শিরোনাম

তিন মাস পর জানা গেল হারিছ চৌধুরী আর নেই

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লন্ডনের একটি হাসপাতালে মারা গেছেন পলাতক বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরী। করোনা আক্রান্ত হয়ে দেশটির একটি হাসপাতালে তিন মাস আগে তার মৃত্যু হলেও বিষয়টি জানা যায় গতকাল।

হারিছ চৌধুরীর চাচাতো ভাই ও সিলেট জেলা বিএনপির সহসভাপতি আশিক চৌধুরী ফেসবুকে মৃত্যুর বিষয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ স্ট্যাটাস দেন। তিন মাস আগে হারিছের জীবনাবসান হলেও পরিবারের সদস্যরা এতোদিন সেই সংবাদ গোপন রেখেছিলেন।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে আশিক চৌধুরী লিখেন- ভাই বড় ধন, রক্তের বাঁধন। হারিছের একটি ছবি যুক্ত করে আশিক এ স্ট্যাটাস দেন। স্ট্যাটাসের নিচে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন লিখে কমেন্ট দিতে থাকেন।

চারদলীয় জোট সরকারের আমলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব ছিলেন হারিছ চৌধুরী। সে সময়ের প্রভাবশালী এই নেতা বিএনপি ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পরই দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান।

পালিয়ে যাওয়ার পর ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় ২০১৮ সালে যাবজ্জীবন সাজা হয় হারিছ চৌধুরীর। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হারিছ চৌধুরীর সাত বছরের জেল ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা হয়।

এছাড়া সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায় হারিছ চৌধুরী ও সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ ২৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। ২০০৭ সালে দেশে জরুরি অবস্থা জারির পর হারিছ চৌধুরী সস্ত্রীক তাঁর গ্রামের বাড়ি সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার দর্পনগরে আসেন। রাত ১২টার পর তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী আতিক মোবাইল ফোনে জানান, ঢাকায় বিএনপি নেতাদের বাসভবনে যৌথ বাহিনীর অভিযান চলছে। কয়েক ঘণ্টা পর যৌথ বাহিনী হারিছের বাড়িতে হানা দেয়। কিন্তু তার আগেই তিনি সরে পড়েছিলেন। কিছুদিন সিলেটে এখানে-ওখানে লুকিয়ে থাকার পর ওই বছরের ২৯ জানুয়ারি জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে রাতের আঁধারে ভারতে চলে যান। ভারতের আসামে করিমগঞ্জ জেলার বদরপুরে তাঁর নানাবাড়ি। সেখানেই তিনি ওঠেন। সেখান থেকেই বিদেশে যাতায়াত করতেন। সূত্র জানান, ব্যবসা-বাণিজ্যও দেখভাল করতেন ওখানে থেকেই। হারিছ চৌধুরী স্ত্রী ও ছেলেমেয়ে নিয়ে যুক্তরাজ্যে থাকতেন।


আরও খবর



পাবনার ভাঁড়ারা ইউপির সব পদের নির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত:সোমবার ২০ ডিসেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পাবনা সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সব পদের নির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গত ১১ ডিসেম্বর সকালে দুপক্ষের নির্বাচনি প্রচারণার সময় সংঘর্ষে ইয়াসিন আলম (৩৫) নামের এক স্বতন্ত্র প্রার্থীর নিহতের ঘটনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

পাবনা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান গতকাল সোমবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মাহবুবুর রহমান জানান, ইসির উপ-সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে গতকাল রোববার এ তথ্য জানানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ দফায় অনুষ্ঠেয় পাবনা জেলার সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ইউপির সব (চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য, সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য) পদের নির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত দিয়েছে ইসি। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

গত ১১ ডিসেম্বর সকালে ভাঁড়ারা ইউপির নির্বাচনি প্রচারণা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইয়াসিন আলম নিহত হন। ওইদিনই চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন স্থগিতের জন্য গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল ইসি।


আরও খবর

পাবনায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২




৩৫ হাজার ফুট উঁচুতে অল্পের জন্য রক্ষা পেলো বিমানের ২০০ যাত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

৩৫ হাজার ফুট উঁচু দিয়ে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বোয়িং ৭৭৭ বিমান ২০০ যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু আচমকা ঘটে যায় এক ভয়ঙ্কর এবং অদ্ভুত ঘটনা। বিমানের উইন্ডস্ক্রিনে পড়ে বরফের টুকরা। এতে বিমানের উইন্ডস্ক্রিনে চিড় ধরে যায়। তবে যাত্রীরা নিরাপদে আছেন বলে জানা যায়।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যা নাগাদ লন্ডন থেকে কোস্টারিকার উদ্দেশে পাড়ি দেয় বোয়িং ৭৭৭ বিমান। বিমান তখন ৩৫ হাজার ফুট উঁচুতে। এসময় আরও এক হাজার ফুট উঁচুতে ছিল আরেক জেট বিমান। আর তা থেকেই এক খণ্ড বরফ বোয়িং ৭৭৭ বিমানের উইন্ডস্ক্রিনে পড়ে। বিমানের দুই ইঞ্চি পুরু উইন্ডস্ক্রিনটিতে চিড় ধরে যায়। গুলি প্রতিরোধকারী মোটা কাচ থাকায় তা ভেঙে যায়নি। তবে এতে ঘটতে পারতো ভয়ঙ্কর কিছু।

এরপর বাধ্য হয়েই ওই বিমানের পাইলট ক্যালিফোর্নিয়ার সান জোসে বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখানে বিমানের উইন্ডস্ক্রিন মেরামত করা হয়।

স্যান হোসে বিমানবন্দরে নিরাপদেই নামে বিমানটি। লন্ডন যাওয়ার কথা থাকলেও স্যান হোসেতেই নামিয়ে দেয়া হয় বিমানটিকে। এরপর বিমানটি ৫০ ঘণ্টা পরে আবার ছাড়া হয় বলে জানা যায়। এর ফলে অনেকেই সঠিক সময়ে নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছতে পারেননি।


আরও খবর

আবুধাবিতে ড্রোন হামলায় তিনজন নিহত

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২




নেত্রকোনায় ধান ক্ষেতের পাশ থেকে গলা কাটা লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নেত্রকোনার কলমাকান্দায় ধান ক্ষেতের পাশ থেকে মজিবুর রহমান (৩২) নামে এক অটোচালকের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার সীমান্তবর্তী ইউনিয়ন লেঙ্গুরার গৌরীপুর গ্রাম থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত মজিবর রহমান (৩২) পার্শ্ববর্তী দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব নলুয়াপাড়া গ্রামের আবদুল কাশেমের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গৌরীপুরে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা ধান ক্ষেতের পাশে লাল রঙের শার্ট ও লুঙ্গি পরিহিত এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহত অটোচালকের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার দুর্গাপুর থেকে ভাড়ায় যাত্রী নিয়ে উপজেলার কলমাকান্দার সীমান্তবর্তী লেঙ্গুরা এলাকায় যান মজিবর রহমান। দিনশেষে রাতেই বাড়ি ফেরার কথা থাকলেও গভীর রাতে বাড়ি ফেরেননি তিনি। পরিবারের সদস্যরা রাতেই দুর্গাপুর শহরসহ বিভিন্ন স্থানে তাকে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো সন্ধান না পেয়ে মঙ্গলবার সকালে পুনরায় খুঁজতে বের হয়। এদিকে দুপুরে মরদেহ উদ্ধারের খবর শুনে পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে লাশটি মুজিবুর রহমানের বলে শনাক্ত করে। তবে নিখোঁজ রয়েছে অটোরিকশাটি।

এ ব্যাপারে কলমাকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুল আহাদ খান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অটোচালক মুজিবুর রহমানের লাশ  উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর

দিনাজপুরে বাসচাপায় ২ জন নিহত

রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২




আজ শুভ বড়দিন

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শুভ বড়দিন আজ। খ্রিস্টধর্মের প্রবর্তক যিশুখ্রিস্ট এই দিনে (২৫ ডিসেম্বর) বেথলেহেমে জন্মগ্রহণ করেন বলেই তার অনুসারী খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীরা দিনটিকে শুভ বড়দিন হিসেবে উদযাপন করে থাকেন।

খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষরা বিশ্বাস করেন, সৃষ্টিকর্তার মহিমা প্রচারের মাধ্যমে মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতেই প্রভু যিশুর পৃথিবীতে আগমন ঘটেছিল।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশের খ্রিস্টধর্মানুসারীরাও যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য্য ও আচারাদি, আনন্দ-উৎসব এবং প্রার্থনার মধ্যদিয়ে শুভ বড়দিন উদযাপন করবেন।

এ উপলক্ষে রাজধানীসহ সারাদেশে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গির্জাগুলোকে নতুন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা থেকে বিভিন্ন গির্জা এবং তারকা-হোটেলগুলোতে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এদিকে, বড়দিন উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খ্রিস্টধর্মাবলম্বীসহ সবার শান্তি ও কল্যাণ কামনা করে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে খ্রিস্টধর্মাবলম্বীসহ সবার জন্য অশেষ আনন্দ ও কল্যাণ কামনা করে বলেন, সবার জীবন সুখ ও সমৃদ্ধিতে ভরে উঠুক

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে সব ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদাত্ত আহ্বানে সাড়া দিয়ে সবাই মিলে যুদ্ধ করে আমরা বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি। এই দেশ আমাদের সবার। বাংলাদেশ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষের নিরাপদ আবাসভূমি।

অন্যদিকে দিনটি উপলক্ষে অনেক খ্রিস্টান পরিবারে কেক তৈরি করা হবে, থাকবে বিশেষ খাবারের আয়োজন। এছাড়াও স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশের অনেক অঞ্চলে আয়োজন করা হযেছে কীর্তনের পাশাপাশি ধর্মীয় গানের আসর। খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের অনেকেই আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার জন্য বড়দিনকে বেছে নেন।

রাজধানীর তেজগাঁও ক্যাথলিক গির্জায় (পবিত্র জপমালার গির্জা) বড়দিনের বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে। জরি লাগিয়ে গির্জার ভেতর রঙিন করা হয়েছে। ভেতরে সাজানো হয়েছে ক্রিসমাস ট্রি।

রাজধানীর তারকা হোটেলগুলোতে আলোকসজ্জার পাশাপাশি হোটেলের ভেতরে কৃত্রিমভাবে স্থাপন করা হয়েছে ক্রিসমাস ট্রি ও শান্তাক্লজ। বড়দিনের প্রাক্কালে শুত্রবার রাতে বিভিন্ন গির্জায় বিশেষ প্রার্থনাও অনুষ্ঠিত হয়। আজ সকাল থেকে শুরু হয়েছে বড়দিনের প্রার্থনা।

 

নিউজ ট্যাগ: শুভ বড়দিন

আরও খবর

২ এপ্রিল শুরু হতে পারে রোজা

বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর ২০২১




মরে গেলেও মাঠ ছাড়বো না: তৈমূর

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, লক্ষাধিক ভোটে পাস করব। মরে গেলেও মাঠ ছাড়বো না। প্রশাসনকে বলব, জনগণের সেবা করা আপনাদের দায়িত্ব।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে লক্ষাধিক ভোটে পাসের আশা প্রকাশ করে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, তিনি মরে গেলেও ভোটের মাঠ ছাড়বেন না। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তৈমূর আলম খন্দকার।

ইতোমধ্যে নাসিক নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণার সময় শেষ হয়েছে। রোববার (১৬ জানুয়ারি) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। 

এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমি প্রচার না, সংবাদ সম্মেলন করছি। আমি ভোট চাইনি। আমার ঘরে আগুন লাগিয়ে দিলে আমি কী বলব না। আমার লোকজন গ্রেফতার হচ্ছে, আমার গলায় আপনি ফাঁসি লাগিয়ে দেবেন—আমি কথা বলতে পারব না, সেটা তো হবে না। এটা নৈতিক দায়িত্ব। মানুষের ওপর যত অত্যাচার হয় ভোটাররা তত ঐক্যবদ্ধ হয়। 

তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, লক্ষাধিক ভোটে পাস করব। মরে গেলেও মাঠ ছাড়বো না। প্রশাসনকে বলব, জনগণের সেবা করা আপনাদের দায়িত্ব। বহুবার রিকোয়েস্ট করেছি এখন বিবেকের কাছে ছেড়ে দিলাম। আগামীকালের ভোট যাই হোক, আমরা মাঠে থাকব। গ্রেফতার হলে হবো কিন্তু নির্বাচন চালিয়ে যাবো।

তিনি বলেন, আজকে আপনাদের সামনে হাজেরা বেগম উপস্থিত আছেন। তিনি মহানগর শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদকের স্ত্রী। তিনি আমার বাড়িতে রাত ২টা পর্যন্ত ছিল। তাকে ঈদগাহের সামনে থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও চারজনকে প্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বেশিরভাগই আমার দলের গুরুত্বপূর্ণ পদের নেতা এবং নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করছে। এমনকি সরকারি দলের সদস্যদেরও হুমকি-ধমকি দেওয়া হচ্ছে। পাঠানটুলি এলাকার ছেলে আহসান, সে-ই এলাকায় আমার নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করেছিল। তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি এখনো তার খোঁজ পাইনি।

তিনি আরও বলেন, এখানে অনেক লোক আছেন, যারা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আছেন। এদের মধ্যে এমন কোনো লোক নেই, যাদের বাড়িতে দুই থেকে তিনবার লোক যায়নি। প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই, আপনি আমাদের ওপর এত অত্যাচার করছেন কেন? প্রশাসনের এহেন কাজে আপনার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক পাপনও কাল এখানে ছিল। তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। এভাবে আমার লোকদের গ্রেফতার করা হলে নির্বাচন কমিশন যে বলছে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে—এটাই কী সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রক্রিয়া।

এই প্রার্থী বলেন, এখানে যারা আছেন, তাদের জিজ্ঞেস করে দেখেন পুলিশ কীভাবে অত্যাচার করছে। একটি অডিও ভাইরাল হয়েছে। ভোটারদের নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য প্রেসার দেওয়া হচ্ছে। নয়তো তাদের ভোট দিয়ে দেওয়া হবে।

জেলা পুলিশ সুপারের বক্তব্যের প্রতিবাদে তৈমূর বলেন, আপনাদের মাধ্যমে যে কথা বলি, এটা কি তার কর্ণগোচর হয় না? এসব সাফাইয়ের কোনো ভিত্তি নাই। রবি কি মাদক ব্যবসায়ী, জামাল হোসেন কি হেফাজত। ১৯৫২ সালে যারা এ দেশের আন্দোলনকারীদের ওপর গুলি চালিয়েছিল, তারা বাঙালি পুলিশই ছিল। 


আরও খবর