Logo
শিরোনাম

টিকটকে ভিডিওপ্রতি খাবির আয় সাড়ে সাত লাখ ডলার!

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হালের জনপ্রিয় শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটকে সবচেয়ে বেশি অনুসারী তাঁর। কোনো কথা বলেন না, কেবল মুখভঙ্গির মাধ্যমে কোটি কোটি মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন এই কনটেন্ট ক্রিয়েটর। টিকটক ব্যবহারকারীরা যাকে এক নামে চেনে, তিনি খাবি লেম।

২২ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ যুবক খাবির আসল নাম খাবানে লেম। জন্ম আফ্রিকার দেশ সেনেগালে। বর্তমানে তিনি পরিবারের সঙ্গে ইতালিতে বাস করছেন। করোনা মহামারির শুরুর দিকে টিকটকে অ্যাকাউন্ট খোলেন।

এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে পরিচিতি পেয়েছেন খাবি। টিকটকে তাঁর অনুসারীর সংখ্যা ১৪ কোটি ৯৫ লাখ। চলতি বছরের জুন মাসেই সর্বোচ্চ অনুসারী নিয়ে শীর্ষ টিকটকারের খেতাব পেয়েছেন।

জনপ্রিয় এই টিকটকার প্রতি ভিডিওতে কত আয় করেন, তা শুনলে চোখ কপালে উঠবে যে কারো। মানি কন্ট্রোলের প্রতিবেদনে জানা যায়, সম্প্রতি একটি ভিডিওতেই তিনি আয় করেছেন বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮ কোটি টাকা।

এক সাক্ষাৎকারে খাবি লেম জানিয়েছেন, তাঁর বেশির ভাগ আয় আসে অনলাইন কনটেন্ট আকারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে। যেকোনো ব্র্যান্ডের জন্য টিকটকে একটি ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করার মাধ্যমে গড়ে ৪ লাখ ডলার আয় করেন তিনি। সম্প্রতি একটি টিকটক ভিডিওর জন্য খাবি লেম আয় করেছেন সাড়ে ৭ লাখ ডলার, অর্থাৎ বর্তমান বিনিময় হার অনুযায়ী প্রায় ৮ কোটি টাকা।

২০২০ সালে করোনা মহামারির শুরুর দিকে স্রেফ শখের বশে টিকটকে যোগ দেন খাবি লেম। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই টিকটকে লাখ লাখ অনুসারী তৈরি হয় তাঁর এবং দুই বছরের মধ্যে শীর্ষ টিকটকার হিসেবে পরিচিতি পান তিনি।

খাবি ইংরেজি জানেন না। সম্প্রতি এই টিকটকার ইংরেজি ভাষা শেখার চেষ্টা করছেন। বাড়িতে শিক্ষক রেখে ইংরেজি চর্চা তো করছেনই, পাশাপাশি আমেরিকান কার্টুন, সিনেমাও দেখছেন প্রতিদিন। খাবি লেমের ইচ্ছা অভিনেতা হওয়ার।


আরও খবর



ডোনাল্ড লু’র ঢাকা সফরে গুরুত্ব পাচ্ছে যেসব বিষয়

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ জানুয়ারী ২০23 | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দ্বিপক্ষীয় সফরে ঢাকায় আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ডোনাল্ড লু। চলতি মাসের মাঝামাঝিতে দুই দিনের এই সফরে তিনি সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের পাশাপাশি রাজনৈতিক দল ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে।

এসব বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে গুরুত্ব দেওয়া হতে পারে মানবাধিকার পরিস্থিতি, গণতন্ত্র ও অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন, গুম, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, শ্রম অধিকারসহ বেশ কিছু এজেন্ডা।

অন্যদিকে, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার, বাংলাদেশি পণ্যের শুল্ক ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার, জিএসপি সুবিধা পুনর্বহাল, প্রতিরক্ষা, জলবায়ু, রোহিঙ্গাসহ একাধিক বিষয়।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৪ জানুয়ারি ঢাকায় আসতে পারেন ডোনাল্ড লু। তিনি মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরে বাংলাদেশবিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তা। সম্প্রতি ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে পড়ার বিষয়ে জানতে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরানকে ডেকেছিলেন তিনি।

এদিকে, ডোনাল্ড লুর ঢাকা সফরকে কেন্দ্র করে রোববার (১ জানুয়ারি) দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানসহ সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর সচিব এবং বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। বৈঠকে বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের পক্ষ থেকে সবাই একই সুরে কথা বলার সিদ্ধান্ত এবং গণতন্ত্র-মানবাধিকার লঙ্ঘনসহ বিভিন্ন বিষয়ে সরকারবিরোধী অপপ্রচার মোকাবিলা করতে সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়।

গত ৩০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করছেন মার্কিন এই পররাষ্ট্র কর্মকর্তা। ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে তিনি দেশটির দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার জন্য তার হাত ছিল বলে অভিযোগ করেছিলেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

নিউজ ট্যাগ: ডোনাল্ড লু

আরও খবর



চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সভাপতিসহ চারজন কুমিল্লায় গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তীসহ চারজনকে কুমিল্লার বিশ্বরোডের আলেখার চর মায়ামী হোটেল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার নোবেল চাকমা। তিনি বলেন, গত ১৬ জানুয়ারি বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলের সময় পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামি দিপ্তী। তিনি চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় পালিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় কুমিল্লা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে মায়ামী হোটেল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

চার জন গ্রেপ্তারের বিষয়ে তিনি বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ৪ জনের মধ্যে দিপ্তীকে আমরা চট্টগ্রামে নিয়ে আসছি। তাকে আজ আদালতে হাজির করা হবে। 

বাকি তিনজনকে আটকের বিষয়ে তিনি বলেন, তারা হয়তো কুমিল্লার অন্য কোনো মামলার আসামি হবেন। কুমিল্লা জেলা পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করতে পারে।

আটক অন্যদের মধ্যে রয়েছেন আবদুর রহমান, হাবিবুর রহমান এবং আরজু। তারা কুমিল্লা বিএনপির কর্মী বলে জানা গেছে। 


আরও খবর

কড়াইয়ের গরম তেলে পড়ে শিশুর মৃত্যু

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

কুকুর বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেলো যুবকের

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




২০১০ সাল থেকে নেপালে যত ভয়াবহ প্লেন দুর্ঘটনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মর্মান্তিক প্লেন দুর্ঘটনা যেনো নেপালের পিছু ছাড়ছে না। দেশটিতে প্লেন বিধ্বস্তের ঘটনা প্রায়ই খবরের শিরোনাম হচ্ছে। প্রাণ হারাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। রবিবার (১৫ জানুয়ারি) নেপালে আবারও প্লেন দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে এখন পর্যন্ত ৬৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মূলত নেপালের বিমান পরিবহনখাত দুর্ঘটনায় জর্জরিত। দেশটিতে রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে জটিল ও দূরবর্তী রানওয়ে। সুউচ্চ পর্বতের কারণে দক্ষ পাইলটদেরও পড়তে হয় চ্যালেঞ্জেরে মুখে। ২০১০ সালের পর নেপালে প্লেন দুর্ঘটনার তথ্য-

মে ২৯, ২০২২: এদিন পশ্চিম নেপালের পোখারায় তারা এয়ারের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হয়। ওই ঘটনায় নিহত হয় ২২ জন।

এপ্রিল ১৪, ২০১৯: একটি ছোট প্লেন মাউন্ট এভারেস্টের কাছে উড্ডয়নের সময় রানওয়ে থেকে সরে যায় ও একটি পার্ক করা হেলিকপ্টারকে আঘাত করে। ওই ঘটনায় তিনজন নিহত ও চারজন আহত হয়।

মার্চ ১২, ২০১৮: বাংলাদেশের ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হয় নেপালে। সে দুর্ঘটনায় ৭১ আরোহীর মধ্যে প্রাণ হারান ৫১ জন। এটি কয়েক দশকের মধ্যে ভয়াভহ দুর্ঘটনা ছিল।

ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৬: তারা এয়ার দ্বারা পরিচালিত একটি টুইন অটার প্লেন মায়াগদি জেলার একটি পাহাড়ের কাছে বিধ্বস্ত হয়, এতে ২৩ জন আরোহী নিহত হয়।

ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৪: আরঘাখাঞ্চি জেলায় নেপাল এয়ারলাইন্সের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হয়। ওই ঘটনায় ১৮ জন নিহত হন।

সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১২: এদিন মাউন্ট এভারেস্টমুখী একটি প্লেন নেপালের রাজধানীর কাছে বিধ্বস্ত হয়। এতে প্লেনে থাকা সব আরোহী নিহত হন।

মে ১৪, ২০১২: উত্তর নেপালের জোমসমের বিমানবন্দরের কাছে ভারতীয় তীর্থযাত্রীদের বহনকারী অগ্নি এয়ারের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হয়। এতে ১৫ জন মারা যায়, তবে ছয়জন অলৌকিকভাবে রক্ষা পায়।

সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১১: মাউন্ট এভারেস্টের চারপাশে পর্যটকদের নিয়ে যাওয়া একটি ছোট প্লেন কাঠমান্ডুর কাছে পাহাড়ে বিধ্বস্ত হয়। এতে ১৯ জনের সবাই মারা যায়।

ডিসেম্বর ১৫, ২০১০: নেপালের পূর্বাঞ্চলে একটি যাত্রীবাহী প্লেন বিধ্বস্ত হয়। এ ঘটনায় প্লেনে থাকা যাত্রী ও ক্রুসহ ২২ জন প্রাণ হারান।

আগস্ট ২৪, ২০১০: কাঠমান্ডুর কাছে খারাপ আবহাওয়ায় একটি ছোট অগ্নি এয়ারের প্লেন বিধ্বস্ত হয়, এতে ১৪ জনের সবাই মারা যায়।


আরও খবর



চুরির অভিযোগে ৪ জনের হাত কেটে দিলো তালেবান

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানের তালেবান কর্তৃপক্ষ প্রকাশ্যে ৯ জনকে বেত্রাঘাত করেছে। সেই সঙ্গে চুরির অভিযোগে চারজনের হাত কেটে নিয়েছে। খবর এনডিটিভির।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) কান্দাহারের আহমেদ শাহি স্টেডিয়ামে চাবুক মারার ঘটনা ঘটে। দেশটির সুপ্রিম কোর্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ডাকাতি ও সমকামিতার দায়ে নয়জনকে সাজা দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের বিবৃতি আফগানিস্তানের টোলো নিউজ টুইট করেছে।

বেত্রাঘাতের সময় স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এবং কান্দাহারের বাসিন্দারা স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন। প্রাদেশিক গভর্নরের মুখপাত্র হাজি জায়েদ জানিয়েছেন, দোষীদের ৩৫ থেকে ৩৯টি বেত্রাঘাত করা হয়েছিল।

ব্রিটিশ-আফগান সমাজ ও রাজনৈতিক কর্মী শবনম নাসিমি জানিয়েছেন, গতকাল কান্দাহারের একটি ফুটবল স্টেডিয়ামে দর্শকদের সামনে তালেবানরা চারজনের হাত কেটে ফেলেছে বলে জানা গেছে। চুরির অপরাধে তাদের হাত কেটে ফেলা হয়েছে।

আফগানিস্তানে ন্যায়বিচার ও যথাযথ প্রক্রিয়া ছাড়াই মানুষকে বেত্রাঘাত করা হচ্ছে, বিকৃত করা হচ্ছে এবং মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হচ্ছে। এটা মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে জানান শবনম নাসিমি।

তালেবানের সর্বোচ্চ আধ্যাত্মিক নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা গত বছরের নভেম্বরে দেশটির বিচারকদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। বৈঠকে তিনি কিছু অপরাধের জন্য শরিয়া আইনে শাস্তি প্রদানের জন্য বিচারকদের নির্দেশ দেন। এরপর থেকে তালেবানরা প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত চালাচ্ছে।

গত বছরের ৭ ডিসেম্বর তালেবান আফগানিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলীয় ফারাহ প্রদেশে হত্যার দায়ে এক ব্যক্তিকে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড দেয়। তালেবান ২০২১ সালের আগস্টে দ্বিতীয়বারের মতো আফগানিস্তানে ক্ষমতা দখল করে। এই দফায় ক্ষমতা দখলের পর এদিনই তালেবান প্রথম প্রকাশ্যে কারও মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করে।

আন্তর্জাতিক নিন্দা সত্ত্বেও, আফগান তালেবান তাদের সর্বোচ্চ নেতার একটি ডিক্রি অনুসরণ করে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত ও অপরাধীদের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা শুরু করেছে। জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা আফগানিস্তানে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত ও মৃত্যুদণ্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

তারা তালেবান কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে কঠোর, নিষ্ঠুর ও অবমাননাকর শাস্তি বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ২০২২ সালের ১৮ থেকে তালেবান কর্তৃপক্ষ আফগানিস্তানের বিভিন্ন প্রদেশে শতাধিক লোককে বেত্রাঘাত করেছে বলে জানা গেছে।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানে প্রথম তালেবান শাসনামলে, বেত্রাঘাত ও পাথর মারার মতো কঠোর শরিয়া আইনের শাস্তি কার্যকর ছিল। যাইহোক, তালেবানরা দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় এসে প্রতিশ্রুতি দেয় যে তারা অতীতের মতো দেশ শাসন করবে না। তবে তালেবানরা তাদের পুরনো পথে ফেরার লক্ষণ দেখাচ্ছে।


আরও খবর



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে সাংবাদিকের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আশিকুল ইসলাম (২৭) নামে এক সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। সোমবার (৯ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শহরের ফারুকী পার্কের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আশিকুল ইসলাম জেলা শহরের মেড্ডা এলাকার আশরাফ উদ্দিনের ছেলে। তিনি দৈনিক পর্যবেক্ষণ পত্রিকার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার স্থানীয় অনলাইন পত্রিকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদ- এর নিজস্ব প্রতিবেদক ছিলেন।

নিহতের স্বজন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেলে ফারুকী পার্ক থেকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বাতিঘর-এর একটি মাসিক সভা শেষ করে অটোরিকশায় করে কুমারশীল মোড়ের দিকে যাচ্ছিলেন আশিকুল ইসলামসহ আরও কয়েকজন। অটোরিকশাটি ফারুকী পার্ক থেকে কিছুদূর যাওয়ার পর রায়হান নামে এক যুবক তার কয়েকজন সহযোগী নিয়ে অতর্কিতভাবে আশিকুল ইসলামের ওপর হামলা করে। এসময় আশিকুল ইসলামকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা। পরে আশিকুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সোহরাব আল হোসাইন বলেন, কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে সেটি এখনো স্পষ্ট করে জানা যায়নি। তবে সাংবাদিক আশিকুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর