Logo
শিরোনাম

স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
স্বাধীনতা পুরস্কারের ক্ষেত্রে পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ৫ লাখ টাকা, ১৮ ক্যারেট মানের ৫০ গ্রাম স্বর্ণপদক, পদকের একটি রেপ্লিকা ও একটি সম্মাননাপত্র দেয়া হবে

জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জ্বল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার, কবি মহাদেব সাহা, সুরকার-গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ারসহ ৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছে।

রবিবার (৭ মার্চ) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাধীনতা পুরস্কারের জন্য মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এবার প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল এ পুরস্কার পাচ্ছে।

এটি দেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার। ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সরকার ১৯৭৭ সাল থেকে প্রতি বছর এ পুরস্কার দিয়ে আসছে। স্বাধীনতা পুরস্কারের ক্ষেত্রে পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ৫ লাখ টাকা, ১৮ ক্যারেট মানের ৫০ গ্রাম স্বর্ণপদক, পদকের একটি রেপ্লিকা ও একটি সম্মাননাপত্র দেয়া হবে।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ ক্ষেত্রে এবার চারজন স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- মরহুম এ কে এম ফজলুর রহমান, শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার, মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খুরশিদ উদ্দিন আহমেদ ও মরহুম আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পাচ্ছেন ড. মৃন্ময় গুহ নিয়োগী। সাহিত্যে পুরস্কার পাচ্ছেন কবি মহাদেব সাহা। সংস্কৃতিতে নাট্যজন আতাউর রহমান ও সুরকার-গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন। সমাজসেবা/জনসেবা ক্ষেত্রে পুরস্কার পাচ্ছেন অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেন। গবেষণা ও প্রশিক্ষণে স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল।


আরও খবর

ইতিহাসের কলঙ্কিত সেই ভয়াল ২৫ মার্চ আজ

বৃহস্পতিবার ২৫ মার্চ ২০২১




বিক্ষোভ হলে মাথায়-পিঠে গুলি করা হতে পারে

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের আজ সশস্ত্রবাহিনী দিবস উপলক্ষে বড় ধরনের সংঘাতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে সামরিক জান্তা কর্তৃপক্ষ গণতন্ত্রপন্থি বিক্ষোভকারীদের হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে, জান্তাবিরোধী প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করলে মাথায় কিংবা পেছনে গুলি করা হতে পারে। পাশাপাশি এটাও বলা হয়েছে যে, রাজধানী নেপিদোতে সামরিক বাহিনীর অনুষ্ঠানে কোনো ধরনের ব্যাঘাত সৃষ্টিকারীদের প্রতিহত করা হবে। সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ খবর জানিয়েছে।

মিয়ানমারের ক্ষমতা দখলকারী জান্তা কর্তৃপক্ষ সশস্ত্রবাহিনী দিবসে নিজেদের শক্তিমত্তার বড় ধরনের জানান দিতে চায় বলে আল জাজিরা জানিয়েছে।

এর আগে গতকাল শুক্রবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এমআরটিভিতে ঘোষণা করা হয়, এরই মধ্যে যেসব কুৎসিত মুত্যুর ট্র্যাজেডি ঘটেছে, তা থেকে আপনাদের শিক্ষা নেওয়া উচিত যে, আপনারা মাথায় ও পেছন থেকে গুলিবিদ্ধ হওয়ার মতো বিপদে পড়তে পারেন।

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী গত ১ ফেব্রুয়ারি দেশটির বেসামরিক নেত্রী অং সান সুচিকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করে বন্দি করে। এরপর থেকে সেখানে চলছে জান্তাবিরোধী রক্তক্ষয়ী প্রতিবাদ-বিক্ষোভ। জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে মিয়ানমারে এ পর্যন্ত ৩০০ জনের বেশি আন্দোলনকারীকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এর মধ্যে ৯০ শতাংশ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন এবং তাঁদের এক-চতুর্থাংশের মাথায় গুলি করা হয়েছিল। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এসব তথ্য জানিয়েছে।

এর মধ্যে আজ সশস্ত্রবাহিনী দিবসে নতুন করে দাঙ্গা-নৈরাজ্য সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় দখলদার জাপানিদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রতিরোধ গড়ে তোলা স্মরণে সশস্ত্রবাহিনী দিবস পালন করা হয়।

এরই মধ্যে সামরিক জান্তাবিরোধীরা সশস্ত্র দিবসে নতুন করে বিক্ষোভের কর্মসূচি দিয়েছেন। এই বিক্ষোভ হতে পারে সামরিক প্যারেড চলাকালীনI

এদিকে বিক্ষোভকারীদের রাস্তায় নেমে আসার ডাক দিয়েছেন বিক্ষোভের সক্রিয়কর্মী এই থিনজার মাউং। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, সামরিকবাহিনীর দমন-পীড়নের বিরুদ্ধে লড়াই করার সময় এসেছে।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




বৃহস্পতিবার থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে ট্রেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৯১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
অযথা কাউন্টারে ভীড় না করার জন্য বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। এতে আরও বলা হয়েছে, এ ছাড়া, যাত্রীদেরকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। মাস্ক ছাড়া কোনো যাত্রীকে স্টেশনে

করোনার প্রাদুর্ভাব ফের বাড়তে থাকায় আগামী ১ এপ্রিল থেকে সব ট্রেনে ৫০ ভাগ যাত্রী পরিবহন করা হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ রেলওয়ের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের প্রকোপ আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ায় যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন প্রতিটি ট্রেনের ৫০ ভাগ টিকিট বিক্রি করা হবে। যার ২৫ ভাগ কাউন্টারে এবং ২৫ ভাগ অনলাইনে বিক্রি করা হবে। আসনবিহীন কোনো টিকিট থাকবে না।

এ কারণে অযথা কাউন্টারে ভীড় না করার জন্য বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। এতে আরও বলা হয়েছে, এ ছাড়া, যাত্রীদেরকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। মাস্ক ছাড়া কোনো যাত্রীকে স্টেশনে প্রবেশ বা ট্রেনে ভ্রমণ করতে দেওয়া হবে না।

এর আগে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর গত বছরের মে মাসে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কারিগরি কমিটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন ও ট্রেনে যাত্রী পরিবহনের নির্দেশিকা জারি করে। এতে অর্ধেক আসন খালি রাখা, যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা, প্রতিবার যাত্রার আগে বাস ও ট্রেন জীবাণুমুক্ত করা, চালক-শ্রমিকদের জীবাণুমুক্ত থাকাসহ ১৪ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল।


আরও খবর



ভীষন ইচ্ছে করছে পাখি হয়ে যেতে

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১০৩জন দেখেছেন
এস এম মনির

Image

মাঝে মাঝেই আমার খুব পাখি হতে ইচ্ছে করে। এই যেমন আজ সকাল থেকে ভীষন ইচ্ছে করছে পাখি হয়ে যেতে। ইশ কি দারুণ হতো ব্যাপারটা! বুধবার (২৪ মার্চ) দুপুরে নিজের ফেসবুকে এমনটাই লিখেছেন ঢালিউডের লাস্যময়ী চিত্রনায়িকা পরীমনি।

পরীমনি তার স্ট্যাটাসে আরও লিখেছেন, আমার শহর থেকে শত শত মাইল দূরের শহর কলকাতায়। কাল সকাল থেকে করতে হবে আরও একগাদা টেস্ট। পাখি হলে ঠিক সন্ধ্যার আগে আগে উড়াল দিতাম আমি। কোন কিছুই আমাকে বেধে রাখতে পারতো না। ঘণ্টাখানেক নীল আকাশে ডানা ঝাপটে টুপ করে হাজির হতাম আপনাদের মাঝে। স্ফুলিঙ্গের প্রিমিয়ারে!

তার স্ট্যাটাস সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে কলকাতা অবস্থান করছেন তিনি। নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সেখানে গেছেন এ অভিনেত্রী। স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে পরীমনির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ২২ মার্চ কলকাতা এসেছি। আরও দুই চারদিন থাকতে হবে। সকাল নয়টা থেকে বিভিন্ন ডাক্তারের চেম্বারে যেতে হয়েছে।

পরীমনি অভিনীত স্ফুলিঙ্গ সিনেমার প্রিমিয়ার ২৪ মার্চ। কলকাতায় থাকার কারণে প্রিমিয়ারে অংশ নিতে পারবেন না তিনি। পুরো আয়োজনকে মিস করবেন বলে কিছুটা মন খারাপ হচ্ছে এ অভিনেত্রীর। তৌকীর আহমেদ পরিচালিত স্ফুলিঙ্গ মুক্তি পাচ্ছে ২৬ মার্চ। সারাদেশের ৩৫টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে সিনেমাটি। 

নিউজ ট্যাগ: পরীমনি

আরও খবর



ক্যাচ মিসের মহড়ায় বাংলাদেশের টার্গেট ১৪২ রান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বরাবরের মতো শেষ টি-টোয়েন্টিতেও একের পর এক ক্যাচ মিস করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের এই সুযোগ ভালোভাবেই কাজে লাগাচ্ছে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানেরা। ঝড়ের বেগে রান তুলছে টিম সাউদির দল।

ব্যক্তিগত ১৯ রানে ফিন অ্যালেনের ক্যাচ ছাড়েন রুবেল। এরপর আরেকটি ক্যাচ ছাড়েন মেহেদি হাসান। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ এক উইকেটে ৮৫ রান।

বৃষ্টির কারণে কমে গেছে ম্যাচে দৈর্ঘ্য। ২০ ওভারের বদলে ম্যাচটি রূপ নিয়েছে টি-টেনে। অর্থাৎ খেলা হবে ১০ ওভারের, এর মধ্যে পাওয়ার প্লে হবে তিন ওভার। ম্যাটিতে টস গড়িয়েছে বাংলাদেশ সময় দুপুর একটা ৫৫ মিনিটে। খেলা শুরুর সময় ২টা ১০ মিনিট।

বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ে মাঠে গড়ায়নি বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি। মাঝে বৃষ্টি থেমেছিল। তখন মাঠ পরিদর্শনেও নামেন আম্পায়াররা। কিন্তু মাঠ পরিদর্শনের কিছুক্ষণের মাথায় ফের বৃষ্টি হয়। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর অবশেষে ১০ ওভারের ম্যাচে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। একই দিনে এই মাঠে আজ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড নারী দলের টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়ে যায়।

ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হওয়ার পর টি-টোয়েন্টি সিরিজও এর মধ্যে হেরে বসেছে বাংলাদেশ। কোনো ম্যাচেই তেমন লড়াই জমাতে পারেনি বাংলাদেশ। এবার সফরের শেষ ম্যাচে কিছু করতে পারে কি না সেটাই দেখার।

তবে ম্যাচটির আগে বড় দুঃসংবাদ পেল বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে চোটের কারণে ছিটকে গেলেন নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। অধিনায়কের বদলে সফরের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন লিটন দাস। বাংলাদেশের সপ্তম টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে আজ মাঠে নামবেন ডানহাতি এই ওপেনার।


আরও খবর



বইমেলায় হামলার হুমকি নেই : ডিএমপি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
অতীতের ঘটনা মাথায় রেখেই আমরা গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছি। কেউ অপরাধমূলক কাজ করছে কি-না সে ব্যাপারে আমরা নজরদারি করছি। যথাসময়ে তথ্য পেলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো

এবারের বইমেলায় প্রকাশকদের ওপর হামলার কোনো হুমকি নেই। তবে বিষয়টা আমাদের মাথায় রয়েছে। সেটা মাথায় রেখেই আমাদের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে। মানুষের অনুভূতিতে আঘাত দেয় এমন বই প্রকাশ হচ্ছে কি-না সেটাও আমরা খোঁজ রাখছি।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সকালে বইমেলার অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) কৃষ্ণ পদ রায় এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, অতীতের ঘটনা মাথায় রেখেই আমরা গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছি। কেউ অপরাধমূলক কাজ করছে কি-না সে ব্যাপারে আমরা নজরদারি করছি। যথাসময়ে তথ্য পেলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এবারের বইমেলায় প্রধানত তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। সাদা পোশাকে একটি ব্যবস্থাপনা থাকবে; সিসিটিভি, আর্চওয়ে থাকবে; গোয়েন্দা সংস্থা ও ডিবির টিম থাকবে। প্রতিটি প্রবেশ পথে আর্চওয়ে থাকে, নির্দিষ্ট প্রবেশ পথ থাকে, নির্দিষ্ট বাহির হওয়ার পথ থাকে। যারা বইমেলায় আসেন তারা প্রবেশ পথে আমাদের সহযোগিতা করে থাকেন। সবার স্বার্থেই এই নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার আরও বলেন, আমরা একটি ভিন্ন সময়ে বইমেলা শুরু করছি। করোনা পরিস্থিতি মাথায় রেখেই প্রতি বছর আমাদের যে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় এবারও একই ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

কৃষ্ণ পদ রায় বলেন, নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রবেশ গেট আমরা চিহ্নিত করেছি। এবার একটি অতিরিক্ত প্রবেশ পথ যুক্ত করেছি, যেটি ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট অথবা শিখা চিরন্তন গেট দিয়ে প্রবেশ করা যাবে। আপনারা জানেন, রাস্তা-ঘাটে উন্নয়নমূলক কাজ চলছে এজন্য অতিরিক্ত গেট রাখা হয়েছে। এবার কিছু কিছু নিরাপত্তা স্ট্রাকচার পরিবর্তন করা হয়েছে। আমাদের মোবাইল পেট্রল থাকবে, ফুট পেট্রল থাকবে। যারা বইমেলায় আসবেন শুধুমাত্র তারাই ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটের গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন। আমরা বাংলা একাডেমির সঙ্গে কথা বলেছি। মেলা সুষ্ঠুভাবে উদযাপনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের একটি ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, পার্কিংয়ের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে। তবে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মাঝে পথচারীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। বিশেষ কোনো পরিস্থিতি ছাড়া এ পথে গাড়ি প্রবেশ করবে না। কোভিডের কারণে একটি বিশেষ ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে।

স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে ডিএমপির কোনো নির্দেশনা আছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যারা আসবেন তারা অবশ্যই মাস্ক পরে আসবেন। প্রতিটি গেটে হ্যান্ড-স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই সবাইকে মেলার আসার আহ্বান জানান তিনি।


আরও খবর