শিরোনাম

টিকা সংক্রান্ত ভিডিও সরিয়ে ক্ষমা চাইলেন ডা. জাহাঙ্গীর কবির

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিটো ডায়েট সংক্রান্ত পরামর্শদাতা ডা. জাহাঙ্গীর কবীর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক থেকে জনমনে বিভ্রান্ত ছড়ানো ভিডিও সরিয়ে নিয়ে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুরে তার নিজস্ব ফেসবুকের ভেরিফায়েড পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি তার ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান।

ফেসবুক পোস্টে তিনি বলেন-

আসসালামু আলাইকুম আমি ডা. মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবীর। সুস্থ থাকার লক্ষ্যে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা নিয়ে কাজ করছি। সেই লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে আমার রোগীদের লাইফস্টাইল মডিফিকেশনের পরামর্শ দিয়ে আসছি। ইদানিংকালে আমার একটি ভিডিও এবং দুটি পোস্ট নিয়ে আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। প্রথমত সুস্থ থাকার জন্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর বিষয়ে গুরুত্বারোপ করে আমি একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলাম; সেখানে করোনার ভ্যাকসিন বিষয়ে কিছু তথ্য সহজভাবে বোঝাতে গিয়ে আমার অসাবধানতাবশত ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছিলাম।

এ নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে আমি অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে ভিডিওতে যে তথ্যগুলো ভুল ছিল এবং যে কথাগুলো জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াতে পারে সেসব বিষয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য দিয়ে পূর্বের ভিডিওটি অনলাইন থেকে সরিয়ে নিয়েছি। একইসাথে সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য পরামর্শ ও উৎসাহ দিয়েছি। এরপরেও কয়েকজন সম্মানিত ডাক্তার আমাকে ভুল বুঝে সরাসরি আমার নাম উল্লেখ করে নানান রকম পোস্ট করেন। তন্মধ্যে একটি পোস্টের স্ক্রিনশট আমি আমার পেইজে শেয়ার করেছিলাম। এছাড়া অন্য একটি জনসচেতনতামূলক পোস্টে উদাহরণ স্বরূপ একটি প্রেসক্রিপশন শেয়ার করেছিলাম। ঐ প্রেসক্রিপশনটি যিনি লিখেছিলেন তার প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক আমি তার নাম ও রেজিস্ট্রেশন নম্বরটি প্রকাশ করিনি। তথাপি এই পোস্টটি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হলে তৎক্ষণাৎ দুটি পোস্টই ডিলিট করে দেই।

আমি বিশ্বাস করি আমাদের ডাক্তার সমাজের প্রত্যেকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনসেবা করে যাচ্ছেন, মানবিক কাজ করে যাচ্ছেন, এজন্য প্রত্যেক ডাক্তারই আমার কাছে অত্যন্ত সম্মানিত ও শ্রদ্ধাভাজন। একজন ডাক্তার হিসেবে আমি কখনোই কাউকে অসম্মান করতে পারি না এবং আমি তা করতে চাইও না। তবুও আমার অনিচ্ছায় তা হয়ে থাকলে তার জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী। উপরোক্ত বিষয়গুলোর বাইরে আরও যে বিষয়ে সমালোচনা এসেছে তার মধ্যে অন্যতম হলো আমার পরামর্শকে কিটো ডায়েট হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। এই বিষয়ে আমি বহুবার নানান ভিডিওর মাধ্যমে বলেছি যে, আমি শুধুমাত্র ডায়েট বা খাদ্যাভ্যাস নিয়ে কথা বলি না। আমি মূলত পাঁচটি বিষয়ের উপর গুরুত্ব দিয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকি। এর মধ্যে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের পাশাপাশি অটোফেজি, পর্যাপ্ত ঘুম, নিয়মিত ব্যায়াম ও মানসিক প্রশান্তির চর্চা করাকে সমানভাবে গুরুত্ব দেই। আমি কখনোই ওষুধ বিরোধী না, আমি সব সময় বলে এসেছি জরুরি চিকিৎসায় ওষুধ অপরিহার্য।

তবে লাইফস্টাইল রোগগুলো লাইফস্টাইল মডিফাই করে প্রতিরোধ করা যেতে পারে এবং সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। আমিও আমার রোগীদের প্রয়োজনে ওষুধ লিখছি সুতরাং ওষুধের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। আমি সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছি যেন স্বাস্থ্যকর জীবন-যাপনের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ওষুধ ছাড়া সুস্থ থাকতে পারেন।

বিশেষভাবে উল্লেখ্য, যেসব রোগীরা সরাসরি আমার পরামর্শ নেন আমি তাদেরকে নিয়মিত অবজারভেশনে রাখার চেষ্টা করি এবং কাউন্সেলিং এর মাধ্যমে আমার পরামর্শের নানান প্রভাব ও প্রতিকারের বিষয়ে আলোকপাত করে থাকি। সর্বপরি আমি মনে করি চিকিৎসক সমাজে আমরা সবাই সহকর্মী, একে অপরের সহযোগী। এখানে রয়েছেন আমার সম্মানিত শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ, শ্রদ্ধাভাজন বড় ভাই-বোন,বন্ধুরা ও আগামীর সম্ভাবনাময় জুনিয়র ডাক্তারগণ। জনস্বার্থে সকল চিকিৎসকই একেকজন যোদ্ধা। করোনা মহামারীর এই চরম দুর্দিনে ডাক্তারদের মত যোদ্ধারাই নিজেদের জীবন ঝুঁকির কথা ভুলে জরাগ্রস্ত মানুষের পাশে থেকেছে এখনো আছে।

আজকের পুরো বিশ্ব চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নয়ন ও বাস্তবায়নের সাথে জড়িত সকলের কাছে কৃতজ্ঞ।আমি সকলের প্রতি সম্মান রেখে বলছি মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে তাই আপনারা আমার কোন ভুল ধরিয়ে দিলে আমি তা শুধরে নিব। নিজের ভুলকে আমি ভুল হিসেবে গ্রহন করে তা শুধরে নিব আর আপনাদের কাছেও আমার অনুরোধ আপনারা আমার পূর্বের ভুলগুলো ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। কেননা আমরা তো সকলে মিলে মানব সেবার ব্রতেই চিকিৎসা পেশাকে বেছে নিয়েছি আর সেজন্য আমরা একে অপরের প্রতি সম্মান রেখে একযোগে কাজ করতে পারি। আমি নিজেও একজন চিকিৎসক, সবসময়ই প্রত্যেক চিকিৎসকের সম্মান রক্ষা ও অবদান স্বীকার আমার কাছে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায়। বহু আগে থেকেই আমি নিজেও চিকিৎসকদের নিরাপত্তা, অধিকার ও দায়িত্ব নিয়ে সোচ্চার আছি। সেই লক্ষ্যে আমি ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি, রাইটস এন্ড রেসপন্সিবিলিটিস (FDSR) এর সাথে প্রোগ্রাম করেছিলাম, তা আমার পেইজ থেকে শেয়ার করেছিলাম সকলের উদ্দেশে। তবুও মানুষ হিসেবে আমি ভুলের ঊর্ধ্বে নই। তাই আমার কথায় হয়তো অনেক সহকর্মী-সিনিয়র চিকিৎসক কষ্ট পেয়েছেন কিংবা মনক্ষুণ্ন হয়েছেন। আমি তাদের সবার প্রতি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।


আরও খবর

এবার টিকটকের নজর দারিতে সিআইডি

বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর ২০২১




মাদারীপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ, আহত ২০

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মাদারীপুরের কালকিনিতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় গোলাগুলিসহ প্রায় শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

আজ শনিবার সকালে উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগরে আপং কাজী ও কবির খান গ্রুপের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের বরিশাল ও শরীয়তপুর ও কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ৩০ জুলাই ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত বাবা-ছেলেকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মিরাজ হোসেনের পা বিচ্ছিন্ন করে নিয়ে যায় আপং কাজীর লোকজন। পরে মিরাজের ভাই কবির খাঁ বাদী হয়ে ৩৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ১০-১৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। মামলার আসামিদের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পরে পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার করার জন্য ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ১৪ ডিসেম্বর বাদীর চাচা একই এলাকার তিতাই খানের ছেলে লিয়াকত খানের দুই পা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ভেঙে দেয় আসামিরা। পরে স্থানীয় লোকজন আহত কৃষককে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ওই ঘটনার পর থেকেই উভয়পক্ষের লোকজনের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে আজ ভোর থেকে ব্যাপক সংঘর্ষ চলে। গোলাগুলিসহ বোমা বিস্ফোরণ হওয়ায় পুরো এলাকায় থমথমে পরিবেশ তৈরি হয়েছে।

কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইশতিয়াক আশফাক রাসেল বলেন, দুইপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


আরও খবর

মাদারীপুরে বাসের ধাক্কায় ইজিবাইক চালক নিহত

বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২




শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ জুটি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আসন্ন বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রার্থী হবেন ইলিয়াস কাঞ্চন৷ অভিনেত্রী নিপুণকে সেক্রেটারি করে প্যানেল হবে কাঞ্চন-নিপুণ। এখানে সহসভাপতি পদে দাঁড়াবেন অভিনেতা রিয়াজ ও ফেরদৌস।

শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কারণ হিসেবে ইলিয়াস কাঞ্চন জানিয়েছেন,  ইন্ডাস্ট্রি ও শিল্পীদের স্বার্থেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি৷ সভাপতি পদে লড়বেন তিনি।

নিজের প্যানেলের প্রার্থীদের বিষয়ে একসময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক বলেন, ২০২২-২৩ সালের শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচন করব আমি। আমার সঙ্গে নিপুণ সেক্রেটারি পদে নির্বাচন করবে। রিয়াজ, ফেরদৌস, সাইমন, ইমনও থাকবে৷ তারা কে কোন পদে নির্বাচন করবে সেটি এখনও ঠিক হয়নি। তবে আমাদের প্যানেলে থাকবেন তারা।

জানা গেছে, ইলিয়াস কাঞ্চনের প্যানেলে জয়েন্ট সেক্রেটারি পদে নির্বাচন করবেন এ প্রজন্মের নায়ক সাইমন সাদিক। তাদের এ প্যানেলের বিপরীতে লড়বে গত কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের প্যানেল।

 


আরও খবর

আট মাস অপেক্ষার পর বাদ পড়েন ছবি থেকে

রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২




শিশুর পক্ষে কথা বলায় এমবাপ্পেকে হত্যার হুমকি

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হত্যার হুমকি পেয়েছেন ফরাসি ফুটবলের সময়ের সবচেয়ে বড় তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে।নিজ শহর বন্ডিতেই এ হুমকি পেয়েছেন এমবাপ্পে। যে খবরে বিস্মিত ফুটবলবিশ্ব।

সংবাদমাধ্যম লে প্যারিসিয়েন জানিয়েছে, বন্ডিতে এমবাপ্পের বিশাল এক ম্যুরালে গ্রাফিতি একে কে বা কারা বার্তা দিয়েছেন, এমবাপ্পে, তোমার দিন ফুরিয়ে এসেছে। এমন হুমকি পাওয়ার কারণ হিসেবে জানা গেছে পিএসজি তারকার একটি টুইট।

মঙ্গলবার এক শিশুকে অনলাইনে কটূক্তি করার প্রতিবাদ জানিয়ে টুইটারে পোস্ট করেছিলেন এমবাপ্পে।  সে ঘটনার পরই হত্যার হুমকি পান এমবাপ্পে।

উল্লেখ্য, ওই শিশুর নাম কামিলে। ছোট্ট মেয়েটি দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত। এক ভিডিওতে দেখা গেছে কামিলে এমবাপ্পেকে পিএসজিতে রয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলছে, প্যারিস ও ফ্রান্সে আমার মতো লাখো সমর্থক আছে, যারা তোমাকে (এমবাপ্পে) অনেক ভালোবাসে। দয়া করে পিএসজিতে থেকে যাও এবং আরও বহুদিন আমাদের স্বপ্ন দেখাও। কিলিয়ান, আশা করি পিএসজি ও ফ্রান্স দলে দারুণ এক বছর কাটাবেন।

কিন্তু কামিলের এমন আবেগঘন বার্তা পছন্দ হয়নি ফ্রান্সের অনেকের। তারা সেই ভিডিওর নিচে বাজে মন্তব্য করেন। আট বছরের শিশু কামিলেকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করেন। বিষয়টি একেবারেই মেনে নিতে পারেননি এমবাপ্পে। টুইটারে কামিলের পক্ষে বক্তব্য দেন ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী তারকা।

এমবাপ্পে লেখেন, একটি শিশুর প্রতি এমন বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য আমরা তো তলানিতে পৌঁছে যাচ্ছি, আমাদের বিবেক জাগ্রত হোক। এমন টুইটের পর পরই এমবাপ্পের কিছু শত্রুর সৃষ্টি হয়ে গেছে তা স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে।

 


আরও খবর

টিভিতে আজকের খেলা

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২

বিপদে বাংলাদেশ যুব দল

রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২




ভারতে একদিনে করোনায় আক্রান্ত প্রায় লাখের কাছাকাছি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৯৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতে আবারও বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বৃহস্পতিবার সেই সংখ্যা বেড়ে প্রায় লাখের কাছাকাছি পৌঁছেছে। করোনায় একদিনে প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যাও ৩২৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

এরই মধ্যে ভারতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৬৩০ জনে। এবং বুধবার রাজস্থানে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই ও সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

বৃহস্পতিবার ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৯০ হাজার ৯২৮ মানুষ। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় দেশটিতে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৩৩ হাজার। আর বুধবারের তুলনায় ৫৬ দশমিক ৫ শতাংশ বেশি।

অন্যদিকে বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার ভারতে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও তা এখনও তিনশর ওপরেই রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৩২৫ জন। অর্থাৎ গত একদিনে প্রাণহানির সংখ্যা কমেছে দুই শতাধিক। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪ লাখ ৮২ হাজার ৮৭৬ জন।

ভারতে এখন দৈনিক সংক্রমণের হার ৬ দশমিক ৪৩ শতাংশ। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে দেশটিতে এখন সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৮৫ হাজার ৪০১ জন।

এদিকে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে দিল্লি সরকার। রাজধানীর নয়টি হাসপাতালকে কোভিড বেডের সংখ্যা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

এ ছাড়া দিল্লি সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের পক্ষ থেকে একটি নির্দেশনাও জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশনায় দিল্লির হাসপাতালগুলোতে কোভিড বেড তিন হাজার ৩১৬ থেকে বাড়িয়ে চার হাজার ৩৫০ করার কথা বলা হয়েছে।


আরও খবর

ক্ষমতার অপব্যবহারও করছে তালেবান

রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২




শপথ নিলেন আপিল বিভাগের ৩ বিচারপতি

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে শপথ নিয়েছেন তিন জন বিচারপতি। এই তিন বিচারপতি হলেন, বিচারপতি বোরহান উদ্দিন, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ। তবে একই সাথে নিয়োগ পাওয়া বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান অসুস্থ থাকায় তার শপথগ্রহণ তিনি সুস্থ হলে অনুষ্ঠিত হবে।

প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী রোববার সকাল সাড়ে ১০ টায় সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে তিন বিচারপতিকে শপথবাক্য পাঠ করান। এসময় সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিরা উপস্থিত ছিলেন। আর শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর।

এর আগে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সচিব (দায়িত্বপ্রাপ্ত) মো: গোলাম সারওয়ার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির নিয়োগের বিষয়টি জানানো হয়।

ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সংবিধানের ৯৫ (১) অনুচ্ছেদে প্রদত্ত ক্ষমতাবলে রাষ্ট্রপতি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে কর্মরত বিচারপতি বোরহান উদ্দিন, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান, বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথকে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারক নিয়োগ করিয়াছেন। এই নিয়োগ শপথ গ্রহণের তারিখ থেকে কার্যকর হইবে।


আরও খবর