Logo
শিরোনাম

যে কারণে ভেঙে দেওয়া হলো হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটি

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমিরের পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন বাংলাদেশ ফরায়েজী আন্দোলনের সভাপতি ও বাহাদুরপুরের পীর মাওলানা আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান। তার অভিযোগ, আল্লামা আহমদ শফীর

নানা আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।  গত বছরের ১৫ নভেম্বর কমিটি ঘোষণার ৫ মাসের মধ্যেই ভেঙে দেওয়া হলো এই কমিটি।  এ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছেন, হেফাজতে ইসলামের নেতারা জনসভা-ওয়াজ মাহফিলে রাজা উজিড় মারার কথা বললেও সরকারের ধর-পাকড়ে শেষ পর্যন্ত পিছু হটেছেন। কেউ বলছেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আপাতত কিছুদিন চুপচাপ থেকে পরিস্থিতি সামাল দিয়ে তারা আবারও সক্রিয় হবেন রাজনীতিতে।  যেমনটি ঘটেছিল ২০১৩ সালে শাপলা চত্বরে সহিংস ঘটনাপ্রবাহের পর।

মূলত ৩ টি কারণে হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। প্রথমত: গ্রেফতার, মামলা ও ধরপাকড় এড়াতে। দ্বিতীয়ত: চাপে পড়ে অনেক নেতা পদত্যাগের ইঙ্গিত দিয়েছেন। দলে ভাঙন ঠেকাতে জরুরিভিত্তিতে কমিটি বিলুপ্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হেফাজতের শীর্ষ নেতারা। তৃতীয়ত: কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্বার্থ বিবেচনা করে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরকে কেন্দ্র করে হেফাজতের বিক্ষোভে সহিংস ঘটনায় ১৮ জন নিহত হন। এরপর সারাদেশে হেফাজত নেতাদের নামে মামলা হয়।  ধরপাকড় শুরু হয় দেশব্যাপী। এ পর্যন্ত হেফাজতের সদ্য বিলুপ্ত হওয়া কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর কমিটির অন্তত দুই ডজন নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার নেতাদের মধ্যে রয়েছেন-সংগঠনটির বিলুপ্ত কমিটির শীর্ষস্থানীয় তিন নেতা আহমদ আবদুল কাদের, জোয়ায়েদ আল হাবীব ও মামুনুল হক।  যুগ্ম মহাসচিব-সহকারী মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ সম্পাদকীয় পর্যায়ের বহু নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে। দেশব্যাপী হেফাজত নেতাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে সংগঠনটির অভিযোগ। গ্রেফতার নেতাদের পুরোনো মামলায় গ্রেফতার দেখানো হচ্ছে।  হেফাজতের কমিটি ধরে ধরে সব নেতাদের গ্রেফতারের আশঙ্কা করছেন শীর্ষস্থানীয় নেতারা। এমন আশঙ্কায় দুদিন আগে সংবাদ সম্মেলনে গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে জুনায়েদ বাবুনগরী আইনশৃংখলা বাহিনীর টার্গেট নেতাদের তালিকা প্রকাশের দাবি করেন।  তাদের সবাইকে নিয়ে কারাগারে যাওয়ার কথা বলেন।

গ্রেফতার ধরপাকড় থেকে নেতাদের বাঁচাতে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা সরকারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে।  গত সপ্তাহে হেফাজতের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তার বাসভবনে দেখা করেন। সেই প্রতিনিধি দলে মামুনুল হকের ভাই মাহফুজুল হকও ছিলেন। তারা গ্রেফতার বন্ধের দাবি করেন। সেই সঙ্গে সহিংস কোনো কর্মসূচিতে না যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে তাদের কোনো যোগাযোগ নেই বলে দাবি করেন।

এসব তৎপরতার পরও গ্রেফতার, ধরপাকড় কমেনি। দুদিন আগে গ্রেফতার করা হয় হেফাজতের নায়েবে আমির অধ্যাপক আহমদ আবদুল কাদেরকে। দেশব্যাপী থানায় থানায় হেফাজতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আলেমদের তথ্য নেওয়া হচ্ছে। এমতাবস্থায় হেফাজতের শীর্ষ নেতারা কমিটি ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। যাতে নেতাদের গ্রেফতার থেকে বাঁচাতে পারেন। 

এদিকে ধরপাকড় বেড়ে যাওয়ায় হেফাজত থেকে পদত্যাগ করেছেন বেশ কয়েকজন নেতা। আরও অনেকে পদত্যাগের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন বলে জানা গেছে।

গত ১১ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের নেতাদের গ্রেফতার শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত চার জনের সংগঠন ত্যাগের খবর পাওয়া গেছে। ১৩ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমিরের পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন বাংলাদেশ ফরায়েজী আন্দোলনের সভাপতি ও বাহাদুরপুরের পীর মাওলানা আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান। তার অভিযোগ, আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর বিভিন্ন দল ও ভিন্ন মতাদর্শের মানুষ সংগঠনে অনুপ্রবেশ করেছে এবং তারা তাদের রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিল করতে হেফাজতে ইসলামকে অত্যন্ত সুকৌশলে ব্যবহার করেছে।

এর আগে মাওলানা বাবুনগরীর কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন আরেক নায়েবে আমির লালবাগ জামিয়া কোরআনিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার সদরে মুদাররিস মাওলানা হাবিবুর রহমান।  ২২ এপ্রিল হেফাজতের ঢাকা মহানগর কমিটির সহ-অর্থ সম্পাদকের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন লালবাগ মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা নাছির উদ্দিন।

মাওলানা নাছির উদ্দিনের পর ২৩ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে পদত্যাগের ঘোষণা দেন জেলা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী।

সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আরও কয়েক নেতা পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন। তাদের কেউ জেল-জুলুম থেকে বাঁচতে আবার কেউ আহমদ শফির ছেলে আনাসপন্থী হেফাজতে যোগ দিতে পদত্যাগ করেছেন ও করছেন। এমতাবস্থায় বড় ধরণের ভাঙন ঠেকাতে কমিটি ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন হেফাজতের শীর্ষ নেতারা।

গত বছরের ১৫ নভেম্বর হেফাজতের ১৫১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওই কমিটি প্রত্যাখ্যান করেন হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা আমির আহমদ শফির ছেলে আনাসপন্থীরা। তারা এতদিন চুপচাপ থাকলে সম্প্রতি সরব হয়েছেন। ওই পন্থী আলেমদের অনেকে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়ে হেফাজতের কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন। এমতাবস্থায় পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আলেমদের বিভাজন ঠেকাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবারও সক্রিয় হবে হেফাজত।

নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরের বিরোধিতায় হেফাজতের মাঠে নামার পর দেশের কওমী মাদ্রাসার ওপর নজরদারি বেড়েছে।  গোয়েন্দা বলছেন, কওমী মাদ্রাসার ছাত্রদের ঠাল হিসেবে ব্যবহার করছেন হেফাজত নেতারা। কওমী মাদ্রাসার শিক্ষক ও ছাত্রদের কার্যক্রম পর্যালোচনার দাবিও উঠেছে। এমতাবস্থায় চাপে পড়েছে কওমী শিক্ষাব্যবস্থা।

রবিবার কমিটি বিলুপ্তির কয়েক ঘণ্টা আগে কওমি মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকদের সব ধরনের রাজনীতি মুক্ত রাখার ঘোষণা দেয় মাদ্রাসাগুলোর নীতি নির্ধারণী বোর্ড আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশ। কওমী মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকদের স্বার্থ চিন্তা করে এবং সার্বিক বিবেচনায় হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সংগঠনটির শীর্ষ নেতারা।


আরও খবর



ঝড় আসছে ৮০ কিলোমিটার বেগে, নদীবন্দরে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

তীব্র দাবদাহ শেষে শীতল হয়েছে প্রকৃতি। আজ বৃহস্পতিবার (৬ মে) ভোর ৬টার দিকে রাজধানীতে হালকা বৃষ্টিও হয়েছে। ফলে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার আতঙ্ক থেকে রেহাই পেয়েছে নগরবাসী। এদিকে, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের উপর দিয়ে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদফতর। সেই সঙ্গে ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার আভাস রয়েছে। নদীবন্দরগুলোকে সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। ঝড়ের আভাস থাকায় কোথাও দুই নম্বর, কোথাও এক নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বুধবার (৫ মে) রাতে দেয়া সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে- রাজশাহী, পাবনা, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, ঢাকা, কুমিল্লা এবং খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ৬০ থেকে ৮০ কিমি বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে দুই নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দেশের অন্যান্য এলাকায় পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ৪৫ থেকে ৬০ কিমি বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই সেসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, বর্তমানে লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। স্বাভাবিক লঘুচাপ অবস্থান করছে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে।

এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার (৬ মে) সন্ধ্যা নাগাদ রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়াে হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এ সময় সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। ঢাকায় দক্ষিণ-পশ্চিম দক্ষিণ দিক থেকে বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০ থেকে ১৫ কিমি, যা অস্থায়ীভাবে দমকায় ঘণ্টায় ৩০ থেকে ৪০ কিমিতে ওঠে যেতে পারে।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ১৪ কোটি ছাড়ালো

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ২৩ লাখ ৫ হাজার ৯১২ জন

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ কোটি ৫ লাখ ৩ হাজার ৭৫০ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০ লাখ ১১ হাজার ৪৮৪ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১১ কোটি ৯৩ লাখ ২৫ হাজার ২৮৫ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ২৩ লাখ ৫ হাজার ৯১২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৪২ জনের।

আক্রান্ত ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটি ৪৫ লাখ ২১ হাজার ৬৮৩ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার ৬৭৩ জন। আক্রান্ত এবং মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিল এখন পর্যন্ত করোনায় ১ কোটি ৩৮ লাখ ৩৪ হাজার ৩৪২ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৬৯ হাজার ২৪ জনের।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



শ্রীরামকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান কোটিপতি উত্তম মৈত্রের অর্থের উৎস কি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৫৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
নৈলতলা গ্রামের জ্যোতি প্রকাশ বেপারীর বাড়ির নিকট আয়রন ব্রিজ মেরামত বাবদ ২ লক্ষ টাকা, খেজুরতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন আয়রন ব্রিজ মেরামত বাবদ ১লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ইউনিয়ন পরিষদ কতৃক বরাদ্দ করে কোন কাজ না করে

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার ৮নং শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান উত্তম মৈত্রের বিরুদ্ধে পরিষদের কার্যক্রমে ব্যপক অনিয়ম, দুর্নীতি, অর্থ আৎসাত, ভুমি দখল, পরিষদ থেকে পরিচয়পত্র, ওয়ারিশ সনদ পত্র, জন্ম নিবন্ধন গ্রহন করায় সাধারণ জনগণের কাছ থেকে উৎকোচ গ্রহণের বিস্তর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অত্র ইউনিয়নের ৬ বার জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত জনপ্রিয় চেয়ারম্যন আ. মালেক বেপারী ২০১৭ সালের ১৪ নভেম্বর মৃত্যুবরণ করায় উক্ত ইউনিয়নটি শুন্য হয়। এনজিওর চাকুরী ছেড়ে দিয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় না থেকে ও হিন্দু অধ্যুষিত এলাকা হিসেবে এই ইউনিয়নটি চিহ্নিত হওয়ায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতিকে ২০১৮ সালের ১৬ এপ্রিলে অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন এই উত্তম কুমার মৈত্র। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তার ভাগ্য বদলে যায়, ফিরে তাকাতে হয়নি আর পিছনের দিকে।

একের পর এক অনিয়ম, দুর্নীতি, অর্থ আত্মসাত, ভুমি দখল করে এক বছর যেতে না যেতেই তিনি শ্রীরামকাঠী বন্দর সংলগ্ন ভীমকাঠীতে গড়ে তোলেন কোটি টাকা ব্যয়ে তিন তলা সুদৃশ্য পাকা ভবন। অথচ নির্বাচন কালীন সময় কর্মী খরচ না দিতে পারায় কর্মীদের হাতে লাঞ্চিত হতে হয়েছে তার বড় ভাইকে। অবৈধ ভাবে অর্থ আৎসাত করে বিত্তবান হওয়ার অহংকারে এমনকি তার নির্মম নির্যাতনের শিকার তার জন্মদাতা পিতা, আপন বোন ও বোন জামাই। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এই চেয়ারম্যান নাজিরপুর উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়নকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিয়েছে। চেয়ারম্যানের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে পরিষদের ১২ জন ইউপি সদস্যের মধ্যে ১১জন সদস্য জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, নৈলতলা গ্রামের জ্যোতি প্রকাশ বেপারীর বাড়ির নিকট আয়রন ব্রিজ মেরামত বাবদ ২ লক্ষ টাকা, খেজুরতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন আয়রন ব্রিজ মেরামত বাবদ ১লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ইউনিয়ন পরিষদ কতৃক বরাদ্দ করে কোন কাজ না করে পুরো টাকা আত্মসাত করে। এলজিএসপির-৩ এর আওতায় প্রতি বছর বরাদ্দকৃত ২০ লক্ষ টাকা ইউপি সদস্যদের সাথে কোন আলাপ আলোচনা ছাড়াই নিজের খেয়াল খুশি মত প্রকল্প দেখিয়ে আৎসাত করে।

মধুরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিকট আয়রন ব্রিজ মেরামতের প্রকল্প দেখিয়ে কোন কাজ না করে পুরো টাকা নিজেই আৎসাত করে। ইউনিয়নের উন্নয়ন মুলক কাজ টিআর-কাবিখা বাস্তবায়নের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ থেকে ইউপি সদস্যদের ৩০ ভাগ অর্থ উৎকোচ হিসেবে চেয়ারম্যানকে দিতে হয়। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, পঙ্গু ভাতা, হরিজন ভাতা, মৎস্য ভিজিএফ কার্যক্রম, দুস্থদের সাহায্যের তালিকা, গভীর নলকুপ, ওয়ারিশ সনদপত্র প্রদানে তার বিরুদ্ধে রয়েছে বিপুল পরিমান অর্থ বানিজ্যের অভিযোগ। এ ছাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন শালিস বৈঠক থেকে হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকা। ভুক্তভোগীরা ইউনিয়নের সচেতন মহলের নিকট অভিযোগ করেও কোন সমাধান পায়নি।

চেয়ারম্যান উত্তম মৈত্রের পিতা প্রফুল রঞ্জন মৈত্র ফেইজবুক লাইভে এসে পুত্রের অনিয়ম ও দুর্নীতির চিত্র জন সম্মুখে তুলে ধরেন এবং বলেন আমার স্ত্রী মারা যাবার পর এই উত্তম আলমারী ভেংগে ৭ লক্ষ টাকা ও চাকুরীর প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র, জায়গা জমির দলিল সব নিয়ে যায়। তিনি বর্তমানে খুব অসহায় অবস্থায় জীবন যাপন করছে। চেয়ারম্যান পুত্রের এহেন অপরাধের জন্য প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট তিনি বিচার প্রার্থনা করছেন।

মধ্য জয়পুর গ্রামের মো. মশিউর রহমান জানান, এই চেয়ারম্যান ওয়ারিশ সনদ বাবদ আমার নিকট থেকে তিন হাজার টাকা গ্রহন করেন। দক্ষিণ জয়পুর গ্রামের অনুপ সিকদার জানান, চেয়ারম্যানের বাসার পিছনে আমার ক্রয়কৃত তিন কাঠা জমি দখল করে জমির সমস্ত মাটি কেটে নিয়ে যায় এবং লোকের কাছে বলে উক্ত জায়গা আমি ক্রয় করেছি। এ ব্যপারে আমি থানায় অভিযোগ করেছি। এহেন দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যানের হাত থেকে রক্ষা পেতে ইউনিয়নবাসী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছে।


আরও খবর



ইফতারে প্রাণ জুড়াবে আমের লাচ্ছি

প্রকাশিত:রবিবার ০২ মে 2০২1 | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইফতারে ঠান্ডা পানীয় ছাড়া প্রশান্তি মেলে না! এ সময় লাচ্ছি খেতে অনেকেই পছন্দ করেন। ইফতারে ঠান্ডা ঠান্ডা লাচ্ছি মুহূর্তেই প্রাণ জুড়ায়।

লাচ্ছি বিভিন্নভাবে তৈরি করা যায়। বাজারে এখন পাকা আমের দেখা মিলছে, তাই তৈরি করুন ম্যাঙ্গো লাচ্ছি। ছোট-বড় সবারই মুখে লেগে থাকবে ম্যাঙ্গো লাচ্ছির স্বাদ।

পাকা আমে আছে বিভিন্ন পুষ্টিগুণ। সেইসঙ্গে দই, পেস্তাবাদাম সবই স্বাস্থ্যকর। এসব উপকরণের মিশেলেই তৈরি করা হয় আমের লাচ্ছি। তাহলে আর দেরি কেন, চলুন জেনে নেওয়া যাক আমের লাচ্ছির রেসিপি-

উপকরণ

১. পাকা আম ১টি

২. চিনি ১ টেবিল চামচ

৩. মিষ্টি দই ১ কাপ

৪. পেস্তা বাদাম ২/৩টি (কুচি করা) ও

৫. এলাচ গুঁড়ো ১চিমটি

পদ্ধতি

প্রথমে পাকা আম ভালো করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিন। আঁটি বের করে নিতে হবে। এরপর ব্লেন্ডারে আম ব্লেন্ড করে নিয়ে কাঁচের বাটিতে ঢেলে রাখুন।

এবার দই, চিনি আর বরফ কুচি একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর দইয়ের মিশ্রণে আম ঢেলে আরও একবার ব্লেন্ড করে নিন।

ব্লেন্ড করা হয়ে গেলে গ্লাসে ঢালুন। উপরে এলাচ গুঁড়ো ও পেস্তা বাদাম কুচি ছড়িয়ে দিন। তৈরি হয়ে গেল মজাদার পাকা আমের লাচ্ছি।

ফ্রিজ থেকে ইফতারের আগে বের করে পরিবেশন করুন ঠান্ডা ঠান্ডা আমের লাচ্ছি। এটি যেমন পুষ্টিকর; তেমনি স্বাদে অনন্য।

নিউজ ট্যাগ: আমের লাচ্ছি

আরও খবর



সুবিধা বঞ্চিত ২৫০ শিশুর ঈদ জামা উৎসব

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রতিবারের মত এবারও স্বপ্ন- এক চিলতে হাসির জন্যে নামের একটি সংগঠন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য স্বপ্নের ঈদ জামা উৎসব শিরোনামে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

শনিবার (৮ মে) বিকেলে নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে এই আয়োজনে ২৫০ জন দুস্থ বাচ্চাদের প্রত্যেকের মাঝে নতুন ঈদ জামা, সেমাই, চিনি, ঈদ সালামী, বিভিন্ন খাবার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

আয়োজন প্রতিষ্ঠানের দলপতি মাইনুল হাসান শিমুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইসরাত সাদমীন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফাতেমা সুলতানা, আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ মো. কামরুল হাসান, নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দেশ রূপান্তরের নোয়াখালী প্রতিনিধি জামাল হোসেন বিষাদ, দৈনিক যায়যায়দিনের স্টাফ রিপোর্টার আবু নাছের মঞ্জু, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের প্রতিনিধি সুমন ভৌমিক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নাজমুল আলম মঞ্জু।

স্বপ্নের দলপতি মাইনুল হাসান শিমুল বলেন, ২০১৩ সাল থেকে আমরা নিয়মিত এ আয়োজন করছি। এ ছাড়া শিক্ষা বঞ্চিত শিশু এবং দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য আমাদের আরও কিছু কর্মকান্ড রয়েছে। সকলের সহযোগিতা থাকলে আমাদের আয়োজনগুলো অব্যাহত থাকবে।

নিউজ ট্যাগ: নোয়াখালী

আরও খবর