Logo
শিরোনাম

সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৫৬জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে।

লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর অর্থাৎ বেলা ১১টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৪ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৪২১ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসই শরীয়াহ্ সূচক ১১ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৮ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে ১২৩০ ও ২১৭৭ পয়েন্টে রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে লেনদেন হয়েছে ১৩৭ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।

সোমবার এ সময়ে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ২৯টির, কমেছে ১৮০টির এবং অপরির্বতিত রয়েছে ৭০টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

বেলা ১১টা পর্যন্ত লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ কোম্পানি হলো- বেক্সিমকো লিমিটেড, রবি, বিএটিবিসি, লংকাবাংলা, বেক্সিমকো ফার্মা, ওয়ালটন হাইটেক, বিকন ফার্মা, মীর আকতার, লাফার্জ হোলসিম ও স্কয়ার ফার্মা।

এর আগে লেনদেন শুরুর প্রথম ১০ মিনিটে ডিএসইর সূচক কমে ১৫ পয়েন্ট। এরপর ১০টা ২০ মিনিটে সূচক আগের অবস্থান থেকে ১০ পয়েন্ট কমে যায়। এরপর সূচকের গতি নিম্নমুখী দেখা যায়। সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে সূচক আগের দিনের চেয়ে ৪৮ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৪২৯ পয়েন্টে অবস্থান করে।

অপরদিকে, লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ৯০ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ৭৩০ পয়েন্টে অবস্থান করে। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়।

এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ সময়ে ১৭টি কোম্পানির দাম বেড়েছে, কমেছে ৩৯টি কোম্পানির দর। অপরিবর্তিত রয়েছে ১৩টি কোম্পানি শেয়ারের দর।

Share

আরও খবর



প্রস্তুত শহীদ মিনার, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই জানাতে হবে শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের মূল বেদিতে আলপনার আঁকার কাজ শেষ হয়েছে। চারদিকে বরাবরের মতো শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য বেষ্টনী দেওয়া হয়েছে। র‌্যাব ও ডিএমপির পক্ষ থেকে বসানো হচ্ছে ‘ওয়াচ টাওয়ার’

বাঙালি জাতির গৌরবের ইতিহাসে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস। ইংরেজদের দুরভিসন্ধিতে ভারত-পাকিস্তান ভাগের পর পূর্ব বাংলার ওপর পাকিস্তানিরা অন্যায়ভাবে অনেক কিছু চাপিয়ে দেয়।

সর্বপ্রথম তারা বাঙালির মাতৃভাষা বাংলাকে বাদ দিয়ে সংখ্যালঘুদের ভাষা উর্দুকে রাষ্ট্রীয় ভাষা করার হীন চক্রান্ত শুরু করে। সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে ১৯৫২ সালে আন্দোলন তীব্র হয়। সেই আন্দোলনে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ যেমন ছিল, তেমনি রক্ত ও প্রাণ দিতে হয়েছে অনেককে। প্রতিবারের মতো একুশে ফেব্রুয়ারিতে সেই ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। তবে এবার বিশ্বব্যাপী করোনা সংক্রমণের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব কার্যক্রম পালন করা হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের মূল বেদিতে আলপনার আঁকার কাজ শেষ হয়েছে। চারদিকে বরাবরের মতো শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য বেষ্টনী দেওয়া হয়েছে। র‌্যাব ও ডিএমপির পক্ষ থেকে বসানো হচ্ছে ওয়াচ টাওয়ার’। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় এনে জনসাধারণকে সতর্ক করতে লাগানো হয়েছে ডিজিটাল সাইনবোর্ড। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের ডান পাশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী মোতাহার হোসেন ভবন সংলগ্ন মাঠে র‌্যাব, ডিএমপি ও ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম বসানো হয়েছে।

অপরদিকে, প্রতিবার শ্রদ্ধা জানানোর কর্মসূচি উদ্বোধন করতেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এবার করোনার কারণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী আসছেন না। তাদের পক্ষ থেকে সামরিক সচিব ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও অমর একুশে উদযাপনের কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সামরিক সচিব শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এর পরে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রদ্ধা জানানোর অনুরোধ করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কোভিড-১৯ উদ্ভুত পরিস্থিতি বিবেচনায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১’ সুষ্ঠুভাবে উদযাপনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আগত সবাইকে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরিধান করতে হবে। এছাড়া, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ও যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে প্রতিটি সংগঠন/প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ জন প্রতিনিধি ও ব্যক্তিপর্যায়ে একসঙ্গে সর্বোচ্চ দুই জন শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে পারবেন। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও আজিমপুর কবরস্থানে যাতায়াতের জন্য একটি রুট-ম্যাপ প্রণীত হয়েছে। তা যথাযথভাবে অনুসরণ করার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে। পরিবর্তিত পরিস্থিতি বিবেচনায় শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রে এ বছর কোন জনসমাগম ও অভ্যর্থনার ব্যবস্থা থাকবে না। তাই শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রে কোন জনসমাগম করা যাবে না।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, রাষ্ট্রাচার অনুযায়ী একুশের প্রথম প্রহরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীমূল প্রস্তুত করা হয়েছে। কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতি বিবেচনায় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ, বাধ্যতামূলক মাস্ক পরিধান ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের জন্য ছাত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সবার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বিগত বছরগুলোর মত এবারও মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১ সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে পালনের জন্য কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির সব কর্মসূচি সফল বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

Share

আরও খবর



শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা : হাইকোর্টের রায় আগামীকাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ২০০০ সালে বোমা পুঁতে রেখে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা মামলায় আপিলের রায় ঘোষণার জন্য আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করেছেন হাইকোর্ট।

রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে এ বিষয়ে সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদেশের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মিজানুর রহমান খান শাহিন, মোহাম্মদ শাহিন আহমেদ, মো. সাফায়েত জামিল, মো. আশিকুজ্জামান বাবু, সাদিয়া সুলতানা রত্না।

আসামিপক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এস এম শাহজাহান, মোহাম্মদ আহসান, মো. নাসিরউদ্দিন।

এছাড়া পলাতক আসামির পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন আমূল্য কুমার সরকার।

২০০০ সালের ২১ জুলাই গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায় শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ কলেজের মাঠে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমাবেশস্থলের পাশ থেকে ৭৬ কেজি ওজনের একটি বোমা উদ্ধার করা হয়।

বোমা উদ্ধার হওয়ার পরদিন ওই স্থানেই শেখ হাসিনার বক্তব্য দেওয়ার কথা ছিল। এ ঘটনায় কোটালিপাড়া থানার উপ পরিদর্শক নূর হোসেন বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে পরে মামলা করেন।

বোমা উদ্ধার হওয়ার পরদিন ওই স্থানেই শেখ হাসিনার বক্তব্য দেওয়ার কথা ছিল। এ ঘটনায় কোটালিপাড়া থানার উপ পরিদর্শক নূর হোসেন বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে পরে মামলা করেন।

সে মামলার তদন্ত শেষে নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের নেতা মুফতি আব্দুল হান্নানসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

এরপর গোপালগঞ্জের আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। পরবর্তীতে ২০১৭ সালের ২০ আগস্ট ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২ এই মামলায় হরকাতুল জিহাদের ১০ নেতাকর্মীর ফাঁসি, একজনের যাবজ্জীবন ও তিনজনের ১৪ বছরের কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন।

বিচারিক আদালতের এই রায়ের পর নিয়ম অনুযায়ী আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানির জন্য হাইকোর্টে আসে। ২০১৮ সালের ২ এপ্রিল আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানি শুরু হয়।

Share

আরও খবর



জুভেন্টাসের বিপক্ষে মাঠের লড়াইয়ে হারতে হলো রোনালদোকে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৫২জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলর লড়াইয়ে জুভেন্টাসের বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পর্তো। বুধবার রাতে প্রথম লিগের ম্যাচটির বিশেষ দৃষ্টি ছিল পর্তোর অধিনায়ক পেপে ও জুভের সবচেয়ে বড় তারকা রোনালদোর দিকে। পর্তুগাল জাতীয় দল ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক সতীর্থ পেপের বিপক্ষে মাঠের লড়াইয়ে হারতে হলো ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে।

সিআর সেভেনের জন্মভূমির মাঠ স্তাডিও ডো ড্রাগাওতে স্বাগতিকদের হয়ে একটি করে গোল করেছেন মেহদি টারেমি ও মৌসা মারেগা। অন্যদিকে অতিথিদের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন ফেডরিকো চিয়েসা।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যায় পর্তো। জুভেন্টাসের মিডফিল্ডার রদ্রিগো বেনটাচুরের ভুলে পর্তুগীজ চ্যাম্পিয়নদের হয়ে গোল তুলে নেন ইরানিয়ান ফরোয়ার্ড টারেমি।

গোল শোধে মরিয়া হয়ে উঠলেও সফলতা মিলছিলনা ইতালিয়ান দল জুভেন্টাসের। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পেপে নেতৃত্বাধীন দলটি। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেই আবারও গোল পায় পর্তো। ৪৬ মিনিটে উইলন মানাফার বাড়ানো বল পেয়ে গোল আদায় করেন মালিয়ান ফরোয়ার্ড মারেগা।

একাধিক সুযোগ পেয়ে কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় দুই দল। তবে ৮৬ মিনিটে আদ্রিয়েন রাবিয়োতের পাসে ব্যবধান কমান চিয়েসা। ইতালিয়ান মিডফিল্ডারের এই গোলটি আগামী ১১ মার্চ দ্বিতীয় লেগে নিশ্চিত কাজে লাগবে জুভেন্টাসের। প্রতিপক্ষের মাঠে একটি গোল পাওয়ায় শেষ আট নিশ্চিত করতে বাড়তি সুবিধা পাবে আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যরা।

Share

আরও খবর



শেষ পর্যন্ত ৪০৯ রানে থামলো উইন্ডিজ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ মার্চ 2০২1 | ৮৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুটা খুব একটা সুখকর হয়নি বাংলাদেশের। তবে একটু দেরিতে হলেও দ্বিতীয় সেশনে ঘুরে দাঁড়িয়েছে টাইগাররা। ১৪২ ওভার শেষে ক্যারিবীয়দের থাকাতে সক্ষম হলেও ততোক্ষণে তাদের সংগ্রহ দিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪০৯ রানে।

প্রথম সেশনের শুরু থেকেই ক্যারিবীয়দের স্কোরবোর্ডে যুক্ত হতে থাকে রান। সেই সেশন শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১১৯ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৩২৫ রান। প্রথম টেস্টের মতো এবারও শতক পূরণের আগেই ফিরলেন এনক্রুমা বনার। টানা দুই ইনিংসে সেঞ্চুরির খুব কাছাকাছি গেলেও শেষ পর্যন্ত শতকের স্বাদ নিতে ব্যর্থ হন বনার। আগের টেস্টে ৮৬ রান করেছিলেন তিনি। এবার ফিরলেন ৯০ রানে। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে দলীয় ২৬৬ রানের মাথায় মিরাজের ৯৯তম শিকারে পরিণত হন বনার। ওভারের তৃতীয় বলে মিথুনের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। সেই ক্যাচ নিতে ভুল করেননি মিথুনও। ২০৯ বল খেলে ব্যক্তিগত ৯০ রানে সাজঘরে ফিরলেন বনার।

এরপর দলের হাল ধরেন দা সিলভা ও আজমেরি জোসেফ। দুইজনই অর্ধশতকের ঘর পেরোলেও শতকের স্বাদ নিতে পারেননি কেউই। তাইজুলের শিকারে পরিণত হওয়া দা সিলভা ফেরেন ৯২ রানে। আর ৮২ রান করা জোসেফের উইকেটটি তুলে নেন আবু জায়েদ রাহি।

এরপর আর জোমেল ওয়ারিকন আর শ্যানন গ্যাব্রিয়েল বেশি একটা সুবিধা করতে পারেনি। দশক পূরণের আগেই ফিরে যান দুইজন। শেষ পর্যন্ত ক্যারিবীয়দের ইনিংস থামে ৪০৯ রানে। প্রথম ইনিংস শেষে রাহকিম কর্নওয়াল অপরাজিত ছিলেন ৪ রানে।

বাংলাদেশের পক্ষে আবু জায়েদ রাহি ও তাইজুল নিয়েছেন ৪টি করে উইকেট। পাশাপাশি মেহেদী হাসান মিরাজ ও সৌম্য সরকার নিয়েছেন একটি করে উইকেট।a

Share

আরও খবর



খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আর নেই

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ মারা গেছেন। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভোর সাড়ে ৫টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ করোনায় আক্রান্ত হয়ে চলতি মাসের শুরুতে শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এরপর তার শারীরিক অন্যান্য সমস্যা দেখা দিতে থাকে। পরে ২১ ফেব্রুয়ারি তাকে আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউতে স্থানান্তর করা হয়। এরপর আর স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরেননি তিনি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কনক কান্তি বড়ুয়া গণমাধ্যমকে জানান, উনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। আরও কিছু জটিল সমস্যা ছিল। এ ছাড়া বয়সও হয়েছে।

খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া সোনালী, অগ্রণী ও পূবালী ব্যাংকেরও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ।

নিউজ ট্যাগ: ইব্রাহিম খালেদ
Share

আরও খবর