Logo
শিরোনাম

যে কারণে দেহব্যবসায় ঝুঁকছেন শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ২১০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
লকডাউন দেওয়ার ফলে অসংখ্য শিক্ষার্থী আর্থিক সংকটে পড়েছেন। ফলে দেহব্যবসার মাধ্যমে উপার্জনকারী তরুণী শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী নিজের নগ্ন ছবি বিভিন্ন সাইটে বিক্রি করছে

মহামারি করোনায় নাস্তানাবুদ গোটা বিশ্ব। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস জীবন তো কাড়ছেই, কাড়ছে জীবীকাও। উন্নত বিশ্বের অর্থনীতিতেও ধস নামিয়েছে এই ভাইরাস। আমেরিকা-ইউরোপের দেশগুলোতে বড় বড় শহরগুলোর পাব, হোটেল-রেস্টুরেন্ট বন্ধ হয়ে গেছে। বহির্বিশ্ব থেকে ওসব দেশে যাওয়া তরুণ শিক্ষার্থীরা এসব রেস্তোরাঁয় কাজ করত। সেই উপার্জন পড়ালেখা আর জীবীকা নির্বাহের কাজে আসত। এসব বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে এসব শিক্ষার্থীদের অনেকে সম্ভ্রম বিক্রির পথ বেছে নিচ্ছেন।

সম্প্রতি এহেন কঠিন অবস্থার মুখোমুখি হওয়া শিক্ষার্থীকে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছে বারাঙ্গনাদের ইউনিয়ন ইংলিশ কালেকটিভ অব প্রস্টিটিউটস (ইসিপি)। সংগঠনটি জানায়, তাদের কাছে করোনাকালে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজপড়ুয়া বহু যুবতী সাহায্য চেয়ে হেল্পলাইন্সে যোগাযোগ করছেন। যোগাযোগকারীরা সম্ভ্রম নিয়ে ব্যবসা করতে চান। সেই অর্থ দিয়ে ওই শিক্ষার্থীরা তাদের ফি পরিশোধ করতে চান। ইসিপি বলেছে, এ বছর দেহদানের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনকারী এমন শিক্ষার্থীর সংখ্যা এরইমধ্যে এক-তৃতীয়াংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

বারাঙ্গনাদের অধিকারবিষয়ক ওই গ্রুপটি আরও জানায়, লকডাউন দেওয়ার ফলে অসংখ্য শিক্ষার্থী আর্থিক সংকটে পড়েছেন। ফলে দেহব্যবসার মাধ্যমে উপার্জনকারী তরুণী শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী নিজের নগ্ন ছবি বিভিন্ন সাইটে বিক্রি করছে। প্রতিদিন এভাবে অর্থ উপার্জন এবং এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পরামর্শ চেয়ে প্রতিদিন আটজন যুবতী শিক্ষার্থী ওই ইসিপির কাছে ফোন করছেন। কেননা কোনো বার, দোকানপাট খোলা নেই। আগে সেখানে কাজ করে উপার্জন করতে পারতেন তারা। আবার কিছু কিছু ইউনিভার্সিটি এ খবর জানতে পেরে নিজেদের শিক্ষার্থীদের সুরক্ষিত রাখতে কিভাবে নিরাপদে দেহ বিক্রি করতে হয় তার নির্দেশনাও দিয়েছে।

ইসিপির মুখপাত্র লরা ওয়াটসন বলেছেন, টিউশন ফি পরিশোধ করতে পতিতাবৃত্তিতে যুবতী শিক্ষার্থীদের যুক্ত হওয়ার ঘটনা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। কমপক্ষে ৩০ হাজার পাউন্ড ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে এ পেশায় আসতে বাধ্য হয়েছেন তারা।

উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসিপি। তখন থেকেই তারা যৌনকর্মীদের প্রতি বৈষম্যের প্রতিবাদে, তাদের অধিকার আদায় ও নিরাপত্তা প্রদানে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে সংগঠনটি।


আরও খবর

আজ বিশ্ব মা দিবস

রবিবার ০৯ মে ২০২১




করোনার তিনগুণ শক্তিশালী ধরন শনাক্ত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বিশেষজ্ঞদের ধারণা নতুন স্ট্রেনের কারণেই বিশ্বে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সংক্রামক শক্তি অনেক বেশি তো বটেই। নতুন স্ট্রেনে আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থার অবনতিও খুব দ্রুত হচ্ছে। তাই সময় মতো লাগাম টানতে না

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস এখন লাগামহীন। এরই মধ্যে ভারতে করোনার তিণনগুণ শক্তিশালী একটি ধরন শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে করোনার ডাবল মিউট্যান্ট সক্রিয়। সেটার আতঙ্ক কাটতে না কাটতেই এবার দেশটিতে ট্রিপল মিউট্যান্ট ভ্যারিয়্যান্ট শনাক্ত করা হয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ইতোমধ্যেই দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে তা ছড়িয়ে পড়েছে। ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের ধারণা পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র ও দিল্লিতেও এই ট্রিপল মিউট্যান্টের সংক্রমণ ছড়িয়েছে। তারা বলছেন, কোভিড-১৯ ভাইরাসের তিনটি আলাদা স্ট্রেন মিলে তৈরি নতুন এই ভ্যারিয়্যান্টের সংক্রামক ক্ষমতাও প্রায় তিনগুণ।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা নতুন স্ট্রেনের কারণেই বিশ্বে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সংক্রামক শক্তি অনেক বেশি তো বটেই। নতুন স্ট্রেনে আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থার অবনতিও খুব দ্রুত হচ্ছে। তাই সময় মতো লাগাম টানতে না পারলে এবার সংক্রমণ সুনামির আকার ধারণ করতে পারে বলে তাদের আশঙ্কা।

আপাতত এই স্ট্রেনে বিরুদ্ধে টিকার কার্যকারিতা পরীক্ষা করে যাওয়া ছাড়া কোনও পথ নেই বলে মত বিশেষজ্ঞদের। তবে সবার আগে এর চরিত্র বিশ্লেষণ প্রয়োজন। প্রয়োজন নিয়মিত জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের। এর কোনও বিকল্প নেই বলেও মত বিশেষজ্ঞদের।

তাদের মতে, ডাবল মিউট্যান্ট স্ট্রেন ঠিক সময়ে ধরতে না পারার কারণেই হয়তো অগোচরে এতটা ছড়িয়ে পড়েছে এই ট্রিপল মিউট্যান্ট। ভাইরাস যত ছড়ায় সেটির মিউটেশনের হারও তত বৃদ্ধি পায়। এই নয়া স্ট্রেনটি শিশুদেরও আক্রান্ত করছে। তবে নতুন ভ্যারিয়্যান্ট নিয়ে খুব বেশি তথ্য নেই বিজ্ঞানীদের কাছে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



২৮ এপ্রিলের পরে আর থাকছে না ‘লকডাউন’

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ মে ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে আগামী ২৮ এপ্রিলের পর আর লকডাউন থাকছে না। চালু হবে গণপরিবহন, সীমিত পরিসরে খুলবে সরকারি-বেসরকারি অফিস।

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) বিকেলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, চলমান লকডাউন ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত অব্যাহত থাকছে। জীবন ও জীবিকার কথা বিবেচনায় রেখে দোকানপাট ও শপিংমলে দেওয়া হচ্ছে। কেউ যেন মাস্ক ছাড়া কেনাকাটা না করে সে বিষয়টি অবশ্যই নিশ্চিত করা হবে।

দোকানপাট ও শপিংমল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও গণপরিবহন কবে চলবে- জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২৮ এপ্রিল থেকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানা যাবে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাস্ক পরেই আমাদের চলতে হবে। কেউ যেন মাস্ক ছাড়া না বের হয়। সমাজের উচ্চবিত্ত থেকে নিম্নবিত্ত সবাই যেন মাস্ক পরে। নো মাস্ক নো সার্ভিস- এ বিষয়টি কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা হবে।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউন শুরু হলে অফিস-আদালত, গণপরিবহন এবং দোকানপাট ও শপিংমল বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এক নির্দেশনায় ২৫ এপ্রিল থেকে দোকানপাট ও শপিংমল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

এর আগে গত ১৮ এপ্রিল রাজধানীর নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি ২২ এপ্রিল থেকে দোকান ও শপিংমল খুলে দেওয়ার দাবি জানায়।

দোকানপাট শপিংমল খোলার অনুমতি দেওয়ার পর পরিবহন মালিকরা আগামী ২৯ এপ্রিল থেকে বাস চালুর দাবি জানিয়েছে। ২৮ এপ্রিলের পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চলাচল শুরু হবে বলে রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকেও আভাস পাওয়া গেছে।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন চীনের শি জিনপিং

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
দক্ষিণ চীন সাগরে আধিপত্য বিস্তার এবং চীনের নানা মানবাধিকার ইস্যু নিয়ে বেইজিং ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্কের অনেকটা অবনতি হয়েছে। তবে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দুই দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক ভার্চুয়াল সম্মেলনে যোগ দেবেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। আজ বৃহস্পতিবার দুদিনের এই সম্মেলন শুরু হচ্ছে। বিশ্বের বেশ কয়েকজন নেতাকে সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাইডেন। শি জিনপিংও সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন। বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতা নেওয়ার পর এটিই হতে যাচ্ছে চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তাঁর প্রথম বৈঠক।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে বলা হয়, শি জিনপিং ভিডিও কলের মাধ্যমে সম্মেলনে যোগ দেবেন এবং গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দেবেন।

অর্থনৈতিক নানা বিষয়, দক্ষিণ চীন সাগরে আধিপত্য বিস্তার এবং চীনের নানা মানবাধিকার ইস্যু নিয়ে বেইজিং ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্কের অনেকটা অবনতি হয়েছে। তবে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দুই দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একমত হতে পেরেছে। শক্তিশালী অর্থনীতির দুই দেশ হওয়ার পাশাপাশি চীন ও যুক্তরাষ্ট্র সবচেয়ে বেশি গ্রিনহাউজ গ্যাস নিঃসরণকারী দেশও বটে।

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের পরিবেশবিষয়ক দূত জন কেরি সাংহাই সফরে যান এবং চীনের পরিবেশবিষয়ক দূতের সঙ্গে বৈঠক করেন। বাইডেন প্রশাসন ক্ষমতায় আসার পর এটিই ছিল দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের প্রথম বৈঠক। বৈঠকে উভয় দেশ কার্বন ডাই-অক্সাইড নিঃসরণ কমিয়ে আনতে শক্ত পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে একমত হয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে বিশ্বে কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনতে ২০১৫ সালে প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনে একজোট হয়ে কাজ করার বিষয়ে একমত হয়েছিলেন বিশ্বনেতারা। পরে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রকে ওই চুক্তি থেকে সরিয়ে নেন। বাইডেন ক্ষমতায় এসে দেশটিকে আবার চুক্তিতে ফিরিয়ে নিচ্ছেন।


আরও খবর



ভারতফেরত নারীর করোনা শনাক্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে আসা এক নারীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। দেশে আসার তিনদিন পর করা পরীক্ষার ফলাফলে করোনা পজিটিভ হয়। ওই নারীকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটের আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়েছে। মরজিনা নামক ওই নারীর বাড়ি বগুড়া সদর উপজেলার সুত্রাপুর গ্রামে।

মঙ্গলবার আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. রাশেদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ওই নারী ভারতের দিল্লিতে চিকিৎসা শেষে ৭ মে দেশে ফেরেন। করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়েই তিনি দেশে ফেরেন। করোনাভাইরাস পজিটিভ হওয়ার পর সোমবার রাতে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ জানান, কোয়ারেন্টিনে থাকা ওই নারীর শরীরে করোনাভাইরাস আছে কিনা, সেটি শনাক্তের জন্য রোববার নমুনা নেওয়া হয়। নমুনার ফল পজিটিভ এসেছে। তবে তার শরীরে শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস ভারতীয় করোনা ভ্যারিয়েন্ট কিনা, সেটি জানতে জিন সিকোয়েন্সিং পরীক্ষা।




আরও খবর

আজ কলাপাড়ায় ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন!

বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১




আজ আদালতে তোলা হবে মামুনুল হককে

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
মোহাম্মদপুর থানার মারধরের একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এছাড়া মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ঢাকার বিভিন্ন থানায় অন্তত ১৭টি এবং নারায়ণগঞ্জে একটি মামলা রয়েছে

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সভাপতি মামুনুল হককে গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তেজগাঁও থানায় কয়েক ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর রবিবার রাতে মামুনুল হককে গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ রবিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামুনুল হক এখন ডিবি হেফাজতে আছেন। সোমবার (১৯ এপ্রিল) তাকে আদালতে পাঠানো হবে। আদালতের কাছে তাকে সাতদিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরবিরোধী কর্মসূচিকে ঘিরে বিক্ষোভ ও সহিংসতার ঘটনায় খেলাফত মজলিসের এই নেতাকে মোহাম্মদপুর থানার মারধরের একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এছাড়া মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ঢাকার বিভিন্ন থানায় অন্তত ১৭টি এবং নারায়ণগঞ্জে একটি মামলা রয়েছে। রবিবার বেলা একটায় মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) হারুন অর রশিদ বলেন, ২০২০ সালে মোহাম্মদপুরে একটি ভাঙচুরের মামলায় মামুনুলকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও কয়েকটি মামলা আছে মতিঝিল, পল্টন ও নারায়ণগঞ্জে। পরে সেসব সমন্বয় করা হবে।

মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের মামলার নথি থেকে জানা গেছে, মতিঝিল থানায় দুটি বিস্ফোরক মামলায় ১২৭ ও ১৭২ নম্বর এবং পল্টন থানায় তিনটি মামলায় ১৯, ৩৩ ও ৩৬ নম্বর আসামি হিসেবে মামুনুল হকের নাম উল্লেখ আছে।

সূত্র জানায়, ২০২০ সালে মোহাম্মদপুরের চাঁন মিয়া হাউজিংয়ের বাসিন্দা জি এম আলমগীর শাহীন বাদী হয়ে মামলাটি করেছিলেন। তবে ওই মামলায় সাত নম্বর আসামি মামুনুল হক। মামলার প্রাথমিক তথ্যবিবরণীতে তার বাবার নাম ও ঠিকানা অজ্ঞাত লেখা আছে। সেখানে এলোপাতাড়ি মারধর, হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত করে গুরুতর জখম, চুরি, হুমকি দেওয়া, ধর্মীয় কাজে ইচ্ছাকৃতভাবে গোলযোগ সৃষ্টি ও প্ররোচনার অভিযোগ এনেছেন। ওই সময় একটি মুঠোফোন, ৭ হাজার টাকা, ২০০ ডলার এবং ব্র্যাক ব্যাংকের ডেবিট কার্ড চুরি হয়েছে বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়।


আরও খবর