Logo
শিরোনাম

ভোজ্যতেলের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অপরিশোধিত সয়াবিন ও পামওয়েল তেলের দাম স্থিতিশীল রাখতে অভিন্ন মূল্য নির্ধারণ পদ্ধতি অনুযায়ী প্রতি লিটার ভোজ্যতেলের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বিপণন ও পরিবেশক বিষয়ক জাতীয় কমিটির সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এ ঘোষণা দেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভোজ্যতেলের আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা করে এ দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। সামনে রমজান মাস, বর্তমানে যথেষ্ট মজুদ আছে। সব হিসেব-নিকেশ করে এ দাম নির্ধারণ করা হয়।

শক্ত হাতে দাম নিয়ন্ত্রণ করা হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দাম কমে গেলে বিবেচনা করা হবে, বেড়ে গেলেও বিবেচনা করা হবে। আমরা যে তেল ব্যবহার করি তার ৯০ শতাংশ আমদানি করতে হয়।

তিনি বলেন, প্রতি লিটার সয়াবিন (খোলা) মিল গেটে ১০৭ টাকা, পরিবেশক মূল্য ১১০ টাকা এবং খুচরা মূল্য ১১৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন মিল গেট মূল্য ১২৩ টাকা, পরিবেশক মূল্য ১২৭ টাকা এবং খুচরা মূল্য ১৩৫ টাকা। ৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন মিল গেট মূল্য ৫৮৫ টাকা, পরিবেশক মূল্য ৬০০ টাকা এবং খুচরা মূল্য ৬২৫ টাকা। আমাদের দেশে যে তেল ব্যবহার করি তার ৭০ শতাংশ পাম সুপার, যার প্রতি লিটার মিল গেট মূল্য (খোলা) ৯৫ টাকা, পরিবেশক মূল্য ৯৮ টাকা এবং খুচরা বাজারে ১০৪ টাকা মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক বাজারে গত ৬ মাসে ৬৫ শতাংশ তেলের দাম বেড়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, শিপিং কস্টও বেড়েছে এছাড়া জাহাজের তেলের দাম বাড়ায় পরিবহন খরচও বেড়েছে। অপরিশোধিত সয়াবিন ও পামতেলের আমদানিতে আরোপিত ভ্যাট ভোক্তার স্বার্থ বিবেচনা আরও বেশি যৌক্তিকহারে নির্ধারণের জন্য ইতিমধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে রাজস্ব বোর্ডকে অনুরোধ করা হয়েছে।

ভোজ্য তেলের মূল্য অস্থিতিশীল থাকায় অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বিপণন ও পরিবেশক বিষয়ক জাতীয় কমিটির সভা প্রতি মাসেই আয়োজন করা হবে বলে জানান মন্ত্রী।

নিউজ ট্যাগ: ভোজ্যতেলের দাম
Share

সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে

সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১




২১৮ রানের লিড নিয়ে দিন শেষ হলো বাংলাদেশের

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের তৃতীয়দিনটা অস্বস্তি নিয়ে পার করেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৭ রান যোগ করতেই টপ-অর্ডারের ৩ উইকেট হারায় স্বাগতিক বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই বিপদে পড়ে টাইগাররা। দলীয় এক রানের মাথায় তামিম ইকবালকে হারায় টাইগাররা। নিজের প্রথম ওভার করতে এসেই চতুর্থ বলে ওপেনার তামিম ইকবালকে (০) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন রাহকীম কর্নওয়াল। এরপর একই ওভারের শেষ বলে নাজমুল হোসেন শান্তকে (০) ফেরান তিনি। 

প্রথম ইনিংসে ৯ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে শূন্য হাতে ফিরে একটি অনাকাঙ্খিত রেকর্ডও করে বসেছেন তামিম। বাংলাদেশিদের মধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবেচেয়ে বেশি ডাক মেরেছেন তিনি। ৩৯৯ ইনিংসে ৩৩ ডাক নিয়ে সবার ওপরে ওঠে এসেছেন তামিম। সমান ডাক মেরেছেন মাশরাফি বিন মর্তুজাও। তবে এক্ষেত্রে ম্যাশ এই অনাকাঙ্খিত রেকর্ড গড়েছিলেন ২৬২ ইনিংসে।

মাত্র ১ রানে ২ উইকেট হারানো বাংলাদেশ আরেকবার বিপর্যয়ে পড়ে ওপেনার শাদমান ইসলামকে (৫) হারিয়ে। তবে দিনের বাকি সময়টা ভালোভাবে সামাল দিয়েছেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান অধিনায়ক মুমিুনুল হক (৩১) ও মুশফিকুর রহিম (১০)।

তবে বড় লিডের সুবাদে ঠিকই সুবিধাজনক অবস্থানে পৌঁছে গেছে টাইগাররা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে এখন ২১৮ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ। হাতে আছে ৭ উইকেট।

এর আগে ১৭১ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে তৃতীয়দিন শেষে বাংলাদেশ লিড নিয়েছে ২১৮ রানের। মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংস থামে ২৫৯ রানে। মিরাজের অভিষেক টেস্ট সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে করে ৪৩০ রান।

Share

বিসিবি আমাকে ছাড়লে আইপিএলে খেলব: মোস্তাফিজ

মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১




তিন কারাগারে দাঙ্গায় ৬২ জন নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৩৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ইকুয়েডরের তিনটি শহরের পৃথক তিনটি জেলখানায় ভয়াবহ দাঙ্গা-সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ৬২ জন নিহত হয়েছে বলে গতকাল মঙ্গলবার দেশটির সরকারি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার খবরে এ কথা জানানো হয়।

ইকুয়েডর কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রতিদ্বন্দ্বী দুটি গোষ্ঠীর সদস্যেরা আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গায়াকিল, কেনসা ও লাটাকুঙ্গা শহরের জেলখানায় গত সোমবার রাতে সশস্ত্র সংঘর্ষে জড়ান। এতে বন্দুকের গুলি ও ছুরিকাঘাতে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে।

ইকুয়েডরের কারাকর্তৃপক্ষের পরিচালক এডমুন্ডো মনকায়ো বলেন, জেলখানার ভেতরে অপরাধমূলক আধিপত্য ধরে রাখতে দুটি গোষ্ঠী সংঘর্ষে জড়িয়েছে। এ পর্যন্ত ৬২ জনের মৃত্যু ঘটেছে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট লেনিন মরেনো এই সংঘর্ষের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে বলেও টুইটবার্তায় জানিয়েছেন তিনি।

কারাগারে সংঘর্ষের ঘটনা ইকুয়েডরে প্রায়ই ঘটে থাকে। গত ডিসেম্বরে লাটাকুঙ্গার জেলখানায় সংঘর্ষে পাঁচ বন্দি নিহত হয়।

Share

মোদি সবচেয়ে বড় দাঙ্গাবাজ: মমতা

বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১

চিরকুট লিখে হোটেলে এমপির ‘আত্মহত্যা’

মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১




লালমনিরহাটে ৫ দিন দেখা নেই সূর্যের

প্রকাশিত:সোমবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হিমেল হাওয়া আর ঘন কুয়াশায় কাঁপছে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটের মানুষ। গত কয়েকদিনের শৈত্যপ্রবাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। গত ৫ দিন এই জেলায় সূর্যের দেখা মিলেনি। শীতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। শীতে লালমনিরহাটে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে রয়েছে ১৩টি নদ-নদী তীরবর্তী ৬৮টি চরের প্রায় লক্ষাধিক মানুষসহ নিম্ন আয়ের শ্রমজীবীরা। গবাদিপশুও রেহাই পাচ্ছে না শীতের প্রকোপ থেকে।

শিশু, বয়স্ক ও অ্যাজমা রোগীরা পড়েছেন দুর্ভোগে। পাশাপাশি গবাদিপশুও শীতে কষ্ট পাচ্ছে। সড়কে গাড়িগুলো হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে। তিস্তাপারের বেশির ভাগ মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। হঠাৎ করেই শীতের তীব্রতা বাড়ায় গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় করছেন শীতার্তরা। তারা বেশি ভিড় করছেন ফুটপাতের পুরোনো কাপড়ের দোকানগুলোতে।

গত ৫ দিন থাকি যে শীত বাহে ঘরত (ঘর) থাকি বেরের পাংনা (পারি না)। হামার তিস্তা পারত খুব ঠাণ্ডা। গত ৫ দিন থাকি কাজ কাম নাই বাহে ছোয়াপোয়া (ছেলে-মেয়ে) নিয়া কষ্টোত আচুং।

পৌষের মাঝামাঝি সময়ে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটে জেঁকে বসেছে শীত। ঘন কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় কাঁপছে তিস্তা-ধরলাসহ গোটা জেলার মানুষ। গত ৫ দিনে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। ঘন কুয়াশার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বইছে হিমেল হাওয়া। বৃষ্টির মতো শিশির ঝড়ছে। এতে তিস্তার চরাঞ্চলের লোকজন কাজে বের হতে না পেরে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে।

শিশু, বয়স্ক ও অ্যাজমা রোগীরা পড়েছেন দুর্ভোগে। পাশাপাশি গবাদিপশুও শীতে কষ্ট পাচ্ছে। সড়কে গাড়িগুলো হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে। তিস্তাপারের বেশির ভাগ মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। হঠাৎ করেই শীতের তীব্রতা বাড়ায় গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় করছেন শীতার্তরা। তারা বেশি ভিড় করছেন ফুটপাতের পুরোনো কাপড়ের দোকানে। নিজেদের সাধ্যমতো শীতের কাপড় কিনছেন শীতার্তরা।

Share



টিকার দ্বিতীয় চালান আসছে ২২ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
২৫ জানুয়ারি দেশে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা অক্সফোর্ডের ৫০ লাখ করোনার টিকার চালান আসে। তার আগে ২০ লাখ ডোজ টিকা ঢাকায় এলেও সেটি ছিল বাংলাদেশকে দেওয়া ভারত সরকারের উপহার

দেশে করোনা টিকার দ্বিতীয় চালান আসবে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি বলে জানিয়েছেন বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে টিকা গ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, এবার করোনা টিকার ২০-৩০ লাখ ডোজ আসবে। টিকা আনাটা চাহিদার ওপর ভিত্তি করে নির্ভর করছে। তবে চুক্তি লঙ্ঘন হওয়ার কোনো বিষয় নেই। টিকা নিয়ে সংকট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ক্রিকেটারদের কাউকে টিকা নিতে বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না। যে খুশি সে নিতে পারে।

এর আগে ২৫ জানুয়ারি দেশে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা অক্সফোর্ডের ৫০ লাখ করোনার টিকার চালান আসে। তার আগে ২০ লাখ ডোজ টিকা ঢাকায় এলেও সেটি ছিল বাংলাদেশকে দেওয়া ভারত সরকারের উপহার। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা ৩ কোটি ডোজের দ্বিতীয় চালান এটি। প্রতিবারে ৫০ লাখ করে ৬ দফায় ঢাকায় আসবে অক্সফোর্ডের এ টিকা।

গত ২৭ জানুয়ারি এই টিকা প্রথম ৩০ জনকে দেওয়া হয়। সর্বপ্রথম টিকা নেন কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু ভেরোনিকা কস্তা। এরপর পর্যায়ক্রমে চিকিৎসক হিসেবে প্রথম টিকা নেন মেডিসিন কনসালট্যান্ট ডা. আহমেদ লুৎফর মবিন, তারপর স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা, ট্রাফিক পুলিশের সদস্য দিদারুল ইসলাম এবং সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম ইমরান হামিদ। স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জানানো হয় দেশের দেশের ৬৪ জেলায় ১ ফেব্রুয়ারির মধ্যে করোনার টিকা পৌঁছে দেওয়া হবে। এবং ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে করোনাভাইরাসের গণটিকার কার্যক্রম শুরু হয়।

Share

করোনা টিকা নিলেন শেখ রেহানা

বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১




মিতু হত্যা মামলার অগ্রগতির তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা এ প্রতিবেদন দাখিল করেন।

রবিবার (৩১ জানুয়ারি) প্রতিবেদন পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংশ্লিষ্ট কোর্টের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী। তিনি বলেন, আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদনটি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ উপস্থাপন করা হবে।

এর আগে গত ২ ডিসেম্বর মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে তদন্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এ মামলার আসামি ওয়াসিমের জামিন শুনানিকলে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আসামিপক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শংকর প্রসাদ দে। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

পরে সারওয়ার হোসেন বাপ্পী সাংবাদিকদের জানান, ওয়াসিমের জামিন শুনানিকালে গত ২৩ নভেম্বর মামলার সিডিসহ (কেস ডকেট) তদন্ত কর্মকর্তাকে আজ হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। সে অনুসারে এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা হাজির হয়ে আদালতকে জানিয়েছেন, তিনি কিছুদিন আগে তদন্তভার পেয়েছেন। এরপর আদালত ৩১ জানুয়ারির মধ্যে মামলার তদন্তের লিখিত অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে আসামী ওয়াসিমের জামিন আবেদন আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মুলতবির আদেশ দেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে নগরের ও আর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে গুলি ও ছুরিকাঘাতে নিহত হন তৎকালীন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। এ ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে আবু নসুর গুন্নু, শাহ জামান ওরফে রবিন, সাইদুল আলম শিকদার ওরফে সাক্কু ও শাহজাহান, মো. আনোয়ার ও মোতালেব মিয়া প্রকাশ ওয়াসিম নামে কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ।

এই হত্যায় অস্ত্র সরবরাহকারী হিসেবে আটক হন এহেতাশামুল হক ভোলা ও তার সহযোগী মো. মনির। তাদের কাছ থেকে পয়েন্ট ৩২ বোরের একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয় যেটি মিতু হত্যায় ব্যবহৃত হয়েছে বলে পুলিশ দাবি করেছিল।

গ্রেফতার আনোয়ার ও মোতালেব মিতু হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। তাদের স্বীকারোক্তিতে মিতু হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে নাম আসে বাবুল আক্তারের সোর্স হিসেবে পরিচিত মো. মুছার।

Share

মাদক মামলায় পারভিনের ১০টি বই পড়ার দণ্ড

বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার এক আসামি গ্রেফতার

মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১