Logo
শিরোনাম

তাজরীন ট্র্যাজেডি: ১০ বছরেও শেষ হয়নি তদন্ত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এক দশক আগে আজকের দিনে আশুলিয়ার তাজরীন ফ্যাশন গার্মেন্টসে অগ্নিকাণ্ডে ১১১ শ্রমিক নিহত হন। ভয়াবহ ওই ঘটনার পরদিন ২৫ নভেম্বর আশুলিয়া থানায় মামলা করা হয়। তদন্ত শেষে ১৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রও জমা দেওয়া হয়। ঘটনার তিন বছর পর ২০১৫ সালে শুরু হয় আনুষ্ঠানিক বিচার। গত সাত বছরে মাত্র ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত। বিচার চলাকালীন মামলায় ছয় পুলিশসহ ২৬ সাক্ষীর বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। তবে তারা উপস্থিত না হওয়ায় সাক্ষ্য গ্রহণে আটকে আছে মামলার বিচার। ফলে দশক পার হলেও আলোচিত এ মামলার বিচার এগোয়নি।

বর্তমানে মামলাটি ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন। মোট ১০৪ সাক্ষীর মধ্যে মাত্র ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। ২০১৬ সালে মামলার বাদী এসআই খায়রুল ইসলামসহ পাঁচজন আদালতে সাক্ষ্য দেন। ২০১৭ সালে দুজন, ২০১৯ ও ২০২১ সালে একজন করে দুজন সাক্ষ্য দিয়েছেন। তবে ২০১৮ ও ২০২০ সালে এ মামলায় কোনো সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়নি। সর্বশেষ চলতি বছরের গত ১৮ মে দুজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। গত ৪ অক্টোবর সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ঠিক ছিল। সাক্ষী উপস্থিত না হওয়ায় আদালত পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণ আগামী ১ জানুয়ারি দিন ঠিক করেন। এজন্য চার সাক্ষীর বিরুদ্ধে সমন জারি করা হয়েছে। ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর তাজরীন ফ্যাশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্ত শেষে পরের বছর ১৯ ডিসেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পরিদর্শক একেএম মহসিনুজ্জামান খান আদালতে প্রতিষ্ঠানটির মালিক, ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) ১৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন।

আসামিরা হলেন প্রতিষ্ঠানের মালিক দেলোয়ার হোসেন, চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার, শামীম, স্টোর ইনচার্জ (সুতা) আল আমিন, সিকিউরিটি ইনচার্জ আনিসুর রহমান, সিকিউরিটি সুপারভাইজার আল আমিন, স্টোর ইনচার্জ হামিদুল ইসলাম লাভলু, প্রশাসনিক কর্মকর্তা দুলাল উদ্দিন, প্রকৌশলী এম মাহবুবুল মোর্শেদ, নিরাপত্তারক্ষী রানা ওরফে আনোয়ারুল, ফ্যাক্টরি ম্যানেজার আব্দুর রাজ্জাক, প্রোডাকশন ম্যানেজার মোবারক হোসেন মঞ্জুর ও শহীদুজ্জামান দুলাল। এর মধ্যে আল আমিন, আনোয়ারুল, শামীম ও মোবারক পলাতক রয়েছেন।

৬ পুলিশসহ ২৬ সাক্ষীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা : ২৬ সাক্ষীর বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। এর পরও তাদের আদালতে হাজির করতে পারছে না রাষ্ট্রপক্ষ। এর মধ্যে ছয় পুলিশ কর্মকর্তা হলেন তৎকালীন আশুলিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক এসএম বদরুল আলম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তফা কামাল, আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক হাফিজুর রহমান, সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুতকারী উপপরিদর্শক জাহিদুর রহমান, উপপরিদর্শক রবিউল আলম ও এএসআই শফিকুল ইসলাম। এ ছাড়া ভুক্তভোগী ২০ শ্রমিকের বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হলেও তাদেরও আদালতে হাজির করা যায়নি।

সংশ্লিষ্ট আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী একেএম শাহ নেওয়াজ বলেন, এ মামলার সাক্ষীদের হাজিরের জন্য সমন জারিসহ সরাসরি ফোন করেও কথা বলা হয়। তাদের আদালতে আনতে জামিন-অযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। তবু সাক্ষীরা আদালতে আসে না। তাজরীন ফ্যাশনের মালিক দেলোয়ারের আইনজীবী এটিএম গোলাম গাউস বলেন, সাক্ষী হাজির না হওয়ায় মামলাটি গতি পাচ্ছে না।


আরও খবর



দাপুটে জয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু ব্রাজিলের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সার্বিয়ার ২-০ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করলো হট ফেভারিট ব্রাজিল। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ১ টায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামে নেইমারের ব্রাজিল। প্রথমার্ধে ব্রাজিলকে আটকে দিয়েছে সার্বিয়া। গোলশূন্য থেকে বিরতিতে গেছে দু'দল। তবে বিরতি থেকে ফিরেই জোড়া গোল করে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে নিজেদের প্রান্ত থেকে গুছিয়ে আক্রমণ করে ব্রাজিল। ডান প্রান্ত থেকে বল নিয়ে সার্বিয়ার ডি বক্সে ঢুকে যায় রাফিনহা। সেখান থেকে বাড়ানো বল সার্বিয়ার ডিফেন্ডারদের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। ম্যাচের ৫ মিনিটে মাঝমাঠে নেইমারকে ফাউল করার কারণে হলুদ কার্ড দেখেন স্ট্রাহিনা প্যাভলোভিচ। ম্যাচের দশম মিনিটে ডি বক্সে বল পান নেইমার। কিন্তু গোলমুখে শট করতে পারেননি তিনি।

ম্যাচের ১২ মিনিটে বাম প্রান্ত ধরে সার্বিয়ার ডি বক্সে ঢুকে যায় ভিনিসিয়াস জুনিয়র। সেখান থেকে কর্নার পায় ব্রাজিল। তবে কর্নার থেকে গোল পেতে ব্যর্থ হয় ব্রাজিল। ম্যাচের ২০ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে সার্বিয়ার গোলমুখে জোড়ালো শট করেন নেইমার। তবে তা সার্বিয়ার ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। ম্যাচের ২৫ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে যায় সার্বিয়া। ডান দিক থেকে ভেসে আসা বল সহজেই গ্লোভস বন্দি করেম অ্যালিসন বেকার।

ম্যাচের ২৭ মিনিটে ডিফেন্স চেরা পাস দেন থিয়াগো সিলভা। তবে তা জালে জড়াতে ব্যর্থ হন ভিনিসিয়াস। ম্যাচের ৩১ মিনিটে শট কর্নার থেকে পাস বাড়ান রাফিনহা। তবে তা লুফে নেন সার্বিয়ার গোলরক্ষক। ম্যাচের ৩৪ মিনিটে ডি বক্সের ভেতর বল পান রাফিনহা। তার নেওয়া দুর্বল শট সহজেই গ্লোভসে নেন সার্বিয়ার গোলরক্ষক। ম্যাচের ৩৬ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে যায় সার্বিয়া। তবে সেখান থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় সার্বিয়া।

ম্যাচের ৪০ মিনিটে বাম দিক থেকে আক্রমণ সাজায় ব্রাজিল। ভিনিসিয়াস ডি বক্সে ঢুকলেও তা গোলমুখে শত নিতে ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত গোল করতে ব্যর্থ হলে গোলশূন্য থেকে বিরতিতে যায় ব্রাজিল ও সার্বিয়া।

বিরতি থেকেই ৪৬ মিনিটে গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করে ব্রাজিল। গোলরক্ষককে এক পেয়েও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ রাফিনহা। ম্যাচের ৪৯ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে নেইমারকে ফাউল করে সার্বিয়ার ডিফেন্ডার। নেইমারের নেওয়া ফ্রি কিক সার্বিয়ার ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে প্রতিহিত হয়। ম্যাচের ৫২ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে যায়  ভিনিসিয়াস। তবে ফিনিশিং ব্যর্থতায় গোল বঞ্চিত হয় ব্রাজিল। ম্যাচের ৫৫ মিনিটে বাম প্রান্ত ধরে বল নিয়ে ক্রস করে ভিনিসিয়াস। ডি বক্সের ভেতরে বল পেয়েও তা জালে জরাতে ব্যর্থ হয় নেইমার।

গোল পেতে মরিয়া হয়ে একের পর একে আক্রমণ চালাতে থাকে ব্রাজিল। তবে গোলের দেখা পায় না তারা। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে যায় সার্বিয়া। বাম দিক থেকে বাড়ানো বলে হেড করে ক্লিয়ার করে অ্যালেক্স সান্দ্রো। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে জোড়ালো শট করে অ্যালেক্স সান্দ্রো। কিন্তু তা সাইডবারে লেগে ফিরে আসে। এতে গোল বঞ্চিত হয় ব্রাজিল।

তবে ম্যাচের ৬২ মিনিটে অবশেষে গোলের দেখা পায় ব্রাজিল। বাম প্রান্ত থেকে শট করেন ভিনিসিয়াস। সেই শট সার্ভিয়ার গোলরক্ষকের হাতে লেগে বল যায় ডি বক্সে দাঁড়িয়ে থাকা রিচার্লিসন। সেখান থেকে শট করে বল জালে জড়ান তিনি। এতে ম্যাচে প্রথম গোলের দেখা পায় ব্রাজিল। ম্যাচের ৬৭ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে আবারও গোলের সুযোগ পায় ব্রাজিল। তবে ডি বক্সে বল নিয়ে গিয়ে শট করতে ব্যর্থ হয় ভিনিসিয়াস। 

ম্যাচের ৭৩ মিনিটে ফের গোলের দেখা পায় ব্রাজিল। বাম দিক থেকে ভিনিসিয়াসের ক্রস থেক বাইসাইকেল কিকে বল জালে জড়ান প্রথম গোল করা সেই রিচার্লিসন। অসাধারণ ফিনিশিংয়ে ব্রাজিলকে দুই গোলের লিড এনে দেন তিনি। 

ম্যাচের ৭৮ মিনিটে রিচার্লিসনকে উঠিয়ে জেসুসকে নামান ব্রাজিলের কোচ তিতে। সেইসঙ্গে নেইমারকেও তুলে নেন তিনি। নেইমারের পরিবর্তে মাঠে নামেন অ্যান্টোনি। ম্যাচের ৮১ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে ক্যাসেমিরোর নেওয়া শট ক্রসবারের লেগে ফিরে এলে গোল বঞ্চিত হয় ব্রাজিল। 

ম্যাচের ৮৫ মিনিটে সাজানো আক্রমণ থেকে ডি বক্সের বাইরে থেকে শট করেন রদ্রিগেজ। তবে তা চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। ম্যাচের ৮৯ মিনিটে বাম প্রান্ত ধরে আক্রমণ সাজায় ব্রাজিল। সেখান থেকে ডানিলোর ক্রস থেকে মার্টিনেল্লির হেড চলে যায় গোলপোস্টের বাইর দিয়ে। এরপর আর কোন গোল না হলে ২-০ গোল জিতে মাঠ ছাড়ে তিতের শীর্ষরা।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের মানুষকে কোভিড-১৯ টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে। ষাটোর্ধ্ব মানুষ চতুর্থ ডোজ আগে পাবেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী মিলনায়তনে বিশ্ব এইডস দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের হাতে টিকা আছে। চতুর্থ ডোজ টিকা দেওয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। টিকা দেওয়ার ব্যাপারে টেকনিক্যাল কমিটিরও সম্মতি আছে।

চীন, জাপানসহ বেশ কয়েকটি দেশে করোনা সংক্রমণ আবার বাড়ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। যদিও দেশে সংক্রমণের হার তুলনামূলকভাবে অনেক কম। দেশে করোনায় মৃত্যু ৩০ হাজারের কম উল্লেখ করে জাহিদ মালেক বলেন, আমরা একটি মৃত্যুও চাই না।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, আজ থেকে ৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত করোনার টিকা দেওয়ার বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। এই সাত দিনে ৯০ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগ ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে দেশের মানুষকে করোনার টিকা দেওয়া শুরু করে।


আরও খবর



বিয়ের কথা বলে মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বিয়ের কথা বলে মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় উজ্জল (২২) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার (২৬ নভেম্বর) রাতে যাত্রাবাড়ী থানার ধলপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১।

গ্রেফতারকৃত উজ্জল আড়াইহাজার উপজেলার হাইজাদী ইউনিয়নের ধন্দী গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে। রবিবার (২৭ নভেম্বর) বিকালে র‌্যাব-১১-এর সহকারী পরিচালক মো. রিজওয়ান সাঈদ জিকু স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা রিজওয়ান সাঈদ জিকু বলেন, মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতো উজ্জল। এরই মধ্যে প্রেমের প্রস্তাব দিলে ছাত্রী প্রত্যাখ্যান করে। তিন মাস আগে সহযোগীদের দিয়ে ছাত্রীকে কৌশলে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায় উজ্জল। সেখানে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর ছাত্রীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়।’

তিনি বলেন, পরিবারের কথা ভেবে ওই ছাত্রী ধর্ষণের বিষয়টি গোপন রাখে। পরে একইভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আবারও ধর্ষণ করা হয়। তখন বিয়ের কথা বললে অস্বীকৃতি জানায় উজ্জল। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে গত ২৪ নভেম্বর আড়াইহাজার থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। মামলার পর উজ্জল আত্মগোপনে চলে যায়। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে শনিবার রাতে ধলপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে উজ্জল। তাকে রূপগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




মশার কামড়ে চুলকানি? জেনে নিন দূর করার ঘরোয়া উপায়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মশা থেকে বাঁচার নানা উপায় বের করেও শেষ রক্ষা হয় না অনেক সময়। কোন ফাঁকে উড়ে এসে কামড় বসিয়ে যায়। এর ভুক্তভোগী বেশি হয় শিশুরা। সুযোগ বুঝে বড়দেরও কামড় দিয়ে যায় বিভিন্ন রোগের জীবাণু বহনকারী এই পতঙ্গ। ঘরে থাকুন কিংবা বাইরে, আপনার রক্ত শুঁষে নেওয়ার সুযোগ পেলে আর এক মুহূর্তও দেরি করবে না। এমনকী ঘুমাতে গেলেও মশার দুর্বোধ্য সঙ্গীত শুনতে পাবেন কানের কাছেই।

বিভিন্ন রোগ ছড়ানোর পাশাপাশি এর কামড়ের যন্ত্রণা অস্বীকার করারও উপায় নেই। মশার কামড়ের কারণে আপনার ত্বকে লালচে ভাব, সামান্য ফোলা ও চুলকানির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। যা কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত থাকে। মশার কামড়ের কারণে সৃষ্ট চুলকানি থেকে রক্ষা পেতে চাইলে কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চলতে পারেন। এগুলো প্রাকৃতিক এবং কার্যকরী-

বরফ: মশার কামড়ের কারণে সৃষ্ট ফোলাভাব কমাতে কিছুটা বরফ গুঁড়া করে আক্রান্ত স্থানে ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকে বরফ ব্যবহার করলে তাৎক্ষণিকভাবে জ্বালা ও চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে ঠান্ডা কিছু ধরে রাখতে পারেন বা কিছুটা বরফ চূর্ণ করে একটি কাপড়ে মুড়ে নিয়ে আক্রান্ত স্থানে রাখতে পারেন। তবে শুধু বরফ কখনোই ৫ মিনিটের বেশি ত্বকে ধরে রাখবেন না। এটি কোষের ক্ষতি করতে পারে।

মধু: মধুতে থাকে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল বৈশিষ্ট্য। ত্বকের নানা সমস্যায় ব্যবহার করা হয় মধু। এটি মশার কামড়ে সৃষ্ট চুলকানি দূর করতেও কাজ করে। আক্রান্ত স্থানে সামান্য মধু লাগিয়ে রাখলে চুলকানির সমস্যা আস্তে আস্তে কমে আসবে। কিছুক্ষণ পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নেবেন।

অ্যালোভেরা: ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে খুবই উপকারী একটি ভেষজ হলো অ্যালোভেরা। এতে থাকে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য যা ত্বকের ক্ষতা, ফোলাভাব, চুলকানির সমস্যা দূর করতে কাজ করে। যে কারণে এটি মশার কামড়ের ক্ষেত্রেও সমান কার্যকরী। তাজা অ্যালোভেরা থেকে ছোট একটি টুকরা কেটে নিয়ে সরাসরি আক্রান্ত স্থানে চেপে ধরুন। এতে অস্বস্তি খুব দ্রুতই কমে আসবে।

বেকিং সোডা: বিভিন্ন কাজে বেকিং সোডা ব্যবহৃত হয়। মশার কামড়ের যন্ত্রণা দূর করা সেসবের মধ্যে অন্যতম। একটি চা চামচে কয়েক ফোঁটা পানি ও সামান্য বেকিং সোডা নিয়ে একটি পেস্টের মতো তৈরি করুন। এবার সেই পেস্ট আক্রান্ত স্থানে হালকা হাতে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ পর অস্বস্তি ও যন্ত্রণা কমে এলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

তুলসি পাতা: তুলসি পাতার অনেকগুলো উপকারিতার মধ্যে একটি হলো, এটি মশার কামড়ের কারণে সৃষ্ট যন্ত্রণা দূর করতে কাজ করে। তুলসি পাতায় থাকা ইউজেনল নামক উপাদান চুলকানি দূর করে ত্বকে স্বস্তি দিতে কাজ করে। এক কাপ পানিতে কিছু তুলসি পাতা ভালো করে ফুটিয়ে নিন। এরপর নামিয়ে ঠান্ডা হতে দিন। এবার এই পানিতে একটি কটন বাড চুবিয়ে সেটি আক্রান্ত স্থানে আলতো করে ঘষুন। সমস্যা দূর হবে।

পেঁয়াজ: পেঁয়াজ কাটার কারণে আপনার চোখে পানি আসতেই পারে তবে এটি মশার কামড়ের কারণে সৃষ্ট যন্ত্রণা দূর করতে কার্যকরী। আক্রান্ত স্থানে কয়েক ফোঁটা পেঁয়াজের রস দিলে তা যন্ত্রণা কমাতে কাজ করবে। এতে আরও আছে অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান যা সংক্রমণের ভয় দূরে।

নিউজ ট্যাগ: মশার কামড়

আরও খবর



মার্ভেলের সঙ্গে কাজ করবেন না কোয়েন্টিন টারান্টিনো!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিজের লেখা বই ‌‌‌সিনেমা স্পেকুলেশান-এর প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন আমেরিকান পরিচালক কোয়েন্টিন টারান্টিনো। সম্প্রতি লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের কাছে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি মার্ভেলের সঙ্গে কাজ করা প্রসঙ্গে মতামত ব্যক্ত করেন। ‌‌স্টার ট্রেক ফিল্ম সিরিজের সঙ্গে একবার কাজ করার সম্ভাব্যতা দেখা দিয়েছিল। তার মানে এই নয় যে, মার্ভেলের সঙ্গে তিনি কাজ করতে আগ্রহী। টারান্টিনোর ভাষায়, ‌‌ সেখানে কাজ করতে ভাড়াটে কর্মী হতে হবে। আমি ভাড়াটে কর্মী না। আমার চাকরির প্রয়োজন পড়েনি।

ডিসির ব্যাটম্যান হোক কিংবা মার্ভেলের স্পাইডারম্যান। কয়েক দশক ধরেই চলচ্চিত্র জগতে সুপারহিরো সিনেমার আধিপত্য চলছে। মার্ভেল ও ডিসি কমিকের তুলনা নিয়ে বক্স অফিস সব সময়ই পরিণত হয় আলাদা মনোযোগের কেন্দ্রে। অথচ কয়েক দশক আগেও চলচ্চিত্রে ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন স্রোতের প্রবাহ। তখন ইন্ডাস্ট্রিতে আধিপত্য করত মিউজিক্যাল। সেদিকে ইঙ্গিত করে টারান্টিনো তার ‌সিনেমা স্পেকুলেশন বইতে লিখেছেন, বর্তমান সময়ের নির্মাতারা সেই সময়টুকু অপেক্ষা করতে পারছেন না। একটা সময় সুপারহিরো সিনেমার প্রভাবও ম্লান হয়ে যাবে। যেমনটা ষাটের দশকে মিউজিক্যালের ক্ষেত্রে হয়েছে।

মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের কোনো সিনেমা পরিচালনার ইচ্ছা নেই টারান্টিনোর। সিনেমার এ ঘরানা তার পছন্দের না। যদিও ‌‌স্টার ওয়ার্স নিয়ে নিজের মুগ্ধতার কথা জানান তিনি। তার মতে, সেখানকার চরিত্রগুলো তাকে অনুরণিত করেছে। তুলে এনেছে সে সময় ও তার চিন্তাকে। বাজেটও ছিল প্রচুর। কিন্তু পছন্দের ছবি হওয়া মানে তাকে প্রিয় ঘরানার সিনেমা হতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। টারান্টিনো বলেন, ‌‌‌‌দিনশেষে আমি কাছে থেকে নিরীক্ষা করতে চাওয়া মানুষ। কেবল সিনেমাপ্রেমীদের জন্য না, স্পিলবার্গের মতো করে বৃহত্তর চিন্তাকে মহাকাব্যিক উপায়ে হাজির করতে চাই সব ধরনের মানুষের সামনে। কিছুদিন আগে জেমস ক্যামেরনও মার্ভেল সম্পর্কে নেতিবাচক মত দিয়েছেন। এবার যেন সে পথেই হাঁটলেন টারান্টিনো।

১৯৬৩ সালে জন্মগ্রহণ করা কোয়েন্টিন টারান্টিনো কয়েক দশক ধরেই হলিউড জগতে পরিচিত নাম। ঝুলিতে রয়েছে পাল্প ফিকশন, ওয়ান্স আপন আ টাইম ইন হলিউড ও দ্য হেইটফুল এইটের মতো সিনেমা। সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন একাডেমি, কান, বাফটা ও স্যাটার্ন অ্যাওয়ার্ডস।


আরও খবর