুলোও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। এছাড়া বর্তমান পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক বাজারে ক্রুড অয়েল ও এলপিজির মূল্য বৃদ্ধি, এলপিজিএলের উৎপাদন ও প্রশাসনিক ব্যয় বৃদ্ধি, বিপণনকারী কোম্পানি পদ্মা, মেঘনা, যমুনা অয়েলের প্রশাসনিক ব্যয় বৃদ্ধি এবং কোম্পানিগুলোর বিক্রয় কমিশন ও সমান পরিবহন ভাড়া (ফ্রেইটপুল) বৃদ্ধি বিবেচনায় সরকারি পর্যায়ে এলপি গ্যাসের ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য বৃদ্ধি করা জরুরি প্রয়োজন।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়, বিপিসি আমদানিকৃত ক্রুড অয়েলের মূল্যসহ সব ব্যয় বিবেচনায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য নির্ধারিত এলপি গ্যাসের মূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সরকারি পর্যায়ে এলপি গ্যাসের বিদ্যমান ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য ৫৯১ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা নির্ধারণ করা প্রস্তাব করা হলো। এছাড়া বিপণন কোম্পানিগুলোর সঙ্গে সৃষ্ট জটিলতা উত্তরণে এলপিজিএল ও বিপণন কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে নতুন মূল্য কাঠামো নির্ধারণেরও প্রস্তাব করা হয়। আবার মূল্য বাড়িয়ে মূল্য কাঠামোতে ব্যয় বিভাজন নির্ধারণের জন্য বিপিসিকে দায়িত্ব দেওয়ারও প্রস্তাব করা হয় চিঠিতে।

এ ব্যাপারে এলপিজিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু হানিফ বলেন, বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। জ্বালানি বিক্রিতে হাজার হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। কিন্তু ক্রুড অয়েল পরিশোধন থেকে উপজাত হিসেবে পাওয়া এলপিজি কম দামে বিক্রির কারণে সরকার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অপচয় হচ্ছে রাষ্ট্রের অর্থ। আবার এলপিজির মূল্য নির্ধারণের পর ব্যয় বিভাজন নিয়েও বিপণন কোম্পানিগুলোর সঙ্গে জটিলতার তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে ফ্রেইটপুল চার্জ ও কমিশন নিয়ে বিপণনকারী প্রতিষ্ঠান পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েলের সঙ্গে জটিলতা তৈরি হয়েছে। কিন্তু বিইআরসির নির্দেশনা ছাড়া এসব সমস্যার সমাধান করা যাচ্ছে না। যে কারণে এলপিজির দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বর্তমানে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ১২ কেজির এলপিজি ১২শ টাকার বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। সেখানে আমাদেরগুলো ভোক্তা পর্যায়ে ৫৯১ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। দাম বাড়ানো হলে রাষ্ট্রীয় সম্পদের অপচয় কমবে।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিপিসির এক কর্মকর্তা বলেন, দেশের কোথাও এলপিজিএলের এলপিজির সিলিন্ডার ৫৯১ টাকায় বিক্রি হয় না। গত মে মাসে চট্টগ্রামের চন্দনাইশে একটি গোডাউনে এলপিজিএলের সিলিন্ডার থেকে ক্রস ফিলিং করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সিলিন্ডারে ভর্তি করার সময় স্থানীয় প্রশাসন ধরে ফেলেছে। এসব অনিয়মে পদ্মা, মেঘনা, যমুনার ডিলার সিন্ডিকেট জড়িত। এতে ৫৯১ টাকার সুফল সিন্ডিকেট খেয়ে ফেলছে, ভোক্তারা পাচ্ছেন না। দাম বাড়ানো হলে এসব অনিয়ম দূর হবে।

নিউজ ট্যাগ: এলপিজি

আরও খবর



ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রাঙামাটিতে সাংবাদিক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রাঙামাটিতে সাংবাদিক ফজলে এলাহীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় রাঙামাটি শহরের এডিসি হিলের নিজের বাসা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার সকালে তাঁকে আদালতে তোলা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার করতে যাওয়া কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক সাগর বলেন, ঊর্ধ্বতন মহলের নির্দেশে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি হিসেবে ফজলে এলাহীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন বলেন, চট্টগ্রাম সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতের ওয়ারেন্টের প্রেক্ষিতে দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক ফজলে এলাহীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে মামলার বিষয়ে তিনি তাৎক্ষণিক বিস্তারিত জানাতে পারেননি।

রাঙামাটি জেলা পুলিশ সুপার মীর মোদ্দাচ্ছের হোসেন এ বিষয়ে বলেন, মামলার বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানি না। আদালত থেকে একটি ওয়ারেন্টের প্রেক্ষিতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সাংবাদিক ফজলে এলাহী জাতীয় গণমাধ্যমে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম ও পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডটকমেরও সম্পাদক।

রাঙামাটির সাবেক সংরক্ষিত সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু এবং তার মেয়ে নাজনীন আনোয়ারের বিরুদ্ধে স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে ফজলে এলাহীর বিরুদ্ধে থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ অভিযোগ দুটি তদন্তের অনুমতি চাইলে আদালত সেই অনুমতি প্রদান করেছেন। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম সাইবার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে একটি ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হয়।


আরও খবর



নাম পাল্টে তুরস্ক হলো ‘তুর্কিয়ে’

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাতিসংঘে এখন থেকে তুর্কিয়ে’ নামেই পরিচিতি পাবে তুরস্ক। নাম বদলের জন্য আঙ্কারার অনুরোধে জাতিসংঘ রাজি হওয়ায় দেশটি এই নতুন নাম পাচ্ছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান গত বছরই দেশের নতুন নামকরণ নিয়ে প্রচার শুরু করেছিলেন। এর আওতায় এখন অন্য আরও কয়েকটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানকে তুরস্কের নাম বদলানোর অনুরোধ জানানো হবে।

গত বছর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছিলেন, তুর্কিয়ে নামটিই সবচেয়ে ভালোভাবে তুর্কি জাতির সংস্কৃতি, সভ্যতা ও মূল্যবোধের পরিচয় বহন করে।”

জাতিসংঘ জানিয়েছে, তারা এ সপ্তাহে তুরস্কের কাছ থেকে নাম বদলের আনুষ্ঠানিক অনুরোধ পাওয়ামাত্রই পরিবর্তনের কাজটি সেরে ফেলেছে।

বিবিসি জানায়, তুরস্কের বেশিরভাগ মানুষ ইতোমধ্যে তাদের দেশের নাম তুর্কিয়ে বলেই জানে। তারপরও ইংরেজি টার্কি নামটিই ব্যাপকভাবে ব্যবহার হয়ে আসছে, এমনকী খোদ তুরস্কেও এ নাম ব্যবহার হচ্ছে।

গতবছর নাম বদলের প্রস্তাব ঘোষণা হওয়া মাত্র তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম চট করেই নাম পরিবর্তন করে ফেলেছে। তুর্কিয়ে নামটি দেশের তুর্কি ভাষার সঙ্গে যায় এবং দেশটি এখন এই নামেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে স্বীকৃতি পেতে চায়।

নাম বদলের আওতায় এখন থেকে দেশটির সব রপ্তানি পণ্যের ওপর মেড ইন তুর্কিয়ে’ লেখা হবে। আর এর আগে জানুয়ারি থেকেই দেশটি পর্যটন খাতে হ্যালা তুর্কিয়ে’ স্লোগানে একটি প্রচারও শুরু করেছে।

তুরস্কের নাম বদলের এই পদক্ষেপে অনলাইনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। সরকারি কর্মকর্তারা এ পদক্ষেপ সমর্থন করেছেন। আর অন্যরা বলেছেন, প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান দেশে অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে আগামী বছর নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার এই সময়ে এই নীতি কাজে আসবে না।

তবে কোনও দেশের নাম বদলের এমন পদক্ষেপ বিরল নয়। ২০২০ সালে নেদারল্যান্ডস তাদের হল্যান্ড নাম পরিবর্তন করেছিল।

এর আগে মেসিডোনিয়া গ্রিসের সঙ্গে রাজনৈতিক বিরোধের কারণে তাদের নাম পরিবর্তন করে নর্থ মেসিডোনিয়া করে। আবার সুইজারল্যান্ডও ২০১৮ সালে নাম পরিবর্তন করে হয় এসোয়াতিনি।

আরও আগে ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায়, ইরানকে একসময় বলা হত পার্সিয়া। এছাড়া, একসময়কার শ্যাম এখন থাইল্যান্ড এবং রোডেশিয়া নাম পরিবর্তন করে হয়েছে জিম্বাবুয়ে।


আরও খবর



পদ্মা সেতু বাংলাদেশের গর্ব ও অহংকারের প্রতীক : জয়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, পদ্মা সেতু শুধু একটি স্থাপনা নয়; এটি এখন বাঙালি জাতি তথা বাংলাদেশের গর্ব, আত্মমর্যাদা ও অহংকারের প্রতীক। এই সেতু নির্মাণের কৃতিত্ব প্রতিটি বাঙালির, আপনার-আমার-আমাদের সবার।

এই সেতু নির্মাণের ফলে দেশের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নদীবেষ্টিত ভূখণ্ড সরাসরি রাজধানীর সঙ্গে সংযুক্ত হয়েছে। পদ্মা সেতু যেমন দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের প্রায় পাঁচ কোটি মানুষের জীবনে অর্থনৈতিক সুবাতাস বয়ে আনবে, তেমনি কমপক্ষে ১.৫ শতাংশ জাতীয় আয় বৃদ্ধিও নিশ্চিত করবে। ফলে লাভবান হবে পুরো দেশের মানুষ। প্রসার হবে ব্যবসা-বাণিজ্য ও পর্যটনের। ভবিষ্যতের বাংলাদেশ নির্মাণে এই সেতুর প্রভাব অনেক।

ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এই মেগা প্রকল্পের ওপর নির্মিত একটি ভিডিও শেয়ার করে  সজীব ওয়াজেদ জয় আরও লিখেছেন, বিশ্বের অন্যতম খরস্রোতা পদ্মা নদীর ওপর নির্মিত হয়েছে নান্দনিক একটি সেতু- পদ্মা সেতু। বহুমাত্রিক রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র ও জটিল রকমের প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা মোকাবিলা করে আপনার-আমার-আমাদের নিজেদের অর্থেই নির্মিত হয়েছে এই সেতুটি।

তিনি আরও লিখেছেন, ‌দক্ষিণ এশিয়ার কোনো উন্নয়নশীল দেশের মানুষ যে নিজেদের উদ্যোগে এরকম দৃষ্টিনন্দন ও টেকসই স্থাপনা নির্মাণ করতে পারবে, তা এক সময় ভাবতেও পারতো না বিশ্ব। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অদম্য আত্মবিশ্বাস ও দূরদর্শী পরিকল্পনায় এবং বাঙালি জাতির অদম্য প্রচেষ্টায় তা আজ বাস্তবে পরিণত হয়েছে। এখন বাংলাদেশকে স্যালুট দিচ্ছে সবাই। ২৫ জুন উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা পদ্মা সেতু এখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের মর্যাদার প্রতীকে পরিণত হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: সজীব ওয়াজেদ জয়

আরও খবর



সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডে ও বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ শোক জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তা ছাড়া তিনি আহতদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেন।

প্রধানমন্ত্রী দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে উদ্ধার তৎপরতা পরিচালনা এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সর্বাত্মক সহযোগিতায় সরকারের পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।


আরও খবর



১৭৩ জন খুঁজছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর। সাতটি পদের বিপরীতে মোট ১৭৩ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। নারী ও পুরুষ প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। আগ্রহী যোগ্য প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম:

কম্পিউটার অপারেটর, উচ্চমান সহকারী, ওয়্যারলেস অপারেটর, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক, গাড়িচালক, অফিস সহায়ক, নিরাপত্তা প্রহরী।

পদসংখ্যা:

মোট ১৭৩ জন ।

শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা:

স্বীকৃত যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে স্নাতক/ উচ্চ মাধ্যমিক/ মাধ্যমিক / জেএসসি বা সমমান পাস প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। কিছু কিছু পদের জন্য প্রার্থীর মাইক্রোসফট অফিসে কাজের দক্ষতা থাকতে হবে। সকল পদে অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

বেতন:

জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী বিভিন্ন গ্রেডে বেতন-ভাতা দেওয়া হবে।

আবেদন পদ্ধতি:

আগ্রহী প্রার্থীদেরকে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। আবেদনের ঠিকানা (http://ddmr.teletalk.com.bd)।

আবেদনের শেষ তারিখ:

২৪ জুন, ২০২২।

 

নিউজ ট্যাগ: চাকুরীর খবর

আরও খবর

মেঘনা গ্রুপে ডিজিএম পদে চাকরি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২