Logo
শিরোনাম

টেকসই ভবিষ্যৎ নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর ছয় দফা প্রস্তাব

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ অক্টোবর ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী প্রজন্মের জন্য টেকসই ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে সব অংশীজনের সঙ্গে কাজ করার জন্য বিশ্বের প্রধান অর্থনীতির দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, পরবর্তী প্রজন্মের জন্য টেকসই ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে প্রধান অর্থনীতির দেশগুলোকে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বিশ্বব্যাপী সব অংশীজনদের সঙ্গে কাজ করতে হবে

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ওয়াশিংটন ডিসিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ডাকা মেজর ইকোনমিক ফোরাম অন এনার্জি অ্যান্ড ক্লাইমেট শীর্ষ সম্মেলন শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ের অনুষ্ঠানে পূর্বে ধারণ করা ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ফোরামের বিবেচনার জন্য ছয় দফা প্রস্তাব রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী তার প্রথম প্রস্তাবে প্রধান কার্বন নির্গমনকারী দেশগুলোকে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সীমিত রাখার লক্ষ্যে তাদের কার্বন নির্গমন হ্রাস করার জন্য পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা তার দ্বিতীয় প্রস্তাবে বলেন, জলবায়ু তহবিলের জন্য উন্নত দেশগুলোর বার্ষিক ১০০ বিলিয়ন ডলারের অঙ্গীকার পূরণ করতে হবে এবং অভিযোজন ও প্রশমনের মধ্যে ৫০:৫০ বিতরণ করতে হবে।

তৃতীয় প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নশীল দেশগুলোতে প্রযুক্তি হস্তান্তরের পাশাপাশি সবচেয়ে কার্যকর জ্বালানি সমাধান নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য উন্নত দেশগুলোর প্রতি তার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন।

তার চতুর্থ প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারে উত্তরণের ক্ষেত্রে, জাতি-রাষ্ট্রগুলোর সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন অগ্রাধিকারগুলোর হিসাব নেওয়া এবং তাদের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে লোকসান ও ক্ষতির বিষয়গুলো বিবেচনা করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী তার পঞ্চম প্রস্তাবে বলেছেন, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি, লবণাক্ততা বৃদ্ধি, নদীর ভাঙন, বন্যা ও খরার কারণে বাস্তুচ্যুত মানুষের পুনর্বাসনের দায়িত্ব সকল দেশের ভাগ করে নেওয়া দরকার।

তিনি আগামী নভেম্বরে গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিতব্য কপ২৬ সম্মেলনে দৃঢ় ও তাৎপর্যপূর্ণ ফলাফল কামনা করেন এবং এ লক্ষ্যে সেখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করার জন্য বিশ্বের প্রধান অর্থনীতিগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি, লবণাক্ততা বৃদ্ধি, নদী ভাঙন, বন্যা ও খরার প্রভাব ছাড়াও ১১ লাখ রোহিঙ্গা জোরপূর্বক মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হওয়ার কারণে বাংলাদেশ গুরুতর জলবায়ু প্রভাবের সম্মুখীন হচ্ছে।

জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন ও প্রশমন প্রচেষ্টায় তার সরকার অগ্রণী হিসেবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ সম্প্রতি একটি উচ্চাকাঙ্ক্ষী ও হালনাগাদকৃত এনডিসি জমা দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের সর্বাধিক বিস্তৃত অভ্যন্তরীণ সৌরশক্তি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বাংলাদেশ মুজিব জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনাবাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে যা জলবায়ু ঝুঁকি থেকে জলবায়ু সহিষ্ণুতা এবং তা থেকে জলবায়ু সমৃদ্ধি পর্যন্ত একটি যাত্রা।

জলবায়ু ঝুঁকি ফোরাম (সিভিএফ) এবং ভি-২০র সভাপতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য হচ্ছে জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর স্বার্থ তুলে ধরা।

তিনি আরও বলেন, ঢাকায় গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশনের দক্ষিণ এশিয়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের মাধ্যমেও বাংলাদেশ সেরা অনুশীলন ভাগ করে নেয়।


আরও খবর



অ্যারাবিক গান নিয়ে আসছেন নুসরাত ফারিয়া

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চিত্রনায়িকা নুসরাত ফারিয়া ঢাকা-কলকাতা দুই বাংলায় পরিচিত। সিনেমার পাশাপাশি গানেও কণ্ঠ দেন তিনি। এবার এই চিত্রনায়িকা অ্যারাবিক গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। নুসরাত ভক্তদের জন্য সুখবর দিয়ে জানিয়েছেন তার নতুন গান হাবিবি আগামী ২ নভেম্বর কলকাতার শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মের (এসভিএফ) ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পাবে।

গান প্রসঙ্গে নুসরাত বলেন, হাবিবি পপ অ্যারাবিক ফিউশন। ভিডিওটি সেভাবেই করার চেষ্টা করেছি। অক্টোবরের মাঝামাঝিতে মুম্বাই থেকে শতাধিক কিলোমিটারে দূরে এক রাজপ্রাসাদে গানটির ভিডিও শ্যুট হয়েছে। শুটিংয়ের আগে হয়েছে তিনদিনের গ্রুমিং। মুম্বাইয়ের ২০ জন ছেলেমেয়ে নেচেছেন।

গানটির কথা, সুর, ভিডিও সব কিছুতেই ভিন্নতার ছাপ রয়েছে বলে জানিয়েছেন এই নায়িকা। গানের কথা লিখেছেন নূর নবী, সুর করেছেন আদিব কবির। ভিডিও নির্মাণসহ কোরিওগ্রাফি করেছেন ওপার বাংলার বসখ্যাত চিত্রপরিচালক ও জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার বাবা যাদব।

বছর তিনেক আগে পটাকা নামে প্রথম গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন নুসরাত ফারিয়া। এরপর আমি থাকতে চাই শিরোনামে গান গেয়ে আলোচনার জন্ম দেন তিনি। 


আরও খবর

অবশেষে জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

আজ ফের হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিন শুনানি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




আন্দোলন থেকে সরে এলেন বিমানের পাইলটরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনা মহামারির মধ্যে বেতন কাটা নিয়ে ক্ষুব্ধ পাইলটরা বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে আন্দোলন থেকে সরে এসেছেন।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পর বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) সভাপতি মাহবুবুর রহমান কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন।

বেতন কাটায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সঙ্গে চুক্তির বাইরে কাজ না করার সিদ্ধান্ত নেয় পাইলটরা। এতে গতকাল সোমবার পাইলট সংকট পরায় বিমানের কয়কটি ফ্লাইট যথাসময়ে ছেড়ে যায়নি।

বাপা’র সভাপতি মাহবুবুর রহমান বলেন, করোনার মধ্যে দীর্ঘ ১৮ মাস বিমানের পাইলটরা পরিশ্রম করেছেন, এখনও করছেন। এরপরও বেতনের বিরাট অংশ কর্তন করা হয়েছে।

বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিষয়টি শুনেছেন এবং আশ্বস্ত করেছেন। কয়েকদিনের মধ্যেই বিমানের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেই সভায় পাইলটদের বেতনের বিষয়টি উত্থাপন করা হবে। বিমান কর্তৃপক্ষ যে আশ্বাস দিয়েছে তাতে আমরা আশাবাদী।

তিনি বলেন, পাইলটরা আশা করছেন, বিমানের পরিচালনা পর্ষদের সভায় দাবিগুলো মূল্যায়ন করে বেতন সমন্বয়ের যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর পর গত বছর বিমান চলাচল প্রায় বন্ধ ছিল। যাত্রীবাহী ফ্লাইট বন্ধ হওয়ার পর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ কর্মীদের বেতন কমিয়ে আনে। তাতে ২০২০ সালের মে মাস থেকে পাইলটদের বেতন ২৫ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত কাটা হচ্ছে।


আরও খবর



রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট সেক্রেটারি এন্টনি ব্লিনকেন। শুক্রবার (১ অক্টোবর) তিনি নিজের অফিশিয়াল টুইটার একাউন্টে এই বার্তা দেন।

ব্লিনকেন লিখেছেন, বাংলাদেশে রোহিঙ্গা মুসলিম নেতা মুহিবুল্লাহর হত্যায় আমরা গভীরভাবে বিচলিত। বিশ্বজুড়ে রোহিঙ্গা মুসলমানদের মানবাধিকারের জন্য এক সাহসী ও ভয়হীন সমর্থক হিসেবে মুহিবুল্লাহকে স্মরণ করবে বিশ্ব।

এদিকে মুহিবুল্লাহ হত্যার জড়িত সন্দেহে সেলিম উল্লাহ ওরফে লম্বা সেলিম নামে এক রোহিঙ্গা যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। শুক্রবার (১ অক্টোবর) দুপুরে কুতুপালং ৬ নম্বর ক্যাম্প থেকে তাকে আটক করা হয়।

গত বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ৯টার দিকে নিজ অফিসে উপস্থিত অন্য রোহিঙ্গাদের সামনেই অস্ত্রধারীরা মুহিবুল্লাহকে গুলি করে হত্যা করে। এই ঘটনায় পরদিন বৃহস্পতিবার বিকেলে মুহিবুল্লাহকে দাফনের পর রাতেই তার ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে কক্সবাজারের উখিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।


আরও খবর



ঢাকায় ভবন থেকে পড়ে ২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকার রামপুরা ও লালবাগে ভবন থেকে পড়ে দুই ব্যক্তি মারা গেছেন। তারা হলেন শাকিল আহমেদ (২০) ও নাসির উদ্দিন বাদল (৬০)। জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে রামপুরার উলন রোডের একটি নির্মাণাধীন ভবনে রাজমিস্ত্রির কাজ করছিলেন শাকিল। ভবনটির বাইরের দিকের বাঁশের মাচান খোলার সময় তিনি দ্বিতীয় তলা থেকে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

অপরদিকে লালবাগের চকবাজারে ৫৯ নম্বর বাড়ির তিনতলা থেকে পড়ে নাসিরের মৃত্যু হয়েছে। গত ১০-১২ বছর ধরে তিনি মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। বেশিরভাগ সময়ই রুমের ভেতর তাকে আটকে রাখা হতো।

দরজা বন্ধ থাকায় সকালের দিকে তিনি জানালা দিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করেন। সেখান থেকে তিনি ভবনটির তৃতীয় তলায় পড়ে গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই বাচ্চু মিয়া দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর

মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৮৯

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




জাতিসংঘকে স্বাগত জানিয়ে ভাসানচরে আনন্দ মিছিল

প্রকাশিত:রবিবার ১০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সমঝোতা চুক্তি সইয়ের মাধ্যমে মানবিক সহায়তায় বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় জাতিসংঘকে স্বাগত জানিয়েছেন ভাসানচরে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা। তারা রবিবার সেখানে আনন্দ মিছিল করেছেন। এ সময় জাতিসংঘকে স্বাগত জানিয়ে তাদের হাতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড শোভা পায়।

স্থানীয়রা জানান, দুপুর আড়াইটা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত রোহিঙ্গা ক্যাম্প হেড ফোকালদের নেতৃত্বে এই আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে এক হাজারের বেশি রোহিঙ্গা নাগরিক অংশ নেন।

মিছিলটি ভাসানচরের সিআইসি অফিস (শেল্টার-০৯) থেকে হাসপাতাল রোড হয়ে ১ নম্বর রোহিঙ্গা বাজারের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

গতকাল শনিবার ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ শুরু করতে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর)। সচিবালয়ে সরকারের পক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসীন এবং ইউএনএইচসিআরের পক্ষে বাংলাদেশস্থ প্রতিনিধি উহানেন্স ভন ডার ক্লাও সমঝোতা স্মারকে সই করেন। এই চুক্তির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে ভাসানচরকেন্দ্রিক সব ধরনের দূরত্ব দূর হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই সমঝোতার ফলে বাংলাদেশ সরকার ও ইউএনএইচসিআর যৌথভাবে ভাসানচরে রোহিঙ্গা নাগরিকদের খাদ্য ও পুষ্টি, সুপেয় পানি, পয়ঃনিষ্কাশন, চিকিৎসা, দক্ষতা প্রশিক্ষণ, মিয়ানমারের ভাষায় পাঠক্রম ও অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা এবং জীবিকায়নের ব্যবস্থা করবে।

গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে লাখ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক কক্সবাজারে এসে আশ্রয় নিতে থাকে। এর আগেও বিভিন্ন সময় দলে দলে রোহিঙ্গারা এসে কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়। এতে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক এখন কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরগুলোতে অবস্থান করছে।

বারবার চেষ্টা করেও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে না পারায় কক্সবাজারের সামাজিক সমস্যা সৃষ্টির প্রেক্ষাপটে তাদের একটি অংশকে হাতিয়ার কাছে মেঘনা মোহনার দ্বীপ ভাসানচরে স্থানান্তরের কার্যক্রম শুরু করে সরকার। ১৩ হাজার একর আয়তনের ওই চরে ১২০টি গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করে এক লাখের বেশি মানুষের বসবাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। গত বছরের ৪ ডিসেম্বরে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর শুরু হয়। এ পর্যন্ত ছয় দফায় ১৮ হাজার ৩৩৪ জন শরণার্থীকে স্থানান্তর করেছে সরকার।


আরও খবর