Logo
শিরোনাম

শ্যালকের হাতে দুলাভাই খুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খাগড়াছড়ির রামগড়ে দীপক চন্দ্র ঘোষ (৩৮) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত নিহতের শ্যালক সাগর ত্রিপুরা (২২)। সোমবার (২৩ জানুয়ারি) রাত ১২টার দিকে উপজেলার লিচু বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত দীপক চন্দ্র ঘোষ স্থানীয় রাখাল চন্দ্র ঘোষের ছেলে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রীর সঙ্গে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল দীপকের। সামাজিক শালিস হলেও কোনো সমাধান হয়নি। অবশেষে তারা ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নেন। এ নিয়ে দীপকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় শ্যালক সাগর ত্রিপুরার।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে সাগর কয়েকজন বন্ধুসহ উপজেলার লিচু বাগানে অবস্থান নেন এবং বাড়ি যাওয়ার পথে দীপককে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যান। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের বাবা রাখালা চন্দ্র ঘোষ অভিযোগ করে বলেন, আমার ছেলেকে তার স্ত্রী ও শ্যালক পরিকল্পনা করে হত্যা করেছে।

রামগড় থানার উপ-পরিদর্শক (এসএই) মোহাম্মদ সামছুল হক বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত চলমান এবং মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর

শ্যালিকাকে কুপিয়ে হত্যা করল দুলাভাই

মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩




প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক শিফট চালুর নির্দেশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো এক পালায় (শিফট) চালানোর পরিকল্পনা আগেই নিয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এখন এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। যেসব বিদ্যালয়ে পর্যাপ্তসংখ্যক ব্যবহারযোগ্য শ্রেণিকক্ষ এবং শিক্ষক রয়েছেন, সেগুলো অবিলম্বে এক পালায় চালানোর ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে অধিদপ্তর।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর আজ বুধবার এই নির্দেশনা জারি করেছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পলিসি অ্যান্ড অপারেশন শাখার সহকারী পরিচালক নাসরিন সুলতানার সইয়ে এই চিঠি দেওয়া হয়।

যেসব বিদ্যালয়ে পর্যাপ্ত শিক্ষক  বা শ্রেণিকক্ষ নেই বা উভয় ক্ষেত্রেই ঘাটতি আছে, সেসব বিদ্যালয়ের বিষয়ে বিকল্প একটি পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা হলো, সর্বোচ্চ এক কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থিত এ রকম দুটি বিদ্যালয়ের তথ্য বিশ্লেষণ করে পাশাপাশি দুটি বিদ্যালয়ে দুই ভাগ করে একক পালায় পাঠদান পরিচালনা করা। আর এই বিভাজনের ক্ষেত্রে প্রাক্‌-প্রাথমিক থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত একটি বিদ্যালয়ে এবং অন্যটিতে তৃতীয় শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান করানোর পরিকল্পনা আছে। তবে এ বিষয়ে এখনই চূড়ান্ত না করে চালুর সম্ভাব্যতা যাচাই করে বিস্তারিত তথ্যসহ (গাণিতিক ও বাস্তবতা) প্রতিবেদন পাঠাতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

ঢাকার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন প্রধান শিক্ষক প্রথম আলোকে বলেন, এক কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থিত পাশাপাশি দুটি বিদ্যালয়ে দুই ভাগ করে এক পালায় পাঠদান চালানোর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন দুরূহ বিষয় হবে। শিক্ষার্থীদের বাস্তবতায় এটি করা বাস্তবসম্মতও হবে না।

বর্তমানে সারা দেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৬৫ হাজার ৫৬৬টি। এর বড় অংশই দুই পালায় চলে। গত অক্টোবর মাসে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তৎকালীন সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান সরকারের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, শিক্ষার্থী, শ্রেণিকক্ষ ও শিক্ষকের সংখ্যা বিবেচনা করে দেশের সব বিদ্যালয়কে এক পালায় (শিফটে) আনার পরিকল্পনা করেছি। এ ব্যাপারে কাজ প্রায় ৯০ ভাগ সমাপ্ত হয়েছে।’ তিনি আরও বলেছিলেন, এতে কোনো বিদ্যালয় বন্ধ হচ্ছে না, কোনো শিক্ষকও চাকরি হারাচ্ছেন না। সবই ঠিক থাকছে। কেবল কাজটি ভাগ করা হচ্ছে।


আরও খবর



চবি ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৩

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শাটল ট্রেনে কথা-কাটাকাটির জের ধরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত তিনজন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেলস্টেশনে সংঘর্ষ শুরু হয়। রাত পৌনে ১১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুপক্ষের সংঘর্ষ চলছিল।

বিবাদমান গ্রুপ দুইটি হলো-ভিএক্স ও সিক্সটি নাইন গ্রুপ। গ্রুপ দুইটিই নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

জানা যায়, শহর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা রাতের শাটল ট্রেনে ভিএক্স গ্রুপের কর্মীদের সঙ্গে সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীদের কথা-কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে শাটল ট্রেন বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশন পৌঁছার পর ভিএক্স গ্রুপের কর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হল ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের কর্মীরা শাহজালাল হলের সামনে অবস্থান নেয়। পরে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় উভয় পক্ষ একে অপরের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। এই ঘটনায় উভয় পক্ষের তিনজন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানতে চাইলে ভিএক্স গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি প্রদীপ চক্রবর্তী দুর্জয় বলেন, জুনিয়রদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। আমরা বসে মীমাংসা করে নেব।’

তবে এ বিষয়ে জানতে সিক্সটি নাইন গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবু তৈয়ব বলেন, সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত তিনজন চিকিৎসা নিতে এসেছেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর। বাকি দুজন চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছে। গুরুতর আহত শিক্ষার্থীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। দুই পক্ষ এখনও আছে, আমারা তাদের থামানোর চেষ্টা করছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডি আছে।’


আরও খবর

কড়াইয়ের গরম তেলে পড়ে শিশুর মৃত্যু

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

কুকুর বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেলো যুবকের

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




বিএনপি ক্ষমতার লোভে অপরাজনীতি করছে : পরশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, ক্ষমতার লোভে বিএনপি অপরাজনীতি করছে। সত্যকে মিথ্যা দিয়ে আপনাদের অপরাজনীতি ঢাকতে পারবেন না। প্রপাগান্ডা ছড়িয়ে কোনো লাভ হবে না। আপনাদের দেশের জনগণ বিশ্বাস করে না। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মহানগরীর শিববাড়ি মোড়ে অনুষ্ঠিত খুলনা জেলা ও মহানগর যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

যুবলীগ চেয়ারম্যান পরশ বলেন, বিএনপি অগণতান্ত্রিক পন্থা পছন্দ করে। আর আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এই প্রজন্ম বিএনপিকে পছন্দ করে না। দেশের বিভিন্ন সেক্টরের উন্নয়নের কথা বিবেচনায় রেখে জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গেই রয়েছে। নির্বাচনের মাধ্যমেই তা প্রমাণিত হবে। নীতি আদর্শ বর্জিত বিএনপি সোজা পথে ক্ষমতায় যেতে চায়। কিন্তু জনগণ তা কখনো হতে দেবেন না। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় জনগণ আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবেন।

পরশ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশটা আজ মর্যাদাপূর্ণ স্থানে রয়েছে। পৃথিবীর বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় রাষ্ট্রপরিচালনা করছেন।

দলীয় নেতাকর্মীদের সরকারের উন্নয়নকে মানুষের মাঝে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে কাজের মধ্য দিয়ে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন। প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খান। সভাপতিত্ব করেন খুলনা জেলা যুবলীগের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান জামাল। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন। সম্মেলনে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা বক্তৃতা করেন।


আরও খবর



চিনির দাম বাড়ানোর প্রয়োজন ছিল: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত প্রায় ছয় মাস ধরে দেশে চিনির বাজার বেসামাল। ইতোমধ্যেই কয়েক দফা দামও বাড়ানো হয়েছে এই নিত্য পণ্যটির। এই বেসামাল চিনির বাজারে দাম বাড়ানো হলো আরো এক দফা। চিনির সংকট ও চলমান অস্থিরতার মধ্যেই বৃহস্পতিবার দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ সুগার রিফাইনার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএসআরএ)। নতুন মূল্য অনুযায়ী প্যাকেটজাত প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হবে ১১২ টাকায় এবং খোলা চিনি বিক্রি হবে ১০৭ টাকায়। ফলে কেজিতে দাম বাড়লো ৫ টাকা। নতুন এ দাম আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে।

বর্তমান মূল্য অনুযায়ী প্রতি কেজি প্যাকেটজাত চিনি ১০৭ টাকা এবং খোলা চিনি ১০২ টাকা। তবে বাজারের কোথাও এই দামে এখন চিনি মেলে না। প্যাকেটজাত চিনি এখনই বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩০ টাকায়, আর খোলা চিনি বিক্রি হচ্ছে ১১৫ থেকে ১২০ টাকায়। তার চেয়ে বড় কথা হলো-বাজারে চাহিদার অর্ধেক চিনিও এখন মেলে না। সরবরাহের ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে বাজারে।

বাংলাদেশ সুগার রিফাইনার্স অ্যাসোসিয়েশনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল বলা হয়, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে নতুন দামে বিক্রি হবে চিনি। খুচরা পর্যায়ে কেজিতে পাঁচ টাকা বেড়েছে খোলা ও প্যাকেটজাত চিনি। প্রতি কেজি পরিশোধিত খোলা চিনি বিক্রি হবে ১০৭ টাকায়; আর পরিশোধিত প্যাকেটজাত চিনি বিক্রি হবে প্রতি কেজি ১১২ টাকায়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত চিনির ঊর্ধ্বমুখী দাম, ডলারের বাড়তি বিনিময় হার এবং স্থানীয় পরিশোধনকারী মিলগুলোর উৎপাদন ব্যয় বিবেচনা করে দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, দেশের চিনির বাজার এখনও অস্থির। বাজারে প্যাকেটজাত চিনি নেই বললেই চলে। এমনকি ডিলার পর্যায়েও মিলছে না কাক্সিক্ষত চিনি। আবার যাও পাওয়া যাচ্ছে, তাও সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে ভোক্তাদের। তিন মাস আগে গত বছরের নভেম্বরে খুচরা পর্যায়ে চিনির দাম বাড়ানো হয়েছিল। বর্তমানে প্যাকেটজাত চিনির দাম ১০৭ টাকা এবং খোলা চিনির কেজি ১০২ টাকা।


আরও খবর

চিনির দাম ফের বাড়ল

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




শীতে গর্ভবতীদের জন্য উপকারী ৫ খাবার

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মা হওয়ার খবর পাওয়া হলো পৃথিবীর অন্যতম সুন্দর খবর। আর যারা মা হতে যাচ্ছেন তারা সবসময় চান এই সময়ে স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে। গর্ভাবস্থায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো খাবারের ব্যাপারে সচেতন থাকা। কারণ এর সঙ্গে জড়িয়ে থাকে শিশুর স্বাস্থ্যের বিষয়টিও। এই সময়ে পর্যাপ্ত পুষ্টি, প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর ফ্যাট খাবারের তালিকায় রাখা মা ও অনাগত শিশু উভয়ের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। অন্যদিকে শীতকালে পাওয়া যায় পুষ্টিতে ভরপুর সবুজ শাক-সবজি এবং তাজা ফলমূল। যা গর্ভবতী মায়ের জন্য ভীষণ উপকারী। চলুন জেনে নেওয়া যাক, শীতকালে গর্ভবতীদের কোন ৫টি খাবার খাওয়া উচিত-

চর্বিযুক্ত মাছ: ডাঃ রোহিনী প্যাটেলের মতে, মাছ খাবারের তালিকায় একটি চমৎকার সংযোজন। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সামুদ্রিক খাবারে এই পুষ্টি উপাদান প্রচুর রয়েছে। যা শিশুর ব্রেইন এবং চোখের সঠিক বিকাশে সাহায্য করে। এছাড়াও এগুলো অকাল গর্ভপাত রোধ করতে সাহায্য করে।

লেগুম: মসুর ডাল, মটর, মটরশুটি, ছোলা, সয়াবিন এবং চিনাবাদাম হলো লেগুম জাতীয় খাবার। এগুলো দিয়ে বিভিন্ন ধরণের সুস্বাদু খাবারও তৈরি করা যায়। লেগুম উদ্ভিদজ্জ ফাইবার, প্রোটিন, আয়রন, ফোলেট এবং ক্যালসিয়াম সরবরাহ করে। ভিটামিন-বি এর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো ফলিক অ্যাসিড (B9)। গর্ভাবস্থায় শরীরে এই পুষ্টি উপাদানগুলোর বেশি প্রয়োজন। বিশেষ করে প্রথম তিন মাসে এটি আপনার এবং আপনার অনাগত সন্তান উভয়ের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। গর্ভাবস্থায় প্রতিদিন কমপক্ষে ৬০০ মাইক্রোগ্রাম ফোলেট শরীরের জন্য প্রয়োজন। যা এই খাবারগুলো খাওয়ার মাধ্যমেই পাওয়া সম্ভব।

মিষ্টি আলু: শীতের খাবারের কথা বলতে গেলেই চলে আসে মিষ্টি আলুর নাম। গর্ভাবস্থায় মিষ্টি আলু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। কারণ এতে রয়েছে পর্যাপ্ত কার্বোহাইড্রেট। এটি শরীরে শক্তি বাড়াতে কাজ করে। সেইসঙ্গে এটি রক্তে শর্করার মাত্রা ঠিক রাখে। মিষ্টি আলুতে রয়েছে ভিটামিন এ যা ভ্রুণের বিকাশেও সাহায্য করে। ডাঃ রোহিনী প্যাটেলের মতে এটি ত্বক, চোখ এবং রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার জন্য ভালো।

সবুজ মটরশুঁটি: সবুজ মটরশুঁটি কাঁচা এবং রান্না দুইভাবেই খাবারের তালিকায় রাখা ভালো। এতে রয়েছে প্রচুর ফলিক এসিড যা গর্ভাবস্থায় খুব গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও এগুলো জন্মগতভাবে ব্রেইন এবং মেরুদণ্ডের সমস্যা প্রতিরোধ করে। মটরশুঁটি খেলে সন্তান জন্মদানের পর পর্যাপ্ত দুধ উৎপাদন করতেও সাহায্য করে।

আখরোট: বাদাম সাধারণত ফাইবারের উৎস। আখরোট ভিটামিন ই প্রদান করে, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এটি শীতকালে ঠান্ডা, সর্দি-কাশি থেকেও বাঁচায়। আখরোট ওমেগা-৩ এরও উৎস যা শিশুর ব্রেইনের বিকাশে সাহায্য করে। তাই গর্ভাবস্থায় শীতে আখরোট খাওয়া ভালো।


আরও খবর

৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩